Today 26 Aug 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

জীবন নামক ধাঁধা…!

লিখেছেন: সেতারা ইয়াসমিন হ্যাপি | তারিখ: ০৫/০৩/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1408বার পড়া হয়েছে।

জীবন নামের এই অদ্ভুত যন্ত্রটার সাথে তাল মিলিয়ে চলতে ক’জন পারে? বরং চলতে হয় বলেই’না সবাই চলে। এমন একজন মানুষও আজকাল খুঁজে পাইনা যে বুকে হাত দিয়ে বলতে পারে আমি সুখী, আমি পরিপূর্ণ! একজীবনে এত অপূর্ণতা, এত হাহাকার নিয়েও মানুষ বেঁচে থাকে। সময় মানুষকে অনেক কিছুই শিক্ষা দেয়, সময়ের যাতাকলে পিষে পিষে মানুষ মরতে মরতে বাঁচতে শেখে, হারতে হারতে জিততে শেখে, ঠকতে ঠকতে ঠকাতেও শেখে…হা হা হা… কি অদ্ভুত তাইনা?

আমার না মাঝে মাঝে অমানুষ হতে ইচ্ছে করে, খুব খুব বেশি খারাপ হতে ইচ্ছে করে। কারণ একটাই…”মানুষ হতে পারিনি বলে, পারিনি খুব বেশি ভাল হতে” । ছোটবেলায় মা’ বলতেন যাই হওনা কেন “নাম্বার -১” হবে তা না হলে কোন মূল্যই থাকবেনা, এখন দেখছি কথাটা ১০০% সত্যি। হয় ভাল’ না হয় মন্দ’ এ দুটো’রই রাজত্ব। খুব ভাল হতে পারিনি বলে খুব মন্দ হতে ইচ্ছে করে। মিডল এ পরে থাকার অনেক যন্ত্রনা। যেমন যন্ত্রনার যাতাকলে পিষে মরে মিডল ক্লাস পরিবার গুলো।

জীবন নামের এই গোলক ধাঁধা’র চক্করে পরেছি সেই ছোটবেলা থেকেই। আর পরেছি ভাগ্য নামক অদ্ভুত এক শক্তির বিড়ম্বনায়। ভাবতাম ভাগ্যকে নিজেকেই গড়তে হবে তাই প্রাণপনে লড়েছি ভাগ্যকে গড়তে। কিন্তু প্রতিবার ভাগ্য আমাকে উষ্ঠা দিয়ে সিটকে ফেলে দিয়েছে, আবার উঠে দাঁড়িয়েছি নতুন রূপে, নতুনভাবে…ফলাফল “শূন্য”। তাই আজ আমি বড় ক্লান্ত। এতদিনে একটা কথা আমি ভাল করেই বুঝে গেছি যে আসলে মানুষের কোন সাধ্যি নেই কিছু করার। প্রতিটা কাজ, প্রতিটা ঘটনা আমার কেন যেন মনে হয় সিলেকটেড। যার বাইরে আমরা কেউ চাইলেও যেতে পারিনা। কোন কিছু প্ল্যান করে করতে পারিনি আজও। একটা কিছু হয়ত ভাবলাম যে এটা করব কিন্তু তাঁর আগেই অন্য কিছুর উদ্ভব। তারপর সব ছেড়ে ছূড়ে নিজেকে সমর্পন করা সেই সময় নামক অদৃশ্য দানবের হাতে আর খেলনা হয়ে তাঁকে সংগ দেয়া যতক্ষন না সে ক্লান্ত হচ্ছে!

আমার জীবনে আমি অনেক বড় বড় মানুষের সান্নিধ্য পেয়েছি, আমার এই ছোট্ট জীবনের সঞ্চয় বলতে তাঁদের ওই স্নেহ আর ভালবাসাটুকুই। আর এই স্নেহের কাঙ্গাল হতে গিয়ে বিড়ম্বনায় যে পরিনি তা কিন্তু নয়! আবার উল্টোটাও হয়েছে, বয়সে ছোটদের খুব বেশি মায়া আর স্নেহ করতে গিয়েও ছোট হয়েছি, অপমানিত হয়েছি। ঘৃণায়, লজ্জায় আর অপমানে মরে যেতে ইচ্ছে করেছে, পারিনি… তবে হ্যাঁ নিজেকে মেরে ফেলেছি বহুবার, আঘাতে আঘাতে ক্ষতবিক্ষত করে তিলে তিলে মেরেছি নিজেকে অনেকবার। সেই সব সত্তাদের প্রেতাত্মারা আমাকে রোজ অভিশাপ দেয়, আর সেই অভিশাপে আজ জর্জরিত আমার এই জীবন নামের চাকা।

