Today 01 Jul 2022
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

আজ বসন্ত

লিখেছেন: আমির ইশতিয়াক | তারিখ: ১৩/০২/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1159বার পড়া হয়েছে।

62933_413390238749374_512395923_n

আজ পহেলা ফাগুন বসন্তের প্রথম দিন।‘ফুল ফুটুক আর নাই ফুটুক, আজ বসন্ত।’ কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়-এর প্রকৃতিকে চ্যালেঞ্জ করা অমিয় বাণীটি ঋতুরাজকে আলিঙ্গনের আহ্বান জানায়। শীতের শেষে প্রকৃতিতে এসেছে মধু বসন্ত। চারদিকে রঙ্গের বিচিত্র সমারোহ। দক্ষিণা বাতাসে মৃদু হিল্লোল মনে জাগায় শিহরণ। গাছে গাছে আমের মুকুলসহ বিভিন্ন ফুল ফুটেছে। বাতাবী লেবুর গাছে ফুল ধরেছে। কোকিল গান গাইছে। নব পল্লবে যেন বাংলার আনাচে কানাচে সবুজের সমারোহ। ফুলে ফুলে অলির গুঞ্জন। সব মিলিয়ে আনন্দময় পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। প্রকৃতি যেন আজ নববধু সাজে সেজেছে। আজ প্রকৃতি সেজেছে অপরূপ সাজে। ছড়িয়েছে নানা রঙ। এই রঙ ছড়িয়ে পড়বে বালার প্রতিটি জনপদে। শীতের বিবর্ণতা কাটিয়ে গাছে গাছে নতুন পাতা জাগতে শুরু করছে। ফুলে ফুলে সেজে ওঠেছে প্রকৃতি। বসন্তের আগমনে প্রকৃতি সেজে ওঠে নতুনরূপে। কৃষ্ণচূড়ার ডালে, কোকিলের কুহু-কুহু রবে, ফাগুন আসছে আগুন সাজে। ফাগুন হাওয়ায় দোল লেগেছে বাংলার প্রকৃতিতে। ফুলে ফুলে রঙিন হয়ে উঠেছে বাংলার সবুজ প্রান্তর। এই ঋতুতে ফুলে ফুলে সাজতে শুরু করে প্রকৃতি। ষড়ঋতুর এই বাংলায় ১৬ কোটি মানুষ ঋতুরাজ বসন্তের বর্ণিল উৎসব পালন করতে অপেক্ষায় থাকে সারা বছর ধরে।

বাঙালির জীবনে নবপ্রাণের ছোঁয়া দিতে এ দিনটির কোন বিকল্প নেই। তাই তো এদিন কপোত-কপোতিরা নববসন্ত রঙে নিজেকে রাঙাতে ব্যাকুল হয়ে ওঠে। পোশাকে ঋতুরাজকে বসন্তকে ফুটিয়ে তুলতে মেয়েরা পরে বাসন্তী শাড়ি। ছেলেরা পড়ে হলুদ পাঞ্জাবি। আজ বর্ণিল সাজে সাজবে কপোত-কপোতি, প্রেমিক-প্রেমিকারা। প্রেমিকার মাথার চুলের খোঁপায় গোঁজা থাকবে পলাশ ফুল অথবা কৃষ্ণচূড়া ফুলের কুঁড়ি। গায়ে হলুদ আর বাসন্তী রঙের শাড়ি জড়িয়ে হাতে হাত রেখে তাঁরা বেড়িয়ে পড়বে অজানা পথে।

প্রকৃতির এমন পাগল করা দিন গুলোয় কবিরা হন মূখর। তারা বসন্তকে বরণ করে লেখেন কবিতা। তেমনি করে কবি বেগম সুফিয়া কামাল লিখেছেন কোন এক বসন্তে ’তাহারেই পড়ে মনে’ কবিতাটি।

            ‘হে কবি, নীরব কেন ফাগুন যে এসেছে ধরায়,

            বসন্তে বরিয়া তুমি ল’বে না কি তব বন্দনায়?’

            কহিল সে স্নিগ্ধ আঁখি তুলি-

            ‘দক্ষিণ দুয়ারে গেছে খুলি?

            বাতাবী নেবুর ফুল ফুটেছে কি? ফুটেছে কি আমের মুকুল?

            দক্ষিণা সমীর তার গন্ধে গন্ধে হয়েছে কি অধীর আকুল?’

