Today 17 Oct 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

গল্পকাব্য : অভিমান

লিখেছেন: এম, এ, কাশেম | তারিখ: ২৬/১০/২০১৬

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 460বার পড়া হয়েছে।

kashem1995-1477033346-d4c6479_xlarge-1

অভিমান!
হায়রে অভিমান!!
.

অভিমান করে কিছু বললে না তারে , জানালে না কিছু ইশারা ইঙ্গিতে, মনের গহীনে গোপন কথা ও বুঝতে
দিলে না তারে; অথচ জানার জন্যে কতদিন সে তোমার মুখের দিকে চেয়েছিলো, গিয়েছিলো তোমার পিছু পিছু,
ঘুর ঘুর করেছিলো তোমার আশে পাশে , চেয়েছিলো একটু ভাল লাগা মেহেদী রাঙ্গা হাতের অনুপম কোমল
ছোঁয়া, চাঁদমুখে পূর্ণিমার দ্বাদশী চন্দ্রহাসি, হাসিমুখে দু’চারটি মনের মত সহজ সুন্দর মিষ্টি মধুর জীবন সংশ্লিষ্ট
অনন্য সোহাগী সুখবোধে মননের গহীন আনন্দ কথা; তোমারই চোখের ‘পরে চোখ রেখে কতবার চেয়েছিলো
একটু আশ্রয়, আধটু প্রশ্রয় ,কিছু আশা আর কিছু ভরসা।

.

যদি বলো তারে ভালবাসা –
সে তো চেয়েছিলো তা;
চেয়েছিলো তোমার অজান্তে
চেয়েছিলো তোমারে একান্তে;
ইশারা ইঙ্গিতে
অনুভবে অনন্তে…………
.

তুমি বুঝেও বুঝোনি অথবা বুঝতে চাওনি,
একবার ও ফিরে তাকাওনি;
সে কি তোমার নিরব অভিমান
নাকি আহ্লাদি হৃদয়ের অলিক অহংকার?
.

কিছুই না শুনে তোমার মুখে , কিছুই না দেখে তোমার চোখে – কিছুই না পেয়ে তোমার কাছে – অবশেষে আশাহত
ভালবাসার নাও হতাশার সাগরে নিমজ্জিত করে অভিমানাহত হৃদয়ে যুবক অভিমানের পথে নিজেকে অপসৃত করলো।
স্বেচ্ছা নির্বাসনে গেলো অভিমানি যুবক দেশ ছেড়ে বিদেশে, দুরে … বহু দূরে….. সাত সাগর তেরো নদীর ওপাড়ে,
যেখানে কাছে পেয়ে ও না পাওয়ার অনন্ত বেদনায় পুঁড়তে পুঁড়তে অঙ্গার হতে হয় না অহর্নিশ।।
.

অথচ আজ তুমি তাকেই দায়ী করে নিজে নিজের অভিমানের মাথা খাও।
পথ চেয়ে থাকো
চোখের জলে ভাসো
অপেক্ষার আখি মেলে রাত জাগো………..
কেন জাগো?
কার জন্যে কাঁদো?
.

কাঁদো অভিমানি কাঁদো!
একটু শান্তনা যদি পাও তবে কাঁদো।
কেঁদে কেঁদে বুকের বোঝা হালকা করো।
.

এত প্রেম বুকের গভীরে গহীন অতলে অভিমানি পাথরে চাপা দিয়ে নিরবে নিভৃত্বে নিঃসঙ্গ রাতে চোখের জলে বুক ভাসিয়ে
কাঁদো, অভিমানাহত হৃদয়ে বিরহ বিধুর শান্তনা পেতে পূর্ণিমা রাতে আলো ঝলোমলো আকাশে দূরের তারার পানে চেয়ে
কাঁদো। বসন্ত বাতাসে মধ্য রাতে দূরের বনে বিরহী কোকিলের অভিমানি কান্নার সনে সুর মিলিয়ে বিরহের অভিমানে কাঁদো।
অভিমানি মেঘের সাথে শ্রাবন রাতে বাতায়ন খুলে কাঁদো।
.

জীবনের নন্দিত কাননে নিন্দিত ভালবাসা অভিমানের দ্বন্ধে বিরহ বিধুর গন্ধে, হৃদয়ের অনন্তে মধুর ছন্দে , বেদনার তরঙ্গে
দোলে দোলে দোলে নদীর দু’ কূলে আঁচড়ে পড়ে কূল ভেঙ্গে চর গড়ে; চরের অসীম শূন্যতায় শুধু হৃদয়ের নিভৃত্বে হাহাকার
জাগে; নিরবে নিপাবনে দখিনা বাতাসে ফুফিয়ে উঠে বোবা হৃদয়ের করূন বিলাপ, সবুজে সোহাগে হয়নি কখনও কোন মধুর
সংলাপ, হয়তো হবে না কোনদিন। হয়তো বা হবে……একদিন…..কোনদিন…….
.

এমনি ভাবেই অভিমানের পঙ্কিল প্যাঁকে ঘুরপাক খেতে খেতে শুচী সুভ্র – সুন্দর দু’টি অবুঝ অভিমানি হৃদয়
অভিমানের সাগরে জলের জোয়ারে সলিল ঘূর্ণীর অতল গহ্বরে হারিয়ে গেলো চিরতরে। নদীর বুকে জলের তরলে
তরঙ্গ দোলে, অভিমানি রাতে চাঁদনি প্রহরে কুল কুল রবে বয়ে চলে গন্থব্যহীন অজানার পথে – হৃদয়ের অনুরাগে
অভিমানি বিলাপে অথবা অজানা অচেনা অভিমানি অভিশাপে……..

৪৬১ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
সর্বমোট পোস্ট: ২২২ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৮০৯ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৮-২৬ ০৫:৪৪:৩৪ মিনিটে
banner

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top