Today 15 May 2021
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

পরানের ১০০ লিমেরিক

লিখেছেন: সোহেল আহমেদ পরান | তারিখ: ২৬/০৬/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 945বার পড়া হয়েছে।

প্রারম্ভিকাঃ  

লিমেরিক(limerick) ইংরেজি শব্দ। শব্দটি ইংরেজি ভাষা থেকে বাংলায় গৃহীত হয়েছে। লিমেরিক পদ্যের এক বিশেষ ধরনের রচনা শৈলী। সাধারণত ৫ টি চরণে হয়। মিলের বিন্যাস : ক ক খ খ ক। ৩য় ও ৪র্থ পঙ্‌ক্তি অন্যগুলোর চেয়ে মাপে ছোট হয়। 

A limerick is a five-line witty poem with a distinctive rhythm. The first, second and fifth lines, the longer lines, rhyme. The third and fourth shorter lines rhyme. (AABBA) 

This five line poem also follows a syllable count. 
Line 1: 7-10 syllables 
Line 2: 7-10 syllables 
Line 3: 5-7 syllables 
Line 4: 5-7 syllables 
Line 5: 7-10 syllables 

লিমেরিকের সংজ্ঞা নিয়ে আমার একটি লিমেরিক আছেঃ 

পাঁচ লাইনে ভাবের বিন্যাস, নিয়মটা মেনে ঠিক
প্রথম, দ্বিতীয় ও পঞ্চম ছন্দমিলে হয় আন্তরিক
তৃতীয় চতুর্থ লাইন দুটো
ছন্দে হয় কিঞ্চিৎ ছোট
একটা ভাবের দীপ্ত প্রকাশ, এইতো লিমেরিক।

লিমেরিক কে অনেকেই হাল্কা ফর্ম মনে করেন। আমার কাছে মনে হয়, লিমেরিক হতে পারে সাহিত্যের শক্তিশালী মাধ্যম। সময় ও সমাজকে লিমেরিকে প্রকাশ করা আমার লক্ষ্য। 

বিনীতভাবে বলতে চাই, আমার সবসময় নিয়মের সবটুকু মেনে লিমেরিক লেখা হয় না। মাত্রা নিয়ে মাঝেসাঝেই সমস্যা থাকে। আমি সময়কে পোট্রে করতে চাই। আমার মতে লিমেরিকে wit থাকে হবে; থাকতে হবে হিউমারও 

লিমেরিকগুলো প্রকাশের ক্রমানুসারে এখানে সাজানো হয়েছে। লক্ষ্য করলে সহজে অনুমেয় যে, বেশির ভাগ লিমেরিকই কন্টেম্পরারি সময় ও সামাজিক প্রেক্ষাপটকে তুলে ধরতে সচেষ্ট । আমি এসব লিখেছি, কাজের ফাঁকে (বেশির ভাগ)। একটা আইডিয়া এলো। ঝটপট কলম টেনে লিখে ফেলা আর কি। আবার ঘুম না আসা অনেক সময়কেও এ কাজে লাগানো হয়েছে। 

লিমেরিকে নাম দেয়া আর না দেয়া দুটিরই প্রচলন আছে। আমি প্রথমটির পক্ষে। আমার সব লিমেরিকের নাম আছে। আর নামকরণটা আমি সার্থক করতে চেয়েছি পাঁচ লাইনের প্যাঁচে। খুব সহজ কাজ নয়। আমি প্রতিক্ষেত্রে একটা ম্যাসেজ দেয়ার চেষ্টা করেছি। আমি জানি, সফল হয়তো আমি হইনি। কিন্তু মনের শান্তি বলেতো একখান কথা আছে, না? 

০০১ # সহজ মানুষ 

অহংকারে পতন আনে – এটা অনিবার্য
মিথ্যেবাদীর ধ্বংস হবে – তাও নাকি ধার্য!
আজ অহংকারী ক্ষ্যাপাটে
আজ মিথ্যেবাদীও দাপটে
মানুষ, যারা সহজ মানুষ, তারা আজ অকার্য।

০০২ # আনস্মার্ট স্মার্টফোন 

স্মার্টফোন আনস্মার্ট বড়ো চার্জে
প্রয়োজনে চার্জ থাকে না তার যে
অতোশতো এপ্স
পাওয়ার করে ল্যাপ্স
আচম্বিতে লো ব্যাটারি ভালো লাগে কার যে।।

০০৩ # হারিয়ে যাওয়া বিমান 

কোথায় গেলো, মিলিয়ে গেলো হারিয়ে যাওয়া বিমান
তন্ন তন্ন, হন্যহন্য পুরো গ্লোবের টেকনোলজি ধীমান।
পিপড়েও ধরা স্যাটেলাইটে
জিপিএসে রুট রয় টাইটে
সবার উপর আছে শক্তি, আহা তাঁর যে কী মান!!!

০০৪ # নেপালের কপাল 

টাইগারের সাথে লাগতে এসে নেপাল
বল হারিয়ে, কুল হারিয়ে বড্ড বেহাল।
বুঝেছে টাইগারের কি মানে
আর দুনিয়া আগেই তা জানে
টি২০তে নেপাল! হায় পুড়লো যে কপাল!!

