Today 01 Dec 2022
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

আমার লিখা লিখি প্রসঙ্গ কিভাবে লেখক হলাম অথবা কেন লিখি আমার লিখা সম্পর্কে অন্যদের মনোভাব বা আমার ভাবনা

লিখেছেন: আরজু মূন জারিন | তারিখ: ৩০/০৯/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1166বার পড়া হয়েছে।

আমার লিখা লিখি প্রসঙ্গ কিভাবে লেখক হলাম অথবা কেন লিখি
আমার লিখা সম্পর্কে অন্যদের মনোভাব বা আমার ভাবনা

আমি একজন নব্য লেখক l সম্প্রতি বলা যায় আমার লিখা লিখি র বয়স আট থেকে নয় মাস বয়স যদি কার ও বই লিখা বা কোনো পাবলিকেশন বা নিউসপেপার এ লিখা যদি লেখক এর পরিচিতি হয় তাহলে নিসন্দেহে আমি কোনো লেখক এর সারিতে এসে দাড়াতে পারবনা আমার কোনো বই এখনো বের করিনি আমার কিছু লিখা ব্লগ আর ম্যাগাজিন এ ছাপানো হচ্ছে যদি ওই দৃষ্টিকোণ থেকে লেখক ভাবা যায় তবে আমাকে লেখক ভাবা যায় যদি কোনো পাবলিশার নিজের উদ্দেগে আমার লিখা প্রকাশ করত তাহলে নিসন্দেহে আমি কৃতজ্ঞবোধ করব এটা আমার মধ্যে এ বোধ কখনো কাজ করবেনা আরে আমার তো বই বের হয়েছে আমি এখন পরিচিত মুখ l

এটা ঠিক আমি অবশ্যই অত্যন্ত সুখী বোধ করি যখন কেউ আমার কোনো লিখা ভালোবেসে প্রশংসা করে এটা পৃথিবীর সব মূল্যবান জিনিস (সব পার্থিব জিনিস ) এর চেয়ে অনেক বেশি মূল্যবান আমার কাছে আমার লিখা দিয়ে সবার হৃদয় ছুতে চাই
চাই আমার মেসেজ সবাই অনেক আবেগ নিয়ে পড়বে সেজন্য আমার সব লিখা আমি পাবলিক মোড এ রেখেছি যাতে সবাই পড়তে পারে ইটস ওপেন ফর অল

আমার আপনজন রা আমাকে বকে “তুমি এত বোকা কেন ” সব লিখা ওপেন করে face book এ দিয়ে রাখছ কেন ? আরেক জন তো তোমার লিখা নিজের নাম এ ছাপিয়ে নিতে পারে
এটার জবাব ও আমি দিতে চাইনা

আসলে লিখা লিখি কাইন্ড অফ মেসেজ শেয়ার এইভাবে চিন্তা করতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করি সেজন্য যখন আপনজন যখন জিজ্ঞাসা করে তোমাকে পে করবে তো ? বা কিরকম তোমার জব না করলে চলবে তো ? খুব এম্বারাস্সিং প্রশ্ন যেন পে না হলে ইনসাল্ট বোধ করার কথা আমি আসলে এটা বুঝিয়ে বলতে পারিনা আপনজনকে লিখি ভালবাসা থেকে ভালোবেসে এর মধ্যে কোনো প্রফেশনাল চিন্তা আসেনা বা লিখা লিখি নিশ্চয় কখনো আমার ক্যারিয়ার হবেনা l

আমি মনে করি wisdom knowledge literacy shouldn’t sell it should use for greater human benefit

আমার লিখা প্রথম কবিতাটি আবার শেয়ার করছি
সবার সাথে অনেক ভালবাসা সহ –

———————————————————————————————————————————————————

বলছ তুমি হয়ে গেছি কবি

বলছ তুমি?
হয়ে গেছি কবি
লিখতে কবিতা।

এও কি সম্ভব ?
ছোট বেলায় যখন পড়তাম নজরুল
পরতাম রবীন্দ্র।
হয়ে যেতাম অভিব্ভূত

ভাবতাম________

কি করে তারা লিখে এসব
আল্লাহ তাদের বানিযেছে
কেন এত অসাধারণ।
আমি বা হলাম কেন
এত ই সাধারণ।

কেন বের হয়না কোনো ছন্দ
আমার মাথা থেকে বোমা মারিলেও।

আজ তো জানি ছন্দ
আসে কথা থেকে কিভাবে ?
মানুষ প্রকৃতি যখন স্থান নেয়
মনে গভীর ভাবে।
কখনো বা ছন্দ আসে
প্রগাড় নিশ্বন্গতায়।

