Today 31 Mar 2020
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

আমাদের দুখু মিয়া …

লিখেছেন: মুহাম্মদ আনোয়ারুল হক খান | তারিখ: ২৫/০৫/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1315বার পড়া হয়েছে।

ca43660c85bbf7f5fae91cd715753a31

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৪তম জন্মবার্ষিকী আজ। আর বাঙালি জাতিকে জাগিয়ে তোলার চিরবিপ্লবী, চিরবিদ্রোহী কবিতা ‘বল বীর-বল উন্নত মম শির! শির নেহারি আমারি নত শির ওই শিখর হিমাদ্রির! বল বীর কবিতার ৯০তম বর্ষপূর্তির বছরও এটি।

 

কাজী নজরুল ইসলাম ১৩০৬ সনের ১১ জ্যৈষ্ঠ, ২৪ মে ১৮৯৯ সালে পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার চুরুলিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা কাজী ফকির আহমদ ছিলেন স্থানীয় মসজিদের ইমাম। শৈশব থেকে অর্থনৈতিক অনটনের মধ্য দিয়ে তিনি বেড়ে ওঠেন। দারিদ্র্যের কারণে বারবার তার লেখাপড়া বিঘি্নত হয়েছে। বাল্যকালে তিনি ছিলেন লেটোর দলের গায়েন। স্থানীয় মসজিদে মুয়াজ্জিন হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি এন্ট্রান্স পরীক্ষা না দিয়ে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় ব্রিটিশ সেনাবাহিনীতে যোগ দেন। এ সময় তার ঐতিহাসিক কবিতা ‘বিদ্রোহী’ প্রকাশিত হয়। ‘শির নেহারি আমারি নত শির ওই শিখর হিমাদ্রির!’_ বিদ্রোহের এই দৃপ্ত ঘোষণা কেবল ব্রিটিশ শাসকদেরই কাঁপিয়ে দেয়নি, পালাবদল ঘটিয়ে দিয়েছিল বাংলা কবিতারও। সেনাবাহিনী থেকে ফিরে তিনি সাংবাদিকতাকে বেছে নেন। কিন্তু টিকতে পারেননি। শাসকের কোপানলে পড়েছেন, কারারুদ্ধ হয়েছেন। তবে নত হয়নি নজরুলের উচ্চ শির।

 

এরপর সংগীত ও সাহিত্য সাধনায় পুরোপুরি মনোনিবেশ করেন। থিয়েটার কোম্পানি, এইচএমভি রেকর্ড কোম্পানি ও কলকাতা বেতারে কাজ করেছেন কবি। আমাদের রণসংগীত ‘চল্ চল্ চল্’-এর রচয়িতাও তিনি। অসংখ্য কবিতা ও গান রচনার পাশাপাশি পত্রিকাও সম্পাদনা করেছেন। কবিতায় নজরুল এমন এক যুগের সূচনা করেছিলেন, যা আধুনিক কবিতার পথকে সহজ করে দিয়েছিল। বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গসহ বিশ্বের সব বাংলা ভাষাভাষীর কাছে তার কবিতা ও গান সমাদৃত। তার ছোট গল্প, উপন্যাস, নাটক ও প্রবন্ধ বাংলা সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করেছে।

 

বিংশ শতাব্দীর অন্যতম জনপ্রিয় বাঙালি কবি ও সংগীতজ্ঞ হিসেবে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। তিনিই প্রথম বাংলা গজলের প্রবর্তন করেন এবং উত্তর ভারতীয় রাগসংগীতের দৃঢ়ভিত্তির ওপর তা স্থাপন করেন। তিনি অনেক জনপ্রিয় শ্যামাসংগীত ও হিন্দু ভক্তিগীতিও রচনা করেন।

 

