Today 07 Mar 2021
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

ভুতের গলির সেই ভূত কি ফিরে এলো??

লিখেছেন: আরজু মূন জারিন | তারিখ: ২৩/১১/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 958বার পড়া হয়েছে।

পূর্ব প্রকাশের পর

অবশেষে রাশেদ তাই করল যেটা সংগত যেটা হওয়া উচিত। তার বিবেক তাকে যে পরামর্শ দিয়েছে রেশমীর ব্যাপারে সে তাই করল।রেশমীর পাঠানো ইমিগ্রেশান ফর্ম ছিড়ে ফেলল রেশমীর সেল নাম্বার ডিলিট করে ফেলল তার সেল থেকে ।

শেষবারের মত বলছি তোমাকে বিদায় বলে সে ফিসফিসিয়ে।আমাকে মাপ কর ।এটা করতে আমি অক্ষম।আর পাচ ছয় ঘন্টা পরে আরেকটা মেয়েকে বিয়ে করছি ।তার ভাল মন্দ আমার হাতে ।তার সুখ আমার মায়ের সুখ এখন আমার হাতে ।আমি স্বার্থপরের মত কিছু করতে পারিনা। মনে মনে সে বলে।

স্বার্থপর বা হবে কেন । আমি রেহনুমাকে ভালবাসি ।সে এক অসাধারন মেয়ে একজন চমৎকার মেয়ে।আমার ভাগ্য চমৎকার একটা মেয়ের সাথে আল্লাহ আমার ভাগ্য জুড়ে দিয়েছেন সে ভাবতে থাকে।

সে বার বার মনে মনে আবৃত্তি করল তার ব্রেইনকে মেসেজ দেওয়ার ভঙ্গিতে ।

আমি রেহনুমাকে ভালবাসি ।রেহনুমা আমি তোমাকে ভালবাসি ।আমি তোমাকে অনেক অনেক ভালবাসি বলতে বলতে একপর্যায়ে বেশ অবসন্ন বোধ করল। কোন কিছুতেই সে পূর্বের আনন্দ মনে আনতে পারছেনা। হাহাকার এর মত কিছুক্ষন এই কথা ভাবল কেন এই জটিলতা আসল আমার জীবনে? রেশমীর চিঠিটা কেন তার হাতে আগে আসলনা ।বা  চিঠিটা যদি কোনদিন তার কাছে না আসত।

আজকে বিয়ের রাতে রেহনুমার সঙ্গে আন্তরিকভাবে কথা বলতে পারবেতো? রেহনুমার বিশেষ রাত কে বিশেষভাবে তাকে উপহার দিতে পারবে তো?

আহ এক পর্যায়ে অনেক অস্থির বোধ করল ।তারপর নিজে আবার গা ঝাড়া দিয়ে উঠে দাড়াল ।ওযু করল কিছুটা সময় নিয়ে ।অনেকদিন পরে বেশ সময় নিয়ে আজকে জোহরের নামাজ টা সে পড়ল। জোহরের নামাজ টা কাজে জয়েন করার পর তেমনভাবে পড়া হয়না এখন।যদিও সে আগে খুব নামাজী ছিল সবসময় চেষ্টা করত আযানের সাথে সাথে নামাজ আদায় করতে।এটা তার মা বাবার ধর্মীয় শিক্ষা ছিল।

নামাজ শেষ করে পড়ল সুরা মুযযাম্মিল সুরা ওয়াক্বিয়া মুশকিল আসানের সুরা।

শব্দ করে পড়তে থাকল

ইয়া আইয়্যুহাল মুযযাম্মিল।কুমিল লাইলা ইল্লা ক্বালীলা।নিছকাহূ আবিনকুছ মিনহু ক্বালীলা।

(সুরা মুযযাম্মিল থেকে)

ইযা ওয়াক্বাআতিল্ ওয়াক্বআ’হ।লাইছা লিওয়াক্বআ’তিহা কাযিবাহ্।খাফিদ্বাতুর রাফিআ’তুন।

(সুরা ওয়াক্বিয়া থেকে)

পড়তে পড়তে তার মনটা শান্ত হল একপর্যায়ে। মা এসে কাছে বসে ভালবেসে মাথায় হাত বুলিয়ে দিলেন।আস্তে আস্তে মনে এসে ঠাই করল পূর্বের সেই শান্তি আর আনন্দ।একসময়ে ঘুমিয়ে পড়ল জায়নামাজে।

রাত আটটায় কোনরকম বাধা বিঘ্ন ছাড়া চমৎকার আনুষ্ঠানিকতায় বিয়ে হয়ে গেল রাশেদ আর রেহনুমার।

বর বধুর মুখে আনন্দের হাসি। রেহনুমাকে দেখে রাশেদ সব ভূলে গেল । এত সুন্দর লাগছে ওকে ।

