Today 21 Nov 2018
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

হুদহুদ …………… ভালবাসার দূত এর নামে প্রলয়ঙ্করী ঝড়

লিখেছেন: রুবাইয়া নাসরীন মিলি | তারিখ: ১১/১০/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 860বার পড়া হয়েছে।

আজ শনিবার (১১/১০/২০১৪) সকাল থেকেই  উষ্ণ মণ্ডলীয় ঘূর্ণিঝড় হুদ হুদ এর প্রভাবে থেমে থেমে বর্ষণ হচ্ছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড়টি প্রচণ্ড শক্তিশালী হয়ে ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ আর ওড়িশার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ।

ভারতীয় আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, আগামী রোববার(১২/১১/২০১৪ ) বিকেল নাগাদ ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের উপকূলীয় অন্ধ্রপ্রদেশ এবং ওড়িশায় আঘাত হানতে পারে।

 ঝড় আর পাখি

হুদহুদ প্রলয়ঙ্করী ঝড় না ভালবাসার দূত

এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সাগর তীরের আট দেশের আবহাওয়া দফতর ও বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থার দায়িত্বপ্রাপ্ত প্যানেলে ঘূর্ণিঝড়টির নাম ‘হুদ হুদ’ প্রস্তাব করে ওমান ।

নামটা বড্ড চেনা চেনা মনে হচ্ছিল । শেষে মনে পড়ল এই নাম আমি শুনি বা পড়ি কিং সলমন অ্যান্ড কুইন অফ শেবা নামক বইতে।কেন এই উষ্ণমণ্ডলীয় ঝড়ের নাম হুদ হুদ প্রস্তাব করা হল তা আমি জানি না  ,তবে আমার কাছে এই পাখি ভালবাসার দূত ।

হুদ হুদ এক পাখির নাম যার উল্লেখ মুসলমান দের পবিত্র ধর্ম গ্রন্থ আল কুরআনেও আছে।আরবিতে একে হুদ হুদ বলা হয় আর ইংরেজিতে একে বলা হয় হুপু(Hoopoe) । ঝুটি ওয়ালা চমৎকার দেখতে এই পাখিটি । এটা ইসরাইলের জাতীয় পাখি ।এশিয়া ইউরোপ আর উত্তর আফ্রিকায় এদের বাস।

 hoopoe3

এই পাখিটির নাম জড়িয়ে আছে প্রবল পরাক্রমশালী কিং সলোমন মানে সুলাইমান নবীর সাথে। জেরুজালেমের মানে ইসরাইলের তৃতীয় রাজা ছিলেন কিং সলোমন মানে হজরত সুলাইমান (আঃ)। ইসলাম ধরমালম্বিরা উনাকে নবি হিসাবে  মানেন। ডেভিড বা দাউদের পুত্র কিং সলোমন মানে হজরত সুলাইমান (আঃ)কে ইহুদি আর খৃস্টানরাও মানেন, সম্মান করেন।

বলা হয়ে থাকে উনি জীন আর পশুপাখিদের ভাষাও বুঝতে পারতেন। সলোমনের নামে ওশানিয়া মহাদেশে এক দেশ আছে কিং সলোমন আইল্যান্ড । তবে যে কারনে হুদ হুদ পাখির নাম আলোচিত তা হল সেবার রানী আর কিং সলোমনকে কাছে আনার জন্য। এই পাখির নামের সাথে জড়িয়ে আছে অনেক দেশের আর ধর্মের অনেক অনেক কিংবদন্তী ,উপকথা । মুসলিম ,ইহুদী আর খৃস্টানদের সাথে সাথে ইথিওপিয়া ,পারস্য প্রভৃতি দেশের আঞ্চলিক উপকথা তেও পাওয়া যায় কিং সলোমন মানে হজরত সুলাইমান (আঃ) আর হুদহুদ পাখির গল্প।

একটু খানি রকমফের হলেও মূল কাহিনী মূলত একই । এর কারনেই হজরত সুলাইমান (আঃ) এর সাথে দেখা হয়েছিল সেবার রানির ।

পার্সিয়ান উপকথা অনুযায়ী কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) এর সিংহাসনের উপরে  সমস্ত পক্ষীকুল পাখা মেলে চাঁদোয়া বা শামিয়ানা হয়ে থাকত । একদিন যখন বাদশা সিংহাসনে বসে ছিলেন তখন হঠাত একফালি সূর্যের আলো উনার মুখে এসে পড়লো । তিনি হুকুম দিলেন দেখতে কোন পাখির অনুপস্থিতে তার মুখে আলো এসে পড়ছিল। খোঁজ নিয়ে জানা গেল পক্ষী বাহিনী থেকে হুদহুদ পাখি গায়েব হয়ে গেছে। এ খবর শুনে কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) অনেক রেগে গেলেন এবং ঈগল কে পাঠালেন হুদহুদ পাখি ধরে আনার জন্য ।

ঈগল আকাশে উড়তে উড়তে এক সুন্দর শহরে যেয়ে দেখা পেল হুদহুদ পাখির। ঈগল পাথর ছুঁড়ে হুদহুদ পাখিকে মারতে উদ্যত হলে সে ঈগলকে মিনতি জানাল এই বলে যে তার কাছে কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ)কে দেবার মত এক দারুন খবর আছে। যদি খবর দেবার পর কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ)হুকুম দেন তখন যেন ঈগল তাকে হত্যা করে।

