Today 23 Sep 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

পুনে (ইন্ডিয়া)…… ভ্রমন (৬ষ্ট পর্ব-পার্বতী হিল)

লিখেছেন: এই মেঘ এই রোদ্দুর | তারিখ: ২২/১০/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 717বার পড়া হয়েছে।

আগা খাঁ প্যালেস হতে বের হয়ে আমরা রওয়ানা হই পার্বতী হিলের দিকে ……… ১০ মিনিটের মধ্যে সেখানে পৌঁছে যাই সেখানে ……
১। উঠার সিঁড়ি
https://farm4.staticflickr.com/3804/10397776495_8db0e928b5_z.jpg

এত উঁচু হবে প্রথমে ভাবতে পারিনি ।

২। আরেকটি দৃশ্য
https://farm3.staticflickr.com/2893/10397934853_df9df79b35_z.jpg

আস্তে আস্তে সবাই উঠছি তো উঠছিই সিড়ি শেষ হয় না আর …. এরই মধ্যে এক আপা আর এক ভাই সিঁড়ি ভেঙ্গে অর্ধেক উঠে আবার নিচে নেমে গেছেন কষ্টের কারণে । আমি তো এক নম্বর হইছি । দৌঁড়াইয়া উপরে উঠেছি । কষ্ট যে হচ্ছিল না তানা ।

আমি সবাইকে বুদ্ধি দিলাম যেন তারা সিঁড়ি ঝিকঝাক পদ্ধতিতে উঠেন মানে কোনাকুনি করে প্রতিটি সিঁড়ি তাহলে কষ্ট কম হবে । অনেকেই আমার কথামত উপরে উঠেছেন ……. একেবারে হাফিয়ে গেছি সিঁড়ি দিয়ে উঠতে উঠতে বাপ্রে ……….অবশেষে উঠে গেলাম একেবারে উপরে মানে পার্বতী হিলে…..

৩। উঠতেই দেখি একটা মন্দির । কি নাম ছিল সেটার দেখিনি
https://farm4.staticflickr.com/3752/10397761474_d0cf25ec3f_z.jpg

৪। এটি আরেকটি মন্দিরের গেইট । এখান দিয়ে গিয়ে আমরা উপরে উঠে পুনের দৃশ্য দেখেছি
https://farm3.staticflickr.com/2891/10397933093_ff3b4d5118_z.jpg

ভারতের পুনেতে পার্বতী হিল হল একটি উপগিরি বা ক্ষুদ্রপাহাড়  । এই ক্ষুদ্রপাহাড়টি সমুদ্রতল হতে ২১০০ ফুট উপরে (৬৪০ মিটার) । এই পাহাড়ে একটি মন্দির আছে যার নাম পার্বতী মন্দির । পাহাড়ের উপর থেকে পুনের সুন্দর দৃশ্যটি চোখের পড়ার মত । উচু নিচু বিল্ডিং, কোথাও বস্তি এলাকা আবার অনেক দুরের পাহাড়গুলো দেখতে দারুন ভাল লাগে ।

৫। মন্দিরের গায়ে লাগানো একটি মূর্তি…… এটি দেবদেবাশ্বরার মূর্তি বোধ হয়
https://farm4.staticflickr.com/3808/10397771555_44f6e06514_z.jpg

পার্বতী মন্দিরগুলো পুনের প্রাচীনতম ঐতিহ্যবাহী মন্দির । এটি পেশওয়া বংশের নিয়মানুযায়ী নির্মিত হয়েছিল । পার্বতী পাহাড়েরর বিস্তৃত সুন্দর দৃশ্যস্পটে দর্শকদের জন্য একটি পর্যবেক্ষণ স্পট হিসাবে ব্যবহার করা হয় । এটি দ্বিতীয় সবোর্চ্চ পয়েন্ট পুনের (ভেটাল হিলের পরে) । এই পাহাড়ে উঠতে ১০৩ ধাপ সিঁড়ি মাড়িয়ে উঠতে হয় । পাহাড় আর মন্দিরের সমন্বয়ে সুন্দর একটি দৃশ্যপট…….. যা খুবই ভাল লাগছে আমার ।

৬। সুন্দর সবুজ গাছপালা । উপর থেকে উঠাইছি
https://farm4.staticflickr.com/3831/10397793376_7cc9f802e8_z.jpg

৭। এটিও উপর থেকে তোলা
https://farm4.staticflickr.com/3798/10397767875_5e1f6dfdd1_z.jpg

৮।  মন্দিরের উপরের অংশ
https://farm6.staticflickr.com/5499/10397766165_bacb559d13_z.jpg

