Today 12 Nov 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

স্মৃতির পাতা থেকে ( পর্ব——৪০/১ )

লিখেছেন: এস এম আব্দুর রহমান | তারিখ: ০৪/০৮/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 611বার পড়া হয়েছে।

এখনই মানতে হবে তা কিন্তু আমি বলিনি । জমা থাকুক সময়েতে পর্যালোচনা করা যাবে । এখন বলুন কখন এলেন ?
‘ অ বাবা, সব তথ্যই জানেন , আর কখন এলাম সেটাই জানেন না ।
জানতাম , যদি গভেষণা করতাম । ‘
‘ সব কথা নিয়ে গভেষনা হলো , আর এ কথা নিয়ে গভেষনা হলো না কেন ?’
এ কথা নিয়ে গভেষনার অবকাশ নেই ।
‘ অবকাশ নেই কেন ? ‘
শুনুন , যে কথা শুনা যায় না , যাকে হাত দিয়ে ছোয়া যায় না , যাকে চোখে দেখা যায় না , তাকে নিয়েই তো মানুষ গভেষণা করে ।’
‘ সেটা বুঝলাম । তাহলে আপনি গভেষণা করেননি কেন ?’
ঐ যে বললাম, আপনিতো আমার ধরা ছোয়ার বাইরে নন । চোখ মেলে তাকালেই দেখি , আপনি আমার মনের কোনে চুপটি মেরে বসে মিট মিট করে হাসছেন । আমি হাত বাড়ালেই ছুঁতে পারি , কান পাতলেই আপনার সব কথা শুনতে পাই , নিশ্বাসের শব্দ টুকুও । তা হলে আপনাকে নিয়ে গভেষনা করবো কেন ?
‘ তা হলে অন্য সব তথ্য নিয়ে গভেষনা করছেন কেন ?
আপনার স্বত্বাটা আমার মনের মধ্যে স্থান করে নিয়েছে , কিন্তু আপনার আনুসঙ্গিক তথ্য তো সংগ্রহ করে এনে আগে স্থাপন করতে , তার পরতো ক্লীক করলে সব পাওয়া যাবে ।
‘ আচ্ছা আমার বড় ছেলে তার বাবার সাথে দেখা করেছে , তা আপনি জানলেন কি করে। ?’
ঐ যে বললাম, ইচ্ছে থাকলে দুনিয়ার অনেক অসাধ্যও সাধন করা যায় ।
‘ সেটা তো যায় । কিন্তু সেই যাওয়া আর এই যাওয়ার মধ্যে অনেক তফাত । কারণ আমার ছেলের বাপ চাচার গুষ্ঠির কারো সাথে আপনার পরিচয় আছে বলেতো আমার মনে হয় না । ‘
কি ভাবে জানি সেটা না হয় আপাতত গভেষণার বস্তু হয়েই থাকুক ।
‘ আপনি দেখি সব সময় আমার অশান্তি বাড়িয়ে রাখতে চান । আসলে আপনি চানটা কি ?’
আপনার সুখ দেখতে চাই । তা ছাড়া এখন একটু অশান্তিতে থাকলেইবা অসুবিধা কি ? এক সময় তো ইউনিভার্সিটির ক্লাস, ক্লাস শেষে ডাইনিং -এ খাওয়া , খাওয়া শেষে সরোয়ার্দী উদ্যান । তার পর কখন যে অন্ধকার হয়ে যেত বুঝতেই পারতেন না । অধিকাংশ দিনই সিকিউরিটি এসে তোলে না দিলে বুঝতেই পারতেন না যে, সন্ধ্যা হয়ে গিয়েছে । সেটাওতো মিথ্যে নয় ।
‘ আপনি কি সরোয়ার্দী উদ্যানের সিকিউরিটি ছিলেন ? ‘
কেন, কিছু ভুল বলেছি কি ?
‘ ভুল বলেননি, তবে কিভাবে বলছেন সেটাই ভাব্বার বিষয়।
প্রথম আপনাদের দেখা কি কলেজ থেকেই , নাকি ইউনিভার্সিটি থেকে শুরু ?
আমি বল্বো কেন ? আপনি আপনার অনুসন্ধানী অনুভুতি দিয়ে খুঁজে বের করুন ?
তা হয়তো বের করা যাবে । তবে অনুসন্ধানের জন্য যে শ্রম দিতে হয় তাতে উদ্ভাবনের আনন্দ লাগব হয়ে যায় ।
‘ কষ্টার্জিত বস্তু ভোগে আনন্দ বেশী । ‘
