Today 17 Dec 2017
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

পুনে (ইন্ডিয়া)…… ভ্রমন (৫ম পর্ব-আঁগা খাঁ প্যালেস)

লিখেছেন: এই মেঘ এই রোদ্দুর | তারিখ: ০৮/১০/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 346বার পড়া হয়েছে।

এরপর আমরা রওয়ানা হই আঁগা খা প্যালেসের দিকে ……….. সেখানে ঘুরে দেখার সময় ছিল মাত্র ২০ মিনিট তাড়াহুড়া করে ছবি তেমন উঠাতে পারিনি ।

১। ভিতরে ঢুকেই একটা ক্লিক…….
https://farm8.staticflickr.com/7458/10134396124_1782ae325a.jpg

২। ভিতরকার আরেকটা ছবি । বটগাছ………..
https://farm4.staticflickr.com/3688/10134476115_11ac924446.jpg

৩। প্রাসাদে ঢুকার গেইটে এমন সুন্দর ফুলই ফুটেছিল
https://farm8.staticflickr.com/7389/10134474005_db39c6a2e2.jpg

৪।  প্রাসাদের ভিতর ঢুকতেছি…….
ভারতের পুনের আঁগা খাঁ প্যালেস ভারতের সুলতান মুহাম্মদ শাহ আঁগা খান তৃতীয় দ্বারা নির্মিত হয়েছিল ১৮৯২ সালে । ভারতের ইতিহাসে এই প্রাসাদটি একটি বৃহত্তম দর্শনীয় স্থান হিসাবে পরিচিত ।
https://farm4.staticflickr.com/3819/10134472015_8243f3d97f.jpg

৫। প্যালেস পরিচিতি স্তম্ভ
https://farm3.staticflickr.com/2824/10134547806_ca76dd13bc.jpg

৬।  প্যালেস পরিচিতি স্তম্ভ
https://farm8.staticflickr.com/7319/10134469095_501a02e28a.jpg

৭।  আগাঁ খাঁ প্যালেস ভারতের বিষ্ময়কর ও রাজকীয় প্রাদান হিসাবে বিবেচিত । এই প্রাসাদ ভারতীয় স্বাধীনতা আন্দোলনের সাথে ঘনিষ্টভাবে যাদের সাথে জড়িত তারা হলেন মহাত্মা গান্ধী, তার স্ত্রী কাস্তুরবা গান্ধী, তার সচিব মহাদেব দেশাই এবং সারোজিনি নাইডু । এখানেই কস্তুরবা গান্ধি আর মহাদেব দেশাই মারা যান । ২০০৩ সালে এই স্থানটিকে অর্থাৎ আঁগা খাঁ প্যালেসকে জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ স্মৃতিস্তম্ভ স্থান হিসাবে ঘোষণা করা হয় ।

কস্তুরবা গান্ধির মুর্তি……
https://farm8.staticflickr.com/7343/10134457115_8388ee782b.jpg

৮। দেয়ালে টানানো স্মৃর্তি সম্পর্কিত ওয়ালম্যাট……….
https://farm4.staticflickr.com/3687/10134386154_ddf7ef6752.jpg

৯।  ভিতরের আরেকটি গেইট…….. সবুজে সবুজ হয়ে আছে চারদিক
https://farm8.staticflickr.com/7452/10134542666_4bbe92d289.jpg

১০।  ঐতিহাসিকভাবে, প্রাসাদের মহান তাৎপর্য হয় মহাত্মা গান্ধী, তার স্ত্রী কস্তুরবা গান্ধী ও তার সচিব মহাদেব দেশাই ভারত ছাড়ো আন্দোলন প্রবর্তন অনুসরণ করেন বলে তারা ৯ আগস্ট ১৯৪২ হতে ৬ মে ১৯৪৪ পর্যন্ত এই প্রাসাদে বন্দি ছিলেন । কস্তুরবা গান্ধী ও মহাদেব দেশাই প্রাসাদে বন্দিদশা অবস্থায় মারা যান এবং ওইখানে অবস্থিত তাদের সমাধি আছে । মূলা নদীর কাছাকাছি একই কমপ্লেক্সে  মহাত্মা গান্ধী ও কস্তুরবা গান্ধী তাদের স্মৃতিসৌধগুলো অবস্থিত ।

মহাত্মা গান্ধীর মূর্তি…..
https://farm3.staticflickr.com/2873/10134540706_f67ddf1b2c.jpg

১০। মহাত্মা গান্ধী একটা বাচ্চাকে কুলে তোলে নিচ্ছেন……
https://farm8.staticflickr.com/7417/10134382244_0483d681e6.jpg

