Today 10 Dec 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

সোহাগ এর সুন্দরবন পরিবহন এক্সপ্রেস

লিখেছেন: আরজু মূন জারিন | তারিখ: ০৩/০২/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 647বার পড়া হয়েছে।

৬ষ্ঠ পর্ব

খাচার ভিতর অচিন পাখী
পাখী কেমনে আসে যায়
তারে ধরতে পারলে মনোবেড়ী
দিতাম পাখীর পায়।
পাখী কেমনে আসে যায়।

এক গ্রাম্য বাউল তাদের পাশ দিয়ে দোতারা বাজিয়ে গান গাইতে গাইতে পথ চলছে।

আহা কি গান সোহাগ চোখ বন্ধ করে শুনতে শুনতে তাল মিলায়।তার মোবাইল বেজে উঠল।নাম্বার টা একনজর দেখে সে ফোন কেটে দিল।

ভাইজান ভাবীসাহেবের ফোন ?রশীদ জিজ্ঞাসা করে।সোহাগকে নিরুত্তর দেখে বলে আপনার ফোন ধরা উচিত ছিল ভাইজান।অভিযোগ রশীদের।

নাহ ধরলেই ক্যাচাল।কোথায় আছ কি করি।তার ধারনা আমার আরেক সংসার আছেরে।হতাশায় বলে উঠে সোহাগ।ক্যাচালের জাত।

তাত কইব ভাইজান।প্রায় দুইদিন হইতে চলল আপনি ভাবীসাবরে না দিছেন ফোন না ধরছেন ফোন।রশীদ বুঝানোর ভাবে বলে।

এখন তো ফোন ধরতেছিনা রাগে।ঘর থেইকা বাহির হওনের সময় এমন করছে বেটি ভাবতাছি আর ঘরে ফিরুম না।বাসে ঘুমামু এখন থেইকা।

ঠিক আছে ভাইজান আমরা দুইভাই বাসে ঘুমামু কিন্তু খানা দানার কি হইব?

দাড়া একটা ষ্টোভ কিনমু।তুই আমি মিইলা ঝিলা রানমু।পারতিনো?

ডাল আলুভর্তা ডিম ভাত তো পাকাইতাম পারমু ভাই।কোন চিন্তা কইরেন না আল্লাহ ভরসা।

সবাই নদীর পাড়ে সুন্দর হাওয়ায় ঘুরছে।কেও কেও ছবি তুলছে।একটা সুন্দর নিরিবিলি গাছ থেকে সোহাগ আর রশীদ বসল ।

একজনকে দেখা যাচ্ছে পাগলের মত চক্রাকারে দৌড়ে চাচ্ছে পায়ের একজায়গা ধরে।তারসঙ্গে চিৎকার ত্রাহি ত্রাহি

ও মাগো ওমাগো ওমাগো ওমাগো।

এই ব্যাটা দেখি কানের পর্দা পাটাই লাইব ।রশীদ দৌড়ে এসে দেখার চেষ্টা করল।

হাত মুঠ করে দেখাচ্ছে ভিঙ্গুল ইয়া বড় ভিঙ্গুল বলে সমানে দৌড়ায় যাচ্ছে।

রশীদ দৌড়ে যাচ্ছে সমানে সমানে।ওরে বাপরে বেটা তো অলিম্পিকে দোড়ায়।তারে ধরা যাচ্ছেনা।

