Today 12 Nov 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

আমি নারী নহি দূর্বল

লিখেছেন: আরজু মূন জারিন | তারিখ: ১৫/০৯/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1176বার পড়া হয়েছে।

ভূমিকা : খুব ই কাচা হাতের লেখা একটা কবিতা আমার যা পূর্বে প্রথম আলোতে প্রকাশিত হয়েছিল নারী দিবসের দিনে। এখানে সব বরেন্য ,বিখ্যাত নারীদের নিয়ে লিখেছি বলে এই কবিতা টি মায়া করে মুছে ফেলিনি। কবিতা হিসাবে এ নিম্নমানের। শুধু শ্রদ্ধেয় নারীদের সন্মান করতে কবিতা টি আবার পোস্ট করলাম। এ পোস্ট করার উদ্দেশ্য আমার দেখান বরাবর নারীরা রূপের চেয়ে গুনে, চরিত্রে, মেধায় বেশী মহিমান্বিত হয়ে এসেছে যুগে যুগে সমাজে। কবিতাটি পড়ার আমন্ত্রণ রইল।

সবাইকে অনেক শুভেচ্ছা/ভালবাসা।

======================================================================================

মূল কবিতা:

আমি নারী
নহি দূর্বল
নই অশথ্থ
অত্যাচারী শ্লীলতা হরনকারী
যেন না মনে করে তা ।

সময়ে আমি ও হতে পারি
দূর্জয় দূর্বার
রোধে প্রতিরোধে
বেগে হয়ে যাই
সুলতানা রাজিয়া
সন্মানে মর্যাদায়
ব্যাক্তিত্বে হয়ে যাই
জগতের আলো নুরজাহান।

হই নারী জাগরনের
অগ্রদূত বেগম রোকেয়া।
জ্ঞানসাধনায় নিমগ্ন
আমি তাপসী রাবেয়া।
ভালবাসা উদারতা য়
মায়া মমতায়
হই আমি বেহেশতের সর্দার
হজরত ফাতেমা (রা 

ক্ষমতা প্রতিপত্তি তে
আমি কখন হই
মা কালী স্বরস্বতী
দেবী দূর্গা
করি বধ
রাবন মহিশ্বাশুর
দমন করি অন্যায়।

সেবা শুশ্রুষায় বিলিয়ে
আপন আবেগ উল্লাস
হয়ে যাই
আমি মাদার তেরেসা।

নহি দূর্বল নহি অশথ্থ
অত্যাাচারের প্রতিবাদ
করতে জানি আমি।
ভদ্রতায় নম্রতায় মাতৃত্বে
কখন ও থাকি আমি চুপ

ভেবনা অত্যাচারী
শ্লীলতা হরনাকারী
আমি হতে পারি
জোয়ান অব আর্ক।

কখন বা শারীরিক
সীমাবদ্ধতাকে অতিক্রম
করতে পারি
আমি নারী
হেলেন কিলার।

ভালবাসায় উদারতায়
মায়ায় মমতায় অবদানে
যেমন পাবে আমায়
বদ শয়তানীর দমনে
তেমনি পাবে আমায়

আমি নারী ভালবাসায়
থাকতে চাই তোমার পাশে
উদারতায় ক্ষমতায় ।
যেভাবে থাকিনা কেন
প্রেরনায় থাকতে চাই
সহমর্মী রূপে তোমার পাশে।

১,১৫৯ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
নিজের সম্পর্কে কিছু বলতে বললে সবসময় বিব্রত বোধ করি। ঠিক কতটুকু বললে শোভন হবে তা বুঝতে পারিনা । আমার স্বভাব চরিত্র নিয়ে বলা যায়। আমি খুব আশাবাদী একজন মানুষ জীবন, সমাজ পরিবার সম্পর্কে। কখনো হাল ছেড়ে দেইনা। কোনো কাজ শুরু করলে শত বাধা বিঘ্ন আসলেও তা থেকে বিচ্যুত হইনা। ফলাফল পসিটিভ অথবা নেগেটিভ যাই হোক শেষ পর্যন্ত কোন কাজ এ টিকে থাকি। জীবন দর্শন" যতক্ষণ শ্বাস ততক্ষণ আশ " লিখালিখির মূল উদ্দেশ্যে অন্যকে ভাল জীবনের সন্ধান পেতে সাহায্য করা। মানুষ যেন ভাবে তার জীবন সম্পর্কে ,তার কতটুকু করনীয় , সমাজ পরিবারে তার দায়বদ্ধতা নিয়ে। মানুষের মনে তৈরী করতে চাই সচেতনার বোধ ,মূল্যবোধ আধ্যাতিকতার বোধ। লিখালিখি দিয়ে সমাজে বিপ্লব ঘটাতে চাই। আমি লিখি এ যেমন এখন আমার কাছে অবাস্তব ,আপনজনের কাছে ও তাই। দুবছর হলো লিখালিখি করছি। মূলত জব ছেড়ে যখন ঘরে বসতে বাধ্য হলাম তখন সময় কাটানোর উপকরণ হিসাবে লিখালিখি শুরু। তবে আজ লিখালিখি মনের প্রানের আত্মার খোরাকের মত হয়ে গিয়েছে। নিজে ভালবাসি যেমন লিখতে তেমনি অন্যের লিখা পড়ি সমান ভালবাসায়। শিক্ষাগত যোগ্যতা :রসায়নে স্নাতকোত্তর। বাসস্থান :টরন্টো ,কানাডা।
সর্বমোট পোস্ট: ২২৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩৬৮৩ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-০৫ ০১:২০:৩৫ মিনিটে
banner

