Today 14 Dec 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

মনমোহনী বৃক্ষ- অংশ১৭

লিখেছেন: রাজিব সরকার | তারিখ: ২৯/১০/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 495বার পড়া হয়েছে।

নিহাত ঠিক ভরসা পেল না।মেয়েটা বাবার সামনে কী গণ্ডগোল করে ফেলে কে জানে?তার কপালে যে শনি আছে তা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে।
-নিহাত নিহাত?
নিহাতের বুকটা কেপে উঠল।বাবা গেটে দাড়িয়ে।প্রতিদিন গেটে দাড়িয়ে গেট-খুলার জন্য তার নাম ধরে ডাকে।মাথার চুল টানতে লাগল।দেখল পা দুটি কাঁপছে।ভয়ে ভয়ে গেটটা খুলে দিল।
-কিরে কি করছিলি,এত দেরি হল?
-এই তো বাবা পড়ছিলাম।
-তোর চুল এমন কেন?ধর ব্যাগটা ধর।
নিহাত ব্যাগটা ধরল।বাবার মুখটা হাসি হাসি।মনমেজাজ মনে হচ্ছে ভাল।এটাই যা ভরসার কথা।নীলিন রুমে ঢুকলেন।
-রুপা রুপা।
রুপা বাবার কাছে গেল।নীলিন বলল-মা এক গ্লাস সরবত বানা।নীলিত কই?
-বাবা ছাদে গেছে।
-যা সরবত বানিয়ে নিয়ে আয়।ফ্রিজে জল আছে না?
-আছে বাবা।ঠাণ্ডা জল দিয়ে বানাবি।
রুপা সরবত বানাতে গেল।নীলিন ফ্রেশ হয়ে আসল।
-কি তুমি এখন শুয়ে আছ যে?
চিত্রা চোখ বন্ধ করেই বলল-ইচ্ছে হয়েছে তাই শুয়ে আছি।
-তোমার কি শরীর খারাপ?শরীর খারাপ হলে ডাক্তার দেখিয়ে নিয়ে আসি।
-না কিছু হয় নি।আমাকে কিছুক্ষণ ঘুমাতে দিবে প্লীজ।
-শুন একটা ভাল খবর আছে।
-বল।
-নিহাতের জন্য একটা ভাল মেয়ে দেখেছি।ভাবছি ছেলেটার বিয়ে দিয়ে দেয়।
এবার চিত্রা উঠে বসে।
-সে কাজ তোমার ছেলে সেরে ফেলেছে।
নীলিন হতভম্ব হয়ে গেল।তার ওয়াইফ কি তার সাথে মসকারা করছে।

৪৮৭ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
সর্বমোট পোস্ট: ১৭১ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৪৪ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৮-৩০ ১৬:১৭:৫০ মিনিটে
banner

১ টি মন্তব্য

  1. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    হায় হায় এই পর্ব কখন চলে গেল । সরি ভাইয়া

    আমি সাথে আছি লিখে যান

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top