Today 12 Nov 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

জাগরণ

লিখেছেন: ফেরদৌসী বেগম (শিল্পী) | তারিখ: ১০/০১/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1028বার পড়া হয়েছে।

জাগরণ

ভোরের ঐকতানের সংগীতের আগমণে,
জাগরিত হতে হবে, গাইতে হবে যে গান,
অস্পৃষ্ট প্রতিটা নুতন দিনের জন্য,
অপেক্ষা করতে হবে তাকে ভরিয়ে দেওয়ার জন্য।

আমাদের একটি রংধনু আঁকাতে হবে,
সাথে থাকবে তার সকল প্রতিশ্রুতি।
নয়ত ঢিমে ওই ক্যান্ভাসটাও যে,
ম্লান হয়ে ফুটে উঠবে।

প্রতিটা দিনই যখন তার নিজস্ব রং বইয়ে নিয়ে আসে,
তখন শুধুই নির্বাচন আর মিশ্রিত করতে হবে।
আনন্দের রঞ্জকে, শুভ মুহূর্তটাকে,
হাসি আর অট্রহাসি, এই সব মিলিয়ে।

আমাদের তখন যা আঁকাতে হবে, তা শুধুই জীবনের জন্য,
নিজস্ব উপায়ে, সমস্ত প্রয়োজনে নির্মান করতে হবে।
মূল্যবান কিছু, যা হবে ধীর্ঘস্থায়ী সৌন্দর্য্য,
হবে আমাদের যাত্রার পথটাও চিহ্নিত।
আঁকাতে তো হবেই, আমরা যে চিত্রশিল্পী।

এঁকে দিতে হবে বালির মধ্যে পদচিহ্ন—-
আকাশের ঐ লভোনীল, উষ্ণ সূর্য আর সুবর্ণ,
একটি তারের হালকা ছায়াযুক্ত খেলার মধ্য দিয়ে
মৃদুভাবে সাতার কাটানো কিছু গাছ।
পরিষ্কার করে নিতে হবে রংতুলিটা, বেছে নিতে হবে চিত্রকরের প্যালেট,
প্রানবন্ত আর জীবন্ত রং দিয়ে ভরিয়ে দিতে হবে আজকের ফাকা ক্যানভাস।

