Today 23 Aug 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner
লেখক সম্পর্কে জানুন |
লেখালেখি করি।সংবাদিকতা ছেড়েছি আড়াই যুগ আগে।তারপর সরকারী চাকর! চলে যায় এক যুগ।টের পাইনি কী ভাবে কেটেছে।ভালই কাটছিল।দেশ বিদেশও অনেক ঘুরাফেরা হলো। জুটল একটি বৃত্তি। উচ্চ শিক্ষার আশায় দেশের বাইরে।শেষে আর বাড়ি ফিরা হয়নি। সেই থেকেই লন্ডন শহরে।সরকারের চাকর হওয়াতে লেখালেখির ছেদ ঘটে অনেক আগেই।বাইরে চলে আসায় ছন্দ পতন আরো বৃদ্বি পায়।ঝুমুরের নৃত্য তালে ডঙ্কা বাজলেও ময়ূর পেখম ধরেনি।বরফের দেশে সবই জমাট বেঁধে মস্ত আস্তরণ পরে।বছর খানেক হলো আস্তরণের ফাঁকে ফাঁকে কচি কাঁচা ঘাসেরা লুকোচুরি খেলছে।মাঝে মধ্যে ফিরে যেতে চাই পিছনের সময় গুলোতে।আর হয়ে উঠে না। লেখালেখির মধ্যে রাজনৈতিক লেখাই বেশি।ছড়া, কবিতা এক সময় হতো।সম্প্রতি প্রিয় ডট কম/বেঙ্গলিনিউস২৪ ডট কম/ আমাদেরসময় ডট কম সহ আরো কয়েকটি অনলাইন নিউস পোর্টালে লেখালেখি হয়।অনেক ভ্রমন করেছি।ভালো লাগে সৎ মানুষের সংস্পর্শ।কবিতা পড়তে। খারাপ লাগে কারো কুটচাল। যেমনটা থাকে ষ্টার জলসার বাংলা সিরিয়ালে। লেখাপড়া সংবাদিকতায়।সাথে আছে মুদ্রণ ও প্রকাশনায় পোস্ট গ্রাজুয়েশন।
সর্বমোট পোস্ট: ২০৩ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৫১৯ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৬-১৭ ০৯:২৪:৩১ মিনিটে

একী শুনি লাগে ভয়, মনে জাগে সংশয়
আঁধারে সন্ধি খেলে, কুটুম বাড়ির মাসি
অসি-মসি’র যুদ্ধে,পক্ষ নিয়ে গড়ি-মসি ?

বিস্তারিত পড়ুন

সীমানা পেরিয়ে অসীমকে স্পর্শ করবে?
এমনটি ভেবো না
অসীমেরও সীমা আছে।
তাঁকিয়ে দেখো-
উদোম গায়ে হায়েনারা গা ঝাঁপটায় কেমন করে !
চারিদিকে মেঘের গর্জন
সর্বনাশা ঢেউয়ের আঘাতে সুনামি ধাবমান
ভাঁজে ভাঁজে রক্তের ধূসর দাগ।
জানো তো ?
চাপাতি-রামদা এখন সস্তায় মেলে
কাকে ভালোবাসো? তোমাকে? না মাতৃভূমি?
গভীর শোক ! ভাইকে হারিয়ে?
বাঁচতে

বিস্তারিত পড়ুন

অনাহুত আঁধার বয়ে আনে সান্ধ্য বাদুড়চিলের ডানায় ভেসে আসে বিদীর্ণ বাতাস কেউ ঘর ছাড়ে কেউ ঘরে ফিরে।নক্ষত্রের নিচে জমে থাকে হরিণী আদরকেউ পেয়ে হারায় কেউ হারিয়ে পায়।সান্ধ্য বাদুড়ের মতো আমিও ক্লিন্ন মেজাজে অন্ধকার ছিঁড়ে জেগে থাকি মৃত শহরে। অতঃপর বাহুল্য আঁধার যেচে-খুঁজে নেই সুখের ঠিকানা।

বিস্তারিত পড়ুন

আরে গদা ছুটছো কোথায় !
অসময়ে নেংটি টেনে ?
গদা কহে-
সইত্য কথা যাচ্ছি কইতে
লাভ কী হবে তোর জেনে ?

আরে, আরে, শোন গদা
নালিশ করবে কার কাছে?
খিয়াল কৈরো-
রক্ষক যদি ভক্ষক হয়
ঢিল ছেড়োনা মৌচাকে !

গদা কহে-
কী কইলি তবে?
মানবো কেন তোর কথা ?
গদাঘাত খেলে পরে-
দেখিস লাগে

বিস্তারিত পড়ুন

হাদারাম’রা খেয়ে যাচ্ছে
রুটি তিন গণ্ডা
সাথে থাকে দেশী মুরগির
দুই খানা আণ্ডা।

গণ্ডে পিণ্ডে ব্রেকফাস্টে
হয়নিকো ঝামেলা
কোত্থেকে আজিব কথা
শোনায় তাঁর পামেলা !