০০৫ # উল্টো চাকা 

আম-জনতা এবং নেতা যখন একই সুরে
বাংলাদেশের উন্নতিটা নয়তো মোটেই দূরে।
নেতা মাহাথিরের বাণী
তা সত্য বলেই মানি
দুঃখ, বাংলার এসব কিছুই উলটো চাকায় ঘুরে।।

০০৬ # চিঠি 

চিঠি তুমি হারিয়ে গেছো; তোমার জন্য মায়া
ফেসবুক, টুইটার, ইমেইল -এখন তোমার ছায়া
এ কী মডার্ন ফ্রিক
আমি নস্টালজিক
স্বপ্নে আমি আজও দেখি তোমার প্রেম্নিল কায়া।।

০০৭ # সিভিক সেবা 

দফায় দফায় নানান ছুতোয় বাড়ছে বিদ্যুৎ-দাম
খরচা গুণতে সাধারণের ঝরছে গায়ের ঘাম।
গ্যাসের দামও চড়ার পথে
দ্রব্যমূল্য এ কোন রথে !!
জীবন যাপন নাভিশ্বাসে; সিভিক সেবা এর নাম।

০০৮ # কথার কথা 

“অভাবে স্বভাব নস্ট” সকল জনের জানা
এ সূত্রমতে ধনবানের “মন্দ” হতে মানা ।
বাস্তবতা যদি ধরি
ধনীই করে পুকুর চুরি
প্রবাদ তবে “কথার কথা”! সত্য-ঘরে হানা !!

০০৯ # ভালো মানুষের সংজ্ঞা 

ভালো মানুষের সংজ্ঞাটা আজ বড্ড সোজা
সমাজ তাদের বলে বোকা; ভাবে তাদের বোঝা।
চাতুর্য আর ধূর্ততারই জয়
সহজ-ভালো মুখ থুবড়ে রয়
মানুষ শোধন করতে বলো কোথায় পাবো উঝা??

০১০ # জগন্নাথের হল 

জগন্নাথের হল, হয়ে বেদখল অনেকদিন
ছাত্ররা বঞ্চিত, কস্টে কাটে কাল সীমানাহীন,
হটিয়ে দখলবাজ
হল উদ্ধারে আজ
চলবে সংগ্রাম, শপথ এ ক্ষনের হবে না লীন।।

০১১ # আহা শৈশব 

আহা শৈশব; সুখময় দূরন্ত দামাল শৈশব
ছিলো যারা খেলার সাথি, তারা কই সব!
কী মধুময় সেই ক্ষণ
ভুলতে কি পারে মন?
বড়োবেলায় কে কোথায় খবর তো নেই সব।।

০১২ # মনন 

চোখ বুজলেই দেখি যাকে, ভুলতে বলো তাকে(!)
প্রাণের স্পন্দন না নিয়েই টানো খাঁচাটাকে।।
যে আছে এ হৃদে
ভুলা তাকে সিধে!!
শরীর তাকে রাখুক দূরে, মনন তাকে ডাকে।।

০১৩ # ভোক্তা অধিকহার 

ভোক্তাদেরও আছে নাকি অনেক অধিকার
ভোক্তা দিবস এলে সবে হয়ে পড়ে সোচ্চার্।
হয় সভা র‍্যালি ম্যালা
টকশোয়ে জ্ঞ্যান গেলা
বছর জুড়ে ভোক্তার থাকে মূল্যে অধিকহার্।।

০১৪ # বন্ধু 

ভালোবাসা মন্দবাসা বুঝি না
বন্ধু ছাড়া আমি কিছু খুঁজি না।
বন্ধু মানে প্রাণ অফুরান
বন্ধু মানে এক কন্ঠে গান
বন্ধুতে ডুব সাঁতার; বন্ধু ছাড়া মজি না।।

০১৫ # পতাকা শপথ 

আহা পতাকা, প্রাণের পতাকা ভালোবাসি বড়ো !
কোথাও কি পাবে শোভিত পতাকা এমন তরো?
দেশ মাতৃকা সবুজে আকা
লাল সূর্য মেলে শৌর্য পাখা
শপথ ! এক হয়ে আজ পতাকা তলে দেশটা গড়ো।
(পতাকা দিবস উপলক্ষ্যে লেখা)

০১৬ # স্বাধীনতায় মৈত্রী 

স্বাধীনতা মানে কি আজ স্বাধীনভাবে মিথ্যের কালচার!!
দেশ চেতনা ঠুকরে খাচ্ছে ঘুণপোকা আর ভালচার।।
এসো নূতন শপথ করি
দেশটা স্বপ্ন-সম গড়ি
মৈত্রী হোক কাম্য সবার; সারিয়ে ক্যান্সার, আলসার।। 

০১৭ # টক শো 

মাঝরাতে কথকতা টকশোয়ের চাঙ্কে
কেউ শুনে বসে বসে, কেউ শুয়ে বাঙ্কে
কতোশতো কথা
নানান বারতা
শেষমেশ সার-অসার চলে যায় জাঙ্কে।।

০১৮ # বেগ ও আবেগ 

‘বেগ’ পেয়েছে জীবন অনেক, চলার পথে তার,
হারিয়ে ‘আবেগ’ যন্ত্র-সম, সময় পারাপার ।
অনুভুতি ভোঁতা ভীষণ
নাড়াচাড়ায় ভিশন-মিশন
স্বপ্নরা সব লোহিত বরণ, ধারে কারো ধার। 

০১৯ # সত্য-মিথ্যা 

সত্য মিথ্যার কি যে খেলা চলে !
দায়তো বুঝা কে যে সত্য বলে ।
মিথ্যে বলেই যেনো তৃপ্তি
মিথ্যেবাদীর মুখেই দীপ্তি
সত্য মিথ্যার যাচাই তবে কলে??
(বিঃদ্রঃ কল=মেশিন)

০২০ # ভুলে যেও না 

ভালো নয় ভুলে যাওয়া, ভুলে যেও না
দূরে থেকেও মনে রেখো, ব্যথা দিও না।
নাইবা হলো দেখা রোজ
ভাববো তুমি রাখো খোঁজ
ভাবি না কখনো আমি, তুমি প্রিয় না।।

