Today 17 Nov 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

অহেতুক চিঠি ।

লিখেছেন: নিঃশব্দ নাগরিক | তারিখ: ১৫/১২/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 669বার পড়া হয়েছে।

প্রিয় অচিনমুখ

 

প্রথমেই বলে নেই এই চিঠি লেখার মতো স্বাধীনতা আমি অনেকদিন পাইনি । তাই একপ্রকার নিশ্চিন্ত হয়ে এলোমেলো কলম চালিয়ে যাচ্ছি । অবশ্য এ স্বাধীনতা একার আমার নয় । তুমি অজ্ঞাতে নিজেও এর বড় অংশীদার । কেননা তোমার জানা পৃথিবীর মধ্যে আমি কেউ নই । তেমনি আমিও জানি না কে এই তুমি । তাই কারো অবহেলা কাউকে স্পর্শ করার মতো স্বাভাবিক যুক্তি রাখে না । অস্বাভাবিক ভাবনার এক দুর্বল চিন্তার অবয়ব তুমি । বিপরীতেও এই সত্য প্রতিষ্ঠিত ।

চিঠির প্রথমেই আমার পরিচয় দেওয়ার একটা সামাজিক অভ্যস্ততা ছিল । কিন্তু সে ভদ্রতাজ্ঞান আমার কোনকালেই ছিল না । তাই অন্যায় প্রকাশ দেখাতে গেলাম না । এভাবেইতো এ পর্যন্ত কম অশ্রদ্ধা করা হয়নি । তাছাড়া আমিই’বা কি জানতে চেয়েছি তোমার পরিচয় । হলেই’বা তুমি করিম রহিম । এতে আমার কি আসে যায় । ডাকপিয়নের সুবিধা অসুবিধা আমায় কেন মাথায় নিতে হবে ? আর ঐ বেটারই’বা কি এমন ঠেকা পড়েছে যে তোমায় আসমান জমিনে খুঁজে তারপর বাড়ী ফিরবে । অত বোকা যদি ঐ হতচ্ছড়া হয়েই থাকে তবে আর যাই হোক এ চাকুরী পাওয়ার কোন যোগ্যতা তার ছিল বলে আমার মনে হয় না । নিজের অযোগ্যতার প্রায়শ্চিও আমাকে ফিরিয়ে দিবে এমন অকল্যান আমি নই । তাই প্রেরকের ঠিকানায় আমাকে খোঁজা তার অযোগ্যতাকে আরো বড় প্রমান করা ছাড়া আর কিছুই হবে না ।

আমি আশা করব তোমার ধৈর্য্য জ্ঞান একটু অস্বাভাবিক পর্যায়ের উন্নত । তা না হলে বেচারা চিঠিটার জন্য বিরাট আফসোস রয়ে যাবে । আমিতো লিখেই রাজ্য উদ্ধার করেছি । এখন তুমি যদি এর শেষ অক্ষর পর্যন্ত না পৌঁছতে পারো তবে অনাদিকালের কাছে এই বোবা চিঠির কি জবাবদিহিতা থাকবে বল ? আবার আমি তোমাকে অনুরোধ করিব এমন মহৎ আমি কবে ছিলাম ? এখন তোমার আর চিঠির পারস্পরিক এই বিরোধ কিভাবে মেটাবে সে একান্তই তোমাদের বিষয় । আমি নিরাপদ দূরত্বে থাকলাম ।

তুমি এখনো যদি চিঠির মধ্যে থাকো তবে বলব তোমারতো এতদিনে আরো বড় কিছু হওয়ার যোগ্যতা ছিল । একটা অর্থব চিঠির পেছনে যে এত সময় দিতে পারে তারতো কলম্বাসকে ছাড়িয়ে যাওয়ার কথা । কেন যে এখনো এখানে পড়ে আছো ?

আচ্ছা তুমি কি ভাবছ আমি তোমায় অপমানের দিকে নিয়ে যাচ্ছি । ব্যাপারটা এমন হলে আমি কিন্তু বিপদে পড়ে যাবো । কেননা চিঠিটাতো আমারই লিখা । আমিও নিশ্চয়ই কম সময় দেইনি ।

 

এবার  তোমাকে একটা আসল কথা বলি । অনেকদিন  হলো আমি প্যাঁচাল পাড়ি না । কিন্তু এই জিনিসটা আমার একপ্রকার রক্তে মিশে আছে । তাই বেশীদিন নিষ্ক্রিয় থাকা আমার সম্ভব হয়ে উঠে না । আশেপাশের মানুষ  আমার প্যাঁচাল শুনতে শুনতে আমার বাড়ি আসা ছেড়ে দিয়েছে  । আমিও অলস প্রকৃতির একটা প্রানী । তাই কষ্ট করে কারো বাড়ীতে গিয়ে প্যাঁচাল পাড়বো এমনটা ভাবলেই চোখে ঘুম আসে । শরীর ডায়রিয়া রোগীর মতো ভেঙ্গে পড়ে । কিন্তু প্যাঁচাল না পাড়লে শরীর কেমনজানি চিমিয়ে আসে । তাই অনেক ভেবে চিন্তে  এই উপায় বের করেছি । আমারতো মনে হয় আমি প্যাঁচাল পাড়ার আধুনিক শিল্পসম্মত  এক উপায় আবিষ্কার করে ফেলেছি । তুমি কি বল ?

