Today 12 Dec 2018
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

পুনে (ইন্ডিয়া)…… ভ্রমন (শেষ)

লিখেছেন: এই মেঘ এই রোদ্দুর | তারিখ: ৩১/১০/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 556বার পড়া হয়েছে।

পার্বতী পাহার দেখা শেষ হলে আমরা আবার রওয়ানা হলাম দিনকার জাদুঘরের উদ্দেশ্যে………..

কিছুক্ষণের মধ্যেই আমরা দিনকার যাদুঘরে উপস্থিত হলাম ।

১। প্রবেশ পথ
http://s6.postimg.org/kielpho4h/DSC09940.jpg

ঢুকে দেখি উনারা বলে নো ক্লিক । মানে ছবি তুলতে পারব না । এইডা কিছু হইল  । এত সুন্দর সংগ্রহ আর ছবি তুলতে পারব না । তারপরও কয়েকটা ক্লিক দিছি লুকিয়ে ।

২। রাজা দিনকার
http://s6.postimg.org/yz1v42dlt/DSC09926.jpg

৩।  ভিতরে ঢুকতেই আরেকটা মুর্তি
http://s6.postimg.org/yjlzxb2ap/DSC09927.jpg

৪। আগেকার রাজা বাদশাদের রাণীদের জিনিসপত্র দেখে খুব ভাল লাগছিল । খুব সুন্দর করে সাজানো জিনিসপত্র …….. ।

http://s6.postimg.org/5rjtrkk0x/image.jpg

৫। পান সুপারী কাটা যন্ত্র থেকে শুরু করে সবই প্রাত্যাহিক জীবনের ব্যবহার্য জিনিস……
http://s6.postimg.org/sk2u7e6w1/image.jpg

৬। কাপড় বুনার মেশিন । ঢুল তবলা, নানান বাদ্যযন্ত্র । কাঠের তৈরী সোফা সেট, অনেক অনেক সুন্দর কাটের তৈরী জিনিস ছিল । ধ্যত্তেরী ছবিই তুলতে পারলাম না । ম্যাডাম সাথে থাকাতে । ঘুরে ঘুরে দেখা ছাড়া আর করার কিচুই ছিল না । ফাকে এক ভাইয়াকে দিয়ে নিজের কয়েকটা ছবি তুলালাম ।

http://s6.postimg.org/bonp8e15t/rwrwr.jpg৭।http://s6.postimg.org/3kk6he44h/wete.jpg

রাজা দিনকার কেলকার যাদুঘর পুনে , মহারাষ্ট্র, ভারত
রাজা দিনকার কেলকার এর পুত্রের অসময়ে মর্মান্তিক মৃত্যু হয় । তার স্মৃতির প্রতি উৎসর্গীকৃত এই যাদুঘরটি (১৮৯৬-১৯৯০)।
১৪তম শতাব্দিতে থেকে তিনতলা বিশিষ্ট এই ভবনটিতে বহুসংখ্যাক ভাষ্কর্য সংগৃহীত আছে । হাতির দাঁতের তৈরী বিভিন্ন অলংকার, স্বর্ণ এবং রৌপ্যের তৈরী অলংকার, নানান বাদ্যযন্ত্র (বিশেষ সুক্ষ্ম সংগ্রহ) এবং যুদ্ধ অস্ত্রসমূহও রয়েছে ।

৮।
http://s6.postimg.org/m695qecm9/DSC09930e.jpg

এখানে ১৯২০ সাল থেকে সংগ্রহ শুরু হয়েছিল এবং ১৯৬০ সালে এখানে প্রায় ১৫ হাজার সামগ্রী অন্তর্ভূক্ত ছিল । ১৯৬২ সালের মধ্যে  ড: কেলকার মহারাষ্ট্র রাজ্য সরকারের Archaeology বিভাগের দায়িত্বে দেন সংগ্রহের জন্য ।