আজ এটা জানি
ছন্দ টা আসে ;তখনি
কাগজের পাতায়
যা হারিয়ে যায়
জীবনের খাতায়।

তবে এও বলি আজ
মাথা ঘামাইনা আর
ছন্দ এলো কি না এলো।
না থাক জীবনে ছন্দ

আছে তা আমার
আছে তা আমার
মনে প্রাণে হৃদয়ে।
আমার লিখায়
চিন্তায় চেতনায়।

এখন থেকে তব
চলা হলো সুরু
ছন্দে ছন্দে

সবার জন্য অনেক ভালবাসা

১,২৩৮ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
নিজের সম্পর্কে কিছু বলতে বললে সবসময় বিব্রত বোধ করি। ঠিক কতটুকু বললে শোভন হবে তা বুঝতে পারিনা । আমার স্বভাব চরিত্র নিয়ে বলা যায়। আমি খুব আশাবাদী একজন মানুষ জীবন, সমাজ পরিবার সম্পর্কে। কখনো হাল ছেড়ে দেইনা। কোনো কাজ শুরু করলে শত বাধা বিঘ্ন আসলেও তা থেকে বিচ্যুত হইনা। ফলাফল পসিটিভ অথবা নেগেটিভ যাই হোক শেষ পর্যন্ত কোন কাজ এ টিকে থাকি। জীবন দর্শন" যতক্ষণ শ্বাস ততক্ষণ আশ " লিখালিখির মূল উদ্দেশ্যে অন্যকে ভাল জীবনের সন্ধান পেতে সাহায্য করা। মানুষ যেন ভাবে তার জীবন সম্পর্কে ,তার কতটুকু করনীয় , সমাজ পরিবারে তার দায়বদ্ধতা নিয়ে। মানুষের মনে তৈরী করতে চাই সচেতনার বোধ ,মূল্যবোধ আধ্যাতিকতার বোধ। লিখালিখি দিয়ে সমাজে বিপ্লব ঘটাতে চাই। আমি লিখি এ যেমন এখন আমার কাছে অবাস্তব ,আপনজনের কাছে ও তাই। দুবছর হলো লিখালিখি করছি। মূলত জব ছেড়ে যখন ঘরে বসতে বাধ্য হলাম তখন সময় কাটানোর উপকরণ হিসাবে লিখালিখি শুরু। তবে আজ লিখালিখি মনের প্রানের আত্মার খোরাকের মত হয়ে গিয়েছে। নিজে ভালবাসি যেমন লিখতে তেমনি অন্যের লিখা পড়ি সমান ভালবাসায়। শিক্ষাগত যোগ্যতা :রসায়নে স্নাতকোত্তর। বাসস্থান :টরন্টো ,কানাডা।
সর্বমোট পোস্ট: ২২৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩৬৮৩ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-০৫ ০১:২০:৩৫ মিনিটে
banner

১২ টি মন্তব্য

  1. মিলন বনিক মন্তব্যে বলেছেন:

    নতুন ধারার একটি পোষ্ট…সেলফ এনালাইজ…খুব ভালো লাগলো….

  2. এ টি এম মোস্তফা কামাল মন্তব্যে বলেছেন:

    ভালো লাগলো আপনার লেখালেখির ইতিকথা।

  3. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনি চালিয়ে যান । আর কেউ ফেসবুক থেকে আপনার লেখা নিলে সেটা ধরা খেয়ে যাবে ।

  4. তাপসকিরণ রায় মন্তব্যে বলেছেন:

    লেখালেখি মনের সন্তুষ্টি ছাড়া আর কিছু নয়–এখানের বাজার বড় ভারি–একচেটিয়া অনেকেই বসে আছেন–আর ঘরে ঘরে এত লেখক কবি,কে কার লেখা পড়ে বলতে পারেন!লেখকরাই আজ পাঠক।পয়সার মুল্য নিয়ে আজ পর্যন্ত কত পারসেন্ট লেখক উৎরেছেন?এক্সেপসেনাল ব্যাপার আলাদা।

  5. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ সবাইকে মতামত এর জন্য

  6. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    লেখতে লেখতে লেখক হওয়া যায়। লিখতে থাকুন অবিরত। আপনি নিজেকে নিজে লেখক ভাবার প্রয়োজন নেই। আপনার পাঠক আপনাকে লেখক হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিবে সবার মাঝে।
    একজন লেখক যথন কিছু লেখে তা প্রকাশ করার জন্যই লেখে। ডায়েরিতে লুকিয়ে রাখার জন্য লেখে না।
    সবার লেখা সবার মাঝে ছড়িয়ে পড়ুক।

  7. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ ভাই।

  8. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর লেখা আপি

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top