Today 21 Sep 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

ঈদ…সেই সময়……।

লিখেছেন: আহমেদ রুহুল আমিন | তারিখ: ০৭/০৭/২০১৬

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 470বার পড়া হয়েছে।

আমাদের সময়ের বলতে আমাদের শৈশবের ঈদগুলো ছিল প্রকৃতির সাথে ঘেঁসা । যেমন , আমরা গ্রামীণ প্রাকৃতিক আবহে ঈদ শুরু করতাম । রমজান শেষে ঈদের আগের দিন সন্ধ্যে বেলা বাড়ীর বাইরে ঈদের চাঁদ দেখার আনন্দ ছেলে বুড়ো সব বয়সী মানুষেরা উপভোগ করতো । ঈদের দিন খুব ভোরবেলা ফজরের নামাজ শেষে সকলে মিলে নদীতে যেতাম গোছল করতে । ঈদের দিনের সেই পামরোজ সাবানের সুগন্ধ আর চোখে জ্বালা ধরা ফেনা আজো যেন  শৈশবের সেই প্রকৃতির ঈদকে বার বার মনে করিয়ে দেয় । বাড়ি ফিরে ঈদের সকালে বছরের কাঙ্খিত নতুন জামা কাপড়  তথা নতুন সেন্ডেলের ঘ্রান আনন্দের এক অন্য মাত্রার সংযোগ ঘটাতো ।  সকালের নাস্তার মেন্যুতে থাকত একটি বিশেষ খাবার আর তা হলো বাড়ীতে    তৈরী চিড়ার সাথে টক দই যা খেতে হতো গুড়ের সংমিশ্রণে । সেই সময় আমাদের গ্রামগুলোর বেশীরভাগ ঈদগাহগুলো ছিল নদীসংলগ্ন মাঠে । বাড়ি থেকে বেশ খানিকটা দুরের সেই ঈদগাহে সামিল হতে ওজুর জন্য নদীতে নামতে হতো উঁচু পাড় থেকে প্রাকৃতিক সিঁড়ি বেয়ে । হুজুরের বয়ানে নিমগ্ন মানূষের নামাজ ও দোয়া শেষে কোলাকুলিতে ঘটত একে অপরের সৌহার্দ্যতা ।   সেই ঈদগাহ  ছিল যেন হাজারো মানুষের মিলন মেলা !

  • আজ আমাদের গাণিতিক হারে   আর্থসামাজিক উন্নয়নের সাথে জ্যামিতিক হারে কমছে সৌহার্দ্যতা ।  গ্রামের সেই হাজারো মানুষের মিলনমেলা ঈদগাহ গুলোকে ভেঙ্গে টুকরো টুকরো করে প্রত্যেকের বাড়ির আঙ্গিনায় নিয়ে এসে কেমন যেন মেকি সভ্যতার এক সমাজ গড়ছি ! যেমন আজ সেই একান্নবর্তী কালচার ধ্বংস হয়ে আমরা প্রত্যেকে আত্মকেন্দ্রীকতার বেড়াজালে আবদ্ধ হয়ে এক ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছি । ফলস্বরূপ আমাদের ভবিষ্যত্ প্রজন্মগুলো প্রকৃতি থেকে সরে গিয়ে  অমানিশার ঘোর অন্ধকারের প্রতিনিধিত্ব করবে এটাই হয়তো স্বাভাবিক ! সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা ।

৪৬২ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
#কায়েতপাড়া, পঞ্চগড় সদর, পঞ্চগড় । #চল্লিশ দশকে অকাল প্রয়াত ছোট মামার কলকাতার সংগ্রহকৃত কিশোর ক্লাসিক " শুকতারা " ম্যাগাজিনে প্রকাশিত রবীন্দ্র সম-সাময়িক ( যেখানে তাঁর লেখা ছবিসহ সরাসরি প্রকাশ হতো) বিভিন্ন ছড়া/কবিতা সত্তর আশির দশকে পাঠে শিশু মনে কল্পনার দোল খেত । সেই থেকে শুরু । লেখা-লিখি টুকটাক । ভাল লাগে কবিগুরু , বিদ্রোহী,সুকান্ত -জীবনানন্দ, সত্তর-আশির দশকের আবুলহাসান, দাউদ হায়দার,খোন্দকার আশরাফসহ অনেক কবির লেখা । সমরেশ মুজুমদার,সব্যসাচি সৈয়দ হক,আনিসুল হক, সদ্যপ্রয়াত হুমায়ুন আহমেদ,ইমদাদুল হক মিলন প্রিয় গল্পকার/লেখকের তালিকায় । # প্রিয় ব্যাক্তিত্ত্ব : হযরত মোহাম্মদ (সা.) । # প্রিয় ব্যক্তি : মা-বাবা । # যা আশ্চয্য করে : পবিত্র কোরআন, বিশ্ব- প্রকৃতি, কম্পিউটার-তথ্য প্রযুক্তি । #দু'সন্তানের জনক ।
সর্বমোট পোস্ট: ৭৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ১৬২ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-১১-১৫ ১৭:১৮:৩৫ মিনিটে
banner

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top