Today 22 Mar 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner
লেখক সম্পর্কে জানুন |
=== ব্লগার,চারু মান্নান আমি কবিতা,ছড়া, গল্প লিখি,,,,,,,,,,
সর্বমোট পোস্ট: ৪৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ২৫ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৫-২৭ ১০:৫০:৩০ মিনিটে

মেঘের মত অভিমান তার


বৃষ্টি আর মেঘের মত
এমনি আত্মিক স্বজন ছিল, বুঝি সে!
মেঘ যেমন শত আদরে
পায় না বৃষ্টির ভালোবাসা; বার বার তাকে
নিঃস্ব হতে হয় নিরন্তর


তাইতো মেঘ পরম্পরা রিক্ত
হাওয়ার সাথেও প্রত্যহ পরকীয়া
ধানি ফসলের ক্ষেতের মত
বার বার হাল চাষে তিক্ত বিরক্ত
দীর্ঘশ্বাস ফেলে ঐ

বিস্তারিত পড়ুন

অভিমান তোমার


আর নতুন করে,
ভাববার অবকাশ কই?
বিরহ আকাশ জুড়ে, তৃঞ্চার হাহাকার
সবে চন্দ্রগ্রহন!
পৃথিবীর অর্ধেক বোধ হয় ঢেকেছে আঁধার
তাই রাতের যাতনায় সীৎকার ভাসে বালু কোনায়
অনিন্দ্য রুপখোর!
নন্দনপুর লুট হয়ে যায়, কালো রাতে
এসেছিল সজ্জন ডাকাতদল।


দিন তো আর ফুরায় না,
পথে পথে যায় বেলা পথিক বাউল; আধেক

বিস্তারিত পড়ুন

পূর্বরাগ, কালান্তর


এমন দিনে,
ঝরা পাঁপড়ির পদ্মলোচন
আহাম্মকের মত হাসতে হাসতে কেঁদে ফিরে।
ফুলের রেণুর বাসন্তি আবির;
হাওয়ার টানে উড়ে উড়ে ঘুড়ে ঘুড়ে
নিষিক্ত বরণে মিলনের পূর্বরাগ।


পাখির ঠোঁটে এখন বড়ই মায়া
আমলকির ডালে টোনাটুনির বাসা বেঁধেছে
ভালোবাসায়।
গলায় পরা সাতনরী হার; চঞ্চল পায়ে নূপুর
বসন্ত দুপুর ঝিরঝিরে হাওয়া
ধূসর পালকে বিলিকেটে

বিস্তারিত পড়ুন

ঘোর কাটেনা না স্বপ্ন বিবর

কতদিন দেখা হয় না বসন্ত ঘন চাঁদের সাথে?
ক্ষয়ে যাওয়া চাঁদের আলো আঁধারিতে; মিথের বীজ বনেছিল সেই কবে?
অথচ দেখো নাঙা কাঠবাদাবির গাছটায়; কেমন সবুজ পাতায় ছেয়ে গেছে!
যেন অন্তরীক্ষের বাসনা পরছে চুয়ে চুয়ে।

এমন সুবোধ রাতের কোলে ঘুমানো হয়

বিস্তারিত পড়ুন

হাওয়া মন্থনে কৈলাসে বসন্ত যাপন

হাজার হাজার কথার ফাঁকে,
নাই বা পড়ল মনে পোড়া কথা; লক্ষ কোটি কথার নৈবদ্য বিতানে
তালিকায় নাই বা রাখলে; ঝরে পরা পাতার মত তুচ্ছ নিমিত্তে
উদাস করা হাওয়ার অজান্তে লাগল ছোঁয়া।

বারান্দার কার্নিশে খুনসুটিতে মত্ত চড়ুই,
বসন্ত প্রবল বাসনার উন্মেষ; ঠোঁট

বিস্তারিত পড়ুন

বসন্ত ঘ্রাণ

বসন্ত সকাল বলে কথা,
কাকের গলায় চিকচিকে রং; পালক রৌদ্রে জ্বল জ্বল করে
বুনো ঘাসে রাঙা ফুল; লাল চোখে ধূসর কোকিল
দক্ষিণ হাওয়ায় যেন উদাস মাখা রং।

