Today 18 Nov 2018
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

রসের হাড়িতে একদিন…

লিখেছেন: কামাল উদ্দিন | তারিখ: ০৩/০১/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 472বার পড়া হয়েছে।


আমার রেল লাইন ধরে ঢাকা টু চিটাগাং হাটার কথা অনেকেই জানেন। তেমনি একদিন হাটছিলাম। আমার সহ হাটুরে খেজুরের রস খাওয়ার খুবই ইচ্ছের কথা বলছিল,শীত কাল, খেজুরের রস না মেলার কোন কারণ নাই। আমি বললাম ঠিক আছে চেষ্টা করবো তোমাকে রস খাওয়ানোর জন্য। তবে আশেপাশে তাকিয়ে খুবই হতাশ হচ্ছিলাম এই জন্য যে, রেল লাইনের পাশে যে কয়টি খেজুরের গাছ দেখছিলাম তার কোনটিই রসের জন্য কাটা হয়নি। কিন্তু নরসিংদীর কাছাকাছি এসে বাম দিকে তাকাতেই আমাদের মুখে হাসি ফুটল, অনেকগুলো খেজুরের গাছ তার মাঝে কয়েকটিতে আবার রসের কলসী ঝুলছে। সেই রস খাওয়ার ফটো ব্লগ………………………. 😀

(২) যদিও অনেকদিন গাছে চড়া হয়নি তবু সাহস করে গাছে চড়ে গেলাম।

(৩) রসের হাড়ি হাতে নিয়ে আমি খুশিতে আটখানা, তবে রস অল্প থাকায় ঘোষণা দিয়ে দিলাম যার যার রস সে নিজে পেরে খাবে।

(৪) হাড়িতে রস আছে দেখেই তিনি বের করেছেন বত্রিশ………

(৫) রসের হাড়ি হাতে পেয়েছেন নাকি বিশ্বকাপ, হাসি দেখে ঠিক বুঝা গেল না।

(৬) তিনি অবশ্য সাহায্যকারী ছাড়া আর পুরোটা নামতে পারলেন না।

(৭) ছেঁকে নেওয়ার কারবার চলছে

(৮) একজন খাচ্ছে অন্যজন না খেয়েই কত্তো খুশি

(৯) অতঃপর তিনিও ঝাপিয়ে পড়লেন

(১০) খাচ্ছেন আর ভাবছেন গাছ থেকে পেরে টাটকা রস খাওয়ার স্বাধই আলাদা।

(১১) এতো সাধের রস গ্লাস দিয়ে খেয়ে কি তৃপ্তি মিটে ? তাই………

(১২/১৩/১৪) আমাদের রস খাওয়া দেখে পাখিদেরও বুঝি তেষ্টা লেগেছিলো খুব।

(১৫) খাওয়া শেষে আমরা খেজুরের বাগানটাকে পিছনে ফেলে ছুটে চললাম আপন গন্তব্যে, মনে মনে বলেছিলাম আবারো আসবো এখানে রস খেতে, কিন্তু আর যাওয়া হয়নি ওখানে।

৪৬০ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
বিশ্ব জোড়া পাঠশালা মোর সবার আমি ছাত্র –নানা ভাবে নতুন জিনিস শিখছি দিবা রাত্র ……
সর্বমোট পোস্ট: ২৭ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৯১ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৪-০৯-১৪ ০৫:২৮:১৯ মিনিটে
banner

৬ টি মন্তব্য

  1. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    বাহ
    দারুন
    আবার এখানে
    ভাল লাগল

  2. সহিদুল ইসলাম মন্তব্যে বলেছেন:

    খুব সুন্দর উপস্থাপনা , মনে পড়ে গেল বিশ্ব বিখ্যাত আমাদের মানিকগঞ্জের হাজারী গুড়ের কথা।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top