Today 17 Oct 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

সামাজিক দায়বদ্ধতার কবি আব্দুর রশিদ এবং “পরিশ্রম, সততা ও নীতিবোধের যোগফল” আলোচক:- আবুল বাশার শেখ

লিখেছেন: আবুল বাশার শেখ | তারিখ: ১৪/০৯/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 707বার পড়া হয়েছে।

প্রতিভা কখন কিভাবে প্রকাশ পায় তা কেউ বলতে পারেনা। কর্ম আর প্রতিভা কখনও এক হতে পারেনা। কথাটি বলার কারণ আমার নিজের চোখে আমি একজন এনজিও উদ্যোগতাকে দেখেছি- যিনি কবিতা কি আর সাহিত্য কি তা একদম সহ্য করতে পারতো না, সব সময় তিনি এ দু’টি জিনিসকে এড়িয়ে চলতেন। তবে তিনি সংস্কৃতি মনা ছিলেন আগে থেকেই। আর সেজন্য তিনি বিভিন্ন সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের অনুষ্ঠানে নিয়মিত যেতেন। যদিও এখন তার কবিতা ও সাহিত্য সম্পর্কে অন্য রকম একটি ধারণা কাজ করে। জীবন বাস্তবতায় নানা অভিজ্ঞতার আলোতে কখন যে নিজেকে কবি হিসেবে সামাজিক দায়বদ্ধতায় বিলিয়ে দিয়ে কবিতার হাত ধরেছেন তা তিনি নিজেই অনুধাবন করতে অন্য ভূবনে হারিয়ে যান। জীবনবোধ থেকেই অনর্গল যার কবিতার ভাষা আসে। কবিতা এখন মাঝে মধ্যেই কলমের কালিতে লেখা হয়ে যায় চারপাশের নানা ঘটনার প্রেক্ষিত বাস্তব কবিতা। আমি বলছি বর্তমান সময়ের একজন বাস্তবতাবাদী, জীবনবাদী, প্রকৃতীবাদী কিংবা সমাজবাদী কবি সম্পর্কে, যার নাম কবি আলহাজ্ব মোঃ আব্দুর রশিদ। যিনি সারা বাংলাদেশ তথা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে “আসপাডা পরিবেশ উন্নয়ন ফাউন্ডেশন” এর নির্বাহী পরিচালক হিসেবেই বেশি পরিচিত। ইতিমধ্যে তিনি “পরিশ্রম, সততা ও নীতিবোধের যোগফল” নামক একটি বই লিখে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছেন। আজ আমি উনার লেখা বইটি নিয়েই কয়েকটি লাইন পাঠকদের সামনে তুলে ধরতে চাই।
“পরিশ্রম, সততা ও নীতিবোধের যোগফল” বইটি গত একুশে বইমেলা‘১৪ তে প্রকাশ পেয়েছে। যদিও এটি উনার প্রথম লেখা বই তারপরও এই বইটিতে কিছু কিছু লেখা হৃদয়ের মনিকোঠায় হানা দেয়, মনে করিয়ে দেয় বাস্তবতায় চলার পথে নানাবিধ জীবিত অভিজ্ঞতা যা একজন পাঠক পাঠ করার সময় মনে হবে এটি তার নিজের জীবনের কোন না কোন ঘটনা নিয়েই লেখা।
বইটিতে মোট …… টি কবিতা ও গান রয়েছে। বলার অপেক্ষা রাখেনা যে কবিতার শিরোনামগুলো খুবই চমৎকার ও বিষয় বৈচিত্রে অবশ্যই কবি প্রশংসার দাবিদার। বইয়ের প্রথম কবিতা পরিমিত অর্থ কবিতায় তিনি মানব জীবনে অর্থ কিভাবে কি করে তা ফুটিয়ে তুলেছেন এভাবে- অর্থ মানুষের একটি অভাব পূরণের সাথে সাথে / সৃষ্ট্রি করে আরেকটি অভাব/ প্রথমে একগুণ, পরবর্তীতে দ্বিগুণ, তিনগুণ/ আকারে চাহিদার হয় প্রভাব। কিংবা অর্থের প্রতি বেশী ভালবাসা/ হবে সকল অনর্থের মূল / মনিব হিসেবে অর্থকে দেখে / যেন না করি ভয়ঙ্কর ভুল। স্রষ্টার আলো কবিতায় তিনি লিখেছেন- মৃত্যু হল প্রকৃতির নির্দেশ/ যা নিশ্চয়ই সকলের জন্য ভাল/ মৃত্যুর সাথে মিলিত হবার আগে/ যেন পাই স্রষ্টার আলো। এই কবিতায় মৃত্যু কি এটা নিখুঁতভাবে তুলে ধরেছেন। কর্মই জীবন কবিতায়- ভাল চিন্তা চেতনা অনেক ভাল / ভাল কর্ম তাহার চাইতে অধিক ভাল। কিংবা- কর্ম ভাল মন্দ দুটোই সৃষ্ট্রি করতে পারে / সন্দেহজনক কর্ম অজ্ঞাতসারে নিয়ে যায় অন্ধকারে। শিশু সন্তান কবিতায় লিখেছেন- শিশুর সরলতা ঈশ্বরের বেশী কাছাকাছি / ক্ষুদ্র গ্রহগুলো যেমন সূর্যের পাশাপাশি। এই কবিতায় শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে তিনি লিখেছেন- ধন্য হোক সে শিক্ষক যে শিশুর জন্য / তৈরী করে আনন্দ পরিবেশ / শিশুর বিকশিত হবার সকল সুযোগ সৃষ্ট্রি / যেন হয় রাষ্ট্রীয় আদেশ। বর্তমানই উত্তম সময় কবিতায় লিখেছেন- গতকাল কবর হয়ে গেছে চিরতরে / আগামী দিনের সঙ্গে দেখা নাও হতে পারে / তাই বর্তমানের উত্তম ব্যবহারের মাধ্যমে / ভবিষ্যতের ভাল ভীত তৈরি করি ক্রমানুসারে। কিংবা একই কবিতায়- যা প্রকৃত পক্ষে সকলের জন্য সার্বিক গুরুত্বপূর্ণ তা হলো বর্তমান / বর্তমান দ্বারা ভবিষ্যত আকৃতি পায় সমৃদ্ধি লাভে পায় সম্মান। সঙ্গীত কবিতায় লিখেছেন- স্বর্গীয় ভালবাসার পাত্র যদি হয় বিধাতা / সঙ্গীত তরঙ্গ দ্বারা বিধৌত হয়ে আসবে পবিত্রতা। তাইতো বলি ভালবাসা সঙ্গীতকে/ তাহলে স্রষ্টা ও সৃষ্টির কাছাকাছি নিয়ে যাবে নিজেকে।

