Today 19 Oct 2019
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

ছেড়ে যাচ্ছো? যাও…
নিয়ে নাও যা ছিলো তোমার
গা হতে মুছে দিয়ে যাও;
আদরের দাগ,
নাকের ওপর যে তিলটা ছিলো;
পারলে ওটা খুলে দিয়ে যাও
বড় মায়ায় জড়িয়ে-
পড়েছি ওগো তোমার; ও মুখের প্রেমে।

যাচ্ছো যখন চলেই যাও
যা ছিলো তোমার বলতে;
না হয় রেখে যাও,
একটা অবলম্বন তো চাই
বাঁচার জন্যও

বিস্তারিত পড়ুন

হবে হয়তো বিশ্বাসে দরদাম ছিলো,
নয়তো দরদাম করে কিনতে হয়েছে নিশ্বাস
নইলে মারা যেতো কাঁক,
বেঁচে থাকতো কোকিল শুধুই।
হয়তো তোমার প্রেম ভ্রষ্ট ছিলো;
হবে হয়তো চাপা ভালোবাসারা ছিলো
বড্ড বেশী নীরব।

তবু,
নিরাকার তুমি বড় অবেলায় এলে;
বেলা শেষের ধিক্কার মগ্ন মনন জুড়ে
এই অবেলায় এসে তুমি সাকার হলে।
প্রশ্ন?
কেন

বিস্তারিত পড়ুন

এইতো শেষ হয়েছে যন্ত্রণার ব্যাপ্তি;
কোমল রোদনে ক্ষণে ক্ষনে উদ্বেল;
দ্যাখো এই রাত্রি।
তুমি বোধহয় ভুলে গিয়েছো;
বহুকাল আগে তুমি এখানেই রেখে গিয়েছিলে আগুন,
আমার আত্মার শেষ স্তর অবধি লেগেছিলো তা,
অঙ্গার হয়েছিলাম পুড়ে।

হয়তো বড় ভুল করে ছুঁয়ে দিয়েছিলাম
তোমার ওই মন, ওই সব বাতাস
তুমিও তো নির্বিবাদে

বিস্তারিত পড়ুন

সন্তানটি জন্মগ্রহণ করেছিলো গুহায়,
আশপাশে ছিলো শুধুই অন্ধকার
শক্ত সব জগদ্বলের স্তুপ,
বুকে ছিলো ভাষা, তবে অব্যক্ত
চোখ ভর্তি ছিলো স্বপ্ন,
না দেখা পৃথিবীটাকে;
দু’চোখে পুরে নেবার।

সানুপাহাড়ের ভাঁজে;
সন্তানটি বেড়ে উঠলো,
জানতে শিখলো;
আশেপাশে শুধুই পাথরের দেওয়াল
অমসৃণ, খাড়া, খাঁজে ভরা;
ভাঙ্গতে হবে সব।

কিন্তু সন্তানটি পারলো না কিছুই।

সন্তানটি সন্ধ্যেতেই ঘুমিয়ে পড়লো;
রাত

বিস্তারিত পড়ুন

আমাকেও হাঁরিয়ে যেতে হবে একদিন;
ভাবলেই দমবন্ধ লাগে,
মনে হতে থাকে;
জমাট কাঁদায় পা আটকে গেলো
গলা পেঁচিয়ে ধরলো বুঝি জল শ্যাওলারা।

’যা দেখেছিলাম রবীন্দ্র সরোবরে। প্রপাতে।

তবু চুমু খাই প্রত্যহ ছোট্ট বাবুটার মুখে।

আশা আর স্বপ্নের স্থান পরিবর্তন হয়
আমা হতে ঐ ছোট্ট হৃদয়ে। বাবুসোনাটির।

শুধু আক্ষেপ এ

বিস্তারিত পড়ুন

আবার খুলে গেলো মনেরও দুয়ার;
অবারিত মেঘ মল্লার বাতাসি কাপনে,
নিদাঘ চোখখানি আশে মেলি কেবলই;
অবারিত ও মুক্ত-সুখ-সুধা চরাসে।

ও তরু তমালে বিরাম থাকে
থাকে অলস মধ্যাহ্নের ঝিমাধার,
সুখের চাঁদরে জড়ানো থাকে;
রথিনও খেয়ারই পারাবার।
তুমি সুখ যেন নও;
আমোদ শিখরে,
পাতালও নিবিরে অভিরাম।

