Today 26 Sep 2020
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

উপন্যাস ” অমর প্রেম ” পর্বঃ ১২

লিখেছেন: শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত | তারিখ: ২৬/১০/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 733বার পড়া হয়েছে।

কিন্তু কিভাবে নাম্বার দিবে স্কুল বন্ধ । তাই ভাবল সামনে যেহেতু ঈদ ওকে একটি ঈদ কার্ড দিয়ে আসব সেই সাথে নাম্বারও । স্বয়ন কিছু উপদেশমূলক বাণী কম্পিউটারে টাইপ করে লেমেনেটিং করল আর তিনশ টাকার একটি রোমান্টিক ঈদ কার্ড কিনল ,কার্ডটি ওপেন করলেই হরেক রকম মিউজিক দেয় কখনও আই লাভ ইউ বলে । উপদেশ বাণীতে লেখা ছিল –

সাথী আমার সাথী ,
শুরুতেই আমার যত ভালবাসা ও অনুরাগ নিও । তুমি ভাল থাক সবসময় এটাই আমার কামনা । আজ তোমার স্বামী তোমাকে কিছু আদেশ করবো যদি তুমি তা পালন কর তাহলে আমি চির ধন্য হব । স্বামীর পদতলে স্ত্রীর বেহেশ্ত । তাই তাঁর পছন্দের অপছন্দের কাজগুলো তোমার করা উচিত্‍ কিনা একটু ভেবে দেখবে । আমার আদেশগুলো জেনে নাও ।

১। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়বে আর আল্লাহর নিকট প্রার্থনা করবে আমাদের যেন ছোট্ট একটি সুখের সংসার হয় ।

২। সর্বদা পর্দা করে চলবে ।

৩। তোমার কোন ছবি আমি ছাড়া যেন অন্য কেউ না পায় ।

৪। মেলায় পূজায় কোন গানের অনুষ্ঠানে যাবে না ।

৫। কোন বিয়ের অনুষ্ঠানে যাবে না । যদি না গেলে নয় এমনটা হয় তবে সাবধানে থাকবে ।

৬। আমার এবং তোমার মা বাবার সাথে ভাল আচরণ করবে ।
৭। মাহরুম ব্যক্তি ছাড়া অন্য কারো সাথে বাড়ির বাইরে যাবে না ।

৮। কখনও সিনেমা হলে যাবে না ।

৯ । পর পুরুষের সামনে পর্দাছাড়া যাবে না ।

১০ । মিথ্যা কথা বলবে না ।

আশা করি তুমি আদেশগুলো মানবে । আর আমার প্রতি তোমার কোন আদেশ থাকলে তা জানাবে । আমি আদেশ মানতে ভালবাসি করতেও ভালবাসি ।

পড়ন্ত বিকেলে বড় ভাই ঘুমিয়ে পড়ছে । স্বয়ন সাইকেলের ড্রাইভার হয়ে রহনা দিল সাথীদের বাড়ির উদ্দেশ্যে । মিনিট দশেক পর পৌছিল । গেটের সামনে অগনিতবার বেল বাজাল ওর কেমন যেন সংকোচ মনে হলো । প্রথম এই বাড়িতে পদার্পন কি যেন কি হয় এমন দুঃচিন্তায় বুক ধুক ধুক করছে ।
সাথীর মা গেট খুলে দিল । স্বয়ন সালাম দিল ।
কে বাবা তুমি ?
আমি স্বয়ন সাথী আমি একই স্কুলে পড়ি ।
সয়নের সুন্দর আকষর্ণীয় চেহারা দেখে সুলতানা রহমান না করতে পারল না বলে ফেলল ,
হ্যাঁ , আছে ।
ওকে একটু ডেকে দিবেন ?
তুমি ভিতরে এসো ।
এ বাড়িতে সবাই পর্দাশীল অন্য পুরুষদের ভিতরে নেয় না বাহিরে বসার ও অপেক্ষার বেশ ব্যবস্থা আছে ।
কিন্তু সাথীর মায়ের কেন জানি অনুগ্রহ হলো , তাই স্বয়নের ভাগ্যে ভিতরে প্রবেশের সুযোগ ঘটল । মারুফা মুন্নীকে জিজ্ঞাসা করল,
ছেলেটিকে চিনিস ?

