Today 23 Aug 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

ফেরা

লিখেছেন: হাসান ইমতি | তারিখ: ০৯/০১/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1044বার পড়া হয়েছে।

প্রায় এক যুগ পর অবশেষে সত্যিই আবার ফিরে এলাম,
এই খানে ঝুপড়িমত চা সিগারাটের একটি দোকান ছিল,
এক বুড়ো চা ওয়ালা আর তার ঝগড়াটে দুই বউ ছিল,
একটি বউ আবার কড়কড়ে যুবতী ছিল, তার হাতের কড়া
লেবু চা ছিল তার চেয়েও, তার অহেতুক বাধভাঙা হাসির,
তার দুধেল খুনসুটির চেয়েও তরতাজা ও উত্তেজক,
দোকানময় তাই তখন অনেক খদ্দেরের ভিড়ও ছিল,
এখানে কেটেছিল অনেক বন্ধুময় লেবুগন্ধি বিকেল,
এখানে সময় থমকে যেত গন্তব্যহীন মানুষের মত ।

রমিজ বুড়োর চায়ের দোকানের কথা জানতে চাইলে
আজ আর কেউ বলতে পারলো না, চিনলও না কেউ,
স্মৃতিময় পুরনো শহরতলিতে মনে হয় এত দিন পর ফিরে
আসা একটি কষ্টকর ভুল, এভাবে হয়তো কখনো ফিরতে
হয় না ফেলে আসা মৃত স্মৃতির কাছে, সামনে এগিয়ে
মৃন্ময়ের সেলুনের খোঁজ নিলাম, যদি জানা যায় কিছু,
সে তো আর কাঁচা ঝুপড়ি দোকান নয়, রীতিমত কংক্রিট
আর চুন সুরকির পাকা দালান বাড়ি, তাই চিনল কেউ কেউ,
ইন্ডিয়া চলে গেছে যুদ্ধের বছর, এর বেশী কিছু জানা গেল না,
মৃন্ময়ের নাদুস নুদুস ফর্সা বউ ও গণ্ডাকয় ছেলে পুলেও ছিল,
তাদের নাম নিশানাও আরও অনেকের মত হারিয়ে গেছে
এই শহরতলীর পরিবর্তনশীল আলো ঝলমলে দিনপঞ্জি থেকে ।

জানা গেলো না গলির মোড়ের বুড়ো হরিহর ময়রার মিষ্টির
দোকান, নন্দীলাল পণ্ডিতের পুথিঘর লাইবেরি, কিম্বা মিহিরের
ছাপাখানার কোন হদিসও, কালের গর্ভে হারিয়ে যাওয়া এইসব
অপ্রয়োজনীয় মানুষদের এই শহরের কেউ আজ আর চেনে না,
এরা আজ আর বদলে যাওয়া শহরের হাঁসি কান্নার অংশ নয় ।

খুজতে খুজতে অবশেষে ফিরে এলাম পুরনো সেই প্রিয় ঠিকানায়,
সেই চুন সুরকির পুরনো দালান ঘর, সবুজ ঘাসময় উঠোন বাড়ি,
বাড়ীর সামনে ক্রিকেট খেলার খোলা মাঠ, প্রতি বিকেলে ব্যাট
বলের খেলা, খেলার আড়ালে খেলা, চোখে চোখে খেলা, কথার
খেলা, অপেক্ষার খেলা, এখানে কেটেছে অনেক স্মৃতিময় সময়,
কিন্তু কিছুই আজ আর নেই আগের মত, বদলে গিয়েছে বিস্তর,
বদলে গিয়েছে মানুষ, বদলে গিয়েছে সময়, বদলে গিয়েছে সব,
এক যুগ পর ফিরে আমিই কেবল রয়েছি পুরনো ঘড়িতে স্থির ।

ডেভলপারের অশেষ বদান্যতায় সেখানে আজ জ্বলজ্বল চোখে
ধরণীর নরম বুক কংক্রিটের কঠিন পায়ে মাড়িয়ে নির্ভুল দাড়িয়ে
আছে বারতলা মাল্টিপ্লেক্স, বুকে “বসুমতি বিল্ডার্স” নামের
অত্যুজ্জ্বল সাইন বোর্ড ঝুলে আছে উন্নতির রাজসাক্ষী হয়ে,
খোঁজ নিজে জানলাম, বার তলায় সর্বমোট চব্বিশটি ফ্ল্যাট,
নাগরিক ইট সুরকির আকাশহীন লালচুলো আধুনিক বস্তি,
এরই কোন একটির টানেই বহুদিন পর হয়তো আমি ফিরেছি,
ডাক নাম তার ছিল রিমঝিম, এই নামে তাকে কেউ আজ
আর চিনল না, সামাজিক নিয়মে সল্প পরিচিতা, রক্ষণশীল সে
সময়ে তার পুরো নামটিও জানা হয়নি কখনো, তার চোখের
তারায় কেবলই ছিল সাগরের নীল আহবান, তার অদেখা
প্রবাসী বাবার নাম ফয়েজ বা সরফরাজ গোছের কিছু ছিল,
বংশ পদবীও আজ ঠিক মনে নেই, সে অনেকদিন আগের কথা,
কে আমি, কেন এসেছি, কোথায় এসেছি, কার কাছে এসেছি
এইসব নানাবিধ সঙ্গত সামাজিক প্রশ্নের কোন সদুত্তর নেই আজ,
ফিরে যাবার ছাড়পত্র হাতে আসা আমার বশেও নেই অনন্ত সময়,
তাই আজ খোঁজ মিলল না ফেলে আসা কিছু প্রিয় অতীত ভুলের,
একই পৃথিবী, একই আকাশ, তবু কোন কিছুই আজ এক নয়,
বদলে গিয়েছে সময়, বদলে গিয়েছে মানুষ, বদলেছে ঠিকানা,
এই পৃথিবীতে থেকেও সেই স্মৃতিময় মানুষগুলো আজ আর নেই ।

