Today 13 Dec 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

চীনা রুপকথা – তিনটি পাথরের গল্প

লিখেছেন: নাসরিন খান রেশমা | তারিখ: ১৮/০৯/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1501বার পড়া হয়েছে।

এটি প্রাচীনকালের একটি গল্প। একবার একজন ব্যবসায়ী গভীর রাতে জনশূন্য পাহাড়ি অঞ্চল দিয়ে কোথাও যাচ্ছিলেন। এমন সময় একটি অপরিচিত কণ্ঠ ভেসে এলো: ‘মাটি থেকে কয়েকটি পাথর তুলে নাও। আগামীকাল তুমি যেমন খুশি হবে, তেমনি হবে অতৃপ্ত।’

 

ধনী লোক এই অপরিচিত লোকের উপদেশ গ্রহণ করলেন। তিনি মাটি থেকে তিনটি পাথর তুলে নিয়ে পকেটে রাখলেন। পরের দিন ভোরবেলায় তিনি গন্তব্যে পৌঁছুলেন। তখন তার মনে পড়ল পাথর তিনটির কথা। তিনি একে একে পকেট থেকে পাথর তিনটি বের করলেন এবং অবাক হয়ে দেখলেন যে, পাথর তিনটির একটি হীরা, একটি মুক্তা এবং অন্যটি পান্না। অবাক হবার পরক্ষণেই ব্যবসায়ী মূল্যবান তিনটি পাথরের মালিক বনে যাওযায় আনন্দে আত্মহারা হলেন। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই তিনি আফসোস করতে লাগলেন এবং আপন মনে বলতে লাগলেন, ‘হায়! আমি যদি আরো বেশি পাথর তুলে নিতাম।’ তার মনে ভীষণ অতৃপ্তিবোধ জন্ম নিল।

 

গল্পটির মর্ম কি আপনারা বুঝতে পেরেছেন? গল্পের পাথরগুলো আসলে প্রতীকী অর্থে ব্যবহার করা হয়েছে। ওই ব্যবসায়ী যদি তার সাধ্যমতো পাথর নিয়ে আসতো, তাহলে অনেক বেশি ধনী হতে পারতো। মানুষের জীবনে জ্ঞান বা ভালো পরামর্শ হলো মূল্যবান পাথরের মতো। এ-জিনিস যতো বেশি সম্ভব সংগ্রহ করা উচিত। জ্ঞান যত বেশি হবে, মানুষ ততো আলোকিত হবে, হবে মনের দিক দিয়ে ধনী। অবশ্য জ্ঞানের পিপাসা কখনো মেটে না। আফসোস থেকেই যায়। কিন্তু যতোটা সম্ভব জ্ঞান অর্জন করে যাওয়া উচিত। সেক্ষেত্রে দিন শেষে আফসোসের মাত্রা কম হবে। ব্যবসায়ী যদি তার সাধ্যমতো পাথর তুলে নিতেন, তাহলে অন্তত এ-কথা ভেবে সান্ত্বনা পেতেন যে, ‘আমি আমার সাধ্যমতো পাথর তুলে এনেছি।’

১,২৫২ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
সর্বমোট পোস্ট: ৩৮ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ০ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-১৭ ১২:৩২:৫৮ মিনিটে
banner

৫ টি মন্তব্য

  1. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    রুপকথার ইংগিতে বেশ বুঝাতে পেরেছেন ।
    ভাল লাগা জানালাম ।

  2. তাপসকিরণ রায় মন্তব্যে বলেছেন:

    রূপ কথার গল্প ভাল লেগেছে–তবে আরও সহজ ভাবে মর্ম কথা বোঝানো যেতো ।

  3. তুষার আহসান মন্তব্যে বলেছেন:

    “গল্পের পাথরগুলো আসলে প্রতীকী অর্থে ব্যবহার করা হয়েছে। ওই ব্যবসায়ী যদি তার সাধ্যমতো পাথর নিয়ে আসতো, তাহলে অনেক বেশি ধনী হতে পারতো। মানুষের জীবনে জ্ঞান বা ভালো পরামর্শ হলো মূল্যবান পাথরের মতো। এ-জিনিস যতো বেশি সম্ভব সংগ্রহ করা উচিত। জ্ঞান যত বেশি হবে, মানুষ ততো আলোকিত হবে, হবে মনের দিক দিয়ে ধনী। অবশ্য জ্ঞানের পিপাসা কখনো মেটে না। আফসোস থেকেই যায়। কিন্তু যতোটা সম্ভব জ্ঞান অর্জন করে যাওয়া উচিত। সেক্ষেত্রে দিন শেষে আফসোসের মাত্রা কম হবে। ব্যবসায়ী যদি তার সাধ্যমতো পাথর তুলে নিতেন, তাহলে অন্তত এ-কথা ভেবে সান্ত্বনা পেতেন যে, ‘আমি আমার সাধ্যমতো পাথর তুলে এনেছি।’”

    রুপকথা তো ভালই, এটা আরো ভাল লাগল।

  4. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    চমৎকার রূপকথা ,

    অনেক ভাল লাগা।

  5. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    চীনা রূপকথা ভাল লাগল।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top