জীবন নামের এই গোলক ধাঁধার চক্করে ঘুরতে ঘুরতে বেশ কিছু অভিজ্ঞতা হয়েছে আমার। কাউকে খুব বেশি স্নেহ/ভালবাসতে নেই। সত্যিকারের স্নেহ/ভালবাসা বুঝে এমন লোকের আজ খুব অভাব। অনেকটা অপাত্রে কন্যাদানের মত। আমি আমার জীবনে কখনও কোনকিছুর বিনিময় চাইনি কিন্তু আমার ভাগ্যে বিনিময় জুটেছে। ওই যে কথায় আছেনা যা চাইনা তাই পাই অনেকটা সে রকমই। আমি মানুষ ভালবাসি, আমি ভালবাসতে ভালবাসি আর সেটা নিজের সমস্ত সত্তা দিয়ে…যার জন্য যতটুকু করি আমি আমার মন থেকে করি, আমার সবটুকু শ্রদ্ধা, ভক্তি আর ভালবাসা দিয়ে করতে চেষ্টা করি। সেইখানে কোন ফাঁকি নেই, নেই কোন ভণিতা। সেটা ছোট-বড়, নারী-পুরুষ, ধর্ম-বর্ণ সবার ক্ষেত্রেই সমান রেসপেক্ট বোধ, সমান গুরুত্ব।

“মানুষ’কে স্রেফ মানুষ ভেবে ভালবাসা” আমার এই সহজ সমীকরণ’টাকে কেউ’ই সহজ ভাবে নিতে পারেনা, ঘুরিয়ে পেঁচিয়ে এমন জটিল বানায় যে বায়োলজির C-3 Circle কেও হার মানায়। আর বিনিময়ে আমার ভাগ্যে জুটে অবহেলা, অপমান, লাঞ্ছনা আর তিরস্কার। মেনে নেই আমি সব হাসি মুখে। কাউকে কিচ্ছু বলিনা, নিরবে নিভৃতে ভেতরে ভেতরে সেইসব মানুষ থেকে অনেক অনেক দূরে চলে যাই আমি যা হয়ত কেউ টেরও পায়না। অবশ্য তাতে কারও কিচ্ছু যায় আসেনা। কারও জন্যই কারো জীবন কখনও থেমে থাকেনা…সব চলে আগের নিয়মে, থাকেনা শুধু মায়াভরা মুখগুলোর নিস্পাপ হাসি, স্নেহমাখা সেই মধুর ডাক, আলতো করে নরম হাতের সেই ভালবাসার স্পর্শ আর কোমল ঠোঁটে মাথার উপর উষ্ণ আশীর্বাদের ছোঁয়া…!!!

পরে থাকে শুধু একফালি দীর্ঘঃস্বাস…!!!

811e9f61db1ffa4631398e3b8a6e812a

বৃহস্পতিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১১

 

