Today 20 Aug 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

হ্যাপি ব্লগিং খাঁটি রসগোল্লা !!

লিখেছেন: শওকত আলী বেনু | তারিখ: ১০/০৬/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 796বার পড়া হয়েছে।

 

মিষ্টি বাঙালি জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। বাঙালিদের যেকোন অনুষ্ঠান মিষ্টি ছাড়া অপূর্ণ থেকে যায়। আর মিষ্টির রাজা রসগোল্লা থাকলে তো কথাই নেই।

রসে ডোবা রসালো মিষ্টির নাম রসগোল্লা।ইহা ছানা দিয়ে তৈরী করা হয়।ইতিহাস বলে ভারতের উড়িষ্যায় প্রথম রসগোল্লা প্রস্তুত করা হয়েছিল।রসে ডোবানো ঐতিহ্যবাহী রসগোল্লার পাশাপাশি স্পঞ্জের মতো নরম রসগোল্লাও দেখা যায়।১৮৬৮ সালে কলকাতার নবীন চন্দ্র দাস প্রথম ঐতিহ্যবাহী রসগোল্লার বদলে স্পঞ্জের রসগোল্লা তৈরী করেন বলে জানা যায়।

তবে অসাধারন স্বাদের এই খাঁটি রসগোল্লা নিজ হাতে বানিয়ে খাওয়ার মজাটাই আলাদা। সাথে খরচ-পাতিও কমে যায়।আমি নিজ হাতে বানিয়েছি।আপনিও সময় পেলে চেষ্টা করে দেখতে পারেন।

দেখা যাক কী দিয়ে এবং কেমন করে বানানো হয় এই রসগোল্লা !! সহজ রেসিপি।সবাই জানে।অনলাইনে টোকা দিলেই চলে আসে চোখের সামনে হাজারো পাতা। শুধু আগ্রহ থাকলেই হয়।

উপকরণ:(আসবাবপত্র)
১টি কড়াই বা হাঁড়ি,১টি ছিদ্রযুক্ত চামচ (থাকলে ভালো) ১টি ট্রে এবং ১টি গামলা বা বাটি। সাথে ১টি ছিদ্রযুক্ত চালনি।

উপকরণ:(কাঁচামাল)
দুধ ২লিটার,ভিনেগার(ছানা তৈরি করতে লাগবে) ৪ টেবিল চামচ অথবা ৪-৫ টেবিল চামচ লেবুর রস।

ঘি ২ চা চামচ, চিনি ১ টেবিল চামচ, সুজি ২ চা চামচ, ময়দা ২ চা চামচ, বেকিং পাউডার ১/২ চা চামচ, এলাচ গুঁড়া ১/৪ এক চা চামচ, গোলাপজল এক-দুই চা চামচ (ইচ্ছা হলে)।

সিরা তৈরির জন্য লাগবে
চিনি ৪০০ গ্রাম এবং পানি ৮ কাপ।

কেমন করে বানিয়েছি?
দুধ প্রথমে জ্বাল দিন। বলক উঠলে (উথলে ওঠা) ভিনেগার/লেবুর রস দিন।যখন দুধ থেকে ছানা আর পানি আলাদা হয়ে যাবে তখন ছিদ্রযুক্ত চালনিতে নিয়ে পানি ঝড়িয়ে নিন। হয়ে গেল ছানা ! এরপর ছানাটাকে হাল্কা ধুয়ে ভালোভাবে চিপিয়ে পানি বের করে নিন।

এই ফাঁকে হাঁড়িতে চিনি ও পানি জ্বাল দিয়ে চিনির পাতলা সিরা তৈরি করুন।চিনির সিরার উপরে ময়লা দেখা গেলে তা ছেঁকে ফেলুন।

এবার একটি গামলার মধ্যে তৈরিকৃত ছানা,ঘি ২ চা চামচ, চিনি ১ টেবিল চামচ, সুজি ২ চা চামচ, ময়দা ২ চা চামচ, বেকিং পাউডার ১/২ চা চামচ, এলাচ গুঁড়া ১/৪ এক চা চামচ একসঙ্গে ভালো করে মেখে নিন।মাখানো যত ভাল হবে রসগোল্লাও তত নরম হবে। ছোট ছোট করে গোল গোল্লা বানিয়ে নিন।

চিনির সিরা হয়ে গেলে এর মধ্যে গোল্লা গুলো ছেড়ে দিয়ে ১০-১৫ মিনিট মিডিয়াম আঁচে ঢাকনা দিয়ে জ্বাল দিন। গোল্লাগুলো যখন ফুলে দ্বিগুণ হয়ে যাবে তখন জ্বাল বন্ধ করে দিন। এবার সিরাতে রেখেই ঠাণ্ডা করে পরিবেশন করুন।

আমি দুই লিটার দুধ দিয়ে ৩০ টি রসগোল্লা বানিয়েছি (ছবিতে দেখুন)।আপনিও চেষ্টা করে দেখুন।

নেমন্ত্রণ রইলো বন্ধু। আইসো রসগোল্লা খাইতে !!