নজরুল প্রায় তিন হাজার গান রচনা করেছেন, যার সুরারোপও নিজেই করেছেন। নজরুল সংগীত বা নজরুল গীতি হিসেবে বাংলার সংগীতভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করেছে। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সর্বজনীন মুক্তি ও মানবতার মূর্তপ্রতীক এই কবি মধ্যবয়সে দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হন। তাই আমৃত্যু তাকে সাহিত্যকর্ম থেকে বিচ্ছিন্ন থাকতে হয়। এমনি এক অবস্থায় ১৯৭২ সালে বাংলাদেশ সরকার কবিকে সপরিবারে ঢাকায় নিয়ে আসে। এরপর তাকে বাংলাদেশের জাতীয়তা ও ডক্টরেট ডিগ্রি প্রদান করা হয়।

 

জাতীয় জাগরণের এই কবি ঢাকাতেই ১৯৭৬ সালের ২৯ আগস্ট মৃত্যুবরণ করেন।

১,৫৩৯ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমার জন্ম পিরোজপুরে নানা বাড়িতে। দাদা বাড়িও পিরোজপুরে। পিরোজপুর শহরের সার্কিট হাউজ – ফায়ার সার্ভিস এর মাঝখানে আমাদের বাড়ি। পিরোজপুর আমার কাছে স্বপ্নের শহর। যদিও ক্লাস থ্রী থেকে আমি ঢাকাতে মানুষ। এসএসসি ১৯৯৬ সালে। পড়াশুনা করেছি ফার্মেসিতে, পরে এমবিএ করেছি আন্তর্জাতিক বিপননে। জুলাই ১৫, ২০১১ থেকে সব ধরনের রাজনৈতিক আলোচনা থেকে অবসর নিয়েছি। বিশেষ ব্যক্তিত্বঃ নবিজী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বঃ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান যে ব্যক্তিত্ব আমাকে টানেঃ ডঃ মুহম্মদ ইউনুস প্রিয় লেখকঃ মুহম্মদ জাফর ইকবাল, হুমায়ুন আহমেদ, হেনরি রাইডার, জুল ভান প্রিয় টিভি সিরিয়ালঃ Spellbinder, Spellbinder 2: Land of the Dragon Lord, The girl from tomorrow, Tomorrows end, Time Trax, MacGyver, Alice in Wonderland, The Chronicles of Narnia প্রিয় টিভি নাটকঃ কোথাও কেউ নেই, অয়োময়, রুপনগর, বহুব্রিহী, বার রকম মানুষ প্রিয় টিভি শোঃ ইত্যাদি, সিসিমপুর, Pumpkin Patch Show লেখালেখি আমার শুধু শখই না, মনে হয় যেন রক্তের টান। বিশেষ করে বিজ্ঞান-কল্পকাহিনি। বিজ্ঞান-কল্পকাহিনি আমার কাছে রঙ্গিন ঘুড়ির মত। কল্পনার সীমানা পেরিয়ে যে ছুটে চলে মহাজগতিক পরিমণ্ডলে। এ যেন সময়টাকে স্থির করে দিয়ে এর আদি-অন্ত দেখার মত। তারপরও এ ঘুড়ি যেমন ইচ্ছে তেমন উড়তে পারে না, সুতোয়ে টান পড়ে বলে। এ টান যুক্তির টান। যৌক্তিক কল্পনা বললে ভুল হয় না। তারপরও নিজ ইচ্ছেয়ে সুতোটাকে ছিঁড়ে দিতে ভাল লাগে মাঝে মাঝে। আমি যেমন নিজে স্বপ্ন দেখি তেমনি সবাইকে স্বপ্ন দেখাতে চাই। অঞ্জন দত্তের ভাষায় বলতে হয়, ‘মাঝরাতে ঘুম ভেঙে যখন-তখন কান্না পায়, তবু স্বপ্ন দেখার এই প্রবল ইচ্ছাটা কিছুতেই মরবার নয়।’ কনফুসিয়াসের এই লাইন টা আমাকে খুব টানে … journey of a thousand miles begins with a single step। আমার প্রথম লেখা প্রকাশ হয় ১৯৯৬ সালে আধুনালুপ্ত বিজ্ঞান সাপ্তাহিক আহরহ তে। আমার নিজের একটা ব্লগ আছে, mahkbd.blogspot.com। আমার ইমেইল mahkbd@gmail.com।
সর্বমোট পোস্ট: ৯৬ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ১৫৫ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৫-১১ ০৩:১৪:৫৫ মিনিটে
banner

