Today 14 Aug 2022
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

সংসদ ভবনে মল!

লিখেছেন: আমির ইশতিয়াক | তারিখ: ২৯/০১/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1484বার পড়া হয়েছে।

mol

আমরা জানি জাতীয় সংসদ ভবনকে দেশের সর্বোচ্চ নিরাপদ স্থাপনা হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এ ভবন থেকেই রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য যাবতীয় আইন পাশ হয়। এ ভবন থেকেই রাষ্ট্র পরিচালনার নীতি নির্ধারিত হয়। সংসদীয় কার্যক্রম, মন্ত্রী, চেয়ারপারসন এবং স্ট্যান্ডিং কমিটির অফিস রয়েছে এই ভবনে। কিন্তু গত ২৮ জানুয়ারি মঙ্গলবার জাতীয় সংসদের ভেতরে এক ভিন্ন পরিস্থিতির দেখা মেলে। সেখানে আমরা দেখতে পাই ষষ্ঠ তলার সাংবাদিক লাউঞ্জ থেকে তৃতীয় তলায় অবস্থিত বিরোধীদলীয় নেতার কার্যালয়ের যাওয়ার পথে পঞ্চম তলায় সাংবাদিক গ্যালারি-২-এর সিঁড়িতে কেউ সেখানে মলত্যাগ করে রেখেছেন। সিঁড়ির আরো কিছু স্থানে মানুষের নতুন ও পুরাতন মল দেখা যায়। এ কিসের আলামত। এখানে এমন অসুভ কাজ করতে পারে এমন লোক কিভাবে যায়?

সরকারের উচিত যারা সংসদ ভবনের মতো এমন পবিত্র স্থানে মলত্যাগ করে তাদেরকে খুঁজে বের করে শাস্তি প্রদান করা। যারা সংসদ ভবনের সিকিউরিটির দায়িত্বে আছে তাদেরকে জিজ্ঞাসা করা।

১,৫২৯ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমির ইশতিয়াক ১৯৮০ সালের ৩১ অক্টোবর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর থানার ধরাভাঙ্গা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা শরীফ হোসেন এবং মা আনোয়ারা বেগম এর বড় সন্তান তিনি। স্ত্রী ইয়াছমিন আমির। এক সন্তান আফরিন সুলতানা আনিকা। তিনি প্রাথমিক শিক্ষা শুরু করেন মায়ের কাছ থেকে। মা-ই তার প্রথম পাঠশালা। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা শুরু করেন মাদ্রাসা থেকে আর শেষ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ে। তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নরসিংদী সরকারি কলেজ থেকে সমাজবিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ছাত্রজীবন থেকেই লেখালেখি শুরু করেন। তিনি লেখালেখির প্রেরণা পেয়েছেন বই পড়ে। তিনি গল্প লিখতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করলেও সাহিত্যের সবগুলো শাখায় তাঁর বিচরণ লক্ষ্য করা যায়। তাঁর বেশ কয়েকটি প্রকাশিত গ্রন্থ রয়েছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য উপন্যাস হলো- এ জীবন শুধু তোমার জন্য ও প্রাণের প্রিয়তমা। তাছাড়া বেশ কিছু সম্মিলিত সংকলনেও তাঁর গল্প ছাপা হয়েছে। তিনি নিয়মিতভাবে বিভিন্ন প্রিন্ট ও অনলাইন পত্রিকায় গল্প, কবিতা, ছড়া ও কলাম লিখে যাচ্ছেন। এছাড়া বিভিন্ন ব্লগে নিজের লেখা শেয়ার করছেন। তিনি লেখালেখি করে বেশ কয়েটি পুরস্কারও পেয়েছেন। তিনি প্রথমে আমির হোসেন নামে লিখতেন। বর্তমানে আমির ইশতিয়াক নামে লিখছেন। বর্তমানে তিনি নরসিংদীতে ব্যবসা করছেন। তাঁর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা একজন সফল লেখক হওয়া।
সর্বমোট পোস্ট: ২৪১ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৪৭০৯ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৬-০৫ ০৭:৪৪:৩৯ মিনিটে
Visit আমির ইশতিয়াক Website.
banner

১৫ টি মন্তব্য

  1. আবদুল্লাহ আল নোমান দোলন মন্তব্যে বলেছেন:

    ছি!ছি!

  2. আরজু মূন মন্তব্যে বলেছেন:

    আল্লাহ এ কি অবস্থা।বলার কোন ভাষা খুজে পাচ্ছিনা।আশা করছি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ যথাযথ পদক্ষেপ নিবেন এই ব্যাপারে।ধন্যবাদ আমির ভাই।

  3. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    আজব দেশ! আজব কিছু ঘটবে এটাই স্বাভাবিক।

  4. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    মৌলবাদীরা তো এর আশপাশে নাই
    চেতনা ধারীদের দখলে সব
    কাজটা করলো কে তবে?

    • আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

      কার এত বোকের পাটা আছে সংসদ ভবনে গিয়ে মলত্যাগ করবে? এটা নিশ্চয় জামায়াত শিবির ছাড়া কেউ করে নাই। কারণ দেশে যা ‍কিছুই ঘটুক দোষটা কিন্তু জামায়াত শিবিরের উপরই পড়ে। এ ধারণাটা কতজন লোকের জানি না। ধন্যবাদ কাশেম ভাই।

  5. শওকত আলী বেনু মন্তব্যে বলেছেন:

    এ লজ্জা আমাদের সকলের।এটা কোনো নরমাল একটিভিটি নয়।অশুভ সংকেত।সরকারের উচিত তদন্ত করে দেখা।

  6. এস এম আব্দুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    এমন গড়হিত কাজ যে করেছে তার শাস্তি হওয়া উচিৎ । শুভ কামনা ।

    • আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

      দেশে যা কিছুই ঘটুক সরকার সব সময় বিরোধীদলের উপরই দোষ চাপায় কিন্তু এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে মুখ খুলছে না কেন? ধন্যবাদ এস এম আব্দুর রহমান সাহেব।

  7. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    ছি ছি
    এই পরিস্থিতি নেতাদের চোখে পড়ে না কেন আজিব

  8. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সরকার গঠন করায় আনন্দে আত্মহারা হয়ে নেতারা এখন চোখে সরশের তেল দিয়ে ঘুমাচ্ছে। তাই তাদের চোখে এ দৃশ্য চোখে পড়ে না। ধন্যবাদ এই মেঘ এই রোদ্দুর।

  9. জসীম উদ্দীন মুহম্মদ মন্তব্যে বলেছেন:

    যারাই এই কাজ করে থাকুক তাদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবী করছি —- ।

  10. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ ভাই আমরাও চাই এ শাস্তি হো্ক।

  11. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    ভালো লাগলো কবি

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top