Today 15 Oct 2018
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

গাড়ির ড্রাইভার আর দেশের ড্রাইভারের মিল যেখানে…

লিখেছেন: টি. আই. সরকার (তৌহিদ) | তারিখ: ১১/০৫/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 458বার পড়া হয়েছে।

বাসের ড্রাইভার আর দেশের ড্রাইভার একই ধাতু দিয়ে গড়া কি না কে জানে ! তবে কিছু কিছু ঘটনা দু’জনকে কিন্তু মাঝে-মধ্যেই এক বিন্দুতে মিলিয়ে দেয় !

এই তো সেদিন (এই বছরের প্রথম ভূমিকম্পের দিন-২৫ এপ্রিল-২০১৫) অফিস থেকে বিশেষ প্রয়োজনে ঢাকা যাচ্ছিলাম ! সম্ভবত আজমেরী গ্লোরী নামের একটা গাড়িতে করে যাচ্ছিলাম ! এমইএস এর কাছাকাছি হোটেল রেডিসনের সামনের স্পীড ব্রেকারে ফুল স্পীডে গাড়ি উঠিয়ে দিলো ড্রাইভার ! প্রকৃতির ভূমিকম্পের চেয়েও যেন বড় ভূমিকম্প হয়ে গেল গাড়ির ভেতর ! গাড়ির গ্লাস ভাঙল, একজনের হাত কেটে রক্ত ঝরতে শুরু করলো, কয়েকজনের মাথায় আঘাত পেল ! বিধাতার কৃপায় গাড়ির মাঝামাঝি বসার কারণে আঘাত পাওয়া থেকে কোন রকমে বেঁচে গেছি আমি ।

এই কথাগুলো বলার কারণ কি ? এটাই তো ভাবছেন ? হুম, বলছি…

দেখুন, প্রথমত ড্রাইভার গাড়ি চালায় আমরা ঐ গাড়িতে চড়ি বলেই ! তেমনি দেশের ড্রাইভারও তার গাড়ি চালায় একই কারণে ! গাড়িতে ওঠার আগে গাড়ির ড্রাইভারের নিজস্ব লোকজন ঐ গাড়িতে ওঠার জন্য কত ডাকাডাকি আর অনুরোধ করে ঠিক তেমনি নির্দিষ্ট সময়ের আগে এমনটাই করে দেশের ড্রাইভারের লোকজনও ! গাড়িতে ওঠার পর ঐ ড্রাইভারের কাছে যাত্রীদের কথার কোন দামই থাকে না, নিজের মন ইচ্ছেমত গাড়ি চালায় ! দেশের ড্রাইভারের কাছে জনগণের কথার মূল্যটাও এর চেয়ে ব্যতিক্রম কি ? নিজের মন ইচ্ছেমত ড্রাইভিং করে কোন একটা দুর্ঘটনা ঘটলে প্রায়শ ক্ষতিগ্রস্ত হয় সাধারণ যাত্রীরাই আর গাড়িটাও ! আর দেশের ড্রাইভারের ক্ষেত্রে সাধারণ জনগণ আর দেশটাও ! গাড়ি বদল করে অন্য ড্রাইভারের গাড়িতে উঠা যায় ঠিকই কিন্তু আচরণ ঐ একটাই ! আমাদের দেশের ক্ষেত্রেও এমনটাই নয় কি ? সর্বশেষে আর যাই করি, চলতে গেলে কোন না কোন ড্রাইভারের গাড়িতে তো উঠতেই হবে তেমনি দেশের ক্ষেত্রেও নয় কি ?

এবার গাড়ির জায়গায় দেশটাকে, ড্রাইভারের জায়গায় সরকারকে আর সাধারণ যাত্রীদের জায়গায় দেশের জনগণকে বসিয়ে আপনিই একটু ভেবে দেখুন…. কি মনে হচ্ছে ? মিল আছে- না নেই ?