এই তুমি আমায় আকাইম্যা বাদামাইম্যা মনে করছ’নাতো । করলেও তেমন কিছু যায় আসে না । তাছাড়া মানুষের মধ্যে কিছু সত্য থাকা মন্দ না । তাতে একপ্রকার রহস্য সৃষ্টি হয় । আর রহস্য কার না পছন্দ । তাছাড়া এমন অর্থহীন রহস্য উপভোগের লোক’তো আর সমাজে অভাব নেই ।

 

আমি কিন্তু ইতিমধ্যেই আমার গুরুত্বপূর্ন কথা শেষ করে ফেলেছি । তুমি ইচ্ছে করলে এবার উঠতে পারো । কিন্তু লোকে যদি তোমায় অভদ্র ভাবে সে দায় আমায় দিও না । আমি নিজের দায় নিয়েই উৎকন্ঠিত । তোমাকে প্রশ্রয় দেবার মতো স্হান আমার নেই ।

 

আমার মাঝে মাঝে হিংসা হয় । তোমার উপর না । নিজের উপর । এমন অর্কমন্য উপদ্রব আর আছে কি ? অবশ্য জগতের কোন স্হানই প্রতিযোগীতার হাত হতে মুক্তি পায়নি । তাই আজও আমাদের ডারউইনের তও্ব মুখস্ত করতে হয় । ঐ ভদ্রলোকের প্রশংসা আমি কিছুতেই করতে পারি না । কি এক সারভাইভ তও্ব দিয়ে গেছে যার বদৌলতে অর্কমন্য পৃথিবীতেও প্রতিযোগীর অভাব দেখি না ।

 

তুমি কি যথেষ্ট বিরক্ত হয়ে গেছ ? আমার অবশ্য তোমার উপর একটা আস্হা আছে । আমি জানি আমি অকালকুস্মান্ড যতই বকবক করি তোমার স্হির স্হাপত্যর স্খলন কিছুতেই হবে না । তবু আজ বিদেয়  নিলাম । তোমার মতো অত ধৈর্য্য জ্ঞান আমার কোনকালেই হবে না । তাই পরাজয়ের আগে  পলায়ন করলাম । লোকে অত জানবে না । যতটা পরাজয়ে জানাজানি হতো । আমার এ লজ্জার কথা কাউকে না জানালে বড় কৃতজ্ঞ থাকবো ।

 

ভালো থেকো ।

 

…………….নিঃশব্দ নাগরিক ।

 

৭২৬ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
an impossible one with the maximum possibility to be a possible one.
সর্বমোট পোস্ট: ১২৬ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩১৬ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৭-৩১ ১৭:৪৬:৩৭ মিনিটে
banner

৮ টি মন্তব্য

  1. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    তুমি এখনো যদি চিঠির মধ্যে থাকো তবে বলব তোমারতো এতদিনে আরো বড় কিছু হওয়ার যোগ্যতা ছিল । একটা অর্থব চিঠির পেছনে যে এত সময় দিতে পারে তারতো কলম্বাসকে ছাড়িয়ে যাওয়ার কথা । কেন যে এখনো এখানে পড়ে আছো ?

    ছিলাম অর্থব চিঠিটার মধ্যে পড়ে। ভবিষ্যতে যাব হয়তবা কলম্বাসকে ছাড়িয়ে।আমার এই দোয়া নিশঃব্দ নাগরিকের জন্য। নিঃশব্দ নাগরিক কষ্ট করে এ দোয়া করে।যদিও এটা তার স্বভাব নয়।

    চিঠি পড়ে অনেক আনন্দ পেলাম।তূমি যে কষ্ট করে আমাকে চিঠি লিখবে সেটা তো ভাবিনি।ধন্যবাদ সেইজন্য তোমাকে।

  2. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    আমিই ত ধৈর্য্য হারিয়ে ফেলেছি
    কোথায় চিঠিতে ভালবাসার আভাস পামু বলে ধৈর্য্য নিয়ে পড়লাম কিছুই পেলাম না আশায় গুরে বালি… তয় লেখা অনেক ভাল লেগেছে

  3. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    রোদ্দুর সনে একমত ।

  4. নিঃশব্দ নাগরিক মন্তব্যে বলেছেন:

    উপরের কথা পুনঃ উচ্চারন করলাম ।

  5. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    ভাল লেখা

  6. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    ভালো লিখা ভালো লাগলো পড়ে

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top