Today 07 Mar 2021
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

গরুর হৃদযন্ত্রে নবজীবন

লিখেছেন: অনিরুদ্ধ বুলবুল | তারিখ: ২৫/০৭/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 818বার পড়া হয়েছে।

Heart transplant

গরুর হৃদপিণ্ড দ্বারা তৈরি একটি হৃদযন্ত্র (ভালভ) জীবন ফিরিয়ে দিল ৮১ বছরের এক বৃদ্ধার। ওই বৃদ্ধার বাড়ি ভারতের হায়দরাবাদে। তিনি মহাধমনীর হৃদযন্ত্র (অ্যারটিক ভালভ) সংকুচিত হওয়ার রোগে ভুগছিলেন।

শুক্রবার চেন্নাইয়ের ফন্ট্রিয়ার লাইফলাইন হাসপাতালে ব্যতিক্রমধর্মী অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে গুরুর হৃদপিণ্ড দিয়ে তৈরি কৃত্রিম একটি হৃদযন্ত্র ওই নারীর শরীর সফলভাবে প্রতিস্থাপন করলে নতুন জীবন ফিরে পান তিনি।

ওই হাসপাতালের চিকিৎসক কে এম চেরিয়ান বলেন, ‘যারা মহাধমনীর হৃদযন্ত্রের নালী সংকুচিত এবং এ রকম ঝুঁকিপূর্ণ রোগের প্রথাগত ওপেন হার্ট সার্জারি থেকে ব্যতিক্রমধর্মী সফল একটি পদক্ষেপ এটি।

বৃহস্পতিবার টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, ১১ বছর আগে সার্জারির মাধ্যমে ওই নারীর হৃদপিণ্ড প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল। সেই বছর থেকেই তার হার্টের সমস্যা দেখা দেয়। তিনি দেশের বেশ কিছু হাসাপাতালে চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। কিন্তু কোনো ইতিবাচক ফল পাননি।

অস্ত্রোপচারের অংশ নেওয়া হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আনানথারামান বলেন, শ্বাস-প্রশ্বাসজনিত মারাত্মক সমস্যা নিয়ে তিনি এপ্রিল এ হাসপাতালে আসেন এবং ভর্তি হন। পরীক্ষা করে দেখা যায় তার মহাধমনীর হৃদযন্ত্র সংকুচিত হয়ে আসছে। অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে আক্রান্ত হৃদযন্ত্রকে সরিয়ে ফেলে সেই জায়গায় নতুন আরেকটি হৃদযন্ত্র প্রতিস্থাপন করা হয়।

তবে নারীর বয়সের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে সবচেয়ে কম সময়ের মধ্যে অস্ত্রোপচারের চেষ্টা করেন চিকিৎসকরা।

তিনি আরো বলেন, ওই অস্ত্রোপচারে গরুর হৃদপিণ্ডর টিস্যু থেকে তৈরি করা একটি কৃত্রিম হৃদযন্ত্র ব্যবহার করি। তার কুঁচকির একটি বড় ধমনীর মধ্যে দিয়ে মূত্রাশয়ে হৃদযন্ত্রটি স্থাপন করা হয়।

খবরে বলা হয়, অস্ত্রোপচারটি বেশ জটিল ছিল। এর আগে হৃদপিণ্ডে অস্ত্রোচার ছাড়াও স্তন ক্যানসারের জন্য দীর্ঘদিন চিকিৎসাও তিনি নিয়েছিলেন।

তথ্যসূত্রঃ http://www.now-bd.com/2015/07/16/418932.htm

৮১৪ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
কৈফিয়ত - তোমরা যে যা-ই ব'ল না বন্ধু; এ যেন এক - 'দায়মুক্তির অভিনব কৌশল'! যেন-বা এক শুদ্ধি অভিযান - 'উকুন মেরেই জঙ্গল সাফ'!! প্রতিঘাতের অগ্নি-শলাকা হৃদয় পাশরে দলে - শুক্তি নিকেশে মুক্তো গড়ায় ঝিনুকের দেহ গলে!! মন মুকুরের নিঃসীম তিমিরে প্রতিবিম্ব সম - মেলে যাই কটু জীর্ণ-প্রলেপ ধূলি-কণা-কাদা যত। রসনা যার ঘর্ষনে মাজা সুর তায় অসুরের দানব মানবে শুনেছ কি কভু খেলে হোলি সমীরে? কাব্য করি না বড়, নিরেট গদ্যও জানিনে যে, উষ্ণ কুসুমে ছেয়ে নিয়ো তায় - যদি বা লাগে বাজে। ব্যঙ্গ করো না বন্ধু আমারে অচ্ছুত কিছু নই, সীমানা পেরিয়ে গেলে জানি; পাবে না তো আর থৈ। যৌবন যার মৌ-বন জুড়ে ঝরা পাতা গান গায় নব্য কুঁড়ির কুসুম অধরে বোলতা-বিছুটি হুল ফুটায়!! ভাল নই, তবু বিশ্বাসী - ভালবাসার চাষবাসে, জীবন মরুতে ফুটে না কো ফুল কোন অশ্রুবারীর সিঞ্চনে। প্রাণের দায়ে এঁকে যাই কিছু নিষ্ঠুর পদাবলী: দোহাই লাগে, এ দায় যে গো; শুধুই আমার, কেউ না যেন দুঃখ পায়।
সর্বমোট পোস্ট: ১৪৩ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৪২২ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৫-০২-১৪ ০২:৫৯:৫৩ মিনিটে
banner

৪ টি মন্তব্য

  1. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    কত কিছুই ঘটে যায় আজব দুনিয়ায়

    ধন্যবাদ সুন্দর তথ্যটি শেয়ার করার জন্য

    • অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

      দুঃখিত বন্ধু-
      ইদানিং পাতায় কম আসছি তাই মন্তব্যেের জবাবে দেরি হল
      ক্ষমা করবেন। ভাল থাকুন, শুভেচ্ছা সতত –

  2. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর তথ্য
    শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top