২০ টি মন্তব্য

  1. মোসাদ্দেক মন্তব্যে বলেছেন:

    ‍বিদ্রোহী কবির প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি..

    শুভকামনা চলন্তিকার জন্য..

    শুভকামনা রইল ‍লেখকের জন্য..

  2. আজিম হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    আজকের তথাকথিত সমাজ ব্যবস্থায় দু:খু মিয়ার বড় প্রয়োজন। তাই দু:থু মিয়া সংক্রান্ত পোষ্ট কাল করবো। একই দিন কি দুটি পোষ্ট গ্রহনযোগ্য?

  3. আহমেদ ইশতিয়াক মন্তব্যে বলেছেন:

    আমার প্রিয়কবি কাজী নজরুল ইসলাম… দুখু মিয়া নিঃসন্দেহে বাংলা সাহিত্যের চির উজ্জ্বল নক্ষত্র !

    লেখককে ধন্যবাদ

  4. রফিক আল জায়েদ মন্তব্যে বলেছেন:

    প্রাণের কবি হৃদয়ের কবিকে নিয়ে দারুন একটি লেখা।

  5. আরিফুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    আমাদের প্রিয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম এর লেখা গল্পটি ভাল লাগছে।

  6. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    কাজী নজরুল ইসলাম আমার প্রিয় কবি। ভাল লাগল।

  7. আরিফুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    কবিতাটি অসাধারন লাগল চালিয়ে যান . . . . .

  8. এ হুসাইন মিন্টু মন্তব্যে বলেছেন:

    নজরুল আমার অনুপ্রেরণা……গুরু তোমায় শ্রদ্ধা

  9. কাউছার আলম মন্তব্যে বলেছেন:

    নজরুলের রচনাবলি ভাল লেগেছে। ধন্যবাদ।

  10. জুয়েল মাহমুদ মন্তব্যে বলেছেন:

    বাংলা সাহিত্যাকাশের হ্যালির ধূমকেতুকে নিয়ে আরও লেখা আশা করি।

  11. তুষার আহসান মন্তব্যে বলেছেন:

    নজরুল চিরকালের,চির যুগের,বিস্ময়।

  12. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    দুখু মিঞাই তো গেলো
    সুখু মিঞাদের সুখু সুখু সুখ।

    ভালো লাগলো।

  13. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    আল্লাহ প্রিয় কবিকে জান্নাত দান করুক ।

  14. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    কাজী নজরুল ইসলাম তিনহাজার গান রচনা করেছেন তা আপনার লেখা পড়ে জানলাম।নজরলের আরও কিছু অজানা তথ্য জনা হোল আপনার এই লেখার মাধ্যেমে।অনেক ধনবাদ আপনাকে।

  15. গোলাম মাওলা আকাশ মন্তব্যে বলেছেন:

    আর একটু খেটে পোস্ট টা করলে ভাল লাগত।
    তেমন নতুন কোন তথ্য নেই । তার পরেও ভাল লাগল

  16. সহিদুল ইসলাম মন্তব্যে বলেছেন:

    দুখু মিয়াকে নিয়ে লেখা,
    কি আর বলবো, অনেক বড় মাপের মানুষ।
    আমাদেরকেও আল্লাহ ওরকম বড় হতে দেয়।

  17. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    আমাদের দুখু মিয়া বেচে থাক লেখার মাঝে

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top