Today 02 Dec 2021
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

প্রাণের প্রিয়তমা(র্পব-১১)

লিখেছেন: আমির ইশতিয়াক | তারিখ: ২৩/০৬/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1145বার পড়া হয়েছে।

(পূর্বে প্রকাশের পর)
প্রতিটি মানুষের জীবনে একটি মধুর রাত আসে। আর সেই রাতটির নাম বাসর রাত। বিয়ের পূর্বে যারা যৌন মিলনে লিপ্ত হয়; তাদের জন্যে এ রাত তেমন সুখকর ও রোমান্টিক নয়। তবে যারা সত্যিকার ভাবে যাদের সতীত্বকে বজায় রেখেছে তাদের জন্যে এ রাত হল ফুল শয্যার রাত। তেমনি আজ সাকিব ও সোনিয়ার জীবনে সেই কাংখিত বাসর রাত এসে উপস্থিত হল।
সোনিয়া খাটের মাঝখানে গিয়ে ঘুমটা দিয়ে বসলো। সাকিব বাহির থেকে প্রকৃতির কাজ সেরে রুমে এসে দরজাটি লাগিয়ে দেয়। আস্তে আস্তে সে সোনিয়ার নিকট আসল। ঘুমটা টেনে সে থুতনি ধরে বলল, এভাবে ঘুমটা দিয়ে আছ কেন? মনে হয় আমাকে দেখে লজ্জা পাচ্ছ?
সোনিয়ার তখন মনে পড়ে গেল- বুয়ার সেই যৌবনকালের বাসর রাতের দৃশ্যটি।
কি ভাবছ? কথা বলছ না কেন?
সোনিয়া আমতা আমতা করে বলল, না মানে, ইয়া তুমি কি যেন বলছিলা?
এই তুমি কিন্তু প্রসঙ্গ পাল্টিয়ে যাচ্ছ।
আচ্ছা বাবা এসব প্রসঙ্গ বাদ দিয়ে বাতিটা নিভিয়ে দিয়ে আসো।
সাকিব আর কোন কথা না বাড়িয়ে বাতিটা নিভিয়ে তার পাশে এসে তাকে পাজাকোলা করে শুয়ে পড়লো। আশা- আনন্দ- ভয়- সংশয়ের দ্রুত স্পন্দন শুনা যাচ্ছে। দু’জন দু’দিক মুখ করে খানিকক্ষণ চুপ করে শুয়ে রইল। কেউ নড়া চড়া করছে না। কেউ কাউকে স্পর্শও করছে না। এভাবে চলল অনেকক্ষণ।
নীরবতা ভেঙ্গে সাকিব সোনিয়ার গায়ে হাত দিয়ে বলল, সোনিয়া। ঘুমিয়ে গেলে নাকি? এস না একটু গল্প করি।
সোনিয়া হাই তোলার মতো শব্দ করে বলল, বড্ড ঘুম পাচ্ছে, আজ থাক। একথা বলেই চুপ করে রইল। আর জোরে জোরে নিঃশ্বাস ফেলতে থাকে। সাকিবকে বুঝাচ্ছে যে তার সত্যিই ঘুম পাচ্ছে। আসলে কি তাই। এমন মধুর রাতে কি ঘুমানো যায়। কিছুক্ষণ পর সাকিব সোনিয়ার একখানা মোলায়েম হাত আলতো ভাবে টেনে তার নিজের বুকের উপর রাখল। পরক্ষণে তার হাতখানাও সোনিয়ার বুকের উপর রাখল। সোনিয়া কোন বাঁধা দিচ্ছে না। দু’জনের হৃদস্পন্দন দ্রুত বাড়তে লাগলো। তারপর একে অপরের গালে চুমো দিল। তারপর। তারপর সেই চিরাচরিত নিয়মানুযায়ী তারা সুখের স্বর্গে প্রবেশ করলো।
অনেক খুঁজাখুঁজির পরও যখন মনির খান তার মেয়েকে পেলেন না, তখন নিরাশ হয়ে ঘুমিয়ে পড়লেন। তিনি স্বপ্ন দেখেন- তিনি যেমনি কোন যুবতী মেয়ে দেখলে ছোলা কলা মনে করে ভোগ করেন; তেমনি যেন আজ তার মেয়েকে কেউ কিডনেপ করে ভোগ করছে। এসব দৃশ্য দেখে না… না… বলে চীৎকার দিয়ে উঠলেন।
চলবে…
প্রাণের প্রিয়তমা(পর্ব-১)পড়ুন।
প্রাণের প্রিয়তমা(পর্ব-২)পড়ুন।
প্রাণের প্রিয়তমা(পর্ব-৩)পড়ুন।
প্রাণের প্রিয়তমা(পর্ব-৪)পড়ুন।
প্রাণের প্রিয়তমা(পর্ব-৫)পড়ুন।
প্রাণের প্রিয়তমা(পর্ব-৬)পড়ুন।
প্রাণের প্রিয়তমা(পর্ব-৭)পড়ুন।
প্রাণের প্রিয়তমা(পর্ব-৮)পড়ুন।
প্রাণের প্রিয়তমা(পর্ব-৯)পড়ুন।
প্রাণের প্রিয়তমা(পর্ব-১০)পড়ুন।

