Today 26 May 2020
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

হু হু হু

লিখেছেন: রাজিব সরকার | তারিখ: ০৩/০২/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 906বার পড়া হয়েছে।

হু হু হু-করে হেসে উঠে মেয়েটা।রাহাত মেয়েটার দিকে তাকায়।এমন করে মেয়েটা হাসছে কেন,বুঝতে পারছে না।
-আপনার পকেটে হাত দিতে পারি?
কিছু বলার সুযোগ না দিয়েই বলল-ছি ছি,আগে বলবেন তো আপনার পকেট ছেড়া।কী বিশ্রী কাণ্ড হল বলুন তো?
এই বলে মেয়েটা আবার হু হু করে হেসে উঠে।রাহাতের চোখ মুখ লজ্জায় ভরে যায়।পকেটতো ছিড়ার কথা না।কখন যে পকেটটা ছিড়ল,একদমই টের পায় নি।পকেটে হাত ঢুকায়।মেয়েটা ঠিক তখনি আরেকবার হেসে উঠে।বিস্মিত হল,পকেটটা তো ঠিকই আছে।মেয়েটা এত সহজে মিথ্যা কথা বলে ফেলল,একটু ধরতেও পারল না।মেয়েটাকে ইচ্ছে করছে বড়সড় ধরণের ধমুক দিতে।মেয়েটার মুখের দিকে তাকিয়ে কিছু বলতে পারল না।সুন্দরী মেয়েদের সামনে পড়লে কি সব ছেলেদের কি এমন হয়?নাকি শুধু তার হচ্ছে?কে জানে?
-আপনি আমাকে দেখেছেন?
রাহাত বেশ ঘামছে।থতমত খেয়ে কিছু বলতে যেয়েও বলল না।
-কি এমন হাবার মত দাঁড়িয়ে আছেন কেন?দেখা হয়েছে?
-দেখলাম।
-বাসায় যেয়ে বলবেন,মেয়ে পছন্দ হয়নি।মেয়ে রাজ্যের কুৎসিত। মেয়ের ছেলেদের সাথে ঢং করে বেড়ানোর স্বভাব আছে।
-আমি মিথ্যা কথা বলতে পারি না।
-যা সত্য তাই বলবেন।সবই তো সত্যি কথা।
এই বলে মেয়েটা মুচকি হাসে।
-একটাও না।আমার আপনাকে খুব পছন্দ হয়েছে।দেখতে আপনি খুব রূপবতী।আর দেখে মনে হয় না ছেলেদের সাথে ঢং করে বেড়ান।
-একটা কথা তো বলায় হয় নি,একবার এবরশন করতে হয়েছে।এরপরেও যদি বিয়ে করতে চান,আই হ্যাভ নো প্রবলেম।
রাহাত মেয়েটার দিকে ভাল করে তাকায়।হেসে বলে-আই হ্যাভ নো প্রবলেম।ছোটবেলা হতে আমি ঠিক এমন মেয়েই খুঁজছি।
মেয়েটা হতাশ হয়ে বলে-ভাই দেশেতো অনেক মেয়ে আছে।একজন বিয়ে করে নিন না।
-তোমার মততো আর কেউ নেই?আমি আপনাকেই বিয়ে করব।
-তবে বিয়ের দিনই মাথা ফাটাব আপনার।
-এত দেরি করবেন কেন দেবী চিত্রা?এখনি ফাটিয়ে দিন।
এই বলে রাহাত মেয়েটার কাছে মাথা এগিয়ে দেয়।মেয়েটা ছেলেটার দিকে তাকায়।ছেলেটা দেখতে তো বেশ।মাথায় হাত রেখে বলল-মনোবাসনা পূর্ণ হোক বালক।
রাহাত মেয়েটার দিকে তাকায়।মেয়েটা হু হু হু করে হাসছে।রাহাতও হু হু হু করে হেসে উঠল।

৯৫৯ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
সর্বমোট পোস্ট: ১৭১ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৪৪ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৮-৩০ ১৬:১৭:৫০ মিনিটে
banner

১২ টি মন্তব্য

  1. আরজু মূন মন্তব্যে বলেছেন:

    হু হু হু-করে হেসে উঠে মেয়েটা।রাহাত মেয়েটার দিকে তাকায়।এমন করে মেয়েটা হাসছে কেন,বুঝতে পারছে না।

    তাইতো আমি ও তো বুঝতে পারলামনা। একটা মেয়েতো হাসবে হি হি অথবা খিল খিল করে।

    যাই হোক তোমার রসরচনার রসে আপাদমস্কক রসালো হয়ে বলে উঠলাম ইয়া হু।

    অনেক ধন্যবাদ দিলাম এই রচনার জন্য।

  2. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    দারুন রোমান্টিক রস রচনা। সকাল বেলায় এত মজা দেয়ার জন্য
    ধন্যবাদ

  3. জসীম উদ্দীন মুহম্মদ মন্তব্যে বলেছেন:

    খুব খুব মজা পেলাম রাজিব দা ।

  4. কে এইচ মাহবুব মন্তব্যে বলেছেন:

    ভালো লাগলো ।

  5. রাজিব সরকার মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ সবাইকে

  6. এস এম আব্দুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    কথোপকথনের পদ্ধতিটা খুব ভাল লাগল । শুভ কামনা ।

  7. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    দারুণ রস রচনা
    অনেক ভাল লাগা।

  8. ফেরদৌসী বেগম (শিল্পী) মন্তব্যে বলেছেন:

    হু হু হু করে হাসতে হাসতেই শুরু হলো আবার হু হু হু করে হাসতে হাসতেই শেষ হলো!!! ভারী মজার রসরচনা লিখেছেন ভাই। বেশ উপভোগ করলাম। ভালোলাগা আর মুগ্ধতা রইলো।

  9. আঃ হাকিম খান মন্তব্যে বলেছেন:

    রোমান্টিক রস রচনা।

  10. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    বেশ রোমান্টিক লেখা তো
    পড়েই মন ভরে গেল ।

  11. সহিদুল ইসলাম মন্তব্যে বলেছেন:

    প্রাণ খুলে হাসলাম, তবে মেয়ে মনে হয় রাজি নয় , ছেলে কেন এত পছন্দ করে , নিশ্চয় কারণ আছে ।

  12. হাসান ইমতি মন্তব্যে বলেছেন:

    হু হু হু মনে হয় সঙ্ক্রামক …

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top