০২১ # চেতনা 

চেতনা কি ধরে গাছে; যায় কেনা বাজারে(!)
পাকে কি তা কোচিংএ; সিদ্ধিলাভ মাজারে (!)
চেতনা হৃদয়ের পাখা মেলা
অনুভূতির রন্ধ্রে করা খেলা
চেতনা দেবে একই দোলা প্রজারে; রাজারে।।

০২২ # টোকাই মানুষ 

সৃষ্টির সেরা মানুষ জানি; তুলনা কিছু নেই তার
ডাস্টবিনে কুকুরের সাথে খুঁজে ফেরে সে আধার?
সবকিছুরই বাড়ে মূল্য নিত্য
সূত্রমতে টোকাইটি তো জিততো
টোকাই-মানুষের মূল্য বাড়ে না; ভাগ্য ফেরে না আর।

০২৩ # ঢাকাই মশা 

রাত নেই, দিন নেই; মশার একি উৎপাত ঢাকায়
স্বস্থির ফুরসৎ নেই যেনো, ঘরবাড়ি কিংবা ফাঁকায়।
ডিসিসি’র নেই মাথাব্যথা
উৎপাত সয়ে যাওয়াই যথা
ঢাকাই মশা হেসে পিছে পিট পিট করে তাকায়।।

০২৪ # টি২০ গড়বড়ে 

টাইগারদের টি২০ হয়ে গেলো গড়বড়ে
গোছাতে পারেনি ঘর মনের মতো করে।
এতো ভালোবাসা, ক্রাউড
হতে চেয়েছিলো প্রাঊড
ভাবতে হবে নূতন করে, কাটাতে ভাব নড়বড়ে।।

০২৫ # মামা কালচার 

হাই মামা, হ্যালো মামা; জটিল, জোস মামা চলছে
অবলীলায় বন্ধুরা মামা মামা করে কথা বলছে
মায়ের ভাইকে মামা জানি
বন্ধুর মা কি তবে নানি (?)
মডার্ন মামা কালচার কি বাংলার সংস্কৃতি দলছে (?)।

০২৬ # প্রাইভেট ভার্সিটি 

চলছে ক্যামন প্রাইভেট ভার্সিটিজ দেশে
প্রশ্নটা থাকছেই শিক্ষার মান নিয়ে শেষে
সনদ নাকি বিকোয় টাকায়
শিক্ষা শুধুই বুলি ফাঁকায়
ক্যাম্পাসগুলোও দাঁড়িয়ে বাণিজ্যিক বেশে।।

০২৭ # তেলবাজের গল্প 

তেলবাজরা ভালো ছিলো; আছে এবং থাকবে
পাশাপাশি নিরীহদের অশান্তিতে রাখবে
তেলের জুড়ি মেলা ভার
তেলবাজের জয়জয়কার
তেলে চলে; তেলে গলে; তেলে আশা পাকবে।।

০২৮ # অটিস্টিকদের জন্য 

অটিস্টিকরা পর নয়তো কেউ, আমাদেরই স্বজন
তবুও আমরা তাদের জন্যে সহানুভূতিশীল ক’জন!
অটিজমকে শক্তিতে রূপ দিতে
কাছে টেনে তাদের হবে নিতে
প্রাণশক্তি পাক ফিরে ফিরে, হই অটিস্টিকের সুজন।

০২৯ # আসল ভেজাল 

খাদ্যে ভেজাল; ভেজাল খেয়ে অসুখে ভোগা
ঔষধে ভেজাল; নস্ট চিকিৎসায় আরো রোগা
রক্তেও নাকি দিচ্ছে ভেজাল (!)
আমার দেশের হলো কী হাল!!
আসল ভেজাল চিন্তায় জেনো;আল্লাহ সুমতি যোগা।

০৩০ # সাগর-রুনি 

সাগর-রুনিকে হারিয়েছি- বছর দুই তো শেষ (!)
খুনি ধরার মেলেছে আশ্বাস; নেই অগ্রগতির লেশ।
মেঘ-এর চাপা কান্না
কেউ শুনতে পান না
কবে হবে বিচার তবে; ঘোচাবে কলঙ্ক এ দেশ!!

০৩১ # বালুচর-এর ব্লগগীতি 

বালুচর ভাইয়ের ব্লগগীতিটা বন্ধন বড়ো প্রীতির 
এসবই একদিন স্বাক্ষি হবে সুখময় সব স্মৃতির।
বাঁধলেন তিনি গাঁটছড়া
একই বৃন্তে বাঁধা পড়া
ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা জানাই অপূর্ব সেই গীতির।।

০৩২ # অভিসার 

এক চিলতে পতিত সময় তুমি দেবে আমায় ধার?
বলতে তোমায় কিছু কথা হৃদয়-জুড়ে হাহাকার।
দেখে তোমায় উতলা মন
সঙ্গ তোমার হীরন্ময় ক্ষণ
ভালোবাসার দোলায় আজ তোমার-আমার অভিসার।।

০৩৩ # ভালোবাসি তবুও 

মুখে মধুর কথা তোমার, অন্তরেতে বিষ
তোমার এমন ভালোবাসায় হারিয়েছি দিশ
ভালোবাসা ঢালো সাক্ষাতে
ঘৃনা বুনো আড়ালে সেইপাতে
ভালোবাসি তোমায় তবু; করি অনেক মিস।।

০৩৪ # অভিমান 

অভিমান করি; কভু অভিনয় তো করি না
ভালোবাসায় মরি; ভালোবাসা ছাড়া নড়ি না
অভিমানটা বুঝার দায়
তোমার-আমার সমান যায়
হৃদয়ে হৃদয় মেলি; হৃদয়হীনায় আমি স্মরি না।

০৩৫ # সত্যে হৃদয় জাগে 

ঢাকতে তোমার একটি মিথ্যে দশটি মিথ্যে লাগে
তারপরেও সত্যের সুখ জুটবে না তো ভাগে
সত্য দেয় না ধোঁকা
চালাক কিবা বোকা
সত্য বলো, সত্যে চলো; জেনো সত্যেই হৃদয় জাগে।

০৩৬ # অহঙ্কার 

অহঙ্কারে সবসময় আনে নাকি পতন !!
অহঙ্কারীর ঘরেই তবু জমা কেনো রতন ?
দম্ভভরে চলে সে
তির্যক হাসি সে হাসে
অহঙ্কারকেই করবো লালন করে তবে যতন ??