৯। মন্দিরের ভিতর
https://farm4.staticflickr.com/3738/10397925273_c7633acc9b_z.jpg

১০। পুরো মন্দির
https://farm6.staticflickr.com/5487/10397786636_b04fb3878a_z.jpg

এই মন্দিরটাই বেশী দেখা হইছে এবং সুন্দর ছিল মন্দিরটি

১১। মন্দিরে একাংশ
https://farm4.staticflickr.com/3748/10397786056_0e3f4ab63a_z.jpg

১২।শ্রী সূর্য নারায়ন মন্দির
https://farm3.staticflickr.com/2888/10397761285_2c883d8230_z.jpg

১৩। মন্দির
https://farm8.staticflickr.com/7414/10397920863_a6d21fda2f_z.jpg

১৪। এখান থেকেই আমরা পুনের শহর দেখতে পেরেছি
https://farm6.staticflickr.com/5500/10397745934_8470dfc58a_z.jpg

১৫। কি সুন্দর সবুজ গাছপালা…..
https://farm3.staticflickr.com/2854/10397743854_fefea0b4ae_z.jpg

১৬। পুনে শহর
https://farm4.staticflickr.com/3775/10397755965_afdbde3b55_z.jpg

১৭। উপরে একজন আয়েশ করে দৃশ্য দেখতেছে
https://farm8.staticflickr.com/7395/10397754565_fd541ed557_z.jpg

১৮। বস্তি এলাকা
https://farm6.staticflickr.com/5532/10397740614_db906f8b6b_z.jpg

১৯। সাদা বিল্ডিং গুলো ভাল লাগছিল
https://farm3.staticflickr.com/2855/10397739764_44b3e7ee8a_z.jpg

২০। আর কিছু সবুজ
https://farm8.staticflickr.com/7370/10397774536_232bf2afc2_z.jpg

২১। সুন্দর পুনে শহর
https://farm3.staticflickr.com/2883/10397908493_b772035594_z.jpg

২২। অই যে দুর পাহাড় । কি চমৎকার লাগছিল । কোন পাহাড়ে গুড়ি গুরি বৃস্টি হচ্ছিল ….. আকাশ মেঘলা থাকায় ছবিগুলো তেমন স্পষ্ট আসেনি । সবই ঘোলাঘোলা…….. আমাদেরকেও শেষ পর্যন্ত বৃষ্ঠি ভিজাইছিল………. বৃষ্টির কারণে বেশীক্ষণ আর থাকা হয়নি সেখানে …….বৃষ্টি নেমে গেছে
https://farm3.staticflickr.com/2883/10397908493_b772035594_z.jpg

 

মূল মন্দির দেবদেবাশ্বরা কালো পাথর দিয়ে ১৭৪৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ।
নানাসাহেব মন্দিরটি পেশওয়ার অধীনে নির্মিত হয়েছিল
পার্বতী হিলে মোট ৫টি মন্দির আছে:

দেবদেবাশ্বর মন্দির (শিব ও পার্বতী)
কার্তিকেয়া মন্দির
বিষ্ণু মন্দির
ভিথাল মন্দির
রমনা মন্দির

এছাড়া এখানে মন্দির ছাড়াও পেশওয়া যাদুঘর আছে । নানাসাহেব পেশওয়া যিনি তার জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত এখানে বসবাস করেছে এবং তার সমাধীও এখানেই অবস্থিত । পার্বতী জল সাপ্লাই ট্যাংক এর পানি সরবরাহ করা হয় পুনের অর্ধেক জনগোষ্টির জন্য ।

বৃষ্টি আসাতে আমরা নামতে শুরু করলাম । সিড়িগুলো এত পিচ্ছিল হইছিল যে নামাটা অনেক কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায় বয়স্কদের জন্য । আমি সেন্ডেল খুলে হাতে নিয়ে নেই তারপর আগুল টিপে টিপে নামতে থাকি । আর অপর দিকে দেখি এক ভাইয়া আমার ফটো উঠাইতাছে মনে মনে খুশি হইলাম এই বৃষ্টির মধ্যে ছবি উঠানোর মজাই আলাদা ।……..

ইতোমধ্যে আমি নেমে এসেছি আর অন্যান্যরা নামতেছে ধীরে ধীরে । এমন সময় দেখি একটি সুন্দরী মেয়ে ধপাস করে পড়ে গেছে পিছলে কয়ে সিড়ি নিচে নেমে উঠে বসেছে । ব্যথা পাইলেও সে বুঝাইছে যে ব্যথা পায়নি । ……

পার্বতী পাহার দেখা শেষ হলে আমরা আবার রওয়ানা হলাম দিনকার জাদুঘরের উদ্দেশ্যে………..