ব্রাজিলিয়ান গমে নাকি
গমখেকো পোকা রে
পেট ভরে দিব্যি চলছে
গন্ধ কেন খোঁজ রে !

ব্রাজিলিয়ান গমের রুটি
আহা কতো মজা যে
খাদ্যমানে সেরা এটি
একটু না হয় পঁচা সে

বিস্তারিত পড়ুন

বিকেলটা আজ শুধুই তোমার
প্রেমটা না হয় আমার
দাও না ছেড়ে একটু সময়
পাশাপাশি বসে থাকার।
তোমার না হয় ব্যস্ততা
ফেসবুক আর ফাইভস্টারে
বর্ণচোরা মনটাকে
নিলামে ডাকো হাটে-ঘাটে।
তোমার জন্যে একটি বিকেল
খরিদ করেছি পদ্মঘাটে
চন্দন গুড়োয় প্রেম জড়াবো
দেখবে আজ কেমন কাটে।

 

বিস্তারিত পড়ুন

স্বপ্নেরা এলোমেলো খেলা করে অনায়াসে ভুলে থাকি ভোরের মৌনতা।হৃৎপিণ্ডের উত্তাপে ভোরের মেয়েটি এগিয়ে এসে কন্ঠ ছেড়ে গান ধরেনূপুর আওয়াজে গৃহ-পাখিরা নেমে যায় হ্রদেসাদা বক কচুড়িপানায় নিরন্তর ঠোঁট নাড়েবিশ্বস্ত পৃথিবী উত্তাপ ছড়িয়ে আগলে রাখে দিবসের নিরাপদ আশ্রয়।স্মৃতিকাতর আমি- কেবলই স্বপ্নের ভিতর ঘুরেফিরে আটকে থাকি নির্জন ঘরে এক

বিস্তারিত পড়ুন

পথের ঠিক শেষ দিকে তাঁকিয়ে দেখো
অনেক পথ এখনও বাকি
জানালা দিয়ে বর্ষার সুখ দেখা যত সহজ
জীবনকে শুধরে নেয়া ততোটাই কঠিন।
ছাই রঙ হতে
অস্তগামী সূর্যটাও একটু সময় নেয়
তুমি না হয় আর একটু সময় নিয়েই নাও
আমিও সঙ্গী হবো-
শেষ বিকেলে ঘরে ফেরা ত্রস্ত পাখির মতো।
ভুলগুলো

বিস্তারিত পড়ুন

তুমি বরং আমাকে একটি কবিতা শোনাও।
নয়তো গল্প।
কিসের গল্প?
এই যেমন ধরো পৃথিবী গোলাকার।
অথবা যুদ্ধ-যুদ্ধ খেলা।
নয়তো
ঈশ্বরের প্রেমিকা নেই।
অথবা কোনো রোমান্টিক কচ্ছপের কাহিনী।

তুমি তো জানোই-
আমার ভালবাসার মানুষ নেই
তাই নিজের কোনো গল্পও নেই।

যদি শোনাই নিরাকার ঈশ্বরের গল্প !
তুমি চেঁচিয়ে উঠবে-
এই আবার কোন অসুখ নিয়ে

বিস্তারিত পড়ুন

ফুড়ুৎ করে উড়ে যায়
চঞ্চল পাখিরা
আস্তানা খুঁজে পায় ভারী শকুনের দল;
নিঃসঙ্গ ভেড়ার পালে লাগে লু’ হাওয়া
চৌকাঠ পেরিয়ে-
শেষ বারের মতো আমিও দেখি
দুমূখী সাপের নিত্য আসা-যাওয়া।

বিস্তারিত পড়ুন

প্রগাঢ় প্রেমে বেঁধে রেখে তাঁকে
সংগম ছেড়ে ডুবে থাকি জলে।
ডুবুরি নই আমি তবু খুঁজি নুড়ি
রোজ জলে ডুবে জল-দহনে পুড়ি।

বিস্তারিত পড়ুন

এক।
দিনের শেষে সন্ধ্যা হলে
খুঁজি শুকতারা
তুমি বিনা মনটি আমার
বাউলের একতারা।

দুই।
ভুলে যেতে চাই যে আমি
যায় না তবু ভোলা
প্রেম-পিরিতির অন্ধ গলিতে
দুলছি নাগর-দোলা।

তিন।
একলা পথে ঘুরে বেড়াই
পাইনা খুঁজে তাঁকে
মনকে বলি ব্যাকুব পাণ্ডা
ঝাণ্ডা দেখাস কাকে?

বিস্তারিত পড়ুন

go_top