হ্যাপি ব্লগিং খাঁটি রসগোল্লা !!

 

 

৭৮৭ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
লেখালেখি করি।সংবাদিকতা ছেড়েছি আড়াই যুগ আগে।তারপর সরকারী চাকর! চলে যায় এক যুগ।টের পাইনি কী ভাবে কেটেছে।ভালই কাটছিল।দেশ বিদেশও অনেক ঘুরাফেরা হলো। জুটল একটি বৃত্তি। উচ্চ শিক্ষার আশায় দেশের বাইরে।শেষে আর বাড়ি ফিরা হয়নি। সেই থেকেই লন্ডন শহরে।সরকারের চাকর হওয়াতে লেখালেখির ছেদ ঘটে অনেক আগেই।বাইরে চলে আসায় ছন্দ পতন আরো বৃদ্বি পায়।ঝুমুরের নৃত্য তালে ডঙ্কা বাজলেও ময়ূর পেখম ধরেনি।বরফের দেশে সবই জমাট বেঁধে মস্ত আস্তরণ পরে।বছর খানেক হলো আস্তরণের ফাঁকে ফাঁকে কচি কাঁচা ঘাসেরা লুকোচুরি খেলছে।মাঝে মধ্যে ফিরে যেতে চাই পিছনের সময় গুলোতে।আর হয়ে উঠে না। লেখালেখির মধ্যে রাজনৈতিক লেখাই বেশি।ছড়া, কবিতা এক সময় হতো।সম্প্রতি প্রিয় ডট কম/বেঙ্গলিনিউস২৪ ডট কম/ আমাদেরসময় ডট কম সহ আরো কয়েকটি অনলাইন নিউস পোর্টালে লেখালেখি হয়।অনেক ভ্রমন করেছি।ভালো লাগে সৎ মানুষের সংস্পর্শ।কবিতা পড়তে। খারাপ লাগে কারো কুটচাল। যেমনটা থাকে ষ্টার জলসার বাংলা সিরিয়ালে। লেখাপড়া সংবাদিকতায়।সাথে আছে মুদ্রণ ও প্রকাশনায় পোস্ট গ্রাজুয়েশন।
সর্বমোট পোস্ট: ২০৩ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৫১৯ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৬-১৭ ০৯:২৪:৩১ মিনিটে
banner

১২ টি মন্তব্য

  1. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    জিভে জল এনে দেয়া সুন্দর রেসিপির জন্য ধন্যবাদ।
    গোল্লাগুলোকে কি আগে ঘি দিয়ে হালকা ভেজে নিতে হয় না!
    আমি তো তেমনই জানতাম!

    • শওকত আলী বেনু মন্তব্যে বলেছেন:

      আমি যে ভাবে দেখিয়েছি তা সহজ রেসিপি । স্বাদে অতুলনীয় । না ঘি দিয়ে আগে ভেজে নেয়ার দরকার নেই তবে আরেক ভাবে করা যায় তা হলো গোল্লাগুলোকে পানিতে ডুবিয়ে ১০-১৫ মিনিট জ্বাল দিয়ে পরে সিরায় দিয়েও রসগোল্লা বানানো যায়। অনেক ধন্যবাদ অনিরুদ্ধ বুলবুল সাথে থাকার জন্যে । রসগোল্লার নেমন্ত্রণ রইলো।

  2. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    হ ডিজিটাল
    পাঠালে ,,,,,,,,,খুশি হতাম

  3. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    এত সময় পামু কই

    দারুন রেসিপি

    কোন একদিন চেষ্টা করা যাবে

  4. মাজেদ হোসেইন মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনার রেসিপি বানাতে গেলে অফিস থেকে মানে হয় দুই দিন ছুটি নিতে হবে…

    ভাল লাগলো আপনার রেসিপি…

  5. টি. আই. সরকার (তৌহিদ) মন্তব্যে বলেছেন:

    চমৎকার রেসিপি । আমার খুব প্রিয় খাবার । তবে বানানোর মতো অতো ধৈর্য কিংবা সময় কোনটাই নেই ! ভবিষ্যতে চেষ্টা করে দেখব ।
    সুন্দর রেসিপির জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানবেন ।

    • শওকত আলী বেনু মন্তব্যে বলেছেন:

      বানাতে গেলে মাত্র ১ ঘন্টা ২o মিনিট সময় লাগে । প্রিয় খাবার নিজ হাতে বানিয়ে খাওয়ার মজাই আলাদা ।

  6. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    বেশ জানলাম

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top