৭৮৫ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমি খুবই সাধারণ একজন মানুষ । জব করি বাংলাদেশ ব্যাংকে । নেটে আগমন ২০১০ সালে । তখন থেকেই বিশ্ব ঘুরে বেড়াই । যেন মনে হয় বিশ্ব আমার হাতের মুঠোয় । আমার দুই ছেলে তা-সীন+তা-মীম ==================== আমি আসলে লেখিকা নই, হতেও চাই না আমি জানি আমার লেখাগুলোও তেমন মানসম্মত না তবুও লিখে যাই শুধু সবার সাথে থাকার জন্য । আর আমার ভিতরে এত শব্দের ভান্ডারও নেই সহজ সরল ভাষায় দৈনন্দিন ঘটনা বা নিজের অনুভূতি অথবা কল্পনার জাল বুনে লিখে ফেলি যা তা । যা হয়ে যায় অকবিতা । তবুও আপনাদের ভাল লাগলে আমার কাছে এটা অনেক বড় পাওয়া । আমি মানুষ ভালবাসি । মানুষকে দেখে যাই । তাদের অনুভূতিগুলো বুঝতে চেষ্টা করি । সব কিছুতেই সুন্দর খুঁজি । ভয়ংকরে সুন্দর খুঁজি । পেয়েও যাই । আমি বৃষ্টি ভালবাসি.........প্রকৃতি ভালবাসি, গান শুনতে ভালবাসি........ ছবি তুলতে ভালবাসি........ ক্যামেরা অলটাইম সাথেই থাকে । ক্লিকাই ক্লিকাই ক্লিকাইয়া যাই যা দেখি বা যা সুন্দর লাগে আমার চোখে । কবিতা শুনতে দারুন লাগে........নদীর পাড়, সমুদ্রের ঢেউ (যদিও সমুদ্র দেখিনি), সবুজ..........প্রকৃতি, আমাকে অনেক টানে,,,,,,,,,আমি সব কিছুতেই সুন্দর খুজি.........পৃথিবীর সব মানুষকে বিশ্বাস করি, ভালবাসি । লিখি........লিখতেই থাকি লিখতেই থাকি কিন্তু কোন আগামাথা নাই..........সহজ শব্দে সব এলোমেলো লেখা..........আমি আউলা ঝাউলা আমার লেখাও আউলা ঝাউলা ...................... ======================== এটা হলো ফেইসবুকের কথা........ ========================== কেউ এড বা চ্যাট করার সময় ইনফো দেখে নিবেন এবং কথা বলবেন...........আর আইস্যাই খালাম্মা বলে ডাকবেন না । পোলার মা হইছি বইল্যা খালাম্মা নট এলাউড......... ================ এই পৃথিবী যেমন আছে ঠিক তেমনি রবে সুন্দর এই পৃথিবী ছেড়ে একদিন চলে যেতে হবে ======================= কিছু মুহূর্ত একটু ভালোবাসার স্পর্শ চিত্তে পিয়াসা জাগায় বারবার এই নিদারুণ হর্ষ ....... ছB ========================= এই হলাম আমি........ =================
সর্বমোট পোস্ট: ৬৩৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৮৯৯৮ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-১৫ ০৪:৫২:৪০ মিনিটে
banner

১১ টি মন্তব্য

  1. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    ছবি দেখে মন ভরে গেল। দেখার স্বাদ কিছুটা মিঠল।

  2. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    মন মুগ্ধকর ছবি ।

  3. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    সহজ শব্দে সুন্দর মনোমুগ্ধকর ভ্রমন কাহিনী
    অপূর্ব সব ছবি
    ধন্যবাদ এই মেঘ এই রোদ্দুর আপা
    আল্লাহ আমি আপনাকে ভাই মনে করছিলাম
    গ্রেট ফিল করলাম
    কোনো মেয়ে এত চমত্কার ভ্রমন কাহিনী লিখতে পারে কল্পনাতে ছিলনা

  4. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    হিহিহিহি অনেকেই ভাই মনে করে

    ধন্যবাদ সুন্দর মন্তব্যের জন্য

  5. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর চবিতা

    অনেক অনেক ভাল লাগা।

  6. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    ছবি দেখছি আর মুগ্ধ হচ্ছি ।
    ভাল থাকবেন

  7. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    নাইস ছবি

    মুগ্ধকর

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top