৪৫৬ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
কবিতার প্রতি ভালোলাগা থেকেই আমার লিখার হাতেখড়ি । কবিতার ছন্দ আমাকে ভীষণ টানে । আর তাই কবিতা পড়া কিংবা লিখায় ছন্দ খুঁজে ফিরি প্রতিনিয়ত । সে কারণেই কি না আহসান হাবীব, জীবনানন্দ কিংবা জসীম উদ্দিনের মতো কবিদের লিখা আমাকে একটু বেশিই টানে ! বিরহের কবিতাও ভীষণ ভালো লাগে । লিখাটা অবশ্য আমার শখের একটা অংশ । লিখায় আমি যে খুব একটা পারদর্শী নই সেটা কেউ সরাসরি না বললেও বুঝতে পারি । তাছাড়া আমার শব্দভাণ্ডার কতটা সীমিত তা আমার লিখা পড়লে যে কেউ বুঝতে পারবেন । তবুও নিজের মনের ক্ষুধা নিবারণ করতে লিখে যাই । লিখতে ভালো লাগে । খুব কঠিন করে লিখতে পারিনা । অবশ্য সেরকম চেষ্টাও যে খুব একটা করা হয় তেমনটাও নয় ! অনলাইন ব্লগে লিখায় হাতেখড়ি এই (২০১৫ সাল) ফেব্রুয়ারিতে, নক্ষত্র ব্লগে । (২০১৫ সাল) মার্চে যুক্ত হলাম চলন্তিকায় । অবশ্য ফেসবুকে বছর দুয়েক আগে থেকেই মাঝে-মধ্যে লিখা হয়েছে । বলতে পারেন নগণ্য এক লেখক আমি- যে কি না শুধু নিজের মনের আনন্দের জন্যই লিখে । আর তাই এখনো (০৮-০৩-২০১৫) পর্যন্ত কোন প্রিন্ট মিডিয়াতে আমার লিখা জমা দেইনি কিংবা দেবার চেষ্টাও করিনি । স্বাভাবিকভাবেই, আমার কোন লিখা কোন প্রিন্ট মিডিয়াতে আজ পর্যন্ত ছাপার অক্ষরে মুদ্রিত হবার সুযোগ পায়নি । ইদানিং অবশ্য এ (প্রিন্ট মিডিয়া) ব্যাপারে একটু আগ্রহ জন্মেছে । সম্ভবত নবম শ্রেনিতে প্রথম কবিতা লিখি । এক বড় ভাই দেখে বলল, "তুমি তো খুব ভালো লিখ । তোমার কবিতাটা দিও ! আমি কম্পিউটারে কম্পোজ করে দেব ।" ছাপার অক্ষরে লিখা হবে আমার কবিতা... ভাবতেই আনন্দ লাগছিল ! সেই থেকে মূলত কাগজ-কলমের সাথে যোগাযোগ । নিয়মিত লিখা হয়নি কখনোই । তবে মাঝে-মধ্যে কিছু ভাবনা মনে এমনভাবে উথালপাতাল শুরু করে যে না লিখা পর্যন্ত মনে শান্তি আসে না । না চাইলেও তাই মাঝে মাঝে লিখতেই হয় । ইদানিং অবশ্য কিছুটা সময় দিচ্ছি এক্ষেত্রে । তবুও সেটা মনের ভাবকে গুছিয়ে তোলার জন্য যথেষ্ট নয় । লিখার ব্যাপারে কবি নজরুলের একটি কথা ভীষণ প্রিয় আমার -"বনের পাখির মতো স্বভাব আমার- কারো ভালো লাগলেও গাই, না লাগলেও গাই !" কবিতা লিখার পাশাপাশি খেলাধুলা করা, খেলা দেখা, পত্রিকা পড়া, টিভি দেখা এমনকি ছোটদের সাথে সময় কাটানোও আমার অন্যতম শখ । তবে সবচেয়ে বড় শখ ভ্রমণ । প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের খুব সাধারণ এক পরিবারের ছেলে আমি । ব্যক্তি হিসেবেও খুব সাধারণ । হিসাববিজ্ঞানে মাস্টার্স (২০১২) শেষ করে ব্যক্তিমালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানে কাজ করছি । জীবনে তেমন কোন উচ্চাশা নেই । সবাইকে নিয়ে একটু ভালো থাকা... এই তো চাওয়া !
সর্বমোট পোস্ট: ১১৩ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ১৯০০ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৫-০৩-০৮ ০৩:০৩:৫৯ মিনিটে
banner

৮ টি মন্তব্য

  1. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর বলেছো ভাইয়া

    একদম ঠিক কথা

    ধন্যবাদ সাহসী কথনের জন্য

  2. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    গাড়িতে উঠলে যেমন আপনার জীবন মরণ ড্রাইভারের খেয়াল খুশীর উপর নির্ভর করে
    দেশের ক্ষেত্রেও তদ্রুপ – শাসকের গোয়ার্তুমীতে আপনাকে খেসারত দিতে হতে পারে।
    ভাল লাগল। ধন্যবাদ।

    • টি. আই. সরকার (তৌহিদ) মন্তব্যে বলেছেন:

      চমৎকার বলেছেন আপনিও । অনেক সুন্দর অনুভূতি রেখে যাওয়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ প্রিয় কবি ।

  3. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    কবি বুলবুল ভাইয়রে সাথে সহমত

    ভালো লাগলো

    • টি. আই. সরকার (তৌহিদ) মন্তব্যে বলেছেন:

      সহমত জেনে ভালো লাগলো । তবে নিজে থেকে কিছু বললে আরো ভালো লাগতো ।
      অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানবেন ।

  4. মাজেদ হোসেইন মন্তব্যে বলেছেন:

    প্রথমত ড্রাইভার গাড়ি চালায় আমরা ঐ গাড়িতে চড়ি বলেই ! তেমনি দেশের ড্রাইভারও তার গাড়ি চালায় একই কারণে।

    ভাল লাগল । যেখানে থাকেন ভালো থাকেন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top