            ………………………………………………………..

            ‘হোক,তবু বসন্তের প্রতি কোন এই তব তীব্র বিমুখতা?’

            কহিলাম, ’উপেক্ষায় ঋতুরাজে কেন কবি তুমি ব্যাথা?’

            কহিল সে কাছে সরি আসি-

            ‘কুহেলী উত্তরী তলে মাঘের সন্ন্যসী-

            গিয়াছে চলিয়া ধীরে পুষ্পশূন্য দিগন্তের পথে

            রিক্ত হস্তে! তাহাড়েই পড়ে মনে, ভুলিতে পাড়িনা কোন মতে?’

বসন্ত তারুণ্যেরই ঋতু, তাই সবারই মনে বেজে ওঠে, কবির এ বাণী- ‘বসন্ত ছুঁয়েছে আমাকে। ঘুমন্ত মন তাই জেগেছে, পয়লা ফাল্গুন আনন্দের দিনে’।

‘আহা আজি এ বসন্তে/ কত ফুল ফোটে/ কত বাঁশি বাজে/ কত পাখি গায়…।’ পলাশ ফুটেছে, শিমুল ফুটেছে/ এসেছে দারুণ মাস।’- কবিতা আর গানের ছন্দের মতো করেই বাংলার প্রকৃতিতে এসেছে ঋতুরাজ বসন্ত। সারা বছর ধরে বসন্ত প্রেমিকরা অপেক্ষায় থাকেন কবে আসবে পহেলা ফাল্গুন। বারবার ফিরে আসে ফাল্গুন, আসে বসন্ত।

১,১৯৮ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমির ইশতিয়াক ১৯৮০ সালের ৩১ অক্টোবর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর থানার ধরাভাঙ্গা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা শরীফ হোসেন এবং মা আনোয়ারা বেগম এর বড় সন্তান তিনি। স্ত্রী ইয়াছমিন আমির। এক সন্তান আফরিন সুলতানা আনিকা। তিনি প্রাথমিক শিক্ষা শুরু করেন মায়ের কাছ থেকে। মা-ই তার প্রথম পাঠশালা। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা শুরু করেন মাদ্রাসা থেকে আর শেষ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ে। তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নরসিংদী সরকারি কলেজ থেকে সমাজবিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ছাত্রজীবন থেকেই লেখালেখি শুরু করেন। তিনি লেখালেখির প্রেরণা পেয়েছেন বই পড়ে। তিনি গল্প লিখতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করলেও সাহিত্যের সবগুলো শাখায় তাঁর বিচরণ লক্ষ্য করা যায়। তাঁর বেশ কয়েকটি প্রকাশিত গ্রন্থ রয়েছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য উপন্যাস হলো- এ জীবন শুধু তোমার জন্য ও প্রাণের প্রিয়তমা। তাছাড়া বেশ কিছু সম্মিলিত সংকলনেও তাঁর গল্প ছাপা হয়েছে। তিনি নিয়মিতভাবে বিভিন্ন প্রিন্ট ও অনলাইন পত্রিকায় গল্প, কবিতা, ছড়া ও কলাম লিখে যাচ্ছেন। এছাড়া বিভিন্ন ব্লগে নিজের লেখা শেয়ার করছেন। তিনি লেখালেখি করে বেশ কয়েটি পুরস্কারও পেয়েছেন। তিনি প্রথমে আমির হোসেন নামে লিখতেন। বর্তমানে আমির ইশতিয়াক নামে লিখছেন। বর্তমানে তিনি নরসিংদীতে ব্যবসা করছেন। তাঁর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা একজন সফল লেখক হওয়া।
সর্বমোট পোস্ট: ২৪১ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৪৭০৯ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৬-০৫ ০৭:৪৪:৩৯ মিনিটে
Visit আমির ইশতিয়াক Website.
banner

২ টি মন্তব্য

  1. ছাইফুল হুদা ছিদ্দিকী মন্তব্যে বলেছেন:

    কবি বেগম সুফিয়া কামাল এর বাড়ী আমার গ্রাম চুনতিতে।
    কবি আমাদের গ্রামের বধূ।ধন্যবাদ ভাই আমির হোসেন ঋতুরাজকে বসন্তকে ও কবি সুফিয়া কামালকে নিয়ে অসাধারন এই লেখনীর জন্য।শুভেচ্ছা অবিরত।

  2. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    দারুন দারুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top