Today 27 May 2020
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

আমরা একটা অসুস্থতার মধ্যে বড় হচ্ছি

লিখেছেন: রাজিব সরকার | তারিখ: ১০/০৮/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 841বার পড়া হয়েছে।

আমরা একটা অসুস্থতার মধ্যে বড় হচ্ছি।সেই অসুস্থতার শুরু ছোটবেলা থেকেয়।কী অদ্ভূত,ভাল লাগুক আর না লাগুক একজন ছেলে বা মেয়েকে স্কুলে পাঠানো হচ্ছে।স্কুলে যেয়েয় বাচ্চারা যে বিষয়ের সাথে পরিচিত হয়,তা হচ্ছে অসুস্থ প্রতিযোগিতা।যে প্রতিযোগিতা একজনকে প্রথম বানিয়ে বাকি সবাইকে হীনমন্যতায় ভোগায়।যে হীনমন্যতা তার মধ্য সৃষ্টি হচ্ছে ছোটবেলা থেকে,সে কি বড় হয়ে উদারমনের একজন মানুষ হতে পারবে?তার মধ্যে প্রতিযোগিতার যে মনোভাব সৃষ্টি হচ্ছে,সে কি তা হতে বের হয়ে একজন পূ্র্ণ সহযোগী মনোভাব সম্পন্ন মানুষ হতে পারবে?বাসা ফিরে বাবা মায়ের রাগান্বিত চোখ,তাদের এত আদরের সন্তানটি ভাল ফলাফল করতে পারেনি।সন্তানটি কেন ভাল রেজাল্ট করতে পারছে না,তার কারণটি প্রায়ই তারা খুজে থাকেন না।তারা সন্তানের উপর প্রেসার বাড়িয়ে দেন,হোম টিউটর বাড়িয়ে দেন আর দু-তিনটা।সন্তানদেরর খেলার সময়টা আর থাকে না যা তার মানসিক ও শারীরিক সুস্থতার জন্য অতীব প্রয়োজন।সন্তানটা হয়ে পড়ে গৃহবন্দী।এ যেন এক ধরণের কারাবাস।অথচ সন্তানটির হয়তো পড়ালেখা ভাল লাগে না বা পড়া ঠিকমত মনে থাকে না,যার দরুণ ভাল রেজাল্ট হচ্ছে না।জগতে সব মানুষ সব বিষয়ে সমান দক্ষ হতে পারে না।কেউবা ভাল ফুটবল খেলে,কেউবা ভাল ক্রিকেট।আবার কেউবা ভাল গল্প লিখতে পারে,কেউবা ভাল গান গায়।তেমনি একেক মানুষের দুর্বলতাও একেক রকম।যদি একজন মানুষকে জোর করে তার দুর্বল দিকের কাজটায় বারবার করতে বলা হয়,তাহলে প্রথমত কাজটা ভাল হবে না।এর সাথে যার উপর বিষয়টি চাপিয়ে দেওয়া হল,সেও ভাল থাকবে না।তাই আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় ক্রমাগত অসংখ্য অসুস্থ ছেলে মেয়ে সৃষ্টি হচ্ছে যারা এর যাতাকলে পড়ে ক্রমাগত নিঃশেষ হয়ে যাচ্ছে।হারিয়ে যাচ্ছে অবারিত সম্ভাবনা।এর দায়ভার কার বা কাদের?বিষয়টি ভাবার সময় এসে গেছে।শিক্ষা হোক অবারিত আনন্দের।শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলো হোক পূ্র্ণাঙ্গ ও পরিপূর্ণ মানুষ তৈরীর কারখানা।বিকশিত হোক সকল মানুষের প্রতিভা।তাহলেই তো একটি জাতি উন্নত হবে।

৮১৯ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
সর্বমোট পোস্ট: ১৭১ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৪৪ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৮-৩০ ১৬:১৭:৫০ মিনিটে
banner

৮ টি মন্তব্য

  1. এস এম আব্দুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    শিক্ষা হোক অবারিত আনন্দের।শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলো হোক পূ্র্ণাঙ্গ ও পরিপূর্ণ মানুষ তৈরীর কারখানা ভাল বলেছেন ।এমনটা হলেই ভাল হয় । শুভ কামনা । ভাল থাকুন ।

  2. এ টি এম মোস্তফা কামাল মন্তব্যে বলেছেন:

    চমৎকার ভাবনা। এ বিষয়ে সবারই গভীরভাবে ভাবা উচিৎ।

  3. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    Sothik kotha bolechhen
    bhabnar
    bhalo laglo

  4. আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

    আমরা একটা অসুস্থতার মধ্যে বড় হচ্ছি।সেই অসুস্থতার শুরু ছোটবেলা থেকেয়।কী অদ্ভূত,ভাল লাগুক আর না লাগুক একজন ছেলে বা মেয়েকে স্কুলে পাঠানো হচ্ছে।স্কুলে যেয়েয় বাচ্চারা যে বিষয়ের সাথে পরিচিত হয়,তা হচ্ছে অসুস্থ প্রতিযোগিতা।যে প্রতিযোগিতা একজনকে প্রথম বানিয়ে বাকি সবাইকে হীনমন্যতায় ভোগায় …

    রাজীব তুমি কি সামুতে লিখ ? অনেক ভাল লাগল আজকের লিখা। আপাতত শুভেচ্ছা দিয়ে গেলাম। অনেক ক্লান্ত। ভাল থাক।

  5. আজিম মন্তব্যে বলেছেন:

    এটা একটা বিরাট সমস্যা। বিষয়টি নিয়ে গভীরভাবে ভাবা উচিৎ সকলের।
    অনেক ধন্যবাদ বিষয়টি সামনে নিয়ে আসার জন্য।

  6. রাজিব সরকার মন্তব্যে বলেছেন:

    সামুতে লিখি না মুন দি………ধন্যবাদ সবাইকে………।।

  7. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    পড়ালেখা ছাড়া আর উপায়। এখনকার বাচ্চাদের পড়া বেশি। পড়তে চায় না, তবুও ত পড়তেই হবে। কিছুই করার নেই। ভাল লিখেছেন

  8. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    কবি রোদ্দুর র সাথে সহমত

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top