Today 14 Dec 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

লাভ এর আসলে ডেফিনেশন কি ?(LOVE বা ভালবাসা নিয়ে লিখা কিছু কথা কিছু গান )

লিখেছেন: আরজু মূন জারিন | তারিখ: ০৯/১২/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 839বার পড়া হয়েছে।

চলন্তিকা এবং প্রথম আলোতে এটি ছিল সম্ভবত আমার সর্বপ্রথম লিখা।ভূলক্রমে লিখাটা এডিট করতে গিয়ে আমি ডিলিট করে ফেলেছিলাম।আজকে আমি চাচ্ছিলাম ফেব্রুয়ারীর লেখায় এর লিন্ক দিতে।তখন এই লিখা খুজে পাইনি।সেইজন্য লিখাটা আবার আজকে পাবলিশ করলাম। কেও কেও সম্ভবত এই লিখাটা পড়েছেন।যারা পড়েননি তাদের জন্য আবার পোষ্ট করলাম।

=====================================================================================

L O V E love (লাভ) মানি কি দুটি মনে জানাজানি তাও বুঝনি
(সিনেমার গান নাম ভুলে গিয়েছি )

Love মানি কি? ধারাবাহিক নাটক হুমায়ুন আহমেদ এর জনপ্রিয় নাটক বহুব্রীহি তে কাদের কে জিজ্ঞাসা করেছিলেন ছোটমামা
কাদের বল তো তোর্ কাছে ভালোবাসাটা কি (চোট মামার মতে তার পরে এ ফ্যামিলি তে দ্বিতীয় বুদ্ধিমান হছে তাদের কাজের ছেলে কাদের)
কাদের এর বক্তব্য ছিল ভালবাসা হছে একটা শরমের বাপার তবে এর দরকার আছে..
মামার হা হয়ে তাকিয়ে থাকা ছাড়া কোনো উপায় ছিলনা
যাই হোক কাদের এখানে মিন করেছে ছেলে মেয়ের অ্যাফেয়ার।

এবার দেখি বিশ্ব কবি কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ এর মতে লাভ বা ভালবাসা কি
রবীন্দ্রনাথ এর প্রশ্ন ছিল একই সখী ভালবাসা কারে কয়
সেকি কেবল ই যাতনাময়..সেকি কেবলি চোখের জল
সেকি কেবল ই দুখের শাস

রবীন্দ্রনাথ এর উত্তর হছে
আমার চোখে তো সকলে শোভন সকলি নবীন
সকলি বিমল সুনীল আকাশ সমল কানন বিশদ
জোসনা কুসুম কমল, সকলি আমার মত
তারা কেবলি হাসে কেবলি গায়
বলে হাসিয়া খেলিয়া মরিতে চায়
না জানে বেদন না জানে রোদন,
না জেনে সাধের যতনা যতন
যাতনা যত, ফুল সে হাসিতে ঝরে,
জোসনা হাসিয়া মিলায়ে যায়

ভালবাসা আসলে কি ?তোমার জন্য আমার আকুলতা অথবা কপোত কপোতি ডানার আড়ালে পরস্পরের উষ্ণতা খুঁজে ফিরে অথবা সুধু কি রোমিও জুলিয়েট শিরি ফরহাদ, লাইলী মজনু তাদের ভালবাসা ই ভালবাসা অথবা সার্বজনীন যে ভালবাসা।

কেও কেও বলে ভালবাসা বড় না প্রেম বড় . আবার অনেকের জবাব হছে ভালবাসা বড় প্রেমের চেয়ে.।

ভালবাসা বড় না প্রেম বড় আমি যদি বলি সব একই শব্দ বিভিন্ন পরিবেশে হয়ে যায় বিভিন্ন ,প্রেম, ভালবাসা, প্রীতি, আদর, আবেগ সব কিছু আসে একই সোর্স থেকে আমরা আমাদের আবেগ অনূভুতি থেকে যখন কারো জন্য কিছু করি, কারো সাথে আমার সুখ দুখ শেয়ার করি ভালবাসা থেকে করি। মা ভালবাসে সন্তানকে স্নেহ থেকে মমতা থেকে, স্বামী স্ত্রী, প্রেমিক প্রেমিকা ভালবাসে প্রকৃতির নিয়মে শারীরিক মানসিক আকর্ষণ থেকে।ভাই বোন্, বন্দু বান্দবী সবাই ভালবাসে হৃদয়ে র আবেগে অনুভূতির প্রকাশে, সবাই প্রকাশ করতে চাই “তোমাকে আমি কেয়ার করি” আমার এক প্রতিবেশী আছে যে প্রতিদিন ই আমার জন্য কিছু না কিছু রান্না করে. আমাকে ছাড়া সে খেতে পারেনা. সে তার মা বাবাকে যত না ফোন করে আমাকে তার দিগুণ করে, শত সহস্রবার আমার খোজ করে । আমি ও তাকে বিলিয়ে দিতে পারি আমার যে কোনো মূল্যবান জিনিস,দরকার হলে হয়তবা আমার শরীর থেকে রক্ত দিয়ে দিব ।এটা বলছি যে কারণে ভালবাসা হছে সে জিনিস মানুষ তখন আপন পর বিবেচনা না করে সব বিলিয়ে দিতে চায় । ভালবাসার মানুষের কোনো খুত ধরতে আমরা নারাজ ।হোক বা সে যেরকম আমার কাছে সে সোনার মানুষ. ভালবাসা আমাদের কে সবসময় দেয় ভালো কাজ করার অনুপ্রেরণা..দেয় অনুপ্রেরণা ভালোতে বাস করার।