অতপর ঈগল তাকে ধরে কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) এর সামনে নিয়ে এল। তখন হুদহুদ পাখি কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) কে জানাল সেবা নামক এক সমৃদ্ধিশালী রাজ্য আছে যার শাহ বা রানি এক অপরূপ সুন্দরী রমণী । পারস্য উপকথায় রানির নাম ছিল বিলকিস আর ইথিওপিয়ায় মাকেদা । আর সেবা রাজ্যটি কারো মতে ইয়েমেনের পাশে আবার কেউ কেউ বলেন সেবার রানি ইথিওপিয়া আর মিশরের রানি ছিলেন ।

ধনসম্পদে ভরপুর সেই রাজ্যের সবাই অগ্নি আর সূর্য পূজারী । একথা শুনে বাদশাহ সেবার রানির কাছে হুদহুদ পাখির মাধ্যমে পত্র পাঠালেন । তাকে অনুরোধ করা হল  অগ্নি আর সূর্য পূজা বন্ধ করে এক ঈশ্বরের ইবাদত করার জন্য।

রানির সভাসদ অনেকেই তাকে যুদ্ধ করার পরামর্শ দিলেও বুদ্ধিমতি রানি অনেক উপঢৌকন নিয়ে সরাসরি কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) এর সাথে দেখা করলেন। পরবর্তীতে সেবার রানি কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) এর প্রজ্ঞা আর বিচক্ষণতায় মুগ্ধ হয়ে যায় । অতঃপর প্রেম আর বিবাহ ।

তবে এখানেই একেক দেশে উপকথায় একেক রকম পরিনতি দেখা যায় । ইসলাম ধর্ম অনুসারে সেবার রানি কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) এর প্রজ্ঞা আর বিচক্ষণতায় অভিভুত হয়ে ইসলাম গ্রহন করেন আর নিজ রাজ্যে ফিরে যান । পার্সিয়ান উপকথা অনুযায়ী সেবার রানি কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) এর প্রেমে পড়ে যান ,বিয়ে করে সুখে শান্তিতে বাস করতে থাকেন । বাইবেল এর ভাষ্য অনুযায়ী সেবার রানি কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) এর কথামত অগ্নি আর সূর্য পূজা বন্ধ করে এক ঈশ্বরের ইবাদত করা শুরু করেন আর কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) কে বিয়ে করেন। তবে তারা একসাথে বেশিদিন থাকেননি । সেবার রানি ফিরে যান নিজ রাজ্যে আর তার গর্ভে জন্ম নেয় কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) এর পুত্র   ।

যাইহোক এ নিয়ে হলিউডে সিনেমাও তৈরি হয়েছে কিং সলোমন আর কুইন অফ সেবা। তবে সব গল্পেই কিন্তু একটা জিনিষ কমন আর তা হল হুদহুদ পাখি । যদি না সে কিং সলোমন / হজরত সুলাইমান (আঃ) কে খবর দিত তাহলে সেবার রানির সাথে কখনই দেখা হত না উনার ।এ পাখিকে তাই বলা হয় মাসেঞ্জার বার্ড অফ কিং সলোমন ।

ঘটনা যাইহোক এখন হুদহুদ ঝড় তার প্রলয়ঙ্করী রূপ নিয়ে এগিয়ে আসছে। আশা করি যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহন করে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি রহিত করা যাবে । সবাই ভাল থাকুক নিরাপদে থাকুক।

৮৩৪ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমি মিলি ,ভাল লাগে বই পড়তে,ঘুরে বেড়াতে আর বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতে ।
সর্বমোট পোস্ট: ৩৮ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩৯৩ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৪-০৯-০৩ ১৫:৫৪:৫০ মিনিটে
banner

১৩ টি মন্তব্য

  1. গোলাম মাওলা আকাশ মন্তব্যে বলেছেন:

    নাম আগে শুনেছিলাম , জেনে ভাল লাগল আপি।

  2. ঘাস ফড়িং মন্তব্যে বলেছেন:

    অনেক ভাল লাগল। সুন্দর লেখার জন্য ধন্যবাদ ।

  3. কল্পদেহী সুমন মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনার জ্ঞানমূলক আলোচনা অনেক ভালো লাগলো। অনেক কিছু জানলাম।

  4. সহিদুল ইসলাম মন্তব্যে বলেছেন:

    রানী বিলকিসের রাজ্য শাসনের বর্ণনা কোরআনে উল্লেখ আছে, অতএব আমরা কি বলতে পারিনা যে, ইসলামে নারী নেতৃত্ব জায়েজ আছে? আর যদি জায়েজ না ই থাকবে, তাহলে তো কোরআনে উল্লেখ থাকতো।

  5. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    হুদহুদ থেকে যেন এলাকাবাসী রক্ষা পায়।
    কাল শব্দনীড়ে হুদহুদ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারলাম

    ধন্যবাদ আপি

  6. গোলাম মাওলা আকাশ মন্তব্যে বলেছেন:

    isইস্টিশনে আপনি কি পোস্ট দিয়েছেন

  7. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    ভালো লাগা জানিয়ে গেলাম

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top