যাদুঘরে ঝুলিতে এখন ২৫ হাজারের উপরে বস্তু সামগ্রী আছে প্রদর্শনের জন্য ।  এগুলোর বেশীর ভাগই ১৮ এবঙ ১৯ শতাব্দী থেকে সংগৃহ শুরু হয়েছে যা প্রধানত দৈনন্দিন জীবন থেকে ভারতের বিভিন্ন আলংকারিক আইটেম এবং অন্যান্য শিল্প বস্তু যেমন- ভারতীয় শিল্পীদের তৈরী করা দরজার ফ্রেম, জাহাজ অলংকরণ, বাদ্যযন্ত্র , চিত্রকর্ম এবং ভাস্কর্য্যসমূহ এগুলো তাদের অসামান্য শিল্পকর্মের  উদাহরণ উপস্থাপন করে ।

৯।
http://s6.postimg.org/b5ilz49r5/DSC09933.jpg

এর অন্যতম আকর্ষন মাস্তানী মহল । রাজা কেলকার কর্তৃক প্রণীত মাস্তানী মহল (পেশওয়া বাজি রাও এর স্ত্রী) ছিল অন্যতম ।এখানে সংগ্রহে আছে সুন্দর টুকরা বীজ উপর গণেশ এর খোদাই করা মূর্তি; গণেশ এর মূর্তি  যা খুবই বিরল । বাম দিকে ট্র্যাংক এর সাথে প্রদর্শিত গণেশের মূতির্টি নির্মান বা আঁকা কঠিন ছিল ।

১০। http://s6.postimg.org/yopr6z9lt/DSC09934r.jpg   ১১। http://s6.postimg.org/vkjonxi75/DSC09936ew.jpg

১২। http://s6.postimg.org/l6ng8fmu9/DSC09936eww.jpg ১৩।http://s6.postimg.org/cja8uf90h/DSC09938wrwrw.jpg

যাদঘর ঘুরে দেখা পর্যন্তই ছিল ট্যুরের অংশ । সেখান থেকে আমরা মার্কেট চলে গিয়েছিলাম ।
বাকি কয়দিন ট্রেনিং শেষে আর ঘোরাঘুরি হয়নি শুধু কেনাকাটা ছাড়া ।

=============== ১০ মিনিট সমুদ্রে=========================

তারপরও সবাই প্লান করলাম যে মুম্বে পৌছে আমরা কিছুক্ষনের জন্য হলেও সমুদ্রে যাব । তাই ট্রেনিং শেষে ১৮ তারিখ বেলা ২টায় রওয়ানা হলাম মুম্বের উদ্দেশ্যে । কিন্তু ভাগ্য খারাপ পৌঁছতে পৌঁছতে সন্ধ্যা ৭টা বেজে গেছিল । তবুও আমরা মত পাল্টাইনি । রাত হলেও গ্রুপে গ্রুপে সমুদ্রে যাব এই সিদ্ধান্ত নিয়ে আমরা রেডি হই সমুদ্রে যাব বলে ।

সে মোতাবেক প্রত্যেক মেয়ের সাথে যে কোন একজন বা দুজন ছেলে থাকবে ঠিক । আমি আর দুইজন কলিগ ভাইয়া সিএনজিতে উঠলাম বিচে যাবার জন্য ।হায় মাবুদ বেটা বীচ শুনতে গিয়া শুনছে ব্রীজ । সে আমাদেরকে নিয়ে ব্রীজে নামাইয়া দিছে । একুল ওকুল দুইকুলই হারাই । মানে সাথীদের হারিয়ে ফেলেছি । ব্রীজে গিয়ে দেখি লোকজনের হাটাচলা নাই । গুটি কয়েক সিএনটি, অটো চলছে …… কাউরে জিগ্যেস করব তাও পাচ্ছি । সাথের ভাইয়ারা বলতেছে,ফাতেমা আপু আপনি দুরে দাড়ানো ছেলেদের জিগ্যেস করুন আমরা তো হিন্দি কথা বলতে পারি না ।

তো আমি কয়েক জন ছেলে এক জায়গায় দাঁড়িয়ে আড্ডা দিছিল । তখন আমি এক্সকিউজ মি বলে, জিগ্যেস করলাম এহা পর বীচ কাহা হে? হাম বাংলাদেশ সে আয়া । হাম লোগো কো বীচ দেখনা হে ।

হায় মাবুদ এরা দেখি বীচ বলতে ব্রীজ বলে ।

আমাকে দেখাইয়া দিল যে, ও তো ব্রীজ হে
আমি বললাম….. নেহি এ নেহি । বীচ বীচ, হাম লোগোকো সমুন্দর দেখনা হে ।