বিশ্ব ভালবাসা দিবসের আলোকে এই ভ্যালেনটাইন মাসে এ আস আজকে আমরা সবাই ভালবাসার এই অপুরূপ বাণীতে উজ্জীবিত হই এক নুতুন দেশ গড়ার সপ্নে, এক নুতুন আমাকে গড়ার সপ্নে, আজ আমরা সবাই ভুলে যাই কি মতবিরোধ আমাদের আছে,ভুলে যাই আমরা সকল হীনতা, দীনতা, যত ক্ষুদ্রতা, নুতুন এক ভালবাসার বাণীতে আমাদের মন প্রাণ আর আমাদের দেশ টাকে পরিচালিত করি । তুমি যেমন ই হও আমি তোমাকে ভালবাসি এটা আসল কথা এটা হতে হবে আমাদের কথা ।সবাই সবার মধ্যে ছড়িয়ে দিলে ই সেটা হবে ভালবাসা, দেশকে ভালবাসা দেশের মানুষকে ভালবাসা,সর্বপরি এটা হবে নিজেকে ভালবাসা।

গাই আমরা রবীন্দ্র নাথ এর মত করে (রবীন্দ্র নাথ এর নিবেদন কবিতা থেকে)

আমার যে সব দিতে হবে সেতো আমি জানি
আমার যত বিত্ত প্রভু, আমার যত বাণী
তোমারি আনন্দ আমার সুখ দুখ ভরে
আমারে করে নিয়ে তবে নাও যে তোমারি করে।

৯৫৯ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
নিজের সম্পর্কে কিছু বলতে বললে সবসময় বিব্রত বোধ করি। ঠিক কতটুকু বললে শোভন হবে তা বুঝতে পারিনা । আমার স্বভাব চরিত্র নিয়ে বলা যায়। আমি খুব আশাবাদী একজন মানুষ জীবন, সমাজ পরিবার সম্পর্কে। কখনো হাল ছেড়ে দেইনা। কোনো কাজ শুরু করলে শত বাধা বিঘ্ন আসলেও তা থেকে বিচ্যুত হইনা। ফলাফল পসিটিভ অথবা নেগেটিভ যাই হোক শেষ পর্যন্ত কোন কাজ এ টিকে থাকি। জীবন দর্শন" যতক্ষণ শ্বাস ততক্ষণ আশ " লিখালিখির মূল উদ্দেশ্যে অন্যকে ভাল জীবনের সন্ধান পেতে সাহায্য করা। মানুষ যেন ভাবে তার জীবন সম্পর্কে ,তার কতটুকু করনীয় , সমাজ পরিবারে তার দায়বদ্ধতা নিয়ে। মানুষের মনে তৈরী করতে চাই সচেতনার বোধ ,মূল্যবোধ আধ্যাতিকতার বোধ। লিখালিখি দিয়ে সমাজে বিপ্লব ঘটাতে চাই। আমি লিখি এ যেমন এখন আমার কাছে অবাস্তব ,আপনজনের কাছে ও তাই। দুবছর হলো লিখালিখি করছি। মূলত জব ছেড়ে যখন ঘরে বসতে বাধ্য হলাম তখন সময় কাটানোর উপকরণ হিসাবে লিখালিখি শুরু। তবে আজ লিখালিখি মনের প্রানের আত্মার খোরাকের মত হয়ে গিয়েছে। নিজে ভালবাসি যেমন লিখতে তেমনি অন্যের লিখা পড়ি সমান ভালবাসায়। শিক্ষাগত যোগ্যতা :রসায়নে স্নাতকোত্তর। বাসস্থান :টরন্টো ,কানাডা।
সর্বমোট পোস্ট: ২২৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩৬৮৩ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-০৫ ০১:২০:৩৫ মিনিটে
banner

৯ টি মন্তব্য

  1. আহসান হাবীব সুমন মন্তব্যে বলেছেন:

    আমার যে সব দিতে হবে সেতো আমি জানি
    আমার যত বিত্ত প্রভু, আমার যত বাণী
    তোমারি আনন্দ আমার সুখ দুখ ভরে
    আমারে করে নিয়ে তবে নাও যে তোমারি করে।
    ….. বাহ , ভালো লাগলো লেখাটি ! ধন্যবাদ ।

  2. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ সুমন।

  3. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর বিশ্লেষণ প্রেম/ভালবাসার

  4. মিলন বনিক মন্তব্যে বলেছেন:

    চমৎকার অনূবিশ্লেষণ..লেখকের বায়োগ্রাফী ফুটিয়ে তুলেছেন সুন্দর ভাবে…তারই ধারাবাহিকতায় লিখাগুলো পর্যায়ক্রমে একটা নিদ্দিষ্ট লক্ষ্যের দিকে েএগিয়ে যাচ্ছে…খুব ভালো লাগলো…শুভকামনা…

  5. এস এম আব্দুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    ভালবাসার অনুসন্ধানে লেগে রইলাম । কবিতাটি ভাল লাগল । শুভ কামনা ।

  6. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    শুভ কামনা আপনার জন্য ও রহমান ভাই।

  7. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    চৎকার কবিতা। শুভ কামনা রইল।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top