০৩৭ # তোমার হাসি 

যখন হাসো, তখন তোমার বাঁকা হাসির চাঁদ
দোলায় আমায়, ভাসায় আমায় মানে নাতো বাঁধ
তোমার হাসি ভালোবেসে
জানি রবো বেঁচে শেষে
হাসিই তোমার দেখে যাবো, এটাই আমার সাধ।।

০৩৮ # প্রাইভেট জব 

গাছ লাগিয়ে এক ধরন;ফল চাই যে সব
মাল্টিটাস্কিং-এর নামে এইতো প্রাইভেট জব
রাইটস আর নট শিউরড
প্রিভিলিজেস আর লিউরড
ফিটফাট লেবাসে সব; মনে শূন্য অনুভব।।

০৩৯ # প্রশ্ন ফাঁস 

পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্ন নিয়ে উঠছে নানান কথা,
পূর্বরাতে এসএমএস ফেসবুকে প্রশ্ন মেলে যথাতথা!!
এ ক্যামন তরো ফাঁস !!
জাতির আগাম সর্বনাশ।
জিপিএ রেকর্ড লক্ষ্য শুধু(!), নেই আর কোনো মাথাব্যথা!!

০৪০ # প্রশ্ন ফাঁসের প্রশ্ন 

প্রশ্ন ফাঁস-এর কোনো প্রশ্নই উঠে না
এ সংক্রান্ত অভিযোগ সত্য মোটে না
শুধু সেলফোন কিবা নেটে
প্রশ্ন বেড়ায় হেটে…..
শিক্ষার সত্যি মানটাই শুধু ভাগ্যে জোটে না।

০৪১ # হালখাতা 

পুরনো হিসেবটা আপডেটেড করে নিতে হালখাতা
মিস্টি দিয়ে মৈত্রীর বন্ধন; নয় কোনো ঝালকথা।
বাংলার ঐতিহ্যটা প্রীতির
বাণিজ্যে বসতিটা নীতির
হালখাতায় সম্প্রীতি ছড়াক; মেলে দিয়ে ডালপাতা।।

০৪২ # আজ নববর্ষ 

নয় বিষাদ, ক্লেদ বা দুঃখ; থাকুক প্রাণে-মনে হর্ষ,
বৈশাখের প্রথম দিন আজ; আজ শুভ নববর্ষ।
পুরাতন, জরা সব নাশে,
নবরূপে বৈশাখ আসে
সবার জীবনে সুখ অনাবিল, আনে শতরূপে উৎকর্ষ।


০৪৩ # বাঙালিপনা
 

নববর্ষে পান্তা, ইলিশ, সানকি থাকবেই, না?
এসব ছাড়া বাঙালিপনা আর জাগবেই না!!
হয়ে একদিনের এক বাঙালি
লাল সাদায় নিজেরে রাঙালি
অন্তরে প্রেম হলে, মেকি কিছু আর লাগবেই না।।
##প্রথম প্রহর…০১ বৈশাখ ১৪২১##

০৪৪ # শোক 

সেন্ট মারটিনে হারিয়ে গেলো প্রিয় মেধাবী মুখ
নিদয় স্রোতে ভাসিয়ে নিলো; শূন্য মায়ের বুক
দেশ হারালো দেশের রতন
অসময়ে তারার পতন
ভাষা নেই কোনো তাদের তরে জানাবো যে শোক।।

পাদটীকাঃ সেন্ট মারটিনে আহসানউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের করুণ মৃত্যুতে কস্ট পেয়ে লেখা। তাদের আত্মার শান্তি কামনা…

০৪৫ # আমার রাজকন্যে 

প্রজ্ঞামনি ছোট্ট পাখি; আমার সে রাজকন্যে
চোখের আড়াল হলে সে যে, যাই হয়ে যাই হন্যে।
নেওটা সে যে বাপের
দৌড় ও লাফ-ঝাপের
ভালোবাসার আধার, আমার উজাড় তারই জন্যে।।

০৪৬ # ‘নেটওয়ার্কের বাইরে ‘ 

‘চলে যাচ্ছি দোস্ত! নেটওয়ার্কের বাইরে!! ‘ এ স্ট্যাটাসটা পড়ে
কস্টে হৃদয় বিবর্ণ হলো সাব্বির, চোখের জল রাখা দায় ধরে
এমন করুণ তোমার বিদায় !!
পারিনা মানতে, কে নেবে দায়?
ছাত্রদের এ হারিয়ে যাওয়ায় উজ্জ্বল তারারা পড়লো ঝরে ।…

০৪৭ # গুম 

যখন তখন, যথায় তথায় দেশে মানুষ হচ্ছে গুমের শিকার
টিভি চ্যানেল পায় যে নিউজ; পত্রিকা যায় লিখে যা লিখার।
স্বজন পায় না বিচার কিংবা খোঁজ
চোখের পানিই যেনো সঙ্গী রোজ
হারাতে হবে এভাবেই কি সাধারণের মৌলিক অধিকার !!