বইটির শেষ অংশে দেয়া হয়েছে কবির লেখা কয়েকটি গীতি কবিতা। যা পাঠকের ভিন্ন পাঠের সুযোগ সৃষ্ট্রি করে দিয়েছে। গানগুলোয় উঠে এসেছে বর্তমান সময়ের নানা দিক। প্রথম গানে তিনি লিখেছেন- পারলে উপকার কনর / কইর না অন্যের ক্ষতি / তাতে আল্লাহ হবেন তুষ্ট / হবেই তোমার উন্নতি। আজকে যদি দয়া কর / আসবে এমন দিন / তোমায় দয়া করবেন আল্লাহ / শোধ হবে সেই ঋণ। ন্যায় বিচারক মহান আল্লাহ / ফাঁকি দেয়ার নাই গতি। অন্য এক গানে লিখেছেন- যত দিন বেঁচে আছি মানুষের কল্যানে কাজ করে যাব/ এই আমার প্রত্যাশা আমার কথা কেউ ভাব কিনা ভাব/ অসহায় মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়িয়ে/ ভালবেসে দু’টি হাত দেব তাকে বাড়িয়ে/ প্রতিভা বিকাশে থাকবো তারই পাশে / তাতেই আমি সুখ খোঁজে পাব। এই গানগুলো পড়ে সমাজের প্রতি আমাদের কি দায়বদ্ধতা আছে তা হঠাৎ করেই মনের মাঝে দাগ কাটবে, নিয়ে যাবে সমাজের অবহেলিত সব মানুষের খুব কাছে।
এক কথায় বলতে গেলে জীবনকে সঠিকভাবে উপলদ্ধি করতে শিখাবে তার লেখা বাস্তববাদী কবিতা ও গানগুলো যদিও বইটির প্রথম সংস্করণে কিছু বানান বিভ্রাট রয়েছে যা পরবর্তী সংস্করণে সংশোধনী আসবে তারপরও সব দিক বিচার বিশ্লেষণ করলে “পরিশ্রম, সততা ও নীতিবোধের যোগফল” পাঠককে আকৃষ্ট করার মতো একটি বই। বইটি প্রকাশ করেছে টুম্পা প্রকাশনী। প্রচ্ছদ ও বাধাই চমৎকার হয়েছে।