১,০৩৭ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমি হাসান ইমতি, জন্মস্থান ফরিদপুর, বর্তমান বাসস্থান উত্তরা, ঢাকা । আমি মূলতঃ অনলাইন ভিত্তিক প্ল্যাটফর্মে লেখালেখি করে থাকি । এ ধারায় কবিতা ভিত্তিক সাইটের ভেতর রয়েছে বাংলা কবিতা, কবিতা ক্লাব, কবিতা ইবারয়ারি, গল্প কবিতা, বাংলার কবিতা ইত্যাদি এবং ব্লগের ভেতর সামহোয়্যার ইন ব্লগ, চলন্তিকা, ইস্টিশন, নক্ষত্র, আমার ব্লগ, চতুর্মাত্রিক ইত্যাদি। ইতিমধ্যে ই-ম্যাগের ভেতর অন্যনিষাদ, কালিমাটি, মিলন সাগর, জলভূমি, প্রতিচ্ছবি, বাঙ্গালিয়ানা সহ আরও কিছু ব্লগজিন ও বাজিতপুর প্রতিদিন, মিডিয়াবাজ, নব দিবাকর, তোমার আমার, বাংলা নিউজ ২৪, নারায়ণগঞ্জ টাইমস সহ আরও কিছু অনলাইন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে আমার লেখা । প্রিন্ট মিডিয়ার ভেতর গত ২০১৫ ইং বইমেলায় সাহিত্যকথা, অন্যপ্রকাশ, তারুন্য সহ আরও কয়েকটি সংকলনে আমার লেখা প্রকাশিত হয়েছে । এর বাইরে ভারতের দিগন্ত পত্রিকা, যুগসাগ্নিক, ঢাকার লেখচিত্র প্রকাশনী, বাংলার কবিতাপত্র, অতসী পত্রিকাসহ আরও কিছু প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয়েছে আমার লেখা । অনলাইনে আয়োজিত আটকাহন সাহিত্য পুরস্কার, গল্পলেখা সাহিত্য পুরস্কার ও সৃষ্টিসুখের উল্লাসে সাহিত্য পুরস্কার সহ আরও কিছু সাহিত্য পুরস্কার আমার লেখাকে সন্মানিত করেছে । ব্যক্তি জীবনে আমি কমনওয়েলথ এম বি এ শেষ করে সি এ করার পাশাপাসি একটি উৎপাদন মুখী প্রতিষ্ঠানে নিরীক্ষা বিভাগে কর্মরত আছি । গুগলে অভ্র দিয়ে বাংলায় "হাসান ইমতি" লিখে সার্চ দিলে আমার সম্পর্কে আরও জানা এবং আমার লেখার একাংশ পড়া যাবে ।
সর্বমোট পোস্ট: ১৫৪ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৮০৮ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৪-১২-১৪ ১১:৫৬:২৪ মিনিটে
Visit হাসান ইমতি Website.
banner

১৪ টি মন্তব্য

  1. সহিদুল ইসলাম মন্তব্যে বলেছেন:

    স্মৃতিময় কবিতা , অনেক সুন্দর হয়েছে, ভালো থাকুন কবি ভাই

  2. হাসান ইমতি মন্তব্যে বলেছেন:

    লেখা পড়া ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ইসলাম …

  3. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    খুব সুন্দর উপস্থাপনা

    খুব ভাল লাগল ।

  4. তাপসকিরণ রায় মন্তব্যে বলেছেন:

    খুব ভাল লেগেছে–সুন্দর পরিপাটি স্মৃতির অনুলেখ–কাহিনী কবিতা।

  5. হামি্দ মন্তব্যে বলেছেন:

    এক যুগ পর ফিরে এসে স্মৃতিচারণ। ভাল লাগল কবিতাটি …………

  6. হাসান ইমতি মন্তব্যে বলেছেন:

    পড়া ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ @ কবিবন্ধু দীপঙ্কর বেরা

  7. হাসান ইমতি মন্তব্যে বলেছেন:

    পড়া ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ @ তাপসকিরণ রায়

  8. হাসান ইমতি মন্তব্যে বলেছেন:

    পড়া ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ @ হামি্দ

  9. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর স্মৃতিময় কবিতা অনেক ভাল লাগা রইল

  10. হাসান ইমতি মন্তব্যে বলেছেন:

    পড়া ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ @ এই মেঘ এই রোদ্দুর

  11. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    “বদলে গিয়েছে সময়, বদলে গিয়েছে মানুষ, বদলেছে ঠিকানা,
    এই পৃথিবীতে থেকেও সেই স্মৃতিময় মানুষগুলো আজ আর নেই ।”

    সুন্দর স্মৃতিকথায় বেশ সুলিখিত কবিতা মনে দোলা দিয়ে যায়।
    ভাল লাগল কবি। শুভেচ্ছা জানবেন।

  12. হাসান ইমতি মন্তব্যে বলেছেন:

    ভালোবাসা অনিরুদ্ধ ।।

  13. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    ফাইন ,,,,,,,,,,,,,,,
    নাইস লিখা……….
    দারুন কাব্যতা ….মুগ্ধতা জানুয়ে গেলাম
    শুভ কামনা রইল

  14. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    বেশ ভাল বেশ
    নাইস লিখা……….
    দারুন কাব্যতা ….মুগ্ধতা জানুয়ে গেলাম
    শুভ কামনা রইল

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top