১,২৪৯ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
শান্ত, চুপচাপ আর কম কথা বলার অধিকারী এই আমি পছন্দ করি, মনে মনে রঙিন ছবি আকা, সুন্দর সুন্দর সব ছবি দেখা আর ছবি তোলা, গুনগুনিয়ে গান গাওয়া, প্রান ভরে গান শুনা কিংবা প্রকৃতির সৌন্দর্য্য উপভোগ করা। আরো পছন্দ করি স্বপ্ন দেখতে, স্বপ্নকে নিয়ে ভাবতে এবং বড় বেশী ভালবাসি প্রকৃতির সব। ভাল লাগে মানুষের ভাল কিছু দেখতে বা শুনতে। শান্তি পাই যদি মানুষের জন্য কিছু করতে পারি। আর ভীষন কষ্ট পাই মানুষের কষ্ট দেখে এবং মানুষের অমানবিকতা দেখে। যদিও আমি কোন লেখক কিংবা কবি নই, তবুও ভীষন ইচ্ছে, মনের মত ভাল কিছু একটা যদি লিখতে পারতাম, সেই আশায় আমার এই লিখার চেষ্টা মাএ। আর আমার পরিচয়। আমি ঠিক তেমনি যেমন করে আমি দেখি, আমার চিন্তাটাও ঠিক তেমনি যেমনটি আমি ভাবি, আমার মনটাও ঠিক তেমনি যেমনটি আমি অনুভব করি, আমার ভালোবাসাটাও কিন্তু ঠিক তেমনি যেমন করে আমি ভালবাসি। আর হ্যা, বাংলার মাটি থেকে অনেক অন্নেক দুরে থাকলেও বাংলাকে রেখেছি বহু যত্ন করে আমার এই মনেতে। আপাততঃ আছি গৃহিনী হিসেবেই এবং আমার প্রানপ্রিয় তিনটি ছেলে আর স্বামী সংসার নিয়েই বেশ ব্যস্ত আছি। ভালো লাগে নিজের মতই থাকতে, হয়ত কম কথা বলি বলেই। এবং সব সময়ই আমি চাই, কোন একটা কিছু নিয়ে নিজেকে ব্যস্ত রাখতে। ভালো লাগে বই পড়তে এবং অন্যদের লিখাগুলো পড়তে। তাইতো মাঝে মাঝে নিজেরও লিখার শখ জাগে, যদিও জানি আমি ভালো লিখতে পারিনা। তবুও লিখি যখন যা মনে আসে, তাই লিখার চেষ্টা করছি মাত্র। কিন্তু বড়ই দুঃখের ব্যাপার হলো, আমি যখন যাই লিখিনা কেন আমার লিখাগুলো কেন জানি খুবই সহজ-সরল ভাষায় হয়ে যায়, হয়ত আমিও সহজ-সরল বলেই। এই পর্যন্ত যা-ই লিখেছি, শখের বশেই লিখেছি। কিন্তু জানিনা কেমন লিখেছি বা লিখি, আর তাইতো ব্লগিং করি যদি আমার নিজের লিখাগুলো সন্মন্ধে কিছুটা জানতে পারি। তাছাড়া আমি ভালবাসি এবং সন্মান করি পৃথিবীর সব মানুষদেরই, আর তাইতো আমিও সব মানুষদের কাছ থেকেও তেমনটাই চাই। বিশ্বাস করি, জ্ঞান আহরণ কোন বয়স কিংবা নির্দিষ্ট সময়ের মাঝে সীমাবদ্ধ নয় বরং মানুষ চাইলে সারা জীবন ধরেই শিখতে পারে, আর তাইতো আমি আজও শিখেই চলেছি এবং শিখছি। আসলে কি, মানুষের অনুভুতিটা হলো সুন্দর একটা পেইন্টিং যা কখনই নষ্ট হয় না। মানুষের চেহারাটা হলো সুন্দর একটি বইয়ের মত, সেটাকে পড়তে চেষ্টা করতে হয়। এবং ভালবাসা জিনিসটা হলো খুবই মূল্যবান, তাই এটাকে সঠিক মর্যাদা দিতে হয়। আর বন্ধুত্ব হলো সুন্দর একটি আয়নার মত, তাই সেটাকে খুব যত্ন করে রাখতে হয় যেন ভেঙ্গে না যায়। আর তাইতো অনুভূতিটাকে স্পর্শ করতে চাই, পড়তে চাই অনেক বই, মর্যাদা দিতে চাই মানুষগুলোকে এবং যত্ন করে ধরে রাখতে চাই বুন্ধুত্বটাকে। আশা করছি, সম্মানিত সহব্লগার এবং পাঠকবৃন্দ সবাই আমার ব্লগঘরে আসবেন এবং আমার লিখাগুলো পড়বেন। যদিও আমি মোটেও তেমন ভালো লিখিনা বা ভালো লিখতে পারিনা, তারপরও আমি লিখি এবং লিখার চেষ্টা করছি মাত্র। যখন যা মনে আসে, সেটাকেই প্রকাশ করার চেষ্টা করি, অনেকটা শখের বশেই। এখন পাঠকরা যদি আমার লিখাগুলো পড়েন এবং পড়ে কিছু একটা বলেন, তাহলে আমার লিখাটারও স্বার্থক হবে এবং আমিও আরো লিখার প্রেরণা পাবো বলেই আশা করছি। কারণ পাঠকদের প্রেরণাতেই যে আমিও অনুপ্রাণিত হতে পারি, এই আমার প্রত্যাশা। সবশেষে চলন্তিকা ব্লগের সকল সহব্লগার এবং পাঠকদের জন্যই রইলো অনেক অনেক শুভকামনা।
সর্বমোট পোস্ট: ১৪ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ১৫১ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-১০-২৮ ২০:৪৬:৫১ মিনিটে
banner

২৩ টি মন্তব্য

  1. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর কবি………..
    অনেক ভাললেগেছে।

    • ফেরদৌসী বেগম (শিল্পী) মন্তব্যে বলেছেন:

      কবিতাটি অনেক ভালো লেগেছে জেনে খুবই আনন্দিত হলাম। অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে কাশেম ভাই, কবিতাটি পড়ে সুন্দর মন্তব্যের জন্য। ভালো থাকুন ভাই সতত।

  2. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    চমৎকার ছবি চমৎৎকার কবিতা।

  3. সাঈদ চৌধুরী মন্তব্যে বলেছেন:

    মনের মধ্যে ছবিতো আঁকতেই হবে কারন এই ছবিইতো স্বপ্নের প্রতিফলন । ধণ্যবাদ সুন্দর কবিতা ও ছবির জন্য ।

  4. শ্যাম পুলক মন্তব্যে বলেছেন:

    এক কথায় অসাধারণ।

  5. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    প্রতিটা দিনই যখন তার নিজস্ব রং বইয়ে নিয়ে আসে,
    তখন শুধুই নির্বাচন আর মিশ্রিত করতে হবে।
    আনন্দের রঞ্জকে, শুভ মুহূর্তটাকে,
    হাসি আর অট্রহাসি, এই সব মিলিয়ে।

    সুন্দর ছবির সঙ্গে সুন্দর কবিতা।ধন্যবাদ এবং শুভকামনা।

    • ফেরদৌসী বেগম (শিল্পী) মন্তব্যে বলেছেন:

      কবিতাটি পড়ে আপনার সুন্দর মন্তব্যের জন্য আপনাকেও অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ আরজু আপু। ভালো থাকুন এবং আপনার জন্যও অনেক অনেক শুভকামনা।

  6. কে এইচ মাহবুব মন্তব্যে বলেছেন:

    ছবিতা ও খুব ভ্ল লেগেছে । ভালো লাগলো কবিতা । আমার পাতায় আমার পাতায় আমন্ত্রণ ।

    • ফেরদৌসী বেগম (শিল্পী) মন্তব্যে বলেছেন:

      কবিতাটি অনেক ভালো লেগেছে জেনে খুবই আনন্দিত হলাম। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে মাহবুব ভাই, কবিতাটি পড়ার জন্য। অবশ্যই যাব আপনার পাতায়। ভালো থাকুন ভাই সতত।

  7. তাপসকিরণ রায় মন্তব্যে বলেছেন:

    আগেই পড়েছি–খুব ভাল লেগেছে। ছবিটিও বড় সুন্দর।

    • ফেরদৌসী বেগম (শিল্পী) মন্তব্যে বলেছেন:

      কবিতাটি আগেই পড়েছেন এবং খুব ভাল লেগেছে জেনে আনন্দিত হলাম। অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে তাপসকিরণ’দা, কবিতাটি পড়ে সুন্দর মন্তব্যের জন্য। অনেক অনেক ভালো থাকুন।

  8. জিয়াউল হক মন্তব্যে বলেছেন:

    আমি কবি নই তাই কোন ভুল আমার চোখে পড়েনি বক্তব্য ভাল লেগেছে।

    • ফেরদৌসী বেগম (শিল্পী) মন্তব্যে বলেছেন:

      কবিতাটি অনেক ভালো লেগেছে জেনে খুবই আনন্দিত হলাম। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে জিয়াউল ভাই, কবিতাটি পড়ে আপনার সুন্দর মন্তব্যের জন্য। ভালো থাকুন ভাই সতত।

  9. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনি কোন স্ট্যাটে থাকেন জানতে পারি কি?
    অবশ্য অসুবিধা থাকলে থাক।

    • ফেরদৌসী বেগম (শিল্পী) মন্তব্যে বলেছেন:

      সালাম কাশেম ভাই। আপনার প্রশ্নের উত্তর দিতে দেরি হওয়ার জন্য সত্যিই আমি দুঃখিত। জ্বি ভাই, আমি ডালাস টেক্সাস-এ থাকি। আপনিও কি ভাই, আমেরিকায়ই থাকেন? আর অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে কাশেম ভাই, কবিতাটি পড়ার জন্য। অনেক অনেক ভালো থাকুন।

  10. মোঃ অলিউর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    khub sundar

  11. আজিম মন্তব্যে বলেছেন:

    আজকের আমাদের জতীয় জীবনের অস্বস্তিকর এবং গুমোট ভাবটাকেই হয়ত ফাঁকা ক্যানভাস বলে ভাবা হয়েছে । আর প্রানবন্ত আর জীবন্ত রঙ দিয়ে ভরিয়ে দিতে হবে সেই ফাঁকা ক্যানভাস ।
    ‘প্রানবন্ত আর জীবনের রং’-এর প্রাপ্তিস্থানটা খোঁজাই হোক আমাদের সর্বোত্তম কর্তব্য, এই কামনায় এবং কবিকে ধন্যবাদ দিয়ে শেষ করি ।

    • ফেরদৌসী বেগম (শিল্পী) মন্তব্যে বলেছেন:

      জ্বি আজিম ভাই, আপনি ঠিকই ধরেছেন এবং খুব সুন্দর বলেছেন। বেশ ভালো লাগলো আপনার সুন্দর মন্তব্য। অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে আজিম ভাই, কবিতাটি পড়ে আপনার সুন্দর মন্তব্যের জন্য। ভালো থাকুন ভাই অনেক।

  12. আহমেদ রব্বানী মন্তব্যে বলেছেন:

    অসাধারণ।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top