উদ্ভাবন কষ্টার্জিত হলেও নতুন উদ্ভাবন আগেরটাকে পুরুনো করে দেয় । সেই জন্য আমি উদ্ভাবন করতে চাই –উদ্ভাবিত বস্তু শুধুই অনুভব করতে হৃদয় দিয়ে ।
‘ কেমন ছিলেন এ কয় দিন ? ‘
ঐ যে প্রাণহীন দেহ , প্রস্তর মূর্তির মত টিকে থাকে শত সহস্র বর্ষ । কিন্তু, কিছু ভোগ করতে পারে না , অনুভবও করতে পারে না ।
‘ আপনার তো প্রস্তর মূর্তির মতো থাকার কথা নয় । আপনার বউ বাচ্চাদের সাথে কথা হয় না ।’
‘ নিশ্চয়ই হয় ।পুরনো দালান মেরামত শুরু হলে মানুষ তার মেরামতের চাক চিক্যটাই দেখে । কারণ নতুন চাকচিক্য পুরনো স্ট্যাকচারকে ঢেকে দেয় ।’
আপনার স্ট্যাকচারে এখনও মেরামতের কাজ শুরু হয়নি বলেই আমার বিশ্বাস । টেন্ডার হয়তো দেয়া হয়েছে , সিডিউল দাখিলের জন্য হয়তো ঠিকাদারও ঘুরে বেরাতে পারে । কিন্তু কাজ যে শুরু হয়নি সেতা আমি নিশ্চিত ।
‘ এটা নিশ্চিত হলেন কিভাবে ? ‘
কারণ আপনার স্ট্যাকচারটা বড়ই মজবুত । এতে ছোট খাটো ক্ষত হলেও তা এত তাড়াতাড়ি মেরামত করতে হবে না ।
অনেক ইমারত কিন্তু ভিতর থেকে দুর্বল হয়ে খসে খসে যায় , যা বাহির থেকে বুঝা যায় না ।
হবে হয়তো । কিন্তু আপনার স্ট্যাকচার সে ক্যাটাগড়িতে পরে না ।
‘ বিনা যাচাই বাছাইতে এত বড় সার্টিফিকেট দেওয়া ঠিক নয় । ‘
যাচাই বাছাই হয়নি , সেটা আপনি বুঝলেন কিভাবে ? ভাবছেন আপনিই সব পারেন । অন্যেরা কিছু পারে না , তাই না ?
তা হয়তো পারে । কিন্তু এমন কেহ কেহ আছে যারা অন্যের হৃদয়ের কান্না শুনতে পায় না । অথবা শুনতে ইচ্ছেই প্রকাশ করে না ।
হৃদয় ছাড়া হৃদয়ের কান্না শুনা যায় না , সে কথা মিথ্যে নয় । যে দেহে সুধু প্রাণ আছে , হৃদয় নেই , সে কখনও হৃদয়ের কান্না শুনতে পায় না ।
‘ ঐ দেহে হৃদয় প্রতি স্থাপন করে তাতে স্পন্দন জাগিয়ে তোলা যায়না কি ?
এত বড় ডাক্তার আমি নই । এমন সার্জারী করতে চাইলে কোন এফ আর সি এস এর স্বরনাপন্ন হউন ।
কোন এফ আর সি এস দিয়ে সার্জারী করা যাবে কিনা জানি না , তবে যে ডাক্তারের তত্বাবধানে কোন রোগী দীর্ঘ দিন চিকিৎসাধীন থাকে সে উক্ত রোগীর নাড়ি নক্ষত্র খুব ভাল করে জানে । কাজেই চিকিৎসাটা তাকে দিয়ে শুরু করালেই ভাল হয় না কি ?

৬০৩ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
সর্বমোট পোস্ট: ৩৩১ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৪৮৪ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-০৮ ১৩:৩৯:৪৭ মিনিটে
banner

২ টি মন্তব্য

  1. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    বরাবরের মতো ভালোই লাগলো পড়ে

    খুব ভালো

  2. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    চিকিৎসা শুরু করে দিন

    ভাল লাগল হালকা রোমান্টিক পর্বটি

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top