Today 26 May 2020
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

তুলি-4 (সাত সাতটি ভূত )

লিখেছেন: Crown. | তারিখ: ০৬/০৭/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 602বার পড়া হয়েছে।


তুমি এখন কোথায় ?
বাজারে !
তাড়াতাড়ি বাড়ীতে এসো !
কেন ?
জুহুরাকে ভুতে ধরেছে !
আমি আসছি , এক্ষুণি আসছি !
হে তাড়াতাড়ি এসো !
ফুরকান সাহেব মোবাইলটা রেখে কেঁদেই
ফেললেন !
কি হয়েছে আপনি কাঁদছেন ?
আমার সব শেষ ! আবার কাঁদতে লাগলেন!
কি হয়েছে , আগে ব্যাপারটা খুলে বলুন ?
আমার মেয়েকে ভুতে ধরেছে !
কি, ভুত ?
ইমরানের চোখ দুটো ছানাবড়া হয়ে গেল ! ফুরকান
সাহেব ভুতে বিশ্বাসী !
দেখুন , আপনি এভাবে ভেঙ্গে পড়বেন না !
তাড়াতাড়ি বাসায় যান ! গিয়ে দেখুন আসলে ব্যাপারটা কি !
না ভাই আমার সব শেষ ! কাল বাদ পরশু মেয়ের
বিয়ে ! বিয়ের কেনাকাটা সব শেষ ! লোকের
কাছে অনেক টাকা ধার নিতে হয়েছে ! এখন যদি
ওরা শুনে মেয়েকে ভুতে পেয়েছে তাহলে ত
….!
কিছুই হবেনা ! আপনি এখন বাসায় যান ! আমি এদিকটা
সামলাব !
” হে যাচছি , আপনি কাউকে কিছু বলবেন না !
বুঝতেই ত পারছেন মেয়ে বলে কথা ! ছেলে
হলে কি এসবের দার ধরতে হত ! ” – কথাগুলো
চুপিচুপি কানের কাছে বললেন যেন কেউ না
শুনে !
কাউকে কিছু বলব না ! এ নিয়ে আপনি একদম চিন্তা
করবেন না !
ফুরকান সাহেবের চোখ দুটি লাল হয়ে আছে !
কপালে বিন্দু বিন্দু ঘাম জমে আছে ! পকেট
থেকে রুমাল বের করে মুখ মুছতে মুছতে
রাস্তার দিকে বেড়িয়ে পড়লেন ! একটু এগিয়ে
টেক্সি একটা ধরে বাড়ীর দিকে রওয়ানা হলেন !
ঘণ্টার পর ঘণ্টা কেটে যাচ্ছে ! ইমরান কিছুতেই
ভুলতে পারছেনা ফুরকান সাহেবের কথা ! মেয়ের
বিয়ের হাতে গোনা মাত্র দুদিন আছে ! এমন
অসময়ে ভুতে পেল ! ভুতটার আক্কেল বলতে
কিছু নেই বুঝি ? ইমরান এমনিতে ভূত বিশ্বাস করে না !
কিন্তু ফুরকান সাহেবের কথাগুলো ত ভিত্তিহীন
ভাবে উড়িয়ে দেওয়া যায় না !
যত এসব মনে মনে ভাবছে ইমরানের রাগ
বেড়েই চলছে ! যদি ভুতের দেখা পায় তবে
বুঝিয়ে দেবে এ কত বড় অন্যায় ! আজ অফিসে
মোটেই ভাল লাগছে না ! যেদিকে তাকাচ্ছে
সেদিকেই তুলির মুখ ভেসে উটছে !
ইমরান অফিস থেকে বেরিয়ে সামনের রাস্তা ধরে
হাটতে লাগল ! কিছু সময় হেঁটে বামদিকের বাঁকা রাস্তা
ধরে চৌমাথায় এসে পৌছল ! একটা চায়ের দোকানে
ঢুকে এক কাপ চায়ের অর্ডার দিল ! সাথে একটা
নিমকি !
ইমরান গরম চায়ের কাঁপটা হাতে নিয়ে আবার
টেবিলে রেখে দিল ! পাশের টেবিলে বসে
থাকা ভদ্রলোক তার দিকে হা করে তাকিয়ে
আছেন !
ইমরান ছড়ান পা টা গুচিয়ে নিয়ে পেছন দিকে একটু
হেলে বসল ! পকেট থেকে রুমাল বের করে
মুখটা দু তিন বার মুছল !বিশ টাকার একটা নোট মাজনের
দিকে এগিয়ে দিল !
কত ?
দশ টাকা ! এই বলে ভদ্রলোক দশ টাকার একটা
নোট ড্রয়ার থেকে তুলে ইনরানের দিকে
এগিয়ে দিলেন ! ইমরান টাকাটা পকেটে রেখে
সামনের দিকে হাটতে লাগল ! নেতাজী পার্কের
সামনে গিয়ে খানেক্ষণ দাড়াল ! অন্য জায়গার তুলনায়
এ জায়গাটা বেশ সুন্দর ! চারদিক টা খোলামেলা !
কোথাও কোন নোংরা জিনিস নেই ! অল্প বয়সী
ছেলে মেয়ে গুলো এদিক ওদিকে ছড়িয়ে
আছে !
তুলির এ জায়গাটা মোটেই পছন্দের নয় ! ইমরানকে
এ জায়গায় আসতে বারণ করেছে !
আজ সে ইচ্ছে করে এখানে আসেনি ! হাটতে
হাটতে কখন এসে পৌছল তা নিজেই টের পায় নি !
একনাগাড়ে এত টুকু পথ হাটতে পারে আজ প্রথম
ইমরান বুঝল! পকেট থেকে মোবাইল বের
করে দেখল বিকেল সাড়ে চারটা হয়ে গেছে !
রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে টেক্সির অপেক্ষা করছে !
এত টুকু পথ হেঁটে ফিরতে পারবেনা সে !
হলুদ রঙের একটি টেক্সিতে সিগনাল দিল !
কোথায় যাবেন ?
শিবতলা রোড !
বসুন !
গাড়ী হন হন করে একের পর এক রাস্তা পিছনে
ফেলে চলছে !
একটু থামান ! আমাকে এখানে নামিয়ে দেন !
আপনি ত বললেন গিরিশতলা যাবেন ! এটা ত ভাণ্ডার !
আমি শিরিশতলা যাচ্ছিনা ! আসলে ভূলে গিয়ে ছিলাম
আমার এখানে একটা কাজ আছে ! এই বলে ইমরান
গাড়ী থেকে নেমে পড়ল!
গাড়ীওয়ালা কোন কথা না বলে শুধু মুখে দিকে
একবার তাকাল !

৬০০ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমি ভারতীয় তাই ভারতীয় আদর্শে বিশ্বাসী । ভারত আমার জন্মভূমি তাই এদেশকে সবচেয়ে বেশী ভালবাসি । সারি জাহা সে আচ্ছা ভারত হামারা ।
সর্বমোট পোস্ট: ৪৬ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৩৭ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-১০-১৪ ০৪:৪১:০৭ মিনিটে
banner

৪ টি মন্তব্য

  1. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর লিখেছেন গল্পটি

    ভাল লাগল।

  2. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    darun
    অন্যরকম স্বাধ পেলাম

    নাইস

  3. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    দারুণ
    বেশ মজার

  4. টি. আই. সরকার (তৌহিদ) মন্তব্যে বলেছেন:

    কথোপকথনে দারুণ উপস্থাপনা । ভালো লাগলো লিখা ।
    শুভেচ্ছা জানবেন ।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top