২১ টি মন্তব্য

  1. গোলাম মাওলা আকাশ মন্তব্যে বলেছেন:

    খুব ভাল লিখেছেন। আর নারিরা আজ কিন্তু দুর্বল নয়। আপনার ভাবনা ভাল লেগেছে।

    যেভাবে থাকিনা কেন
    প্রেরনায় থাকতে চাই
    সহমর্মী রূপে তোমার পাশে।—-

    আমি এ ভাবেই চাই।

    • আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

      না তা তো অবশ্য। আমি মেয়ে বলে কোনদিন মানসিকভাবে দুর্বল বোধ করিনি। এ আমাদের সামাজিক অনুশাসনের জন্য বলা। আমাদের ফ্যামিলীতে আমার ভাই আমি একইভাবে বড় হয়েছি। কোনদিন আমার মা বাবা বলেনি তুমি মেয়ে এ করতে পারবেনা। বরং আমার মনে আছে কতদিন রাত আটটা নয়টা বাজলে আমি ফার্ম্যাসী থেকে অসুধ কিনে নিয়ে এসেছি আমার ভাই এর বদলে। কখন ও এই ভয় পাই নি গলি র ছেলেরা কমেন্টস করবে বা কোন দুর্ঘটনা হতে পারে। কখন ও এসব কিছু আমি ফেস করিনি আমার জীবনে। ছেলেদের কমেন্টস ইভ টিজিং কোনদিন আমি প্রত্যক্ষ করিনি। আসলে মেয়েরা যদি সাহস একই সঙ্গে ভদ্রতা বন্ধুত্বপূর্ণ দৃষ্টিতে একজন মাস্তানের দিকে লক্ষ্য করে কোন ছেলে বাজে মন্তব্য করবেনা। তাদের ও তো মা বোন্ আছে ঘরে। আমি যদি ভেবে নেই আগে থেকে সামনে দাড়িয়ে এই ছেলেটা বাজে মাস্তান ,কমেন্টস করবে তাহলে আমার ভাবনা টা ই একশন হয়ে যায়। তার চেয়ে এই ভাবব আমি সামনের লোকটি আমার মত ভদ্র ভাল। তাছাড়া আমি অন্যায় না ভাবলে আমার সাথে অন্যায় হবেনা। এ হচ্ছে ব্যাসিক ভাবনার কথা বললাম। তবে কিছু ধ্বংসাত্বক ঘটনা যে হয়না তা বলছিনা। তবে আমি ভাবি এইভাবে আমি আমার সৎ বোধ ,ভাবনা দিয়ে মানুষের মনের নেগেটিভ জিনিস পরিবর্তন করতে পারি। এই যাহ অনেক বেশী বেশী বলে ফেললাম। এ ঠিক প্রচার করা নয়। আমরা সাহিত্যিক রা এইভাবে ভাবতে পারি। সমাজ পরিবর্তনের চিন্তা করতে পারি। মাস্তান, গুন্ডা, বাজে বলে কাওকে গালি না দিয়ে তাদের মনে শুভ্র চিন্তা আনয়ন করতে পারি।

      ধন্যবাদ আকাশ ভাই কমেন্টসের জন্য। শুভেচ্ছা রইল।

  2. আর এন মিলি মন্তব্যে বলেছেন:

    নারীরা কখনই দুর্বল ছিল না

  3. আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

    মিলি কেমন আছেন ?খুশি হলাম কমেন্টসে।না মেয়েরা কোনদিন দুর্বল ছিলনা ,মানসিক ভাবে , শারীরিকভাবে ও কোন কোন ক্ষেত্রে। সমাজ এ শুধু নারীর অবস্থান দুর্বল হিসাবে দেখান হয় হয়তবা কিছু কর্তা পুরুষ ব্যক্তির কারনে।

    অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল। ভাল থাকবেন কেমন।

  4. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    Nari e vabei prakashit juge juge
    sundar onabil bhabnar sohoj prokash
    khub sundar hoyechhe kobita
    khub bhalo laglo

    • আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

      আপনার বাংলা কি হয়েছে। আমার মত আসে আর যায়। মাঝে মাঝে আমার কিবোর্ড এ বাংলা লেখা হয়না। তখন কপি পেস্ট করে কমেন্টস করি।
      রেবা দা অনেক অনেক ধন্যবাদ কমেন্টসের জন্য । শুভেচ্ছা রইল।

  5. জসীম উদ্দীন মুহম্মদ মন্তব্যে বলেছেন:

    সালাম ও শুভেচ্ছা জানবেন প্রিয়কবি!