আবুল বাশার শেখ
কবি, সাংবাদিক, সাহিত্যিক
ভালুকা প্রতিনিধি
দৈনিক আমার সংবাদ
ভালুকা, ময়মনসিংহ।
মোবাইলঃ-  ০১৯১৬৫৯৫৪৪০,
০১৭১৭০৩৯৮৭৯

৭০১ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আবুল বাশার শেখ সাহিত্যে নিবেদিত প্রাণ কবি আবুল বাশার শেখ সাহিত্যের সব শাখায় নিয়মিত লিখে চলছেন। তার জন্ম ১৯৮৬ সালের ১ জুন ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা উপজেলার বাদেপুরুড়া গ্রামে। পিতা মরহুম আঃ ছামাদ শেখ, মাতা মোছা. রূপজান নেছা। ছয় ভাই ও এক বোনের মধ্যে কবি সবার ছোট। ১৯৯৯ সালের অক্টোবর মাস থেকে জাতীয় পত্রিকায় লেখা লেখি যা এখনও চলমান। শিক্ষাগত যোগ্যতা বি এস এস। বর্তমানে কবি আবুল বাশার শেখ অনলাইন নিউজ পোর্টাল http://bd24live.com, http://ekantho24.com, সাপ্তাহিক একুশের কন্ঠ’র ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধি এবং দৈনিক আমার সংবাদ’র ভালুকা প্রতিনিধি, ও ভালুকা প্রেসক্লাব এর দপ্তর সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সম্পাদনা করেছেন- সাহিত্যপত্র মানবতা ও ছড়া কবিতার কাগজ পদ্মবন্ধু। ভালুকা নিউজ ডট কম http://bhalukanews.com/ এর প্রকাশক ও ব্যবস্থাপনা সম্পাদক। প্রকাশিত একক কাব্যগ্রন্থ “হৃদ্যতার নিশিকাব্য” একুশে বইমেলা-২০১৮ তে প্রকাশিত হয়েছে। ব্যক্তিগত জীবনে স্ত্রী সানজিতা বাশার ও এক মাত্র মেয়ে আনুশা আশনা সাওদাকে নিয়ে সুখের সংসার সাজিয়েছেন। যোগাযোগঃ গ্রামঃ বাদেপুরুড়া, পোঃ ধলিয়া, উপজেলাঃ ভালুকা, জেলাঃ ময়মনসিংহ। মোবাইল: ০১৯১৬৫৯৫৪৪০, ০১৭১৭০৩৯৮৭৯ // ই-মেইল: basharpoet@yahoo.com Website: http://raterpakhi-bashar.blogspot.com
সর্বমোট পোস্ট: ৩ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ০ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৪-০৯-১৪ ০৪:৫০:৩৭ মিনিটে
banner

৫ টি মন্তব্য

  1. আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ আপনাকে কবি আব্দুর রশিদ এর লেখা কবিতা, আলোচনা ,লেখনীর পাঠ্য বিষয় গুলি নিয়ে পোস্ট টির জন্য। কবি এবং আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল। আপনারা দুজনে ভাল থাকুন।

  2. গোলাম মাওলা আকাশ মন্তব্যে বলেছেন:

    ভাল লাগল আলোচনাটি পড়ে। ভাল থাকবেন আশা করি।

  3. গোলাম মাওলা আকাশ মন্তব্যে বলেছেন:

    ভাল লাগল আলোচনাটি পড়ে। ভাল থাকবেন আশা করি। বইটা সংগ্রহ করার ইচ্ছে প্রকাশ করি। ঢাকায় কোথায় পাওয়া যাবে?

  4. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    বাহ অন্বক কিছু জানতে পারলাম বইটি না পড়েই। আপনাকে ধন্যবাদ ভাই।

  5. সহিদুল ইসলাম মন্তব্যে বলেছেন:

    পরিশ্রম, সততা ও নীতিবোধের যোগফল
    সকল হোক
    সফল হোক লেখক অ কবিরা।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top