Today 17 Jul 2018
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

আমিয়াখুম-এক স্বর্গরাজ্যের জলধারা

লিখেছেন: কামাল উদ্দিন | তারিখ: ২৭/০৯/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 779বার পড়া হয়েছে।


এ্যডভেঞ্চারের ষোলকলা যদি কেউ পুরণ করতে চান, তাহলে ছুটে যান বান্দরবানের পর্বতমালার গহীণে সাতভাইখুম আর আমিয়াখুমে। মনে হবে পৃথিবী এমন সুন্দর হতেই পারেনা, এ কোন কল্প লোকের স্বর্গরাজ্য। আসুন আমার ক্যামেরায় ঘুরে আসি সেই স্বর্গরাজ্য।


(২) পাহাড়ি গ্রাম সাজাই ভ্যালি থেকে মেঘের ভেতর দিয়া আমরা রওয়ানা হলাম আমিয়াখুমের উদ্দেশ্যে।


(৩/৪) পাহাড়িরা জুম চাষের সাথে প্রচুর ফুলেরও চাষ করে, কিন্তু সেই ফুল দিয়া ওরা কি করে জানা হলো না।


(৫/৬) অসাধারণ সাতভাই খুমের পাশ দিয়া আমরা আমিয়াখুমের দিকে গেলাম।


(৭/৮) নাক্ষিয়ংমুখে এসে আমরা আটকে গেলাম, দুই পাশেই আকাশ ছোয়া খারা পাথুরে পাচিল, আর মাঝখানে ছুটে চলা হীম শীতল জলের রাজ্য, সামনে যাওয়ার পথ একটাই, বাঁশের ভেলা।


(৯/১০) ভর দুপরের আলো আধাঁরিতে অদ্ভুত রহস্যঘেরা সৌন্দর্য্যে যে কারো চোখ ধাঁধিয়ে যাবে। আমার মনে হয় আমার দেখা সেরা জায়গার একটি।


(১১) দুইজন দুইজন করে বাঁশের ভেলা দিয়ে সেই অসাধারণ পাহাড়ি খাল পার হলাম।


(১২) ভেলায় পার হওয়ার সময় কিছুটা ভিজে যাওয়ায় আগুন জ্বালিয়ে কিছুটা গরম হওয়ার চেষ্টা।


(১৩) সুন্দর একটা যায়গায় আমাদের টিমের সম্মিলিত পোজ।


(১৪) মাছ।


(১৫) সামনে আরো কিছুটা পাথুরে পথ।


(১৬) অবশেষে আমরা সফল হয়েছি সেই স্বপ্নরাজ্যের জলধারার স্পর্শ পেতে।


(১৭) আমিয়াখুমের জলধারার দুইপাশের গঠনশৈলী একেবারে অন্য রকম। প্রকৃতির তৈরী সিড়িঁর পর সিঁড়ি, যেন কোন শিল্পীর অনেক দিনের সাধনায় তৈরী কোন আরাধ্য প্রতিমা।


(১৮) সব শেষে আমি।

৭৫২ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
বিশ্ব জোড়া পাঠশালা মোর সবার আমি ছাত্র –নানা ভাবে নতুন জিনিস শিখছি দিবা রাত্র ……
সর্বমোট পোস্ট: ২৭ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৯১ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৪-০৯-১৪ ০৫:২৮:১৯ মিনিটে
banner

১৭ টি মন্তব্য

  1. আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

    কামাল ভাই আমি তো একেবারে অভিভূত বাকরুদ্ধ বলা যায়। সব ছবি কি আপনার নিজের তোলা ? অপূর্ব। তার চেয়ে বড় হলো বাংলাদেশ এ এত সুন্দর জায়গা আছে ভাবা যায়না। তাহলে সবাই নায়েগ্রা ফলস নিয়ে এত মাতামাতি করি। এ তো একইরকম মনে হচ্ছে। শুধু আমাদের প্রপার মেইন্টেনেনস যদি করতে পর্যটন খাত বাংলাদেশ এর অনেক বিচ অনেক জায়গা টুরিস্ট আকর্ষণ করার মত।

    অনেক ধন্যবাদ আপনাকে অসাধারণ পোস্ট টির জন্য। শুভেচ্ছা রইল। ভাল থাকবেন কেমন।

    • কামাল উদ্দিন মন্তব্যে বলেছেন:

      হ্যাঁ আপু, সবই আমার নিজের তোলা, আর এই জায়গাটায় যাওয়ার কিছুক্ষণ আগেই আমার মূল ক্যামেরাটা পানিতে তলিয়ে গিয়েছিলো, বিকল্প হিসেবে থাকা ছোট্ট ক্যামেরাটায় ছবিগুলো তুলেছি…….অন্যথায় হয়তো আরো ভালো এবং আরো বেশী ছবি তুলতে পারতাম।

      তবে ওখানে যাওয়াটা সত্যিই প্রায় দুঃসাধ্য ব্যাপার……মোটামুটি ছয়দিন পাহার ট্রাক করার মতো ক্ষমতা থাকলেই ওকানে পৌছা সম্ভব, ধন্যবাদ।

      • মরুভূমির জলদস্যু মন্তব্যে বলেছেন:

        কেন? ৬ দিন ট্রেকিং করতে হবে কেন?
        আমি যদি থানচি থেকে নৌক নেই তাহলে ?
        এটা কি নাফা মুখের পরে না? নাকি অন্য কোন দিকে?
        একই রাস্তায় হলেত নৌক থেকে নেমে এক দিনেই ট্রেকিং করে যেতে পারার কথা।

      • কামাল উদ্দিন মন্তব্যে বলেছেন:

        থানচি থেকে সাঙ্গুর পথে উজানে নৌকায় আপনি রেমাক্রি পর্যন্ত যাবেন, তারপর দু’দিনের পাহাড় ট্রেককরে ওখানে পৌছবেন। তবে একটা সর্টকার্ট রাস্তাও নাকি আছে ঝিড়ি পথ ধরে সেটাও দেড় দিনের কমে আপনি ওখানে পৌছতে পারবেন না। তার মানে রেমাক্রি থেকে মিনিমাম আপনাকে তিন দিনের হাটা পথে ওখানে পৌছে আবার রেমাক্রিতে ফেরৎ আসতে পারবেন।

    • কামাল উদ্দিন মন্তব্যে বলেছেন:

      তবে হ্যাঁ আমার ছবিগুলো অন্য কেউ তুলে দিয়েছে :Happy:

  2. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনার ছবিতে প্রকৃতিকে আরো ভাল করে চিনতে শিখছি ।
    ভাল থাকবেন । দারুন

  3. ঘাস ফড়িং মন্তব্যে বলেছেন:

    অতঃপৱ কামাল ভাই মানকি ফৱেস্ট নিয়ে গভেষনায় লিপ্ত

  4. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    কামাল ভাই , আপনারে নিয়ে বিশ্ব ভ্রমনে বের হওয়ার চিন্তা ভাবনা করছি, রেডি হোন, আমি আইতেছি,

    শুভ কামনা।

  5. আর এন মিলি মন্তব্যে বলেছেন:

    চমতকার ছবি বান্দারবন গেলেও এসব জায়গায় যাওয়া হয় নাই :-( যদিও আপনার এই গ্রুপ মানে ভ্রমণ বাংলাদেশের সাথে কয়েকবার যাওয়ার প্লান ছিল কিন্তু ব্যাট এ বলে ক্লিক করে নাই মানে টাইম মিলাতে পারি নাই ।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top