১,৪১৯ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমির ইশতিয়াক ১৯৮০ সালের ৩১ অক্টোবর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর থানার ধরাভাঙ্গা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা শরীফ হোসেন এবং মা আনোয়ারা বেগম এর বড় সন্তান তিনি। স্ত্রী ইয়াছমিন আমির। এক সন্তান আফরিন সুলতানা আনিকা। তিনি প্রাথমিক শিক্ষা শুরু করেন মায়ের কাছ থেকে। মা-ই তার প্রথম পাঠশালা। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা শুরু করেন মাদ্রাসা থেকে আর শেষ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ে। তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নরসিংদী সরকারি কলেজ থেকে সমাজবিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ছাত্রজীবন থেকেই লেখালেখি শুরু করেন। তিনি লেখালেখির প্রেরণা পেয়েছেন বই পড়ে। তিনি গল্প লিখতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করলেও সাহিত্যের সবগুলো শাখায় তাঁর বিচরণ লক্ষ্য করা যায়। তাঁর বেশ কয়েকটি প্রকাশিত গ্রন্থ রয়েছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য উপন্যাস হলো- এ জীবন শুধু তোমার জন্য ও প্রাণের প্রিয়তমা। তাছাড়া বেশ কিছু সম্মিলিত সংকলনেও তাঁর গল্প ছাপা হয়েছে। তিনি নিয়মিতভাবে বিভিন্ন প্রিন্ট ও অনলাইন পত্রিকায় গল্প, কবিতা, ছড়া ও কলাম লিখে যাচ্ছেন। এছাড়া বিভিন্ন ব্লগে নিজের লেখা শেয়ার করছেন। তিনি লেখালেখি করে বেশ কয়েটি পুরস্কারও পেয়েছেন। তিনি প্রথমে আমির হোসেন নামে লিখতেন। বর্তমানে আমির ইশতিয়াক নামে লিখছেন। বর্তমানে তিনি নরসিংদীতে ব্যবসা করছেন। তাঁর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা একজন সফল লেখক হওয়া।
সর্বমোট পোস্ট: ২৪১ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৪৭০৯ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৬-০৫ ০৭:৪৪:৩৯ মিনিটে
Visit আমির ইশতিয়াক Website.
banner

৭ টি মন্তব্য

  1. মিলন বনিক মন্তব্যে বলেছেন:

    11 পর্বটা পড়লাম…ভালো লাগল…সময় করে আগের পর্বগুলো পড়ার চেষ্টা করব…

  2. আজিম হোসেন আকাশ মন্তব্যে বলেছেন:

    চমৎকার।

  3. কাউছার আলম মন্তব্যে বলেছেন:

    এই লিখাটি পূর্বের গুলোর চেয়ে ছোট।

  4. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    কেমন লাগল তা জানাবেন।

  5. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনার লেখার হাত ভাল।
    প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানবেন।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top