Today 19 Nov 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

চিঠি । ধার দেনা কর্জ ।

লিখেছেন: নিঃশব্দ নাগরিক | তারিখ: ১১/০২/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 771বার পড়া হয়েছে।

বন্ধু বাকী

চিঠির প্রথমেই তোমাকে বিভ্রান্তিতে ফেলার জন্য ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি । অবশ্য এছাড়া আমার খুব একটা উপযুক্ত উপায়ও ছিল না । কেননা প্রেরকের  জায়গায় আমার নাম দেখলে এই চিঠি তোমার কাছে অনাবিষ্কৃত রয়ে যেত । অন্তত আমার মন তাই বলে । তোমার আমার সর্ম্পক জটিল পর্যায়ে পৌঁছিয়াছে এমন কথা আমি বলছি না । শুধু চিঠিটার  ‍দুর্ভাবনার কথা বলছি । আমাদের সর্ম্পক অতি উওম পর্যায়ে রয়েছে । তুমি ফোন দিলে আমার মোবাইলের রিসিভ বাটনটা কাজ করে না  । আমার আবার রাজ্যের ব্যস্ততা । তাছাড়া ফোনে কাউকে বিরক্ত করার অভ্যাস আমার নেই । জগতের সকল অসভ্যতা আমাকে প্রশ্রয় দিলেও এই বদভ্যাস আমার এখনো গড়ে উঠেনি । বিশেষত তোমার বেলায়’তো নয়ই । তাই কথা হয় না । তোমার পাওনা অর্থের ব্যাপারে আলোচনার ভিওিতে সমাধানে পৌঁছা সম্ভব হয় না । এর অর্থ এই নয় আমি তোমার শএু হয়ে গেছি । বরং তোমার অর্থ ফেরত দেওয়ার বিষয়ে আমি সর্বদা একনিষ্ঠ । কিন্তু তোমার মতো দ্বিতীয় কেউ আমাকে এমন বিশ্বাস করে কি ?

বন্ধু । প্রান ভগবানের দান । আর জীবন ধার দেনা কর্জের । এই নিয়ে খুব একটা চিন্তার কিছু নেই । আর সমাজে থেকে’তো আমরা সমাজতনএকে বেমালুম অন্বীকার করতে পারি না ।  এই ধার দেনাকে অন্যায় দৃষ্টিতে দেখারও খুব একটা যৌক্তিকতা দেখি না । কিছু ঋন বরং সর্ম্পক বৃদ্ধি করে । আজ তুমি আমাকে যতবার স্মরন কর ধার দেনার সর্ম্পক বিনে অতবার স্মরন করতে কি ? অবশ্যই না ।  তাছাড়া অর্থই সর্ম্পকের সকল অর্থ নয় । আশাকরি বন্ধুত্বের কাছে ঋনকে তুচ্ছ ভাবিবে । তাই অহেতুক পাওনা টাকার জন্য মোবাইল বার্তা পাঠিয়ে আমাকে তোমার প্রতি হীন করে তুলবে না । সঠিক সময়ে আমি তোমার ঋন পরিশোধে যথাযথ ভূমিকা পালন করব । এ বিষয়ে তোমার কোন সন্দেহ থাকা উচিত্য বলে মনে করি না । আর যদি না’ ই ফেরত দেই তবে অত দুশ্চিন্তার কি আছে ? বন্ধুর প্রতি বন্ধুর যদি কোন দাবী নাই থাকে তবে কেমন বন্ধু । আর যাই হোক তোমারতো কিছু বন্ধু জ্ঞান থাকা উচিত ।

বন্ধু । আমি মানুষ হিসেবে মন্দ না । এলাকার রগচটা চেয়াম্যানও আমার চরিএ নিয়ে কোনরকম সন্দেহ প্রকাশ করেনি । উপরন্ত আমার উজ্জ্বল ভবিষৎত কামনা করে একখানি চারি্িএক সনদ প্রদান করেছে । কিন্তু তুমি বন্ধু হয়ে যদি আমাকে সন্দেহের বৃওে ফেলে দাও তবে লোকে কি বলবে ? বদনাম কি একা আমার হবে ? তাই দু’জনের মঙ্গলের জন্যই বিষয়টা চেপে যাওয়া উচিত । সময় হলেই আমি তোমার পাওনা অর্থ স্বসস্মানে ফেরত দিয়ে দিব । তবে দিনকাল নির্দিষ্ট করে তোমার কাছে ছোট হতে পারবো না । হ্যাঁ অর্থ ধারের সময় মাএ এক সপ্তাহের কথা বলেছিলাম বটে কিন্তু তা’তো শুধুমাএ পাওয়ার নিশ্চয়তার তাগিদে । সুতরাং ঐ ব্যাপারটাকে তুমি অবশ্যই কৌশল হিসেবে বিবেচনা করবে বলে বিশ্বাস করি । নতুবা আমার সম্বন্ধে তোমার ভুল ধারনা জন্ম নিবে । তুমি বন্ধু হয়ে আমায় ভুল ভাববে এ আমি কিছুতেই সহ্য করতে পারি না । বন্ধুত্বের মূল্য আমি বুঝি । তাই তোমাকে স্মরন করিয়ে দিলাম । তুমি ভালো থেকো । আমি ভাল আছি বন্ধু ।

 

…………….নিঃশব্দ নাগরিক ।

 

পুনশ্চ ঃ ইদানীং বেশ টানাটানির মধ্যে আছি । হাজার পাঁচেক টাকা পাঠালে  কৃতজ্ঞ থাকতাম । আশাকরি একসপ্তাহের মধ্যেই সকল দেনা একসাথে পরিশোধ করে দিব ।

 

 

 

৮০৬ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
an impossible one with the maximum possibility to be a possible one.
সর্বমোট পোস্ট: ১২৬ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩১৬ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৭-৩১ ১৭:৪৬:৩৭ মিনিটে
banner

১ টি মন্তব্য

  1. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    Bhaloi to obedon
    bhalo thakben

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top