১,৩৮৩ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমি খুব সাধারণ একজন মানুষ... নিজেকে মানুষ ভাবতেই বেশি ভাল লাগে। আমার Academic Background: M.Sc. in Botany, MBA করেছি Bank Management -এর উপর, তারপরে PGDHRM Complete করলাম BIM (Bangladesh Institute of Management) থেকে....। বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছি। বর্তমানে সেনা কল্যাণ সংস্থা-তে আছি...রিসার্স অফিসার হিসাবে... আমি লেখক নই...তবে লেখা আমার রক্তে মিশে আছে কারণ বাবা ছিলেন সাংবাদিক...ছোটবেলা থেকেই লিখার চেষ্টা করতাম...বাবার পত্রিকায় তা প্রকাশও হতো যদিও কোনটাই বাবার মন মত হতোনা তবুও আমাকে উৎসাহ দেয়ার জন্যই হয়ত ছাপতেন সেসব লিখা...যার কোনটাই আমি সংরক্ষন করে রাখতে পারিনি...হয়ত গুরুত্বই বুঝিনি তখন...আজ বাবা নেই পৃথিবীতে...আমি ছেড়ে দিয়েছিলাম লেখা কিন্তু পরক্ষনেই মনে হলো আমাকে লেখাটা ধরে রাখতেই হবে অন্ততঃ বাবার জন্য। তাই মাঝে মাঝে হাবিজাবি লেখার চেষ্টা করি। খুব সাধারণ জীবন-যাপন করতে ভালোবাসি...বাবা বলতেন কারো উপকার করতে না পারলেও কারো ক্ষতির চিন্তা যেন মাথায়ও না আনি...সেটা মেনে চলার চেষ্টা করি। সুখী হওয়ার চেষ্টা করি, অল্পতে খুশি থাকার চেষ্টা করি আর সৃষ্টিকর্তাকে খুঁজে বেড়াই তাঁর সৃষ্টির মাঝে। নিজের অবস্থান থেকেই চেষ্টা করি আশেপাশে সুবিধাবঞ্চিত-মানুষদের জন্য কিছু করতে। মানুষকে মানুষ ভাবতেই বেশি সাচ্ছন্দ্য বোধ করি আর মনে প্রাণে বিশ্বাস করি মানব ধর্মই হচ্ছে সবচেয়ে বড় ধর্ম।
সর্বমোট পোস্ট: ৪৪ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৪৩ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৪-১২-০৩ ১০:০৫:০৯ মিনিটে
banner

৭ টি মন্তব্য

  1. হাসান ইমতি মন্তব্যে বলেছেন:

    জীবন আসলেই এক ধাঁধা …

  2. সুমন সাহা মন্তব্যে বলেছেন:

    //মানুষ’কে স্রেফ মানুষ ভেবে ভালবাসা” আমার এই সহজ সমীকরণ’টাকে কেউ’ই সহজ ভাবে নিতে পারেনা, ঘুরিয়ে পেঁচিয়ে এমন জটিল বানায় যে বায়োলজির C-3 Circle কেও হার মানায়। আর বিনিময়ে আমার ভাগ্যে জুটে অবহেলা, অপমান, লাঞ্ছনা আর তিরস্কার। //

    দুর্দান্ত একটি লেখা। জীবন নিয়ে খুব চমৎকার সব যুক্তি ও চিন্তাভাবনা। ভালো লাগলো।

    অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইলো প্রিয় আপি।

    ভালো থাকবেন। সবসময়। অনেক।

  3. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    জীবন নিয়ে নানারকম বিশ্লেষণ, নানান মেরুকরণ বেশ ভাল লেগেছে।
    অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানবেন প্রিয় –

  4. জাফর পাঠান মন্তব্যে বলেছেন:

    চমৎকার অভীপ্সার প্রকাশ । ভালো লাগলো বেশ ।

  5. তাপসকিরণ রায় মন্তব্যে বলেছেন:

    সময় মানুষকে অনেক কিছুই শিক্ষা দেয়, সময়ের যাতাকলে পিষে পিষে মানুষ মরতে মরতে বাঁচতে শেখে, হারতে হারতে জিততে শেখে, ঠকতে ঠকতে ঠকাতেও শেখে…হা হা হা… কি অদ্ভুত তাইনা?–এ সব জানার পরেও কেন আপনি এত দুখি? দুঃখ সুখ মানুষের জীবনের অঙ্গ–একে মেনে নিতে হবে। মনে মনে ভাল থাকার চেষ্টা করতে হবে। লেখার সুন্দর ও বাস্তব অনুভূতির জন্যে অনেক ধন্যবাদ।

  6. সেতারা ইয়াসমিন হ্যাপি মন্তব্যে বলেছেন:

    সকলকে ধন্যবাদ…আসলে লেখাটা অনেক দিনের পুরুনো… আর বাস্তবতাটা এমনই…অনেক কিছু না চাইলেও মেনে নিতে হয়…আর কিছু মানিয়ে নিতে হয়… জীবনের এই কিছু মেনে নেয়া আর কিছু মানিয়ে নেয়াতে অভ্যস্ত হয়ে গেছি এখন…তাই আগের মত আর ভাবতে পারিনা…!

  7. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    সুমন সাহা সাথে সহমত
    ভাল লাগলো,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,
    ..
    শুভ কামনা
    ভাল ভাবনার প্রকাশ

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top