০৪৮ # ভালোবাসায় দূরত্ব 

যখন আমি অনেক দূরে, দূরত্ব কি পারে
দিতে আড়াল, কিংবা ভালোবাসা ছাড়ে?
দুরত্ব বড়ো তো নয় জেনো
ইথার যে তা বহন করে মেনো
ভালোবাসা ভালোবাসারই ধার ধারে।।

০৪৯ # এক ফোঁটা জল 

গ্রীস্মের তপ্তদাহ; রৌদ্র ফুটায় হুল
গরমে হা-পিত্যেস; চলনে গণ্ডগোল
বৃষ্টির এক ফোঁটা ছোঁয়া
আহা যেতো যদি পাওয়া!
খুঁজে ফেরে এক ফোঁটা জল, তৃষিত পক্ষিকুল।।

০৫০ # লাগে কিঞ্চিৎ চক্ষে 

না হয় তিনি হাকান দামি গাড়ি, বসেন এসি কক্ষে
তবু এ গরমে স্যুটেড-বুটেড দেখে লাগে কিঞ্চিৎ চক্ষে
গরম যে তার হুল ফুটিয়ে যায়
গ্রীস্মের তাপে এবং লু হাওয়ায়
একটু প্রশান্তি সবার তরে ; কাজ হোক সেই লক্ষ্যে। 

০৫১ # “যারে যাবি যদি যা”

পিঞ্জর খুলে পাখি আজ তার আকাশে গেছে যে উড়ে
পোষ মানেনি পাখিটি আহা, খাঁচা ফেলেছে ছুঁড়ে
যা কিছু বলার হয়েছে কি সব বলা
চলার পথের সব কি হয়েছে চলা?
রবে কিংবদন্তি বশীর আহমেদ বাঙালি হৃদয় জুড়ে।।

০৫২ # সোনার খনি 

বিমানবন্দর যাচ্ছে হয়ে সোনার খনি
নিত্য নতুন ছকে আসছে সোনা-মনি
চোরাচালানের এ চক্র
নয় সোজা; খুব বক্র
ঘুচবে কবে এ অসাধুতা (?), কাটবে শনি।

০৫৩ # তাপদাহ 

সূর্য উগড়ে দিচ্ছে তার সব তেজ
স্বস্থির নিশ্বাস পালায় গুটিয়ে লেজ
বিদ্যুৎ বাবু আসে যায় যায়
শান্তির ছোঁয়া পাওয়া বড়ো দায়
আহা বৃষ্টি করো না তাপদাহে চেজ।

০৫৪ # স্মৃতিতে রানাপ্লাজার ঘটনা 

রানা প্লাজার সকরুণ ঘটনার রেশ
হৃদয়ে খুদিত, হয়নিকো তা শেষ
হাজারো প্রাণের আহাজারি
ভুলতে কি তা আমি পারি!!
কর্তব্যটা করে দায়মূক্ত হোক দেশ।

০৫৫ # ইয়াবার জাল 

ইয়াবার জাল পড়ছে ছড়িয়ে নতুন করে দেশজুড়ে
দেশের প্রাণ যুব-সমাজ যাচ্ছে জড়িয়ে নেশার তোড়ে
তারুণ্যের এই নেশাসক্তি
হবেই রুখতে দিয়ে শক্তি
বিনাশ হবে অশুভ এ জাল; দৃষ্টি শুধু সোনালি ভোরে।

০৫৬ # তিস্তার পানি
ধু ধু করে তিস্তার বুক; পানি নাই
পানির হিস্যা পাবো; জানি তাই
থাকে শুধু আশ্বাস
কতোক্ষণ আর বিশ্বাস
দিনের শেষে থাকে কেবল গ্লানিটাই।

০৫৭ # জ্যাম 

চরম এ গরমে পাবলিক বাসে জ্যামে পড়ে
হাঁসফাঁস করে যাই, প্রাণ রাখা দায় ধড়ে
চলে নাতো আর চাকা
আহা স্বপ্নের ঢাকা !!
ঝিম মেরে থাকি ঠায়, অনুভূতি ভোঁতা করে। 

০৫৮ # মৃত্যুশয্যায় বুড়িগঙ্গা 

মৃত্যুশয্যায় বুড়িগঙ্গার করুণ কান্না
“কতো আর সইবো জ্বালা; আর না”
দূষণের মাত্রা তবু বাড়ে
গেলো না বাঁচানো বুঝি তারে
আইন, পরিবেশবাদী শুনতে কি পান না!!

০৫৯ # শ্রমিকের তরে 

শ্রমিকের ঘাম ও রক্তে উর্বর শিল্প আজ
বিশ্ব দরবারে নেয় করে স্থান, পায় তাজ
স্বার্থবাদীদের নানান খেলায়
শ্রমিকের ভাগ্যই থাকে হেলায়
নেই সময় কারো শ্রমিকের তরে করবে যে কাজ।

০৬০ # মূল্যবোধ আজ 

মূল্যবোধ আজ বোধশক্তিহীন; মূল্যও নেই যে তার
দয়া, মায়া, ভালোবাসা, হৃদ্য-মনন সব ঠেকে অসার
স্বার্থসিদ্ধ্বি আজকে শুধু লক্ষ্য
ন্যায় অন্যায় নয়তো মোটে মোক্ষ
মানবিকতা শৃঙ্খলিত; বড়ো অস্থির সময় পারাপার।।

০৬১ # কালো টাকা 

টাকা কি করে হয় কালো জানেন কি? 
গায়ের রঙে টাকার মান নয় মানেন কি?
আসল কালো মানব মন
অবৈধতায় জমায় যে জন
চোখে লজ্জার পর্দাটা টানেন কি?