১১। দেয়ালে আঁকা যুদ্ধের স্মৃতি  চিহ্ণ…….
https://farm4.staticflickr.com/3674/10134589373_ec595ee905.jpg

১২। উনি আমাদেরকে প্রাসাদ সম্পর্কে তথ্য দিচ্ছেন……..
https://farm4.staticflickr.com/3831/10134537326_9d39495977.jpg

১৩।  ১৯৬৯ সালে আঁগা খান চতুর্থ শ্রদ্ধার গান্ধী ও তার স্মৃতি চিহ্ন এবং দর্শনীয় স্থান হিসাবে ভারতীয় ব্যক্তিদের দান করেন এই্ আঁগা খান প্যালেসটি ।  এই প্রাসাদেই মহাত্মা গান্ধীর অস্থি/ছাই রাখা হয়েছে । প্রধান মন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধি ১৯৭৪ সালে পরিদর্শন করেন এবং সেখানে গান্ধী স্মারক ঘর এর সেটির রক্ষণাবেক্ষণের জন্য প্রতি বছর INR200000 (মার্কিন $৩,১০০)এর বরাদ্দ রাখেন এবং এর পরিমাণ ১৯৯০ সাল পর্যন্ত INR1 মিলিয়ন (মার্কিন $ ১৫,০০০) বরাদ্দ ছিল । এর পর বেশ কয়েক বছর রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ফান্ডের টাকা বন্ধ থাকায় এখানকার স্মৃতিস্তম্ভগুলো অবহেলিত হয় । স্মৃতিস্তম্ভগুলো অবহেলার কারণে খারাপ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল বলে ১৯৯৯ সালের জুলাই মাসে পুনে রেল স্টেশনের কাছে একটি প্রতিবাদ মিছিল অনুষ্ঠিত হয় এবং এখানে মহাত্মা গান্ধীর একটি মুর্তি প্রতিষ্ঠিত হয় ।

কার মূর্তি সঠিক বলতে পারছি না  । আগেই বলেছি সময় অল্প ছিল যার কারণে সময় ধরে কিচুই ভালভোবে দেখতে পারছিলাম না …..

১৪। আরেকটা স্মৃতি স্তম্ভ
https://farm3.staticflickr.com/2850/10134587863_42212fcc83.jpg

১৫।
https://farm6.staticflickr.com/5513/10134535746_b8992f6b44.jpg

১৬। ডানেরটা মনে হয় আগা খা………এর ছবি
https://farm4.staticflickr.com/3734/10134586343_37069ef8b9.jpg

১৭। দেয়ালে পাথরে আঁকা মহাত্মা গান্ধী ও তার সহযোগীরা ..
https://farm8.staticflickr.com/7345/10134585103_ff1f99595c.jpg

১৮। মহাত্মা গান্ধীজির পড়নের কাপড় চোপড়…
https://farm4.staticflickr.com/3812/10134374964_24a9812a23.jpg

১৯। আগা খা প্যালেস
https://farm4.staticflickr.com/3726/10134530356_b6e30ba584.jpg

২০।  বৃষ্ঠি হচ্ছিল তখন আমরা একটা ছাদের নিচে দাড়াই সেখান থেকে একটা ক্লিক
https://farm3.staticflickr.com/2807/10134580813_8cb0c8ea64.jpg

২১। প্যালেস এক ধারে এই সুন্দর স্মৃতি বিজরিত বাড়িটি । এর ভিতর যাইনি আমরা
https://farm6.staticflickr.com/5530/10134578633_33a7d7e8f4.jpg

২২।  প্যালেসের আরেকটি ছবি
https://farm6.staticflickr.com/5336/10134527756_c2440d98ee.jpg

২৩।  আরেকটি গেইট । যেখান দিয়ে দেখা যাবে মহাত্মা গান্ধির ছাই স্তম্ভ শ্যাওলায় স্থান নিয়েছে সবর্তই । কেমন জানি পুরাতন পুরাতন ঘ্রানে চারদিক মাতিয়ে রেখেছে ।
https://farm6.staticflickr.com/5487/10134577343_5a5dc62bf1.jpg

২৪। সর্বত্র ই শ্যাওলা কেমন জানি পুরাতন পুরাতম গন্ধ
https://farm4.staticflickr.com/3739/10134521356_c6b53691ef.jpg

২৫। মহাত্মা গান্ধির ছাই সমাধি……..
https://farm3.staticflickr.com/2862/10134357654_f6835e7a43.jpg

https://farm8.staticflickr.com/7394/10134570093_1a7c4fb389.jpg

২৬। কস্তুরবা গান্ধি ও মহাদেব দেশাইয়ের ছাই ভষ্ম এখানে সমাধি করা হয় । মহাত্মা গান্ধীর সমাধি
https://farm6.staticflickr.com/5538/10134444555_6966e234a0.jpg

