Today 19 Sep 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

ধারাহারা টাওয়ার

লিখেছেন: রুবাইয়া নাসরীন মিলি | তারিখ: ৩০/০৬/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 877বার পড়া হয়েছে।

অনেকক্ষণ থেকে অপেক্ষা করছি আমরা নয় জন ,সেই কখন টিকেট কেটে বসে আছি । বসে আছি ধারাহারা টাওয়ার এ ওঠার জন্য । আমরা আট জন বাংলাদেশি আর আমাদের নেপালি বস দৌলত বিক্রম কারকি ।  পি এস টি  ট্রেইনিং  শেষ হবার পর আমরা নেপাল যাবার প্লান করলাম নেপালি বস এর আমন্ত্রনে । আমরা  তের জন একসাথে জয়েন করেছিলাম কিন্তু বিভিন্ন কারনে সবাই যেতে পারেনি ।  আমি ,সানি ইমরান ,ঝুমি ,রোজি  আর আমাদের সুপার ভাইজার মিজ আলিম এই পাঁচ জন আর  সাথে রোজির বর আর মিজ আলিম এর কন্যা ,মোট আট জন । এই টাওয়ার এ একসাথে অনেক জনকে উঠতে দেয় না । কি আর করা বসে বসে অপেক্ষা করছি আর বাদাম চিবাচ্ছি । টাওয়ার এর পাশের বাগান টাও বেশ ।

 

 

Dharahara Tower 1

 

 

তো যাই হোক সেবার এর ট্যুর টা ছিল দারুন ,ঘোরাফেরা প্লাস বেশ কয়েকদিন দৌলত জির বাসায় দাওয়াত খেয়ে ভালই কাটছিল দিন । প্রায় শেষ সময়ে এসে আমরা ঠিক করলাম ধারাহারা টাওয়ার এ যাবার । এই টাওয়ার থেকে কাঠমান্ডু ভ্যালি আর হিমালয় কে খুব সুন্দর ভাবে দেখা যায় ।  এই টাওয়ার এর আরেক নাম হল ভীমসেন টাওয়ার। ২০৩ মিটার উঁচু এই টাওয়ার নয়তলা । দেখলে মনে হয় মসজিদের মিনার । টাওয়ার এর আটতলায় ব্যালকনি আছে যেখানে দাঁড়িয়ে পুরো কাঠমান্ডু ভ্যালি আর হিমালয় কে সুন্দরভাবে দেখা যায় ।

 

Dharahara Tower 2

 

 

অনেকক্ষণ অপেক্ষা করার পর এল আমাদের পালা । আমরা নয়জন আর দুই জনকে দেখলাম একসাথে ঢুকতে দিল । ভিতরে যাবার পর বুঝলাম কেন একসাথে অনেক কে  প্রবেশ করতে দেয় না।  ভিতরটা তেমন প্রশস্ত   না। লোহার স্পাইরাল সিঁড়ি বেয়ে উঠতে হচ্ছিল । এর মাঝে নাই কন জানালা ,ছোট ছোট ঘুলঘুলির মত আছে আলো বাতাস আসার জন্য ।

 

dharahara

 

 

আবদ্ধ জায়গা আমার তেমন একটা ভাল লাগে না । এত সিঁড়ি বেয়ে উঠতেও ভাল লাগছিল না । হঠাত আমার মনে হতে লাগলো যদি আমরা এখানে আটকা পরি কি হবে ? যদি ভুমিকম্প হয় তাহলেও বা কি হবে ? আমার ভাবনার কথা ঝুমিকে বলতেই ও বলে উঠল ,চল নামতে শুরু করি ।কিন্তু তা তো সম্ভব না । আমাদের কথা সানি শুনছিল । হাসতে হাসতেই আমাকে বলল ,অলক্ষী ভাল কথা কি মনে আসে না ।

এভাবেই উঠে গেলাম আটতলায় ,আহ তারপরেই মনটা ভাল হয়ে গেল । খোলা বাতাস আর হিমালয়ের দারুন এক ভিউ । আট তলায় আছে লোহার রেলিং ঘেরা এক ব্যালকনি । কিছুক্ষণ দাড়িয়ে দেখলাম সৃষ্টিকর্তার সৃষ্টির অপার সৌন্দর্য । এরপর  নিচে নামার পালা  । নামতে তেমন কষ্ট হল না ।জীবনের সব ক্ষেত্রেই মনে হয় আরোহণ টাই কষ্টের ।

হঠাত মনে হল এই টাওয়ার এর স্মৃতি কারন গত ২৫ এপ্রিল ভয়াবহ ভূমিকম্পে এটা প্রায় মাটির সাথে মিশে গেছে ।

 

 

dharahara

 

কেন জানি মনে হচ্ছিল যদি আমরা থাকার সময় ভূমিকম্প হত !! ভাবলেই গা শিউরে ওঠে ।

 

৮৭৯ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমি মিলি ,ভাল লাগে বই পড়তে,ঘুরে বেড়াতে আর বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতে ।
সর্বমোট পোস্ট: ৩৮ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩৯৩ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৪-০৯-০৩ ১৫:৫৪:৫০ মিনিটে
banner

১৪ টি মন্তব্য

  1. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    fine

    ভালো লাগলো পড়ে
    …………………………………
    শূভ কামনা রইল

  2. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    সর্বনাশ। শুনেই ভয় লাগছে। যাই হোক আল্লাহ সহিসালামতে রাখছেন শুকরিয়া। ভাল লাগল আপি

  3. মাজেদ হোসেইন মন্তব্যে বলেছেন:

    জীবনের সৃতি ময় ঘটনা……।
    পড়ে ভাল লাগলো……

    ভালো থাকিন শতত

  4. মরুভূমির জলদস্যু মন্তব্যে বলেছেন:

    সেদিন ডিসকোভারিতে দেখলাম বেঙ্গে যাওয়া টাওয়ারটি, এর আগেও নাকি এটা ভেঙ্গে ছিলো।

  5. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    জানলাম

  6. টি. আই. সরকার (তৌহিদ) মন্তব্যে বলেছেন:

    ভয়ানক ঘটনা ! সাথে আমাদের জন্য সতর্কবার্তাও বৈকি !
    জেনে ভালো লাগলো । শুভেচ্ছা জানবেন আপু ।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top