০৬২ # মাকে নিয়ে 

ফ্রেমে বন্দি একটি দিনে মাকে ভালোবাসা
তা নয় জেনো, মা যে আমার নিত্য কাঁদাহাসা
মা যে অনেক দূরে
সুদূর অচিনপুরে
অনুক্ষণ তাও মাকে যে পাই, মা-ই সকল আশা।

০৬৩ # কালো টাকা সাদাকরণ 

কালো টাকা হয় সাদা কি কোনো যন্ত্রে?
সম্ভব কি তা ঝাড়ফুঁক কিংবা মন্ত্রে?
শোধন চলুক বোধে
তাতেই কালো রোধে
হয় না সাদা ইজম কিংবা তন্ত্রে ।

০৬৪ # সেবা বাণিজ্য 

চিকিত্সা আজ সেবা নাকি চিকিত্সা আজ বাণিজ্য?
এ প্রশ্নটা করা বুঝি নয় এখন আর অন্যায্য।
ভুক্তভোগী জানে কী যে জ্বালা
চিকিত্সক এর হৃদয়ে কি তালা?
মমতা, মায়া, সেবার ব্রত আজ সবই কি তা ত্যাজ্য?

০৬৫ # মোবাইল কানে

মোবাইল কানে পথচলায় বিপদ বড়ো
তবু কেনো সতর্কতায় হেলা করো?
সময় নাকি জীবন
বলে তোমার কী মন?
সচেতন হও, নিরাপদে জীবন গড়ো।

০৬৬ # ঢাকার জীবন

বিদ্যুৎ মিয়া ‘যাই যাই’ করে
গ্যাস থাকে না রান্নার ঘরে
ওয়াসার পানি
দূষিত তা জানি
এইতো জীবন, ঢাকাবাসীর তরে।

০৬৭ # ডাক্তারগণ 

ডাক্তারগণ সব মফস্বলে থাকেন না
গরিব আর্তের খবর তারা রাখেন না
সবার লক্ষ্য ঢাকা
চলে তদবির-চাকা
সেবা ব্রতের মন্ত্র গায়ে মাখেন না।।

০৬৮ # লাশের খোঁজ

লঞ্চ-ডুবিটা আমার দেশে কমন বড়ো
হারাচ্ছে প্রাণ আচমকাতে খেয়াল করো
সংখ্যাটা ঠিক কতো
ফাইল হিসেবে যতো?
স্বজন পায় না লাশের খোঁজও, কেমনতরো!!

০৬৯ # ফেসবুক ট্রেন্ড

ক্লাস বুক নয়, এখন তারা ডুবে থাকে ফেসবুকে 
স্ট্যাটাস, কমেন্ট, ব্রাউজ, চ্যাটে মাতে তারা নিউলুকে
এ এক কঠিন নেশার ট্রেন্ড
কে ফেক, কে যে আসল ফ্রেন্ড!
ভালোটা থাক, মন্দ দেখে হৃদয় যেনো কেস ঠুকে।

০৭০ # আহা ক্রেস্ট

মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা ক্রেস্টেও নাকি ভেজাল(!)
বিশ্বব্যাপি বাংলা মায়ের সম্মানের আজ কী হাল?
সোনায় ওজন কম দিয়ে
রূপাটাকেও সরিয়ে
কতো আর সইবে স্বদেশ, বিনাশ কখন এ জাল?

০৭১ # ভুলতে তোমারে দাওনি 

দূরে আছো প্রাণের কবি, ভুলতে তোমারে দাওনি
প্রেম শিখিয়েছো সাথে বিদ্রোহ গানে তাল লাউনি
রিক্তের বেদন জেনেছি কি তা
অগ্নিবীণার রণ-কবিতা
এমন কোনো সুর নেই কবি, যে সুরে তুমি গাওনি।

০৭২ # রাজনীতি ও রক্ত 

রাজনীতি আর রক্ত কি এক সুতোয় গাঁথা (?)
অমূল্য সব জীবন কেনো ঝরছে যথাতথা (?)
অহিংসা আজ কই(?)
তার প্রতীক্ষায় রই।
বিজ্ঞ সুজন এ বিষয়ে ঘামান একটু মাথা।
(পাদটীকাঃ শ্রদ্ধেয় সৈয়দ আবুল মকসুদ এর সহজিয়া কড়চা থেকে ভাব গৃহীত।

০৭৩ # তোমার কান্না 

বৃষ্টি কি আজ তোমার চোখের কান্না?
না, না চাই না, তাহোক হীরে কিবা পান্না।
দুষ্টু তোমার চোখের ভাষায়
উতল আমি ভালোবাসায়
হাসবে তুমি, নাচবে হৃদয়; কান্না তবে আর না।

০৭৪ # চোরের মা’র বড়ো গলা 

চোরের মায়ের বড়ো গলা, স্বরটাও ভারি উচ্চ,
সাজিয়ে তিনি মিথ্যে বলেন, মিষ্টি গুচ্ছ গুচ্ছ।
কেউ নয় তার তূল্য
তার কথারই মূল্য
অবলীলায় সত্য মাড়ান, করেন সবি তুচ্ছ। 

০৭৫ # একটু আড়াল 

একটু না হয় ছিলেম আমি আড়ালে
তাইতে তুমি পিঠ ঘুরিয়ে দাঁড়ালে ?
ভালোবাসার মূল্য
প্রশ্নে তবে ঝুললো
ভেবেছো কি আমায় তুমি হারালে?