একঘর মানুষের মাঝখানে তারা বসে আছে ।সবাই তাদের নিয়ে হাসি ঠাট্রা করছে।নুতুন বর বধুর সেদিকে কোন মনযোগ নেই।তারা দুইজন দুইজনকে দেখতে ব্যস্ত।তা তো হবে ই।এটা তো তাদের ই সময়।

(পরবর্তীতে)

১,০৩২ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
নিজের সম্পর্কে কিছু বলতে বললে সবসময় বিব্রত বোধ করি। ঠিক কতটুকু বললে শোভন হবে তা বুঝতে পারিনা । আমার স্বভাব চরিত্র নিয়ে বলা যায়। আমি খুব আশাবাদী একজন মানুষ জীবন, সমাজ পরিবার সম্পর্কে। কখনো হাল ছেড়ে দেইনা। কোনো কাজ শুরু করলে শত বাধা বিঘ্ন আসলেও তা থেকে বিচ্যুত হইনা। ফলাফল পসিটিভ অথবা নেগেটিভ যাই হোক শেষ পর্যন্ত কোন কাজ এ টিকে থাকি। জীবন দর্শন" যতক্ষণ শ্বাস ততক্ষণ আশ " লিখালিখির মূল উদ্দেশ্যে অন্যকে ভাল জীবনের সন্ধান পেতে সাহায্য করা। মানুষ যেন ভাবে তার জীবন সম্পর্কে ,তার কতটুকু করনীয় , সমাজ পরিবারে তার দায়বদ্ধতা নিয়ে। মানুষের মনে তৈরী করতে চাই সচেতনার বোধ ,মূল্যবোধ আধ্যাতিকতার বোধ। লিখালিখি দিয়ে সমাজে বিপ্লব ঘটাতে চাই। আমি লিখি এ যেমন এখন আমার কাছে অবাস্তব ,আপনজনের কাছে ও তাই। দুবছর হলো লিখালিখি করছি। মূলত জব ছেড়ে যখন ঘরে বসতে বাধ্য হলাম তখন সময় কাটানোর উপকরণ হিসাবে লিখালিখি শুরু। তবে আজ লিখালিখি মনের প্রানের আত্মার খোরাকের মত হয়ে গিয়েছে। নিজে ভালবাসি যেমন লিখতে তেমনি অন্যের লিখা পড়ি সমান ভালবাসায়। শিক্ষাগত যোগ্যতা :রসায়নে স্নাতকোত্তর। বাসস্থান :টরন্টো ,কানাডা।
সর্বমোট পোস্ট: ২২৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩৬৮৩ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-০৫ ০১:২০:৩৫ মিনিটে
banner

৮ টি মন্তব্য

  1. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    ভাল লাগতেছে এগিয়ে যান সাথেই আছি

  2. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    ভাল লাগছে।

  3. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    সাথেই আছি ।

  4. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    নামাজ শেষ করে পড়ল সুরা মুযযাম্মিল সুরা ওয়াক্বিয়া মুশকিল আসানের সুরা।

    শব্দ করে পড়তে থাকল

    ইয়া আইয়্যুহাল মুযযাম্মিল।কুমিল লাইলা ইল্লা ক্বালীলা।নিছকাহূ আবিনকুছ মিনহু ক্বালীলা।
    (সুরা মুযযাম্মিল থেকে)

    ইযা ওয়াক্বাআতিল্ ওয়াক্বআ’হ।লাইছা লিওয়াক্বআ’তিহা কাযিবাহ্।খাফিদ্বাতুর রাফিআ’তুন।
    (সুরা ওয়াক্বিয়া থেকে)

    প্রজন্মের এই শিক্ষার ও দরকার আছে।

    অনেক ভাল লাগা।

  5. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ আমার লিখা পড়া এবং তাতে কমেন্টস এর জন্য। বিশেষ করে কাশেম ভাইকে দ্বিগুন ধন্যবাদ আমার সাথে সুরা মুয্যাম্মিল ও সুরা ওয়াআকিয়া পড়ার জন্য।এই দুইটা সুরা আমার সবচেয়ে প্রিয় সুরা কোরান শরীফে। মন খারাপ বা টেনশানের সময় এই সুরা দুইটা চোখ বন্ধ করে গভীর আবেগের সঙ্গে পড়েন দেখবেন মন রিলাক্স হয়ে যাবে।

  6. এস এম আব্দুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    এ লেখায় সুন্দর জীবনের প্রেরণা হতে পারে । লিখে যান অবিরত । ভাল থাকুন সতত ।

  7. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    চালিয়ে যান কবিদের সাথে আমি ও সহমত
    দারুণ ভাল লেগেছে

    শুভ কামনা থাকলো
    শুভ রাত্রি

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top