Today 25 Jan 2020
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

কপোতাক্ষ নদ

লিখেছেন: মুহাম্মদ আনোয়ারুল হক খান | তারিখ: ২০/০৬/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1088বার পড়া হয়েছে।

কপোতাক্ষ নদ

মাইকেল মধুসূদন দত্ত

 

সতত, হে নদ, তুমি পড় মোর মনে!

সতত তোমার কথা ভাবি এ বিরলে;

সতত (যেমতি লোক নিশার স্বপনে

শোনে মায়া- মন্ত্রধ্বনি) তব কলকলে

জুড়াই এ কান আমি ভ্রান্তির ছলনে!

বহু দেশ দেখিয়াছি বহু নদ-দলে,

কিন্তু এ স্নেহের তৃষ্ণা মিটে কার জলে?

দুগ্ধ-স্রোতোরূপী তুমি জন্মভূমি-স্তনে।

 

 

আর কি হে হবে দেখা?- যত দিন যাবে,

প্রজারূপে রাজরূপ সাগরেরে দিতে

বারি-রুপ কর তুমি; এ মিনতি, গাবে

বঙ্গজ জনের কানে, সখে, সখা-রীতে

নাম তার, এ প্রবাসে মজি প্রেম-ভাবে

লইছে যে নাম তব বঙ্গের সংগীতে।

 

MichaelMadhusudanDatta

মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত (২৫ জানুয়ারি, ১৮২৪ – ২৯ জুন, ১৮৭৩) ঊনবিংশ শতাব্দীর বিশিষ্ট বাঙালি কবি ও নাট্যকার তথা বাংলার নবজাগরণ সাহিত্যের অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব। ব্রিটিশ ভারতের যশোর জেলার এক সম্ভ্রান্ত কায়স্থ বংশে জন্ম হলেও মধুসূদন যৌবনে খ্রিষ্টধর্ম গ্রহণ করে মাইকেল মধুসূদন নাম গ্রহণ করেন এবং পাশ্চাত্য সাহিত্যের দুর্নিবার আকর্ষণবশত ইংরেজি ভাষায় সাহিত্য রচনায় মনোনিবেশ করেন। জীবনের দ্বিতীয় পর্বে মধুসূদন আকৃষ্ট হন নিজের মাতৃভাষার প্রতি। এই সময়েই তিনি বাংলায় নাটক, প্রহসন ও কাব্যরচনা করতে শুরু করেন। মাইকেল মধুসূদন বাংলা ভাষায় সনেট ও অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক। তাঁর সর্বশ্রেষ্ঠ কীর্তি অমিত্রাক্ষর ছন্দে রামায়ণের উপাখ্যান অবলম্বনে রচিত মেঘনাদবধ কাব্য নামক মহাকাব্য। তাঁর অন্যান্য উল্লেখযোগ্য গ্রন্থাবলি: দ্য ক্যাপটিভ লেডি, শর্মিষ্ঠা, বুড়ো শালিকের ঘাড়ে রোঁ, একেই কি বলে সভ্যতা, তিলোত্তমাসম্ভব কাব্য, বীরাঙ্গনা কাব্য, ব্রজাঙ্গনা কাব্য, চতুর্দশপদী কবিতাবলী, হেকটর বধ  ইত্যাদি। মাইকেলের ব্যক্তিগত জীবন ছিল নাটকীয় এবং বেদনাঘন। মাত্র ৪৯ বছর বয়সে কলকাতায় কপর্দকশূন্য করুণ অবস্থায় মৃত্যু হয় এই মহাকবির।