সে দৌড়াচ্ছে তার পিছনে আরও তিনজন দৌড়াচ্ছে।রিলে রেস প্রতিযোগিতা যেন ।

তিনজন মিলে লোকটকে কাবু করল।তার হাত খুলে পোকা বের করে মারল।

মিঞা তুমি ফালায় দিলেতো হত।একজন ধমক দিয়ে বলল।

লোকটি বলল যদি আৎরে কামড়াই দেয়।ভয়ে মুঠ খুলিনো।

বেকুবের কথা শোন।রশীদ হাসতে হাসতে খুন।

বারটা বাজতে সবাই এসে বাসে বসল। অবশেষে তারা রওয়ানা হল ঢাকার উদ্দেশ্যে।

আপাতত এই হল সোহাগের সুন্দরবন পরিবহন এক্সপ্রেসের প্রথম যাত্রার কাহিনী।

৭৩০ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
নিজের সম্পর্কে কিছু বলতে বললে সবসময় বিব্রত বোধ করি। ঠিক কতটুকু বললে শোভন হবে তা বুঝতে পারিনা । আমার স্বভাব চরিত্র নিয়ে বলা যায়। আমি খুব আশাবাদী একজন মানুষ জীবন, সমাজ পরিবার সম্পর্কে। কখনো হাল ছেড়ে দেইনা। কোনো কাজ শুরু করলে শত বাধা বিঘ্ন আসলেও তা থেকে বিচ্যুত হইনা। ফলাফল পসিটিভ অথবা নেগেটিভ যাই হোক শেষ পর্যন্ত কোন কাজ এ টিকে থাকি। জীবন দর্শন" যতক্ষণ শ্বাস ততক্ষণ আশ " লিখালিখির মূল উদ্দেশ্যে অন্যকে ভাল জীবনের সন্ধান পেতে সাহায্য করা। মানুষ যেন ভাবে তার জীবন সম্পর্কে ,তার কতটুকু করনীয় , সমাজ পরিবারে তার দায়বদ্ধতা নিয়ে। মানুষের মনে তৈরী করতে চাই সচেতনার বোধ ,মূল্যবোধ আধ্যাতিকতার বোধ। লিখালিখি দিয়ে সমাজে বিপ্লব ঘটাতে চাই। আমি লিখি এ যেমন এখন আমার কাছে অবাস্তব ,আপনজনের কাছে ও তাই। দুবছর হলো লিখালিখি করছি। মূলত জব ছেড়ে যখন ঘরে বসতে বাধ্য হলাম তখন সময় কাটানোর উপকরণ হিসাবে লিখালিখি শুরু। তবে আজ লিখালিখি মনের প্রানের আত্মার খোরাকের মত হয়ে গিয়েছে। নিজে ভালবাসি যেমন লিখতে তেমনি অন্যের লিখা পড়ি সমান ভালবাসায়। শিক্ষাগত যোগ্যতা :রসায়নে স্নাতকোত্তর। বাসস্থান :টরন্টো ,কানাডা।
সর্বমোট পোস্ট: ২২৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩৬৮৩ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-০৫ ০১:২০:৩৫ মিনিটে
banner

১৪ টি মন্তব্য

  1. এস এম আব্দুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    ভ্রমন কাহিনী ভাল লাগলো । শুভ কামনা । ভাল থাকুন সতত ।

  2. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    ভাল লাগল গল্প। লিখে যাও আপি সাথেই আছি

  3. আরজু মূন মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ আপি কমেন্টসের জন্য।আমিও সাথে আছি।ভাল থাকবে।

  4. মো: মালেক জোমাদ্দার মন্তব্যে বলেছেন:

    ভাল লাগল গল্প।শুভ কামনা রইল।

  5. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    আবারও ভাল লাগা।

  6. জসীম উদ্দীন মুহম্মদ মন্তব্যে বলেছেন:

    এর পরের ঘটনা খুব জানতে ইচ্ছে করছে ——– ।

  7. আরজু মূন মন্তব্যে বলেছেন:

    আসব পরে নুতুন ঘটনা নিয়ে ইনশাআল্লাহ।ধন্যবাদ কমেন্টসের জন্য।ভাল থাকুন।

  8. কে এইচ মাহবুব মন্তব্যে বলেছেন:

    খাচার ভিতর অচিন পাখী
    পাখী কেমনে আসে যায়
    তারে ধরতে পারলে মনোবেড়ী
    দিতাম পাখীর পায়।
    পাখী কেমনে আসে যায়।

    গানটি কি আমার জন্য নাকি ? তোমার লেখা ভালো লাগলো ।

  9. আরজু মূন মন্তব্যে বলেছেন:

    আমাদের সোল বা রুহ এর কথা বলেছেন গীতিকার।তুমি যদি ভেবে নিতে চাও লেখক তোমাকে বলেছে কোন বক্তব্য বা মেসেজ তা তুমি ভাবতে পার।যে কোন ম্যাসেজ তুমি ক্যারি কর অথবা গ্রহন করতে পার।রবীন্দ্রনাথ এর কিছু প্রেমের গান কে অনেকে বলে আধ্যাত্নিক ভগবানকে উল্লেখ করে লিখছেন।যে যেভাবে দেখছে।তবে লেখাকে পাঠকের ভার্চুয়াল বোধে চিন্তা করা উচিত সীমাবদ্ধতা না টেনে।কোন কোন লেখা বিভিন্ন ধরনের ভাব জাগায় মনে লালন এর এই গানটা যেমন।ধন্যবাদ তোমার মন্তব্যের জন্য।ভাল থাকবে ।

  10. সাঈদ চৌধুরী মন্তব্যে বলেছেন:

    খুব ভালো হয়েছে লেখাটি ।স্বপ্নের যাত্রায় ডুব দিয়েছিলাম । ধণ্যবাদ ।

  11. আরজু মূন মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ সাঈদ ভাই চমৎকার মন্তব্যের জন্য।ভাল থাকবেন।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top