Today 10 Dec 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

বিশ্বের সবচেয়ে আরামদায়ক সিনেমা হল

লিখেছেন: এ্যাডভোকেট শিশির আহমেদ | তারিখ: ০১/০৫/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 738বার পড়া হয়েছে।

সিনেমা দেখতে আমরা সকলেই ভালোবাসি। তবে সবচেয়ে বেশি ভালো হয় যদি সে ফিল্ম আপনি সিনেমা হলে গিয়ে দেখেন। কিন্তু সিনেমা হলে যদি থাকে শুয়ে শুয়ে সিনেমা দেখার ব্যবস্থা তাহলে তো কথাই নেই। তাই আসুন জেনে নেয়া যাক বিশ্বের কয়েকটি আরামদায়ক সিনেমা হল সম্পর্কে। যেগুলোতে থাকছে শুয়ে বসে অর্থাৎ সর্বোচ্চ আরামদায়কভাবে সিনেমা উপভোগের ব্যবস্থা।শুয়ে সিনেমা দেখার ধারায় প্রথমেই আসবে ইংল্যান্ডের ‘ইলেক্ট্রা সিনেমা’ হলের নাম।

1

সিনেমা আপনাকে দিচ্ছে আরাম করে সিনেমা দেখার যাবতীয় উপকরণ। যার মধ্যে থাকছে আরাম কেদারা, সোফা। এতেও যদি আপনি মজা না পান তাহলে আপনার জন্য বিছানা তো থাকছেই। তবে এখানে সিনেমা দেখলে আপনার একটু অপূর্ণতা থেকে যেত পারে কারন শুয়ে সিনেমা দেখার ব্যবস্থা পর্দার সামনে হওয়ায় আপনার ঘাড় ৯০ ডিগ্রি ঘুরিয়ে সিনেমা দেখতে হবে।

শুধু এই কষ্টটুকু ছাড়া ইলেক্টা সিনেমা হলে কিন্তু শুধু অরাম আর আরাম। এর চেয়ে যদি আরো একটু আরামে সিনেমা দেখতে চান তাহলে আপনাকে চলে যেতে হবে ইন্দোনেশিয়ার ‘ব্লিতজ মেগাপ্লেক্সে’। এটি আপনাকে দেবে মখমলের নরম বিছানায় শুয়ে সিনেমা দেখার সুবিধা। এর সাথে রয়েছে মজাদার নাশতার ব্যবস্থা।3

তবে এখানে সিনেমা দেখতে হলে আপনার হাতকে অনেক খুলতে হবে। কারন এখানে সিনেমা দেখার একটি টিকেটের মূল্য অন্যান্য টিকেটের চেয়ে প্রায় চারগুন! শুয়ে সিনেমা দেখার সুবিধা শুধু ইন্দোনেশিয়া লোকেরাই পাবে?

পাশবর্তীদেশ মালয়েশিয়ার লোকেরা কেন নয়। হ্যাঁ, তাদের জন্যও শুয়ে সিনেমা দেখার ব্যবস্থা করেছে ‘বিয়েনি’ নামের একটি চেইন সিনেমা গ্র“প। এখানে আপনি জাজিমের বিছানার সাথে আরামদায়ক বালিশও পাবেন। একটি বিছানায় দু জনের শোয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। ধরুন এরকম একটি বিছানায় প্রিয়জনকে সাথে নিয়ে আপনি হলিউডের সিনেমা দেখছেন? কি মজাই হয় তাহলে, তাই না?

 

তবে আপনি যদি এর চেয়ে আরো বেশি আরাম পেতে চান তাহলে আপনাকে যেতে হবে থাইল্যান্ডে। কারন থাইল্যান্ডের সিয়াম প্যারাগন মলের ‘প্যারাগন সিনেপ্লেক্স’ আপনাকে সিনেমা দেখার সাথে দিচ্ছে অ্যালকোহল ও পপকর্ণের স্বাদ গ্রহণের সুবিধা। কিছুক্ষণ পরপর আপনার সামনে পরিবেশিত হবে থাইল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী সুস্বাদু খাবার। তবে এখানে সিনেমা দেখার টিকেট পেতে আপনার রীতিমত সংগ্রাম করতে হবে। কারন এখানে একসাথে মাত্র ৩৪ জনের সিনেমা দেখার সুযোগ রয়েছে। আর একটি টিকেটের জন্য আপনাকে গুনতে হবে মাত্র ৯১ ডলার!

৭৩৪ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
সর্বমোট পোস্ট: ৩১ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ০ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-২৫ ১১:৫৫:১৮ মিনিটে
banner

৫ টি মন্তব্য

  1. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    বৈচিত্রময় বটে!
    শুভেচ্ছা জানাই আপনাকে –

  2. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    বৈচিত্রময় তো বটেই
    দারুন মুগ্ধকর …………………..বাট
    আমাদের দেশে ছি; নেমা হলে গেলে ছারপোকা আর রক্তশোষার
    কবলে পড়তে হয় ,,,,তাই সিনেমা হলে কবে কখন গিয়ে ছিলাম
    মনে নেই ,,,,,,আর যাবোও না ……
    আপনাকে ধন্যবাদ সুন্দর পোষ্ট

  3. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর পোষ্ট

  4. টি. আই. সরকার (তৌহিদ) মন্তব্যে বলেছেন:

    জানা পর্যন্তই সীমাবদ্ধ থাকছি ! সম্ভবত সেখানে গিয়ে সিনেমা দেখার সৌভাগ্য হবে না ! :)
    সুন্দর পোস্টের জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা ।

  5. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    আসলেই আরাম দায়ক হবে

    ধন্যবাদ

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top