Today 19 Sep 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner
লেখক সম্পর্কে জানুন |
লেখালেখির জন্য কাজ করি। পড়ি। লিখি। লেখা হয় কিনা জানি না। কাজ করছি একটি এনজিওতে। এছাড়া পাক্ষিক সময়ের বিবর্তন’র সহকারি সম্পাদক হিসেবে কাজ করছি প্রায় ১০ বছর ধরে।
সর্বমোট পোস্ট: ৩০ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৭৪ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৭-০৫ ১৩:২০:৫৮ মিনিটে

কাকতালিয় হাত তালিতে

রুখে দাঁড়ালো আমার ভালোবাসা

সকল বন্ধনকে অস্বীকার করে

মৃত্যুকে বেছে নিল বন্ধু হিসেবে।

 

ক্রমে অন্ধকার থেকে

আরো অন্ধকারময়

চারপাশের সকল অট্টালিকা,

পাহাড় পর্বত ও হিমালয়।

 

অন্ধকার!

আমার পৃথিবীটাই যেন।

তুমি ছাড়া প্রিয়তম!

বিস্তারিত পড়ুন

 

সাহিত্যে নোবেল ২০০৭ এবং ডোরিস লেসিং

আহমেদ ফয়েজ

প্রথম মহাযুদ্ধের সন্তান; মুসোলিনি ও হিটলারের উত্থান ও পতন এবং দ্বিতীয় মহাযুদ্ধ ও পরবর্তী রুশ-মার্কিন ঠাণ্ডা লড়াইয়ের সাক্ষী ডোরিস লেসিং ১৯১৯ সালের ২২ অক্টোবর আজকের ইরানের খেরমানশাহতে জন্মগ্রহণ করেন। বিশ্বের ১১ তম নারী হিসেবে

বিস্তারিত পড়ুন

কতগুলো প্রহর পেরিয়ে উঁকি দেয়
একটি সফেদ কবিতার আসমান
তুমি যেথায় উষ্ণ আলিঙ্গনের সুখে বিভোর।
স্বপ্নে গুটিয়ে নেয়া অজস্র ফুল পরীর পাখনা
আর কল্পিত ফেরেশতার উজ্জ্বলতায় জজোল্যমান।

কতগুলো প্রহর পেরিয়ে আমি ফিরে পাই দিশারী;
বৈপরিত্য আর তাচ্ছিল্যতা গুছিয়ে দু’চরণ লেখার কালি।
তুমি সেথায় সাদা মেঘে পাল­া দিয়ে

বিস্তারিত পড়ুন

আলোরণে হঠাৎ থমকে উঠি!
ক্রমেই সমুদ্রের ঢেউয়ের মত হৃদয়ের গভীরে
গর্জিয়ে উঠে কারা যেন।
নিজের শব্দ-কথা, হাসি, গুনগুন গান-
বিকট হতে থাকে।
কান দিয়ে শুনতে পাই কেউ যেন ভেতর থেকে
চিৎকার করছে অতি উচ্চ বাচ্যে।
ভেতরের আমিটা ক্রন্দনে ক্রমেই ক্লান্ত।
আমাকে আর সহ্য না করতে পেরে নিজেই বিদ্রোহে আক্রোশে-
ঝাপটা

বিস্তারিত পড়ুন

কাজী নজরুল ইসলাম বাংলাদেশের জাতীয় কবি। ১৯২৯ খ্রিস্টাব্দের ১৫ ডিসেম্বর ‘নজরুল সংবর্ধনা সমিতি’ কাজী নজরুল ইসলামকে ‘জাতীয় কবি’ হিসেবে ভূষিত করে। স্বাধীন বাংলার জনগণও তাঁকে যে জাতীয় কবির মর্যাদা দিয়েছে, তাতে নিঃসন্দেহে বাঙ্গালি জাতি সমগ্র বিশ্বে মর্যাদার আসনে

বিস্তারিত পড়ুন

প্রায় শতবর্ষ যাবত
তুমার উষ্ণ ছোঁয়ায়-আলিঙ্গনে
ডুবে থাকি না
প্রায় দুশ বছর যাবত
চোখে চোখ রাখা হয় না
ঠোটে ঠোট রেখে
হারিয়ে যাই না।

