Today 14 Dec 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

রবীন্দ্র নজরুল সাহিত্যের আলোকে সমাজ কে সঠিক দিক নির্দেশনা

লিখেছেন: আরজু মূন জারিন | তারিখ: ২৮/১২/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 812বার পড়া হয়েছে।

কারার ওই লৌহ কপাট
ভেঙ্গে ফেল কর রে লোপাট
রক্ত জমাট পাষান পুরীর
ওরে ও তরু নিশান
ভাঙ্গা তর প্রলয় নিশান
………………………..
ওরে ও পাগলা ভোলা
..হা হা পায় যে হাসি
যত সব বন্ধী শালায় আগুন জালা
আগুন জালা
(নজরুল এর ভাঙ্গার গান কবিতা থেকে )

এই শিকল পরা ছল মোদের
এই শিকল পরা ছল
এই শিকল দিয়ে শিকল তোদের
করবে রে বিকল

উদয়ের পথে শুনি কার বাণী
ওরে ভয় নাই আর ভয় নাই
নিঃশেষে প্রাণ যে করিবে দান
ক্ষয় নাই তার ক্ষয় নাই
(রবীন্দ্রনাথ এর সঞ্চয়িতা থেকে )

নজরুল এর কারার এই লৌহ কপাট কবিতা টা শুনলে শরীর মনে এক অদ্ভূত জাগরণ আসে। মনে হয় এখনি অস্র সস্র নিয়ে যত সব অন্যায় আর অনিয়ম এর মোকাবিলা করি ।নজরুল এর কবিতা থেকে আমরা শিখি স্বাধীনতার কথা, কোনো অন্যায়ের সাথে আপস না করার কথা, আমরা শিখি অন্যায়ের প্রতিবাদ করার কথা রবীন্দ্র নাথ এর কবিতায় আছে তাগের কথা মহিমার কথা, আপনজনের জন্য নিজেকে বিলিয়ে দেওয়ার কথা । কবিতা এবং সাহিত্যে এধরনের জাগরণের বাণী থাকা উচিত যাতে যাতে যুগে যুগে মানুষ সততা ও নাযের আলোকে আমরা পথ চলতে শিখি । আমরা যেন অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে শিখি. আমরা অন্যায় কে কঠিন হস্তে দমন করব এটা ঠিক তাই বলে অন্নায়্কারীকে সম্ভব হলে ভালবাসা দিয়ে সঠিক পথে ফিরিয়ে নিয়ে আসব এবং তাকে আরেকবার নুতুন আলোতে বাচার সুযোগ দিব। রবীন্দ্রনাথ এবং নজরুল এর কবিতা থেকে আমি তেমন ই আলোকে চলে অনুপ্রেরণা পাই এবং আমি এটা আশা করি আমাদের যারা কবি সাহিত্যিক আছেন তেমন ই আলোকে চলে অনুপ্রেরণায় তারা ও যেন রবীন্দ্র নজরুল সাহিত্যের আলোকে সমাজ কে সঠিক দিক নির্দেশনা দিতে পারেন।

৯০৯ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
নিজের সম্পর্কে কিছু বলতে বললে সবসময় বিব্রত বোধ করি। ঠিক কতটুকু বললে শোভন হবে তা বুঝতে পারিনা । আমার স্বভাব চরিত্র নিয়ে বলা যায়। আমি খুব আশাবাদী একজন মানুষ জীবন, সমাজ পরিবার সম্পর্কে। কখনো হাল ছেড়ে দেইনা। কোনো কাজ শুরু করলে শত বাধা বিঘ্ন আসলেও তা থেকে বিচ্যুত হইনা। ফলাফল পসিটিভ অথবা নেগেটিভ যাই হোক শেষ পর্যন্ত কোন কাজ এ টিকে থাকি। জীবন দর্শন" যতক্ষণ শ্বাস ততক্ষণ আশ " লিখালিখির মূল উদ্দেশ্যে অন্যকে ভাল জীবনের সন্ধান পেতে সাহায্য করা। মানুষ যেন ভাবে তার জীবন সম্পর্কে ,তার কতটুকু করনীয় , সমাজ পরিবারে তার দায়বদ্ধতা নিয়ে। মানুষের মনে তৈরী করতে চাই সচেতনার বোধ ,মূল্যবোধ আধ্যাতিকতার বোধ। লিখালিখি দিয়ে সমাজে বিপ্লব ঘটাতে চাই। আমি লিখি এ যেমন এখন আমার কাছে অবাস্তব ,আপনজনের কাছে ও তাই। দুবছর হলো লিখালিখি করছি। মূলত জব ছেড়ে যখন ঘরে বসতে বাধ্য হলাম তখন সময় কাটানোর উপকরণ হিসাবে লিখালিখি শুরু। তবে আজ লিখালিখি মনের প্রানের আত্মার খোরাকের মত হয়ে গিয়েছে। নিজে ভালবাসি যেমন লিখতে তেমনি অন্যের লিখা পড়ি সমান ভালবাসায়। শিক্ষাগত যোগ্যতা :রসায়নে স্নাতকোত্তর। বাসস্থান :টরন্টো ,কানাডা।
সর্বমোট পোস্ট: ২২৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩৬৮৩ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-০৫ ০১:২০:৩৫ মিনিটে
banner

১২ টি মন্তব্য

  1. আহসান হাবীব সুমন মন্তব্যে বলেছেন:

    আশা করি আমাদের যারা কবি সাহিত্যিক আছেন তেমন ই আলোকে চলে অনুপ্রেরণায় তারা ও যেন রবীন্দ্র নজরুল সাহিত্যের আলোকে সমাজ কে সঠিক দিক নির্দেশনা দিতে পারেন।
    ঠিক কথা ।
    ধন্যবাদ লেখিকাকে ।

