Today 06 Dec 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

এবার ভিক্ষুকদের নিজের ব্যাংক!

লিখেছেন: অনিরুদ্ধ বুলবুল | তারিখ: ২৮/০৩/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 701বার পড়া হয়েছে।

নিজেদের টাকা রাখতে ব্যাংক খুলেছেন ভারতের বিহার প্রদেশের গোয়া শহরের একদল ভিখারী। ভারত সরকার পরিচালিত বা বিদেশি ব্যাংকের ভারতীয় শাখায় তারা টাকা রাখবেন না বলে প্রতীজ্ঞা করেছেন। তাই ৪০ জন মিলে খুলে ফেলেছেন একটি নিজস্ব ব্যাংক।

সর্বসম্মতিক্রমে নিজেদের তৈরি ব্যাংকের নাম দিয়েছেন ‘মঙ্গলা ব্যাংক্থ। সরকারি অনুমোদনহীন ব্যাংকের কর্মী, ম্যানেজার থাকলেও তাদের নেই কোনো শাখা ও কম্পিউটার সার্ভার। হিসাব রাখা হয় খাতায়। ব্যাংকটির ভবন বা সাইনবোর্ড রাখা হয়নি গোপনীয়তায় স্বার্থে। জীবনের সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে যাতে তাদের অথৈ জলে পড়তে না হয়, তাই জ্যেষ্ঠ ভিখারীরা এই উদ্যোগ নিয়েছেন।

বছরের পর বছর ধরে গোয়া শহরের মঙ্গলগৌরি মন্দিরের সামনে যে সব ভিখারী সাহায্যের আশায় হাত বাড়িয়ে দাঁড়িয়ে থাকেন, তারাই একত্রিত হয়ে এই ব্যাংকটি খুলেছেন।

ব্যাংকের ম্যানেজার ভিখারী রাজকুমার মাঝি বলেন, এই ব্যাংকের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী ভিখারী। আমি-ই এই ব্যাংকের ম্যানেজার। অশিক্ষিত তিনি একেবারেই নন। দিব্যি ব্যাংকের প্রাথমিক অ্যাকাউন্টের কাজ চালাতে পারেন।

প্রতিদিন প্রতি ভিখারী রোজগারের টাকা থেকে কুড়ি টাকা করে ব্যাংকে জমা রাখে। সপ্তাহ শেষে তা গিয়ে দাঁড়ায় মাথাপিছু ১৪০ টাকায়।

এই টাকা দিয়ে ভবিষ্যতে বড় কিছু করার ইচ্ছার কথাও জানান ব্যাংকের ম্যানেজার ভিখারী রাজকুমার।

 

তথ্য সূত্র: http://www.now-bd.com/2015/03/28/388428.htm

৬৯৫ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
কৈফিয়ত - তোমরা যে যা-ই ব'ল না বন্ধু; এ যেন এক - 'দায়মুক্তির অভিনব কৌশল'! যেন-বা এক শুদ্ধি অভিযান - 'উকুন মেরেই জঙ্গল সাফ'!! প্রতিঘাতের অগ্নি-শলাকা হৃদয় পাশরে দলে - শুক্তি নিকেশে মুক্তো গড়ায় ঝিনুকের দেহ গলে!! মন মুকুরের নিঃসীম তিমিরে প্রতিবিম্ব সম - মেলে যাই কটু জীর্ণ-প্রলেপ ধূলি-কণা-কাদা যত। রসনা যার ঘর্ষনে মাজা সুর তায় অসুরের দানব মানবে শুনেছ কি কভু খেলে হোলি সমীরে? কাব্য করি না বড়, নিরেট গদ্যও জানিনে যে, উষ্ণ কুসুমে ছেয়ে নিয়ো তায় - যদি বা লাগে বাজে। ব্যঙ্গ করো না বন্ধু আমারে অচ্ছুত কিছু নই, সীমানা পেরিয়ে গেলে জানি; পাবে না তো আর থৈ। যৌবন যার মৌ-বন জুড়ে ঝরা পাতা গান গায় নব্য কুঁড়ির কুসুম অধরে বোলতা-বিছুটি হুল ফুটায়!! ভাল নই, তবু বিশ্বাসী - ভালবাসার চাষবাসে, জীবন মরুতে ফুটে না কো ফুল কোন অশ্রুবারীর সিঞ্চনে। প্রাণের দায়ে এঁকে যাই কিছু নিষ্ঠুর পদাবলী: দোহাই লাগে, এ দায় যে গো; শুধুই আমার, কেউ না যেন দুঃখ পায়।
সর্বমোট পোস্ট: ১৪৩ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৪২২ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৫-০২-১৪ ০২:৫৯:৫৩ মিনিটে
banner

১০ টি মন্তব্য

  1. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    সত্যি নাকি ভিক্ষুকদের ব্যাংক তাও আবার নিজদের
    দারুন
    চমৎকার তো

  2. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    হুমম্ – তাই তো দেখছি – শুভ উদ্যোগ।
    ভাল থাকুন শুভেচ্ছা নিন।

  3. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    ভাল উদ্যেগ। শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ

  4. টি. আই. সরকার (তৌহিদ) মন্তব্যে বলেছেন:

    যুগের সাথে তাল মিলিয়ে আরো কত কি যে দেখব !
    চমৎকার বিষয়টি শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ ।

  5. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনার অংশগ্রহন আমার জন্য প্রেরণা বিশেষ।
    শুভেচ্ছা জানবেন, ভাল থাকুন নিরন্তর –

  6. জসীম উদ্দীন মুহম্মদ মন্তব্যে বলেছেন:

    পত্রিকায় খবরটি দেখেছিলাম শ্রদ্ধেয়!! পুলকিত হইলাম ।।

    • অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

      জ্বী কবি।
      মাঝে মাঝে কিছু ব্যতিক্রমি সংবাদ দেখলে তা তুলে ধরে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করার লোভ।
      শুভেচ্ছা জানবেন।

  7. হাসান ইমতি মন্তব্যে বলেছেন:

    এভাবেই স্তাপিত হবে এক সমতার সমাজ

  8. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    সমতার সমাজ প্রতিষ্টিত হবে কি না জানি না কিন্তু কিছু বৈচিত্রতা আছে।
    ভাল থাকুন নিরন্তর –

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top