তখন গিয়া বুঝলো বেটারা । তখন আমাকে বুঝায়ে দিল যে একটা ট্যাক্সি করে জুহু বিচ নামের জায়গায় যেতে । উফ কি যে পরিস্থিতি । যাই হোক থ্যাংকু বলে এদের কাছ থেকে বিদায় নিয়ে ট্যাক্সি নিলাম ।

উরে বাপসসসসসসস সেই ট্যাক্সি তে উঠলাম কোন কূল কিনারা পাচ্ছি না । আমরা তিনজনই ভয় পাচ্ছিলাম । কোথায় নিয়ে যাচ্ছে । কিছুই বুঝতেছি না । এদিকে ট্যাক্সি বিল দেখে চক্ষু চড়কগাছ ।যাচ্চি তো যাচ্ছিই……… অবশেষে জুহু বিচে পৌঁছলাম । উফ সমুদ্র দেখব মনে করেই সব কষ্ট শেষ হয়ে গেলমুহুর্তে । তিনজনই গেলাম বিচের কাছে …….. সাদা সাদা ঢেউ আসছে । কি মজা লাগতেছে আমার ।কিন্তু সময় বেশী নাই । ভাইয়ারা বলতেছেন আপু নাইমেন না ।সময় নাই বেশী । কে শুনে কার কথা । আমি স্যান্ডেল হাতে নিয়ে এক দৌঁড় পানিতে……… ইশ সে আনন্দ ভাষায় বুঝাতে পারব না ।
১।
http://s6.postimg.org/d8oft1k69/DSC01232rr.jpg

 

২। আমাকে ভিজিয়ে দিচ্ছে

http://s6.postimg.org/bzvyto2u9/DSC01223ryry.jpg

সাদা সাদা ঢেউ অনেক দুর থেকে এসে আমাকে কোমড় পর্যন্ত ভিজিয়ে দিল । আশে পাশের মানুষের আনন্দও দেখতে লাগলাম প্রাণ ভরে । ছোট ছোট বাচ্চারা কি সুন্দর খেলছে পানিতে । কিছু ছবি উঠালাম … মাত্র ১০/১৫ মিনিট থেকে চলে আসলাম ।

৫।
http://s6.postimg.org/mudevlly9/DSC01225.jpg

৬।
http://s6.postimg.org/5id2a5sgx/DSC01226.jpg

৭।
http://s6.postimg.org/3vnuoxgf5/DSC01229.jpg

৮।  কি ময়লা সে বিচটা দেখেন ইয়া ছি ।  ময়লায় দাড়িয়ে আমি ……
http://s6.postimg.org/xwihu1g0x/DSC01211rw.jpg

৯।
http://s6.postimg.org/4ml68g869/DSC01230.jpg

 

১০।
http://s6.postimg.org/kndrlf61t/DSC01231.jpg

১১। একটা সোনামনি
http://s6.postimg.org/jm8xijzoh/DSC01217.jpg

১২। তার ভাই
http://s6.postimg.org/g1d1zbv4x/DSC01218.jpg

১৩। একটা আপু বলল মোজে ভি এক ফটো উঠানি হে । তো তুলে দিলাম……
http://s6.postimg.org/jrcos86zl/DSC01220.jpg

এখন ভাইয়ারা বলতেছে যে আরেকটা বিচে যাবে । কি যেন নামটা মনে করতে পারছি না । যেই কথা সেই কাজ ……আবার ট্যাক্সি নিলাম

১৪। মুম্বের রাস্তায়
http://s6.postimg.org/yso60z4gx/DSC01240.jpg

১৫।
http://s6.postimg.org/3vsg2o5sx/DSC01236.jpg
আবারো সেই একই অবস্থা রাস্তা ফুরায় না । উৎকণ্ঠা বাড়ছে তিনজনেরই । একজন তো সে জায়গায় যেতে নারাজ । আর একজন বলছে আর তো আসা হবে না এ জায়গায় । প্লিজ এক নজর দেখে যাই।

কিন্তু ট্যাক্সির ভাড়া নিয়ে মহাচিন্তিত । তিনজনেরই পকেটের অবস্থা ভাল না । আমার তো নাই ই । আমার যা ছিল সবাই ধার নিয়ে শেষ করে দিছে ।