দু’দন্ড আমাকে-
আরো না ভেজালে,
আরো না ধিয়ানে পিছুটান
রংধনু

বিস্তারিত পড়ুন

মদ গিলে, ধোঁয়া ছাড়ছে কিছু যুবক,
হাতে আছে গিটার
বুকে স্বপ্ন গায়কদের রাজা হবার।

আশেপাশের হেঁটে যাওয়া-
মেয়েদের শরীর হতে ভেসে আসে গন্ধ;
মাতলামি বাড়ে
গান ওঠে গলায়,
“তুমি যে ক্ষতি করলা আমার…….”
শরীর গন্ধ ছাড়তে ভুলে যায়,
গানও বন্ধ হয়
তবে মুখেই শুধু বুকে নয় একদম,
রস শেষ হলেও;
তারুণ্য থাকে

বিস্তারিত পড়ুন

যে রাত জ্যোৎস্না নিয়ে আসে;
চোখ ভেসে যায়,
মায়া মায়া লাগে
মনে হয় কিছু নেই, কেউ নেই
আমিই শুধু,
বুকের খোরাক যোগাতে;
পুরে ফেলি চোখের ভেতরে
আস্ত একটি উর্বশী ফরসা চাঁদ…!

চোখ বুজে থাকি;
নিসর্গ লাগে
বুঝি স্বর্গ এসেছে পৃথিবীতে;
পায়ে হেঁটে হেঁটে
আমাকে বুকে জড়িয়ে ধরে;
আদর কত কত।

জ্যোৎস্না তুমি এ রজনীর

বিস্তারিত পড়ুন

যে কথা বুকেতে জমা আমার;
ওগো মুখে নাহি ধায়,
তোমারও স্রোতের ধার
আমার অবাকও অভিপ্রায়।

তোমারও আপন চাওয়ারা আজো;
খুব যেন আপন আমার,
অশনি নিশীথে যদি-
অযতনে কাঁটা বিঁধে ও রাঙ্গা পায়;
আমি ব্যাকুলও আঁখি লয়ে-
সজল হই, ব্যথার ধার বুঝি-
হৃদয়ে এসে বিঁধে, রুধিরও নির্গত হয়,
এমনি সখি ওগো ধায়;

বিস্তারিত পড়ুন

দেখার ইচ্ছেটা; জিইয়ে রাখছি,
অথচ বুকের কথা বুঝতে বাকি নেই
মন খুঁজছি; মন মেলাবো বলে,
অথচ দাগ রেখে উঠে যাওয়ার
কাল হয়েছে শুরু।

চোখ সে তো কেবল অশ্রুর দখলে নয়;
হাসিতে মেলতে পারে সেও ডানা,
ভাংচুর হতে পারে হৃদয়ে
ক্রমশ অসুখে ফেলতে পারে,
বুকফাটা এক সুখ অনুভুতি;
যদি দিতে পারে

বিস্তারিত পড়ুন

মাছরাঙ্গা এক পাখি;
ঠোঁটে করে তুলে আনলো,
জলের মধ্যে থেকে সোনালী মাছ।
মাছটির গা থেকে গড়িয়ে পড়লো;
কয়েক ফোঁটা স্বচ্ছ জলধারা,
টুপ-টাপ করে ঝরলো শুধু-
জলের ভেতর। আলোড়ন হলো।

আদ্যপান্ত ঠিক এমন!

অবাক কথা হলো;
জলের মধ্যে;
কোথাও কোন ছায়া পড়েনি;
সোনালী মাছটির।

মাছরাঙ্গার বুকে খুশি;
গলার নিচের লোমকুপে;
ঢোক গেলার আনন্দ, বুকের মধ্যে

বিস্তারিত পড়ুন

ঘুমিয়ে পড়বে কি তুমি?
আচ্ছা, তবে কি জেগে থাকবে শরীর?
যেভাবে ঘুমিয়ে পড়েছিল;
নিয়ন আলো কামড়ার বাইরে;
কচ-কচ শব্দ তুলে দরজায়;
আবডাল ফেলে রেখে।

নিশ্চয় নয়।

হয়তো ঘুম-ঘোরে হাত-পা নড়বে না;
তবু জেগে থাকবে বিবেক,
মন দেখতে থাকবে স্বপ্ন
খাটের প্রান্তে থাকবে প্রাণহীন শরীর,
বড্ড জ্বালাতন তাই না, কি বলো?

আচ্ছা থাক।

বিস্তারিত পড়ুন
go_top