অনুভবে রং লাগা পলাশ,
ধুলায় মাখা লাল পাঁপড়ি বেদনা ভুলে; ঝেড়ে ফেলে জড়া জীর্ণ
মাটি ফুড়ে কবিতার অঙ্কুরোদগম;

বিস্তারিত পড়ুন

যৌবন আপ্লুত ফাগুনে,
মৌ মৌ গন্ধ ভাসে যেন আকাশে বাতাসে; আমলকির বনে লবঙ্গ গন্ধ ঘাসে
দারুচিনি দীপের গহীন বনের মগ্নতায়; জ্যোছনার অভিমান চুঁইয়ে চুঁইয়ে
আপদমস্তক ঢাকে বরফ কুচির শুভ্র প্রলেপ যেন।

এইতো যাচ্ছে বেশ,
লবঙ্গ সাঁঝে জোনাকির পিলসুজের বাতি; টিম টিম করে জ্বলে
রাতের কার্নিশে তখন

বিস্তারিত পড়ুন

আমার মা, একুশে ফেব্রুয়ারী

প্রায় তিন থেকে চার বছর,
মায়ের সাথে কথা হয় না; যদিও বহু কষ্টে
ভাল আছিস বাবা! মুখ দেখে চেয়ে থাকে চেনার চেষ্টা করে
কিন্তু কিছুতেই মনে করতে পারে না।
যদিও মনে হয় চেনা চেনা তার,
নাম বলতে পারে না; মাতৃভাষার ফেব্রুয়ারী
প্রাণ খুলে

বিস্তারিত পড়ুন

আজ বসন্ত! আবার এল ফিরে
ঋতু ফেরার দেশে; ফাল্গুনের চনমনে বাহার
ফুলে ফুলে পলাশ শিমুল; কৃঞ্চ চূড়া লালে লাল
বাসন্তী বাহারে উচ্ছ্বল যৌবন।

ফাগুনের প্রথম দিনে
কুয়াসা আবিরে ধুলোর আস্তরে, ঘাসফুল যেন চেতন ফিরে
ঝরা নাঙা গাছে গাছে; নতুন পাতায় যৌবন
প্রজাপতির বাহারি ডানায় রং।

কচিপাতার সজনে ডালে

বিস্তারিত পড়ুন

একুশ আমাদের বোধের পুনঃজন্ম,
লাঙ্গলের ফলার মত; বার বার মাটি কর্ষণে
চকচকে ক্ষুরধার; বার বার ঋতুবদলের মত
একান্তে বোধের শান দেওয়া।
ক্ষয়ে যাওয়া কাস্তে ভোতা মুখে,
কোনো কাজেই সারল্য লাভ হয় না; তাই শান দেয়ায়
তার ক্ষুরধার যৌবন ফিরে আসে; কৃষকের নাদাল সম্বল
পরিপক্ক শস্য দানায় কৃষকের

বিস্তারিত পড়ুন

একুশ এলে বাংলা মা
আঁচল বিছিয়ে বসে,
পিঠা পুলির মৌন সাজ
ছড়া কবিতায় মজে।

কত কথার রূপকথা যে
মায়ের বোলে লেখা,
আকাশ জুড়ে স্বপ্ন ভরা
বাহান্নের গায়ে আঁকা।

গুনগুনিয়ে গান ধরে যে
সর্ষে ফুলে মৌ,
সোঁদা গন্ধে মত্ত যুগোল
কোকিল ডাকে কুহু।

পাতা ঝরার হিমেল বনে
আম্র মুকুলের গন্ধ,
গাইছে গান গুনগুনিয়ে
ভ্রমর জুটি বন্ধ।

১৪২০@২৬

বিস্তারিত পড়ুন

একুশ এলো

একুশ এলো, মায়ের বোল উঠল ডেকে,
একুশ এলো, স্বরবর্ণ গুলো উঠল গেয়ে।
একুশ এলো, মাঘের শিতল হাওয়া বয়ে,
একুশ এলো, নতুন বইয়ের গন্ধ মেখে।

একুশ এলো, দূর্বাঘাসে শিশির ধুয়ে,
একুশ এলো, শহীদ বেদিতে শোকের ফুল।
একুশ এলো, সুজন বাদিয়ার ঘাটে ঘাটে,
একুশ এলো, বর্ণমালার ঐ মিষ্টি

বিস্তারিত পড়ুন
go_top