অবশেষ পৌছলাম সেখানে । আসলেই অনেক সুন্দর জায়গা । বসা যেত এখানে অনেক্ষন কিন্তু সময় হাতে ছিল না । হোটেলে ফিরতে হবে । এখানে অবশ্য পানিতে নামার কোন সুযোগ ছিল না । শুধু বাঁধাই করা সাগরের পাড়ে কিছুক্ষন বসার স্বাধ ছিল । কপোত কপোতিরা যেভাবে বসেছিল একটু লজ্জাও লাগছিল …….. দুর থেকে ঢেউ এসে পাড়ে ধাক্কা দিচ্ছিল আর গর্জনে যেন মনটা ভরে গেছিল । রাস্তায় কি সুন্দর ঘোড়ার গাড়ি চলছে রং বেরঙে সাজানো । অদ্ভুত মুহুর্তগুলো কিন্তু খুবই অল্প সময় ।

১৬। রাস্তায়
http://s6.postimg.org/rk7xxy2ch/DSC01238.jpg

১৭।  দ্বিতীয় বিচে দুর থেকে এমন সুন্দর দেখাচ্ছিল
http://s6.postimg.org/dvncikh29/DSC01256.jpg

১৮।
http://s6.postimg.org/7obyielb5/DSC01268.jpg

তারপর তাড়াহুড়া করে আবার ট্যাক্সি নিলাম । কিন্তু কিন্তু কিন্তু …… কোন ট্যাক্সিওয়ালাই হোটেলের নাম চিনে না । আর আমরা সে জায়গাটার নাম বলতে পারতেছিলাম না । …. অনেক খোঁজাখুজির পর পেলাম একজন বৃদ্ধ শিখ ড্রাইভারকে তিনি রাজী হলেন যদিও তিনিও চিনতে পারছিলেন না সে জায়গার নাম ।

ভয়ে তিনজনই ঘামতেছিলাম । কি আজব হোটেলের ঠিকানা নিলাম না কেন? অথবা যে স্যারের কাছে ফোন ছিল তার নাম্বারও ছিল না । রাস্তায় জিগ্যেস করতে করতে যাচ্ছি আর ট্যাক্সি বিল বাড়ছে তো বাড়ছেই sad ।  রাত প্রায় ১১ টা বাজে । মোম্বে শহরটা তেমন সুন্দর লাগেনি ।

বাংলাদেশের মতই এলোমেলো আর গিজ গিজ । এক জায়গায় আমাদের ট্যাক্সি জ্যামে পড়ল । ঠিক সেই মুহুর্তে এক দল হিজরা আসল জানালার পাশে ছিল ভাইয়াটা….. ওরা বলছে হায় আল্লাহ কুছ তো দে…… কুছ তো দে . কি করব বুঝে উঠতে পারছিলাম না। এক হিজরা দেখি ভাইয়ার গালে ঠুয়া মারতে এগিয়ে এল । হিহিহিহি হাসতে হাসতে আমি শেষ । ভাইয়া তো ভয়ে গুটি সুটি মেরে বসে আছে । তখনই ট্যাক্সিটা ছেড়ে দিল আমরাও বেচে গেলাম । শেষ পর্যন্ত জিগাইতে জিগাইতে ঠিকানায় এসে পৌছলাম বারটা বাজে । বিল উঠছিল ৭০০ রুপি ….. এটা শুধু দ্বিতীয় বিচ থেকে হোটেল পর্যন্ত ।

এখানে অনেক ঘটনা ঘটেছে । লিখতে গেলে বড় হয়ে যায় । তাই লিখলাম না আর । হোটেলের ছোট রুমে আমরা সবাই যে যার মত এসে পৌছলাম। দেখলাম সবাই মাত্র ৩৫ রুপি ভাড়া দিয়ে সমুদ্র দেখে এসেছে । আমরা কই গেছিলাম আল্লাহ মালুম । সবাই কি সুন্দর সমুদ্র থেকে ঝিনুক কুড়িয়ে এনেছে । আর আমার কপালই খারাপ এত দুরে গিয়ে কিচুই করতে পারলাম না । তবুও তো সমুদ্র দেখেছি । কি মজা । জীবনের প্রথম সমুদ্র।