  2. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ সুমন চমৎকার মন্তব্যের জন্য।

  3. আহমেদ রব্বানী মন্তব্যে বলেছেন:

    নজরুল রবি ঠাকুর বাঙালির জন্য বাংলা সাহিত্যের জন্যে এক রত্নভান্ডার………..
    ধন্যবাদ প্রিয় আপনার চমৎকার লেখার জন্য।

  4. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ রব্বানী ভাই আপনার চমৎকার মন্তব্যের জন্য।

  5. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    কবিরা ও এখন দল পূজা আর
    পেঠ পূজা করা শুরু করেছে,

    সত্যিকার দেশপ্রেমিক পাওয়াটা
    এখন সত্যিই বিরল।

  6. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    হ্যা আমাদের দেশে কিছু চিহ্নিত কবি সাহিত্যিক তথাকথিত বুদ্ধিজীবি আছেন আমরা সবাই তাদের পরিচয় জানি।নাম আর নাই বললাম তাদের সরকার প্রেম তীব্র দেখেছি দেশপ্রেম দেখিনি বা অন্যয়ের বিরুদ্ধে কখনও বলতে শুনিনি।

    ধন্যবাদ কাশেম ভাই মন্তব্যের জন্য।

  7. এস এম আব্দুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    “আমরা অন্যায় কে কঠিন হস্তে দমন করব এটা ঠিক তাই বলে অন্নায়্কারীকে সম্ভব হলে ভালবাসা দিয়ে সঠিক পথে ফিরিয়ে নিয়ে আসব এবং তাকে আরেকবার নুতুন আলোতে বাচার সুযোগ দিব। রবীন্দ্রনাথ এবং নজরুল এর কবিতা থেকে আমি তেমন ই আলোকে চলে অনুপ্রেরণা পাই এবং আমি এটা আশা করি আমাদের যারা কবি সাহিত্যিক আছেন তেমন ই আলোকে চলে অনুপ্রেরণায় তারা ও যেন রবীন্দ্র নজরুল সাহিত্যের আলোকে সমাজ কে সঠিক দিক নির্দেশনা দিতে পারেন।”
    ভাল বলেছেন তাতে সন্দেহ নেই । তবে কেহ যদি অন্যায় করে সে কাজ অন্যায় হয়েছে বলে স্বীকার না করে,
    তাকে কি কঠোর হস্তে দমন করা ছাড়া বিকল্প রাস্তা আছে ? আপনি প্রথম জীবনে অপরাধ করেছেন , এখন শেষ জীবনে পৌছে গেছেন তথাপী নিজের অপরাধকে স্বীকার করে ক্ষমা চাননি বা এখনও ক্ষমা চাইতে রাজি হচ্ছেন না । আপনার জন্য কি ব্যবস্থা হবে ? শুভ কামনা । ভাল থাকুন ।

  8. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনি কি বুঝতে পারেননি এখানে আমি কি মিন করেছি? বুঝতে পেরেছি আমি রাজাকার দের চরম শাস্তি ফাসীর বিপক্ষে বলেছি দেখে এখন ও রেগে আছেন।

    এটা জেনারেল অর্থে বলা হয়েছে।অপরাধী অপরাধ করবে সাজা হবে।এটাই স্বাভাবিক সামজিক বিধান।যদি কোন অপরাধীর সংশোধনের সম্ভাবনা থাকে এবং সে অপরাধী অনুতপ্ত হয় তবে তাকে মাপ করে সংশোধনের সুযোগ দেওয়া উচিত এটা আামার মত।আমার ক্ষেত্রে একই মতামত প্রযোজ্য হবে।

    গোলাম মাওলা রনি এম পি উনি তো সরকারী দলের এমপি এখানে পেপারে ওনার একটা লেখা এসেছে কাদের মোল্লার পকেটে একটা চিরকুট পাওয়া গেছে যেটা উনি কাকে দিতে চেয়েছিলেন সেই নামটা উল্লেখ করা হয়নি তাতে তিনি বলেছিলেন আমি বেয়াল্লিশ বছর আগের সেই কসাই কাদের আর নাই।এখন আমার পরিবর্তন হয়েছে।প্লিজ আমার প্রানভিক্ষার জন্য যদি রিকোয়েষ্ট করতেন।এই ঘটনা যদি সত্যি হয় তবে তাকে চরম দন্ড ফাসী না দিলে ও হত।তিনি একজন বৃদ্ধ লোক এবং কৃতকর্মের জন্য মাপ চেয়েছেন।আল্লাহ র কাছে আমরা মানুষ অনেক বড় অন্যায় করার পর যখন অনুতপ্ত হৃদয়ে মাপ চাই তিনি মাপ করে দেন।

    আশা করি আপনি আপনার প্রশ্নের উত্তর পেলেন।আপনাকে অনেক ধন্যবাদ আপনার মত প্রকাশের জন্য।অনেক শুভকামনা।

  9. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    অপরাধের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হতে পারে না। আমি সব সময় মৃত্যুদণ্ডের বিরোধী। একজন মানুষের মৃত্যু হয়ে গেলে সে আর সংশোধনের সুযোগ থাকে ‍না। অপরাধীকে সংশোধনের সুযোগ দেয়া উচিত।

  10. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ আমির ভাই আপনার মানবিক মন্তব্যের জন্য।

  11. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    কোরআন ও সুন্নাহ ব্যতীত দেশ সমাজ ও জাতিকে সঠিক পথ দেখানো সম্ভব নয় ।

  12. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    মতামত ভাল হয়েছে আপু

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top