১,১৬২ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমার জন্ম পিরোজপুরে নানা বাড়িতে। দাদা বাড়িও পিরোজপুরে। পিরোজপুর শহরের সার্কিট হাউজ – ফায়ার সার্ভিস এর মাঝখানে আমাদের বাড়ি। পিরোজপুর আমার কাছে স্বপ্নের শহর। যদিও ক্লাস থ্রী থেকে আমি ঢাকাতে মানুষ। এসএসসি ১৯৯৬ সালে। পড়াশুনা করেছি ফার্মেসিতে, পরে এমবিএ করেছি আন্তর্জাতিক বিপননে। জুলাই ১৫, ২০১১ থেকে সব ধরনের রাজনৈতিক আলোচনা থেকে অবসর নিয়েছি। বিশেষ ব্যক্তিত্বঃ নবিজী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বঃ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান যে ব্যক্তিত্ব আমাকে টানেঃ ডঃ মুহম্মদ ইউনুস প্রিয় লেখকঃ মুহম্মদ জাফর ইকবাল, হুমায়ুন আহমেদ, হেনরি রাইডার, জুল ভান প্রিয় টিভি সিরিয়ালঃ Spellbinder, Spellbinder 2: Land of the Dragon Lord, The girl from tomorrow, Tomorrows end, Time Trax, MacGyver, Alice in Wonderland, The Chronicles of Narnia প্রিয় টিভি নাটকঃ কোথাও কেউ নেই, অয়োময়, রুপনগর, বহুব্রিহী, বার রকম মানুষ প্রিয় টিভি শোঃ ইত্যাদি, সিসিমপুর, Pumpkin Patch Show লেখালেখি আমার শুধু শখই না, মনে হয় যেন রক্তের টান। বিশেষ করে বিজ্ঞান-কল্পকাহিনি। বিজ্ঞান-কল্পকাহিনি আমার কাছে রঙ্গিন ঘুড়ির মত। কল্পনার সীমানা পেরিয়ে যে ছুটে চলে মহাজগতিক পরিমণ্ডলে। এ যেন সময়টাকে স্থির করে দিয়ে এর আদি-অন্ত দেখার মত। তারপরও এ ঘুড়ি যেমন ইচ্ছে তেমন উড়তে পারে না, সুতোয়ে টান পড়ে বলে। এ টান যুক্তির টান। যৌক্তিক কল্পনা বললে ভুল হয় না। তারপরও নিজ ইচ্ছেয়ে সুতোটাকে ছিঁড়ে দিতে ভাল লাগে মাঝে মাঝে। আমি যেমন নিজে স্বপ্ন দেখি তেমনি সবাইকে স্বপ্ন দেখাতে চাই। অঞ্জন দত্তের ভাষায় বলতে হয়, ‘মাঝরাতে ঘুম ভেঙে যখন-তখন কান্না পায়, তবু স্বপ্ন দেখার এই প্রবল ইচ্ছাটা কিছুতেই মরবার নয়।’ কনফুসিয়াসের এই লাইন টা আমাকে খুব টানে … journey of a thousand miles begins with a single step। আমার প্রথম লেখা প্রকাশ হয় ১৯৯৬ সালে আধুনালুপ্ত বিজ্ঞান সাপ্তাহিক আহরহ তে। আমার নিজের একটা ব্লগ আছে, mahkbd.blogspot.com। আমার ইমেইল mahkbd@gmail.com।
সর্বমোট পোস্ট: ৯৬ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ১৫৫ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৫-১১ ০৩:১৪:৫৫ মিনিটে
banner

১১ টি মন্তব্য

  1. আজিম হোসেন আকাশ মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ আপনাকে শেয়ার করার জন্য।

  2. মিলন বনিক মন্তব্যে বলেছেন:

    আহ! কতদিন পড়া হয়নি “সতত হে নদ তুমি পড় মোর মনে…..

  3. আরিফুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    কবিতাটি আমার কাছে ভালো লাগল।

  4. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    এই কবিতা টা আমার খুব পসন্দের কবিতা। কিন্তু এই কবিতাকে ভয় ও পেতাম সমীহ ও করতাম ব্যাখা গুলি কঠিন বলে ,

  5. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    ছোট বেলায় আমার স্কুল লাইফ এ এই চতুর্দশ পদী কবিতা
    খুব কঠিন বিশেষত ব্যাখ্যা গুলি

    তো আমি এটা কে নিয়ে প্যারডি বানিয়েছি পড়বেন মজা নিবেন রাগ করবেন না প্লিস
    তোমার জন্য এ চতুর্দশপদী ভালবাসা

    সতত হে সোনামনি তুমি পড় মোর মনে
    সতত তোমারি কথা ভাবি হে বিরলে ।
    সতত সোনামনি তোমার ও কি পড়ে মোরে মনে
    সতত সোনামনি তুমি কি ভাব আমার কথা হে বিজনে ।

    সতত সোনামনি আমি রেগে আছি ভিশন
    সতত কেন দেখা যে আর দেওনা বড় ।
    সতত মরিয়া আছি আমি দেখতে তোমায়
    সতত জান মরিয়া আছি তোমার হাসিতে ।

    সতত প্রাণ কি যে তোমার শোভা
    সতত মরি মরি দেখে তোমার রূপ
    সতত তোমার কি পড়েনা মনে আমার ই মুখ
    সতত তোমার কি পড়েনা একবার ও মনে আমার কথা

    সতত এখনো করে আছি অপেক্ষা তোমার
    সতত আসবে কি ফিরে আবার এ মধু সধিক্ষণে

  6. তুষার আহসান মন্তব্যে বলেছেন:

    মাইকেলের তুলনা নাই।

  7. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর লিখেছেন তো !
    অসংখ্য অসংখ্য ভাল লাগা জানিয়ে দিলাম ।

  8. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    কিন্তু এ স্নেহের তৃষ্ণা মিটে কার জলে?
    দুগ্ধ-স্রোতোরূপী তুমি জন্মভূমি-স্তনে।

    এসব কবিতা কোন তুলনাকরা যায় না

    অপূর্ব সৃষ্টি চির অমর

  9. সহিদুল ইসলাম মন্তব্যে বলেছেন:

    অনেক আগে পড়েছিলাম , আজকে আবার পড়লাম , ভালো লাগলো , ধন্যবাদ আপনাকে।

  10. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    স্কুলে পড়েছি – আজ আবার পড়লাম। ভাল লাগল।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top