ভ্রমন পর্ব এখানেই সমাপ্ত । আমি জানি সবাই আমার প্রতি খুবই বিরক্ত । কতগুলা পর্ব দিছি । কিন্তু উপায় ছিল না কারণ ছবি বেশী দিলে পর্ব ছোট ছোট করে দিতেই হচ্ছে । মাফ করবেন বিরক্ত করার জন্য ।

৬৩৪ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমি খুবই সাধারণ একজন মানুষ । জব করি বাংলাদেশ ব্যাংকে । নেটে আগমন ২০১০ সালে । তখন থেকেই বিশ্ব ঘুরে বেড়াই । যেন মনে হয় বিশ্ব আমার হাতের মুঠোয় । আমার দুই ছেলে তা-সীন+তা-মীম ==================== আমি আসলে লেখিকা নই, হতেও চাই না আমি জানি আমার লেখাগুলোও তেমন মানসম্মত না তবুও লিখে যাই শুধু সবার সাথে থাকার জন্য । আর আমার ভিতরে এত শব্দের ভান্ডারও নেই সহজ সরল ভাষায় দৈনন্দিন ঘটনা বা নিজের অনুভূতি অথবা কল্পনার জাল বুনে লিখে ফেলি যা তা । যা হয়ে যায় অকবিতা । তবুও আপনাদের ভাল লাগলে আমার কাছে এটা অনেক বড় পাওয়া । আমি মানুষ ভালবাসি । মানুষকে দেখে যাই । তাদের অনুভূতিগুলো বুঝতে চেষ্টা করি । সব কিছুতেই সুন্দর খুঁজি । ভয়ংকরে সুন্দর খুঁজি । পেয়েও যাই । আমি বৃষ্টি ভালবাসি.........প্রকৃতি ভালবাসি, গান শুনতে ভালবাসি........ ছবি তুলতে ভালবাসি........ ক্যামেরা অলটাইম সাথেই থাকে । ক্লিকাই ক্লিকাই ক্লিকাইয়া যাই যা দেখি বা যা সুন্দর লাগে আমার চোখে । কবিতা শুনতে দারুন লাগে........নদীর পাড়, সমুদ্রের ঢেউ (যদিও সমুদ্র দেখিনি), সবুজ..........প্রকৃতি, আমাকে অনেক টানে,,,,,,,,,আমি সব কিছুতেই সুন্দর খুজি.........পৃথিবীর সব মানুষকে বিশ্বাস করি, ভালবাসি । লিখি........লিখতেই থাকি লিখতেই থাকি কিন্তু কোন আগামাথা নাই..........সহজ শব্দে সব এলোমেলো লেখা..........আমি আউলা ঝাউলা আমার লেখাও আউলা ঝাউলা ...................... ======================== এটা হলো ফেইসবুকের কথা........ ========================== কেউ এড বা চ্যাট করার সময় ইনফো দেখে নিবেন এবং কথা বলবেন...........আর আইস্যাই খালাম্মা বলে ডাকবেন না । পোলার মা হইছি বইল্যা খালাম্মা নট এলাউড......... ================ এই পৃথিবী যেমন আছে ঠিক তেমনি রবে সুন্দর এই পৃথিবী ছেড়ে একদিন চলে যেতে হবে ======================= কিছু মুহূর্ত একটু ভালোবাসার স্পর্শ চিত্তে পিয়াসা জাগায় বারবার এই নিদারুণ হর্ষ ....... ছB ========================= এই হলাম আমি........ =================
সর্বমোট পোস্ট: ৬৩৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৮৯৯৭ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-১৫ ০৪:৫২:৪০ মিনিটে
banner

৮ টি মন্তব্য

  1. ফেরদৌসী বেগম মন্তব্যে বলেছেন:

    খুব সুন্দর ভ্রমন পোষ্ট। বেশ মনে ধরেছে, তোমার সাথে আমিও ঘুরে আসলাম পুনেতে। অনেক অন্নেক ভালোলাগা আর মুগ্ধতা।

  2. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    ইচ্ছে আছে যাওয়ার।

  3. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    আমার সাধ হয় যেতে ।

  4. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর অতি সুন্দর
    সংগ্রহ অতি সুন্দর
    খুব ভাল থাকবেন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top