বেশ চিনি আমাদের স্কুলের একমাত্র মেধাবী ছাত্র ।
সাথীকে ডাক দিয়ে বলল , ওকে ঘরে নিয়ে বসতে দে ।
ঘর থেকে বেরিয়ে স্বয়নকে দেখে অবাক হয়ে তাঁকিয়ে রইল
কারণ কি ?
হঠাত্‍ ও এলো কেন ?
সাথী ঘরে ডেকে নিয়ে বলল ,
তুমি বসো , আমি আসছি । কিছুক্ষণ পর সাথী নাস্তা নিয়ে হাজির । বলল ,
খেয়ে নাও ।
না , খাব না ।
কেন ?
তুমি খাইয়ে দাও ।
সাথী নিজের হাতে খাইয়ে দিল ।হঠাত্‍ স্বয়ন ইচ্ছাকৃত ওর আংগুলে কামড় দিল ।
ইস্ ,ব্যথা পাইছি ।
সরি বলে স্বয়ন ওকেও নিজ হাতে খাইয়ে দিল । হঠাত্‍ আপু আপু বলে ডাকছে দুই আড়াই বছরের একটি মেয়ে ।
ওর নাম মিতু ,সাথীর ছোট বোন । স্বয়ন বলল , ওকে বিস্কুট দাও ।
খাবে না ।
কেন ?
আম্মু ছাড়া কেউ কিছু দিলে খায় না ।
তাই নাকি ? আচ্ছা দেখি , এ বলে স্বয়ন একটি বিস্কুট ওর সামনে দিয়ে বলল ,
আপু খায় ।
সঙ্গে সঙ্গে হা করে মুখে নিল । এ ঘটনা দেখে সাথী অবাক হয়ে বলল ,
তুমি বুঝি জাদু জান , নয়তো ?
আরে না , শালি তার দুলা ভাইকে চিনেছে এটাই জাদু ।
তার পর মিতুকে কোলে নিয়ে বলল ,
আমি তোমার দুলাভাই ?
হু ।
সঙ্গে সঙ্গে সাথী হাসতে শুরু করল , সেই সাথে স্বয়নও । কিছুক্ষণ হাসা-হাসি করে সাথী বলল ,

জান আমি কল্পনাও করিনি তুমি আমাদের বাড়িতে আসবে আর আসার সাহস হবে ।
বারে , শ্বশুর বাড়ি আসব না ?
আর প্রেমে পড়লে মানুষ সন্ত্রাসের মত । এটা আমি বুঝেছি ।
কয়েকটি চুম্বন বিনিময় করে বিদায়ের পর্যায় উপদেশ বাণী , ঈদ কার্ড ও মোবাইল নাম্বার দিল সাথীর হাতে দিয়ে বলল ,
আমার কিছু আদেশ এখানে আছে , তুমি কি পালন করতে পারবে ?
সাথী না দেখেই উত্তর দিল ,
ইনশা আল্লাহ পারব ।
আমি একজন নারী , প্রত্যেক নারীর অহংকার তার স্বামী ।
তোমার কথা শুনে ভাল লাগল । আল্লাহ আমার আশা পূরণ করেছে যেমন চেয়েছি তেমনি পেয়েছি ।
কি পেয়েছ ?
তোমায় ।

৮০২ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
01912657988 অথবা 01853861342
সর্বমোট পোস্ট: ১৮৫ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩৬৩৬ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৮-২৩ ১১:৪২:৪১ মিনিটে
banner

৬ টি মন্তব্য

  1. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    মাস্টার সাহেব,
    প্রেমিকার সাথে ও মাস্টারী শুরু করে দিলেন?

    সুন্দর উপদেশ গুলো
    অনেক ভাল লাগা ।

  2. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    অনেক অনেক ভাল লাগছে।

  3. তাপসকিরণ রায় মন্তব্যে বলেছেন:

    সব পার্ট পড়া না হোলেও যে যে পার্ট পড়ছি তা ভাললাগছে।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top