  6. কামাল উদ্দিন মন্তব্যে বলেছেন:

    আমি নারী ভালবাসায়
    থাকতে চাই তোমার পাশে
    উদারতায় ক্ষমতায় ।
    যেভাবে থাকিনা কেন
    প্রেরনায় থাকতে চাই
    সহমর্মী রূপে তোমার পাশে।

    …………..চমৎকার অভিন্যক্তি, লেখক কে শুভেচ্ছা :rose:

  7. সাঈদ চৌধুরী মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনি যাই বলেন কবিতাটি আমার ভালো লেগেছে আপু । নারীদের নিয়ে লেখা এ কবিতাটি আমি আগেও মন্তব্য দিয়েছিলাম । তবে আপু সামাজিকভাবে নারীদের সবজায়গায় হেয় করা হয় এটা কখনই ঠিক নয় । আপনার মত অনেক পরিবারই আছে যাদের পরিবারে নারীরা মূল্যায়িত । সামাজিক অশিক্ষার কারনে অনেক জায়গায় নারীরা অবহেলিত হয়ে যাচ্চে । এর সাথে যোগ হয়েছে নারীদের পন্য বানানোর মহরা । সামজিকভাবে নারীদের যেভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে তা দুঃখজনক ।তবে কষ্ট হয় যারা উগ্রভাবে চলাচল করছে তারা দূর্ঘটনার স্বীকার হচ্চে না, স্বীকার হচ্ছে অসহায় নারীরা যারা এক মুঠো ভাত খাওয়ার জন্য ১৮ ঘন্টা পর্যন্ত সংগ্রাম করে ।

    • আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

      আমার সব প্রিয় প্রথম আলোর ভাইরা সব এখানে। বিপ্লব দা, কামাল ভাই, সাইদ ভাই, রেবা দা একসঙ্গে সবাইকে পেয়ে খুব ভাল লাগছে।

    • আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

      আসলে নারীর কঠিন জীবন সংগ্রাম বিশেষ করে নিম্নবিত্ত ফ্যামিলী গুলিতে মেয়েদের কষ্ট, জীবন সংগ্রাম, ধৈয্য সহিস্নুতার কোন মূল্যায়ন হয়না। আমি ফরচুনেটড আমরা ভাই বোন্ একইভাবে বড় হয়েছি। একই ধরনের পরিবেশ ছিল আমার বাসায়। আমার ভাইকে ল্যাপটপ কিনে দিলে আমার চিন্তা করত আমাদের বোনদের একইভাবে দিবে। কিন্তু আমার পরিচিত বান্ধবীদের অনেক কে শুনেছি ভাইয়ার জন্য কেনা হয় বোনের জন্য কেনা হয়। যুক্তি এইভাবে বলা হয় তার বিয়েতে খরচ হবে অনেক বেশী ,ভাই এর বিয়েতে না। এ কি করবেন বলেন ? সামাজিক অবস্থা এরকম হয়ে গেছে। এইজন্য দরকার আসলে মেয়েদের বেশী বেশী পড়ালেখা করা, বেশী জব এ আসা। পরিবারের হল যখন তারা আর ও বেশী সামলাবে। .তখন। .হয়তবা অদূর ভবিষ্যতে এই সামাজিক অবস্থানের পরিবর্তন হয়ে যাবে। ..ধন্যবাদ সাইদ ভাই চমৎকার মন্তব্যের জন্য। শুভেচ্ছা রইল।

  8. বিপ্লব মণ্ডল মন্তব্যে বলেছেন:

    আমি নারী
    নহি দূর্বল
    জগৎ জননী আমি
    আমি সকলের বল
    কখনো মা,কখনো বোন
    আপন মহিমায় আমি সময়ে করি বিচরন
    সুন্দর লিখেছেন,অনেক শুভেচ্ছা রইল

  9. আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

    বিপ্লব দা কেমন আছেন? অনেক খুশি হলাম আপনাকে এখানে পেয়ে। ..ধন্যবাদ চমৎকার মন্তব্যের জন্য। শুভেচ্ছা রইল।

  10. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    অনেক সুন্দর লিখেছেন আপি। নারী কখনো দুর্বল নয় বদের হাড্ডিরা তা বুঝে না।

  11. আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

    বদের হাড্ডি কে? ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য। শুভেচ্ছা রইল।

  12. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    বাহ্ – ভাল লিখেছেন তো!
    “আমি নারী ভালবাসায়
    থাকতে চাই তোমার পাশে”
    ধন্যবাদ। শুভেচ্ছা জানবেন কবি।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top