২৭। একটি লাইট স্ট্যান্ড ।
https://farm8.staticflickr.com/7307/10134564653_893719b3d7.jpg

২৮। বের আসতেছি আমরা সবাই……….
https://farm4.staticflickr.com/3717/10134561883_899ff097b0.jpg

আজ এখানেই শেষ আগামী পর্বে থাকবে পাবর্তী পাহাড়……… দেখার আমন্ত্রণ জানিয়ে আল্লাহ হাফেজ …… আজ

https://secure.flickr.com/photos/chhobi-chhobi/

ফ্লিকার পেইজে বড় করে দেখতে চাইলে

৩৯২ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমি খুবই সাধারণ একজন মানুষ । জব করি বাংলাদেশ ব্যাংকে । নেটে আগমন ২০১০ সালে । তখন থেকেই বিশ্ব ঘুরে বেড়াই । যেন মনে হয় বিশ্ব আমার হাতের মুঠোয় । আমার দুই ছেলে তা-সীন+তা-মীম ==================== আমি আসলে লেখিকা নই, হতেও চাই না আমি জানি আমার লেখাগুলোও তেমন মানসম্মত না তবুও লিখে যাই শুধু সবার সাথে থাকার জন্য । আর আমার ভিতরে এত শব্দের ভান্ডারও নেই সহজ সরল ভাষায় দৈনন্দিন ঘটনা বা নিজের অনুভূতি অথবা কল্পনার জাল বুনে লিখে ফেলি যা তা । যা হয়ে যায় অকবিতা । তবুও আপনাদের ভাল লাগলে আমার কাছে এটা অনেক বড় পাওয়া । আমি মানুষ ভালবাসি । মানুষকে দেখে যাই । তাদের অনুভূতিগুলো বুঝতে চেষ্টা করি । সব কিছুতেই সুন্দর খুঁজি । ভয়ংকরে সুন্দর খুঁজি । পেয়েও যাই । আমি বৃষ্টি ভালবাসি.........প্রকৃতি ভালবাসি, গান শুনতে ভালবাসি........ ছবি তুলতে ভালবাসি........ ক্যামেরা অলটাইম সাথেই থাকে । ক্লিকাই ক্লিকাই ক্লিকাইয়া যাই যা দেখি বা যা সুন্দর লাগে আমার চোখে । কবিতা শুনতে দারুন লাগে........নদীর পাড়, সমুদ্রের ঢেউ (যদিও সমুদ্র দেখিনি), সবুজ..........প্রকৃতি, আমাকে অনেক টানে,,,,,,,,,আমি সব কিছুতেই সুন্দর খুজি.........পৃথিবীর সব মানুষকে বিশ্বাস করি, ভালবাসি । লিখি........লিখতেই থাকি লিখতেই থাকি কিন্তু কোন আগামাথা নাই..........সহজ শব্দে সব এলোমেলো লেখা..........আমি আউলা ঝাউলা আমার লেখাও আউলা ঝাউলা ...................... ======================== এটা হলো ফেইসবুকের কথা........ ========================== কেউ এড বা চ্যাট করার সময় ইনফো দেখে নিবেন এবং কথা বলবেন...........আর আইস্যাই খালাম্মা বলে ডাকবেন না । পোলার মা হইছি বইল্যা খালাম্মা নট এলাউড......... ================ এই পৃথিবী যেমন আছে ঠিক তেমনি রবে সুন্দর এই পৃথিবী ছেড়ে একদিন চলে যেতে হবে ======================= কিছু মুহূর্ত একটু ভালোবাসার স্পর্শ চিত্তে পিয়াসা জাগায় বারবার এই নিদারুণ হর্ষ ....... ছB ========================= এই হলাম আমি........ =================
সর্বমোট পোস্ট: ৬৩৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৮৯৯৭ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-১৫ ০৪:৫২:৪০ মিনিটে
banner

৮ টি মন্তব্য

  1. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    ছবিগুলো দেখে মুগ্ধ হলাম।

  2. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    চমত্কার ছবি সম্বলিত ভ্রমন কাহিনী টি পড়ে ভালো লাগলো

  3. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    আমার তো ভ্রমণের ইচ্ছে করছে ।
    ছবিগুলো চমত্‍কার হয়েছে ।
    হবেই তো পাকা হাতে তোলা ।

  4. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    কত কি দেখার
    মুগ্ধ হলাম

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top