Today 19 May 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

এক জীবনের ট্রাজেডী(৩য় পর্ব)

লিখেছেন: সারমিন মুক্তা | তারিখ: ২৫/০৯/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 753বার পড়া হয়েছে।

মোবাইলের কাছে এসে দেখি প্রায় ১০টি মিসকল।
মিসকল চেক করতেই দেখি শারমিনের মায়ের কল। দিধায় পড়ে গেলাম উনিতো আমাকে কল দেবার মত মানুষ না তবে আজ আমায় কেন কল দিলো।
শারমিনের মাকে কল দেবার আগে শারমিন কে কলদিলাম।
-হ্যালো কিরে
– তোর মা আমায় অনেক গুলো মিস কল দিলো।
-হ্যা কথা বল তবে যদি জানতে চায় আমার পার্সোনাল কোন পছন্দ আছে কিনা তবে বলে দিবি নেই।
-ওকে ঠিক আছে।
-লাইনটা কাটার পর শারমিনের মাকে কল দিলাম। যদি ভয়ে কাপছিলো হাত পা।
-কেমন আছ মুক্তা।
-জ্বী আন্টি ভাল আপনারা।
-ভাল থাকতে দিলা কোথায়।
-আমি আপনাকে ভাল থাকতে দেইনী মানি। আমি আবার কি করলাম।
-তুমি বলতে তোমার বান্ধবী। বিয়ে করতে চায় না। যদি ওর কোন পার্সোনাল পছন্দ থাকে ও বলতে পারে আমাদের এই ভাবে অপমান করছে কেন?
-আন্টি ওটা আপনাদের ফ্যামিলি মেটার ওখানে আমাকে না টানাই ভাল। আর তাছাড়া আমি তো আপনাদের পরিবারের কেউনা।
-ঠিক আছে পরিবারের ব্যাপার ও তোমাকে খুব বিশ্বাস করে সেটা আমি জানি ওর ভিতর গত কথা কেউ না জানুক তুমি জানো। আর আমি ও তোমাকে বিশ্বাস করি।
-হঠাৎ ওপাশ থেকে শারমিনের ছোট বোন বলে উঠলো বলো যে ওর কাছে পরিবারের সদস্যদের চাইতে মুক্তা বেশি আপন।
-কথাটা শুনে আমার খুব অপমানিত বোধ হলো। মনে মনে ভাবছিলাম কি বলা যায় রেগে ও যাচ্ছিলাম। নিজেকে বললাম এখন মাথা গরম করিস না মুক্তা একটু ভেবে চিন্তে কথা বল।
-শারমিনের মাকে বললাম আসলে কি আন্টি টুম্পা ছোট মানুষ ছোট কথা বলাই ভাল কথার সাইজটা যখন বড় হয়ে যায় তখন তাকে বেয়াদবীর সমতুল্য বলা যায় যাই হোক আমি এখন ওখানে যাচ্ছি না।
-না না মুক্তা তুমি ওর কথা ও ভাবে নিচ্ছ কেন? ও সেটা বুঝাতে চায়নী।
– আন্টি আমি বরাবর জানি ও কি ধরনের।
-এখন মা তুমি শারমিন কে জিজ্ঞাসা করো ওর কোন পছন্দ আছে কিনা?
-থাকলে কি করবেন?
-ওর পছন্দ মতো বিয়ে দিবো।
– তাই নাকি?
– ওর যেখানে সুখ সেটাই আমরা করবো।
-ঠিক আছে আমি জিজ্ঞাসা করবো।
( একদম স্বিকার করলাম না ওর সর্ম্পকটার কথা কারন এখন যদি স্বীকার করি তবে হিতে বিপরীত হবে তাই এরিয়ে গেলাম।)
-তো আন্টি ভাল থাকেন জেনে আমি আপনাকে জানাবো।
-কবে জানাবো ।
-দেখি আস্তে ধীরে কথাটা বের করি আর আমার মনে হয়না ও আমাকে ব্যপারটা বলবে।
-দেখ তোমার কাছে বলবে হয়তো।
-ওকে বলে দেখি। ভাল থাকবেন।
প্রায় ৫দিন পর শারমিনের মা আমায় আবার কল দিতে শুরু করলো। শারমিনকে বললাম তোর মা আমায় কল দিচ্ছে।
অবশেষে বুদ্ধি করলাম শারমিনের আর মাহবুবের সর্ম্পকটা ওর মাকে বলব।

(চলবে)

৭৩৮ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
UDC Brance Propaitor
সর্বমোট পোস্ট: ৪৮ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ১৬৪ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৪-০২-১৩ ০৩:২৯:১৬ মিনিটে
banner

৩ টি মন্তব্য

  1. কামাল উদ্দিন মন্তব্যে বলেছেন:

    আগের গুলো পড়িনি, এখান থেকেই শুরু করলাম,,,,,,,,,সময় করে আগের গুলো পড়ার চেষ্টা করবো। মনে হচ্ছে চমৎকার একটা বাংলাদেশী পারিবারিক গল্প।

    শুভেচ্ছা

  2. সাঈদ চৌধুরী মন্তব্যে বলেছেন:

    পারিবারিক গল্পটি সুন্দর ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে । তবে আগের সবগুলো পড়তে পারিনি । ধ্যণবাদ সুন্দর লেখার জন্য ।

  3. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    পারিবারিক গল্প ইজ নাইস

    দারুন সুন্দর লিখনী
    শুভ কামনা রইল
    শুভ সন্ধ্যা আপনাকে

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top