Today 16 Dec 2018
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

মনমোহনী বৃক্ষ-অংশ ৯

লিখেছেন: রাজিব সরকার | তারিখ: ১৮/১০/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 438বার পড়া হয়েছে।

চিত্রার মাথা ঘুরছে।ছেলেটার মোটিভ কিছু বুঝতে পারছে না।বিয়ে করেছে কিনা কে জানে।ছেলেটাকে দিয়ে বিশ্বাস নেই।আজকালকার মেয়েরাও বাবা,বলা নেই,কওয়া নেই,হুট করে একটি ছেলের হাত ধরে বাসায় উঠল।এদের কাণ্ডজ্ঞান সব গেছে।ছেলেটাকে ভাল করে জিজ্ঞাস করতে হবে,বিয়েটা করেছে কিনা।বিয়ে না করলে ভাল,করে ফেললেও সমস্যা নেই।বাসা হতে কিছুতেই মেনে নিবে না।এমন কাণ্ডজ্ঞানহীন মেয়ে তার ছেলের বউ হতে পারে না।মেয়েটার বাসার ঠিকানা বের করতে হবে।বাসার লোককে যত তাড়াতাড়ি পারা যায় খবর দিতে হবে।ঘর হতে যত তাড়াতাড়ি আপদ দূর হয় ততই ভাল।
-মা মা?
এই বলে রূপা চিত্রার রুমে ঢুকে।
-মা শুয়ে আছে কেন?
-মাথা ঘুরাচ্ছে?
-তেল দিয়ে দিব।
-না দিতে হবে না।তুই এখান হতে যা।
-মা মেয়েটা খুব ভাল।
চিত্রার মেজাজ বিগড়ে যাচ্ছে।মেয়েটা তো খুব সেয়ানা,এর মধ্যেই তার মেয়েকে হাত করে ফেলেছে।এ তো ভাল লক্ষণ না।আস্তে আস্তে সবাইকে হাত করার চেষ্টা করবে।এরপর নীলিত,তাকে,তার বরকে।মেয়েটাকে কিছুতেই এসব করতে দেওয়া যাবে না।
-রূপা মেয়েটার কাছে যাবি না।নীলিতকেও যেতে দিবি না।কথা বলা একদম বন্ধ।
-যাব যাব একশবার যাব।কথাও বলব।
চিত্রা মেয়েটার দিকে বড় বড় করে তাকাল।মেয়েটা-তো দেখা যাচ্ছে বেয়াদপের হাড্ডি।মেয়েটা ভেংচি কেটে রুম হতে বের হল।মনে হল,তখনি মেয়েটার গালে চট করে থাপ্পড় মারতে।বড়দের সম্মান করার বিষয়টা দেশ হতে বুঝি একদম উঠে গেল।এ কেমন যুগ পরেছে বাবা?

৪২৬ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
সর্বমোট পোস্ট: ১৭১ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৪৪ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৮-৩০ ১৬:১৭:৫০ মিনিটে
banner

৪ টি মন্তব্য

  1. হামি্দ মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর ঝরঝরে সালিল গদ্য ………………

  2. রাজিব সরকার মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ আপনাকে……

  3. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    অনেক লাগছে পড়তে। লিখে যান সাথেই আছি

  4. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    ভালো লাগলো সুন্দর লিখা

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top