Today 21 Sep 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

স্পেস-১৪(অংশ ১০)

লিখেছেন: রাজিব সরকার | তারিখ: ৩০/০১/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 492বার পড়া হয়েছে।

টিক শুরু করলেন।
-মহামন্য পৃথিবীর অসাধারণ মেধাবীগণ,সবাই আশা করি ভাল আছেন।আমি অতি আনন্দের সাথে জানাচ্ছি যে,টিনডিমুটা গ্রহের প্রাণিরা ইতিমধ্যে আমাদের সাথে যোগাযোগ করেছে।তারা বলেছে,আর কয়েকদিন গেলেই আমরা তাদের দূরত্ব সীমার মধ্যে চলে যাব।তাই আমাদের পনেরো বিশদিন অপেক্ষা করতে হচ্ছে না।তিন চারদিন পর ইনফিনিটি ড্রাইভে করে তাদের কাছে ক্ষণিকেই চলে যাব।
কথা শেষ হওয়ার পর পরই আফিয়া হেসে বলে-সেতো খুব ভাল খবর।আমারও দেরি সইছে না।মনে হচ্ছে এখনি যেতে পারলে ভাল হত।
এবার ফিক আফিয়ার দিকে তাকিয়ে বলল-এত খুশি হবেন না মিস বিউটি।আমরা ঐ স্পেসে যাব কিনা তা নিয়ে আমাদের আরও ভাবতে হবে।
হঠাৎ এমন কথা বলার কোন কারণ খুঁজে পেলেন না টিক।মনে মনে বেশ বিরক্ত হলেন।আফিয়া মুখটা কিছুটা কঠিন করে বলল-আপনি কি সবসময় একটা না একটা ঝামেলার কথা বলবেনই?কোন সময় যদি একটা আশার বাণী পাই আপনার কাছ থেকে।
-দেখ,আমার কাছে যা মনে হয় তা বলতে আমি দ্বিধা বোধ করি না।সে আশারি হোক আর নিরাশিরই হোক।
-দয়া করে আপনি আপনার কথাটা ভাল করে বলবেন?
-একটা বিষয় চিন্তা করে দেখেছ,তারা আমাদের গাছপালা,প্রাণী এসব কিছু চায় নি।
-এতে চিন্তা করার কি আছে?
-বুঝেছি তোমার মাথায় এসব আসবে না।তুমিতো প্রথাগত ধারণার বাইরে কিছু চিন্তা করতে পার না।
আফিয়া কিছুটা রেগে বলল-আপনি আমাকে অপমান করছেন?
ফিক মুচকি হেসে বলল-বোধশক্তি তো তোমার বেশ।
আফিয়া এবার বেশ রেগে গেল।রেগে বাইরে চলে গেল।ফিক বলতে শুরু করে-মহামান্য টিক,আমরা যেমন কোন দুর্লভ প্রাণী চিড়িয়াখানায় রেখে দেয়,তা দেখে সবাই মজা পায়,কেউ আবার প্রাণীটার গায়ে খোচা দেয়।যে মেয়েটাকে আমরা দিতে যাচ্ছি,তাকে এমন অবস্থার মধ্যে ফেলে দিতে পারি না।শুধু মেয়েটা না,এমন হল আমাদের কাউকে আর আসতে দেওয়া হল না।সবাইকে চিড়িয়াখানার ভিতর বন্দী করে রাখা হল।
টিক বলল-এমন হওয়ার সম্ভাবনা আমি দেখছি না।তারা অতি সভ্য প্রাণী।
-সেই জন্যই তো ভয় আর বেশি মহামান্য।আমরাও তো কম সভ্য নই।মানব কল্যাণের জন্য আমরা যেমন বিভিন্ন প্রাণীকে গবেষণার জন্য উৎসর্গ করি,তারাও জ্ঞান অর্জনের জন্য মেয়েটিকে এমন কি আমাদের সবাইকে ব্যবহার করতে পারে।এমন কি আমাদের টুকরা টুকরা কেটে কি কি আছে ভিতরে দেখতে পারে।
-আমাদের সাথে তাদের একটা চুক্তি আছে।সেই চুক্তি অনুযায়ী তারা শুধু মেয়েটাকে নিবে,তার বিনিময়ে তাদের সমস্ত জ্ঞান আমাদের দিবে।
-তাহলে তো এর মধ্যে আরও ভয়াবহ কথা লুকিয়ে আছে।
-মানে?
-শুধু মাত্র একটি মেয়ের জন্য তাদের সমস্ত জ্ঞান দিবে,এটা আমাদের জন্য খুব বেশি প্রাপ্তি হল না?

৫৩১ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
সর্বমোট পোস্ট: ১৭১ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৪৪ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৮-৩০ ১৬:১৭:৫০ মিনিটে
banner

৫ টি মন্তব্য

  1. আরজু মূন মন্তব্যে বলেছেন:

    পড়লাম এই পর্ব টা ও ভালো লাগছে। লিখে যাও অবিরত ধন্যবাদ।

  2. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    ভাল লাগল

  3. এস এম আব্দুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    কাহিনী ভাল লাগছে । শুভ কামনা ।

  4. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    পড়লাম সঙ্গে আছি।

  5. রাজিব সরকার মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ সবাইকে

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top