০৭৬ # পরচর্চা 

নিজের দোষটা নিজে দেখো না কেউ সহজে
অন্যের এক বিন্দু ভুলে এক প্রস্থ লহ যে
নেই বিবেকের জবাব
আত্ম-প্রশ্নের অভাব
পরচর্চাই মূখ্য বনে, “না বোধক”টাই কহ যে।


০৭৭ # কোচিং বাণিজ্য
 

কোচিং সেন্টারের বাণিজ্যটা চলছে রমরমা
ছাত্রছাত্রীর পদভারে কোচিংপাড়া গমগমা।
নীতিমালার ধার
কেউ ধারে আর
জিম্মি ছাত্ররা সব; লাভের পয়সা ঝমঝমা। 

০৭৮ # আজকের পণ

ধূমপানে ক্ষতি অনেক, ধূমপান আর করবো না
সুখের টান দিতে কভু সিগ্রেটের বাট ধরবো না
পান জর্দাও দিলাম বাদ
এসব কিছুই মরণ ফাঁদ
তামাকে বাহাদুরি নেই, রোগের প্রাসাদ গড়বো না।
পাদটীকাঃ আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস 

০৭৯ # বিরহকাল 

তোমার হৃদয়পুরে ছিলো আমার ছোট্ট ঘর
রোজ বিকেলে যেতাম সেথায় ক্রাচে করে ভর
তোমার উচ্ছ্বাসে ডুব মগ্ন 
কেটেছে সব মধু লগ্ন 
আজ সবি তা স্বপ্ন-সম, করেছো যে পর । 

০৮০ # একটু জলে ঢাকা 

একটু জলেই যাচ্ছে ডুবে ঢাকার রাজপথ
চলাচলে খানাখন্দে মুখোমুখি সমূহ বিপদ
বৃষ্টি যখন শুরুর পালা
রাস্তা কাটা ধুমমে চালা
ভালো কোনো পদক্ষেপ নেই;শুধু উল্টোরথ।

০৮১ # বাঁচি ভালোবাসায় 

ভুলতে যে বলো তোমায়, সহজ কি তা অতো !
হৃদয়েতো তোমার আবাস, ভাবনায় অবিরত ।
এসো অভিমানটা ভুলে
মনের বদ্ধ দরজা খুলে
অনুভবের মাদুর পাতো, দেখো ভালোবাসি কতো ।

০৮২ # পরিবেশ কাঁদে 

প্রকৃতিতো নিয়ম মানে, আমরা মানুষ মানি না
পরিবেশের বারোটা বাজাই, জেনেও যেনো জানি না
ভারসাম্য সে হারায় ক্রমে
এ সবইতো মানব ভ্রমে
পরিবেশ যে কেঁদে ফেরে, এটা কোনো গ্লানি না? 
(পাদটীকাঃ আজ ০৫ জুন। বিশ্ব পরিবেশ দিবস।)

০৮৩ # বাজেট ভাবনা 

নাদান আমি, ক্ষুদ্র অতি বাজেট এতো বুঝি না
মোটা ভাত ও কাপড় হলে আর আমি যুঝি না
প্রবৃদ্ধি বা মূল্যস্ফীতি
শর্টেজ সারপ্লাস নীতি
এসবই হাই থটের কথা, ব্যাখ্যা আমি খুঁজি না।

০৮৪ # বাজেট হাসি 

কেউ বলে বাজেট ‘ভালো’ কেউ বলে ‘মোটেই না ‘
কেউ বলে ‘চলনসই ‘ আর কারো কথা জুটেই না
বাজেট নাকি বিশাল বড়ো
ধরো সবাই মিলে ধরো
কারো মুচকি, কারো অট্ট, কারো হাসি ফুটেই না।

০৮৫ # সোলমেট 

নাইবা হলো দেখা, ফোনে কথা কিংবা ডেট
স্কাইপিকল, হোয়াটসআপ কিংবা ফেবু চ্যাট
তবু তুমি হৃদয় পাড়ে
আছো যুক্ত বিনাতারে
তুমি সে যে একটাই তুমি, তুমি যে সোলমেট। 
(বি:দ্রঃ আজ কোনো সিরিয়াস কথা নয়। আজ ভালোবাসা।)

০৮৬ # মুক্তি চাই 

সহজ সরল চিন্তার দিন বুঝি আর নাই
সত্য সুন্দর সমাজ থেকে নির্বাসিত তাই
ধূর্ততার আজ পাখামেলা ভাব
সবাই খুঁজে অনীতিতে লাভ
এরও মাঝে সহজ-চিন্তার মুক্তি শুধু চাই। 

০৮৭ # মৌসুমি ফলে আতঙ্ক ! 

বাজার জুড়ে মৌসুমি ফল দেখতে খুবই বাহারি
আসছে গ্রাম গঞ্জ থেকে, কিছু আবার পাহাড়ি
এসব ফলই প্রকৃতির দান
স্বাদে ভরপুর খাদ্যপ্রাণ
ফর্মালিনটাই হুমকি শুধু, আতঙ্কতো তাহারি! 

০৮৮ # স্বপ্নে গড়ি 

স্বপ্ন আমার পায় না আলো, স্বপ্ন হয়েই থাকে
সকাল সাঁঝে, রাতের ভাঁজে বিভোর শুধু রাখে
স্বপ্নে আমি গড়ি কুঞ্জ
ভালোবাসা পুঞ্জ পুঞ্জ
স্বপ্ন মাঝেই ডুব সাঁতার, পাইনা শুধু তাকে ।

০৮৯ # সড়ক দুর্ঘটনা 

সড়ক দুর্ঘটনায় মানুষ নিত্যদিনই শিকার
যার যায় সেই বুঝে, অন্যদের আর কী কার? 
তাজা প্রাণের বিদায়
কে নেবে আজ এ দায়?
সংশ্লিষ্টরা বহাল থাকে, নেইতো কোনো বিকার।