বুকে বুক রেখে এক্কা-দুক্কায়
সর্গারোহনে কিংবা
পাতাল পুরীর নাচন দেখা হয় না
প্রায় ছশো বছর যাবত।

দূরে- কোথাও ডুবে যাওয়া
সূর্যের দিকে মেলে দিইনা দৃষ্টি
উষ্ণ হাতে হাত রাখি

বিস্তারিত পড়ুন

আহমেদ ফয়েজ

হায়দারাবাদ এর একটা কলেজ ক্যাম্পাসে আমি তিন সপ্তাহ ছিলাম। পাশে একটা স্কুলও। স্কুলের কপালের উপরে লেখা আছে “Expect great things from God, Attempt great things for God” লেখাটির তাৎপর্য ও উৎপত্তি নিয়ে তেমন মাথা ঘামাইনি। তবে আজ প্রায় চার

বিস্তারিত পড়ুন

সাহিত্যেরই একটা অতি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল এর সমালোচনা। যে সাহিত্য নিয়ে যত বেশি সমালোচনা হয়েছে সে সাহিত্য তত বেশি উন্নত হয়েছে। বর্তমানে বাংলা সাহিত্যে সমালোচনা সাহিত্যের উপস্থিতি তেমন একটা নেই বললে অত্যুক্তি হবে না। এর প্রধান

বিস্তারিত পড়ুন

দাঁড়িয়ে আছে সে
কখনো এক পায়ে ভর করে
কখনো এলিয়ে দুলিয়ে
কখনো দু’পা কাপা কাপা
মিটি মিটি হেসে হেসে সে।

তারও আছে চাহিদা
কিছু অন্যরকম চাহিদা
বাঁচার, বাসস্থানের, আহারের, নীড়ের
স্বামী সঙ্গ, সন্তান ধারণ; লালন-পালনের।

বাজার করার, শাক-মাছ-চাল কিংবা প্রসাধনী

যৌন চাহিদাটা কি তার এতই প্রকট?
যে কারণে সে দাঁড়িয়ে আছে
কখনো

বিস্তারিত পড়ুন

ভূমিকম্প

হঠাৎ দরজার কপাটটা নেড়ে উঠল
কি আশ্চর্য বিল্ডিংটাও..
পাশেরটাও।
গাছথেকে ঝড়ে পড়ছে শুকনো পাতা
মরা ডাল, আঁশ
জালাশয়ের পানিতে ঢেউ।

তবুও তার কলমটা কেপে উঠলো না;
কিংবা দোয়াতের কালি।

বিস্তারিত পড়ুন

শরৎ কাব্য

এসেছে শরৎ

আজ তন্দ্রাচ্ছন্ন কাশবনে

ঢেউয়ের মাতম।

থোকা থোকা নীল সাদা-

সাদা নীল আকাশ।

আর-

আকাশে সূর্যের ফাঁকে ফাঁকে

ছুটে চলে মাতাল প্রায়

সাদা মেঘের আনাগোনা।

 

এই বুঝি ঝড়ে পড়ল

সবগুলি মেঘ, ভাসিয়ে নিল

পথ ঘাট মাঠ।

আবার এই বুঝিবা

প্রখঢ় রৌদ্র তাপে মস্তক পুড়ে।

এসেছে শরৎ; প্রকৃতিকে মাতালে।

বিস্তারিত পড়ুন

কাক জলে স্নান করতে করতে ছুটে চলেছে দূর পাল্লার কোচ। গন্তব্য ঢাকা। চিরচেনা নগরী। এপাশে বৃষ্টি তো একটু সামনে এগুলেই রোদ। প্রকৃতির এমন এক বিচিত্রতার মধ্যেই কেটে গেল বাঙালির ঈদ। এক কাতারে নামাজ পড়া, সকলকে এক ভাবা এবং সকলের জন্যই সমান

বিস্তারিত পড়ুন
go_top