Today 15 Oct 2018
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

স্মৃতির পাতা থেকে–( পর্ব–৪০ )

লিখেছেন: এস এম আব্দুর রহমান | তারিখ: ২৭/০৭/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 286বার পড়া হয়েছে।

ভোর ৫টা । মোবাইল ফোনটা বেঁজে উঠলো নির্দয় ভাবে । অবশ্য আমার জন্য নির্দয় নয় । কারণ আমি ইতোমধ্যেই বিছানা ত্যাগ করেছি । ফোনটা ধরেই বললাম—
‘ কখন এলেন ? ওপাশ থেকে প্রশ্ন ভেসে এলো —–
‘আমি আজ আসবো তা আপনি জানলেন কি ভাবে ? ‘
প্রশ্নের জবাব কিন্তু প্রশ্ন দিয়ে হয়না ।
‘ তা হয় না সেটা আমি জানি । কিন্তু আমি খেয়াল রেখেছি , আমার কয় দিন ছুটি, কবে আসবো, এ সংক্রান্ত কোন প্রশ্নই আপনি কখন ও করেন নি । আমি একটু অবাকই হয়েছিলাম এই ভেবে যে, এক জন পরিচিত লোক কোথাও যাচ্ছে , সে কবে ফিরবে , এই কথাটা জিজ্ঞেস করেনা , এমন মানুষ ও আছে এটা ভেবে আমি সত্যিই অবাক হয়েছিলাম । আজ আবার তার চেয়ে বেশী অবাক হলাম জিজ্ঞেস না করেও তথ্য সংগ্রহ করাতে ।
আপনার কাছে জিজ্ঞেস করে সব জানতে এমন কোন বাধ্যবাদকতা আছে নাকি ?
‘ সে রকম কোন কথা নেই । ত্থাপি জানার একটি মাধ্যম ও তো থাকা দরকার ।
শুনুন, দুনিয়ার অনেক কাজ নির্ভর করে জানার ইচ্ছা শক্তির উপর । কোন কিছু জানার যদি আপনার ইচ্ছা থাকে তাহলে সে বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করা খুব বেশী কষ্ট বলে আমি মনে করি না ।
‘ আপনার ইচ্ছা শক্তি দিয়ে আপনি আর কি কি জানেন ? ‘
সত্যিই আপনি জানতে চান ?
‘ হ্যা , জানতে চাই । ‘
এই ধরুন আপনি প্রেম করে বিয়ে করেছেন । আপনার স্বামী নিজে চাকরী করেন না । আপনি চাকরী করেন সেটা তিনি পছন্দও করেন না । প্রথম মন কষাকষি শুরু হয় আপনি যখন জাপান যান । কারণ আপন জাপান যান এটা তিনি চাচ্ছিলেন না । কিন্তু তিনি তখন সরাসরি বাধা না দিয়ে বিষয়টি চেপে যান । তার বহির্প্রকাশ ঘটে আপনি কসবো থেকে ফিড়ে আসার বেশ কিছু পর থেকে ।
‘ আপনি তো সাংঘাতিক লোক । আর কি কি জানেন আপনি ? ‘
অনেক কিছু জানি কিন্তু আপনার ক্ষতির জন্য নয় । ডায়াগনষ্টিক ভুল হলে তো চিকিৎসা ভাল হবে না । তাতে অপচিকিৎসায় রোগীর মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে । যাক সে কথা, আপনার জার্নিটা ভাল ছিল তো ?
‘ জার্নি ভাল হোক সেটা তো আর আপনি চাননি । যে রোগের বিপরীতে কোন ঔষধই দেননি, সে ঔষধের কার্যকারিতার খোঁজ নিতে চাচ্ছেন কেন ? ‘
আপনি দেখি এই অভিযোগ থেকে এখনো আমাকে মুক্তি দেননি । আমাদের দেশের সংসদে কিন্তু দায় মুক্তি বিল পাশের প্রচলন আছে ।
‘ তা আছে , আবার রিট করে সেটা রদ করার প্রচলন ও আছে । ‘
আগে তো দায় মুক্ত হই । রীটের বিরুদ্ধে আপীল না হয় পরে করা যাবে । তা ছুটিটা ভাল কেটেছে তো ?
‘ মোটামোটি , খুব ভাল না ।
গাধার বাচ্চাটির সাথে দেখা হয়েছিল ?
‘ না, দেখা হয়নি ‘ ।
আপনার বড় ছেলের কিন্তু দেখা হয়েছে ।
‘ আপনি জানলেন কি ভাবে ?
জানলাম কিভাবে সেটা বড় কথা নয় । কথাটি তো সত্য ।
‘ হ্যা, সত্য । আমি তাকে ইচ্ছে মতো বকেছি । ‘
কাজটা ঠিক করেননি ।
‘ কেন ঠিক করিনি ?’ পানির মতো টাকা খরচ করছি আমি , আর মায়া বাড়ে অন্যের প্রতি ।
সেটাই তো স্বাভাবিক ।
‘ কি বললেন আপনি ? সেটাই স্বাভাবিক ? তাহলে অস্বাভাবিক কোনটি ?
শুনুন , যে জিনিস না চাইতেই পাওয়া যায় তার কদর থাকে কম । আর যা দেখা যায় , কিন্তু ছোঁয়া যায়না , তার প্রতি আকর্ষণ থাকে বেশী ।
‘ আমি এটা মানি না । আমার ছেলে আমার কথাতেই উঠবস করবে , অন্যের কথায় নয় ।
আমিও সেটাই চাই । কিন্তু আজ যে পানির ধারা ঝর্ণা আকারে প্রবাহিত হচ্ছে তাকে যদি আপনি বাঁধ দিয়ে আটকাতে চান , তা হলে ক্ষণিকের জন্য সে প্রবাহ রোধ হবে বটে , কিন্তু পানি জমতে জমতে এক সময় সেই পানির ধাক্কায় বাঁধ ভেঙ্গে প্রবল স্রোতে সকল বালি মাটি ভাসিয়ে নিয়ে যাবে এবং যে স্রোত এখন ক্ষিণ আকারে বইছে তা একদিন নদীতে রুপান্তরিত হবে । তার চেয়ে যে ঝর্ণা ধারা এখন চুয়ে চুয়ে যাচ্ছে তা বইতে দিলে এক সময় হয়তো শুকিয়ে যাবে , আর বইবেই না । স্রোতের সামনে বাঁধ দিলে সে স্রোত ঠেকিয়ে রাখা মুশকিল ।বাঁধের আটকানো পানিতে সাগর সঙ্গমে মিলিত হওয়ার জন্য যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয় বাঁধ দিয়ে তাকে বেশী দিন আটকে রাখা হায় না । আর যদি ক্ষিণ ঝর্ণার পানি যেতে যেতে বালির চরেই শুকিয়ে যায় , তা হলে সাগর সঙ্গমে মিলিত হওয়ার আকাংক্ষাই তার মরে যায় ।
‘বেশ আপনার তথ্য কথা তথ্য ভান্ডারে জমা রাখলাম , কিন্তু মানতে পারলাম না ।

২৮৬ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
সর্বমোট পোস্ট: ৩৩১ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৪৮৪ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-০৮ ১৩:৩৯:৪৭ মিনিটে
banner

১ টি মন্তব্য

  1. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর

    ভাল লাগল অনেক

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top