০৯০ # শিশুশ্রম 

শিশুশ্রমের দিন কি ভাই আর শেষ হবে না?
মানবতা আর বিবেক কোনো কথা কবে না?
সোনা শৈশব হয় তামা
নিদারুন এক কষ্টনামা !
শপথ আজ হোক না তবে শিশুশ্রম আর রবে না।

০৯১ # শব-ই-বরাত 

সৌভাগ্যের বারতা নিয়ে আসে শব-ই-বরাত
ক্ষমা মাগি, দয়া যে চাই তুলে দু’খানা হাত
করুণাময়ের কৃপার তরে
গুনাহ নিয়ে কাঁদি রাতভরে
এ নয় যথেষ্ট, তবু আশায় নিয়ে শূন্যপাত। 

০৯২ # হটসিটে আরজু আপা

আজকের হট সিট টা হট কি খুব বেশি?
ডিপেন্ড করছে ক্যানাডিয়ান নাকি দেশি।
তিনি প্রশ্নবানে বিদ্ধ্ব
ক্লাইমেট তবু হৃদ্য 
আরজু আপা কাটছে কেমন, আমরা খেসি।
“”””খেসি মানে আত্মীয়”

০৯৩ # ব্রাজুকা 

জাবুলানির পর এবার ব্রাজুকা ফিফার বল
তৈরিতে আডিডাসের গড়িয়েছে অনেক জল
৪৩৭ গ্রামে ৬ প্যানেলের জোড়া
৬৯সেমি পরিধিতে আড়াই বছর পুরা
১০ লাখ ভোটে নাম ব্রাজুকা ভালোবাসার ফল। 

০৯৪ # ফরমালিনমুক্ত দেশ

ধ্বংস করা হচ্ছে ব্যাপক ফরমালিনের ফল
এবার বুঝি ফ্রেশ ফলে বাড়বে দেহের বল
এসবের তো ছিলো না কাজ
মনের ভেজাল দূর করো আজ
ফরমালিনমুক্ত দেশ গড়ো হয়ে একই দল।
##২০১৪০৬১৫(৯৪)## 

০৯৫ # অক্সিজেন ফ্যাক্টরি

বৃক্ষ আমার আপন অতি, সে আমাকে বাঁচায়
বৃক্ষ বাড়ুক, আটকিও না ব্যালকনির ঐ খাঁচায়
অক্সিজেনের ফ্যাক্টরি গাছ
পরিবেশ রক্ষায় করে কাজ
ভূ-উষ্ণতা রোধকল্পে গাছকে দাও, সে যা চায়।
#২০১৪০৬১৪ (৯৩)## 

০৯৬ # দেশবল ভাবনা 

কেউ বলে ব্রাজিল, কেউ বলে আর্জেন্টিনা
ফুটবলের দুনিয়ায় এ দুদেশ গার্জেন কিনা !
বসনিয়াও তো কম যায় না
ডাচরাও তো যেনো হায়না!
ভিনদেশ ছেড়ে, দেশবল ভাবনা আর্জেন্ট কিনা?
##২০১৪০৬১৬(৯৬)## 

০৯৭ # বর্ষা বন্দনা

বর্ষা আমার ভালোবাসা, দৃষ্টি আমার বৃষ্টিতে
বৃষ্টি নুপুর, ছন্দ মুকুর, অপরূপ এক সৃষ্টিতে
পদ্মপুকুর যৌবনা
কদমফুলও মৌবনা
বর্ষা গাঁথা মন-মগজে, বাঙালি এ কৃষ্টিতে। 
##২০১৪০৬১৬(৯৫)# 

০৯৮ # সত্য আজ 

সত্য বলে, সহজ চলে এখন বাঁচা দায়
পদেপদে সহজ মরে, সত্য হোঁচট খায়
মিথ্যে থাকে চূড়ায়
কূটকৌশল গোঁড়ায়
ক্রমাগত নিষ্পেষনে সত্য মৃতপ্রায়। 
## ২০১৪০৬১৮(৯৮)## 

০৯৯ # পরানের কথা 

পরানের কথা চায় যে বলতে পরান
মন আর প্রাণকে একসুতোয় জড়ান
শুদ্ধচিন্তার শুধু ফেরি
সত্যকথনে নেই দেরি
হৃদয়ের অলিগলি ভালোবাসায় ভরান।
## ২০১৪০৬১৮(৯৯)## 

১০০ # লিমেরিক 

পাঁচ লাইনে ভাবের বিন্যাস, নিয়মটা মেনে ঠিক
প্রথম, দ্বিতীয় ও পঞ্চম ছন্দমিলে হয় আন্তরিক
তৃতীয় চতুর্থ লাইন দুটো
ছন্দে হয় কিঞ্চিৎ ছোট
একটা ভাবের দীপ্ত প্রকাশ, এইতো লিমেরিক।
##২০১৪০৬১৮(১০০)## 

শুভেচ্ছান্তেঃ

সোহেল আহমেদ পরান
Email: shohel121@gmail.com
Facebook: shohel121
Skype: shohel121

৯৬৪ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
সর্বমোট পোস্ট: ১০৩ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৬৫৩ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৪-০৫-২৭ ০৪:০৪:৩১ মিনিটে
banner

২ টি মন্তব্য

  1. সাখাওয়াৎ আলম চৌধুরী মন্তব্যে বলেছেন:

    এককথায় অসাধারণ সব কবিতা। ভাষায় প্রকাশ করতে পারবোনা কত ভালো লেগেছে। তবে এতো গুলো কবিতা একসঙ্গে না দিয়ে কিছু কিছু করে দিলে ভাল হতো না?

  2. সহিদুল ইসলাম মন্তব্যে বলেছেন:

    অনেকগুলো সুন্দর ভাবনার একসাথে বহিঃপ্রকাশ
    অনেক অনেক ধন্যবাদ

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top