Today 25 Sep 2022
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

বই:তসলিমার মামা বলছি।

লিখেছেন: গোলাম মাওলা আকাশ | তারিখ: ২৫/০৩/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1166বার পড়া হয়েছে।

>>বই:তসলিমার মামা বলছি।
>>লেখক:ফেরদৌস আলম

df
লেখক নাসরিন এর মামা। মামাদের একান্নবর্তী পরিবারের বেড়ে উঠে ঘর জামাই রজব আলির সন্তানেরা। তসলিমার শৈশব ও কৈশোরকালের অনেক চমকপ্রদ ঘটনা লেখক অবলোকন করেছেন। মেয়েরা প্রথম যৌবনে নিকট আত্মীয়’র কাছ হতে শিকার হয় যৌন নিপীড়নের শিকার হয়। তসললিমা সেই সুত্র ব্যবহার করে তার ক্ষেত্রে যৌন নিপীড়নের কুশীলব তৈরি করেছেন তার চাচা, মামা, ও নিকট আত্মীয় দের অনেকে(আমার মেয়ে বেলা) শরাফ মামা সেই মামাদের একজন। কে এই শরাফ মামা? তসলিমার ৭ মামার মধ্যে কার মাঝে লুকিয়ে ছিল কামতুর দৈত্য। অথচ শরাফ মামা নামে তসলিমার কোন মামা নেই।(“শরাফ মামা তার শরীর কে হাসতে হাসতে আমার ওপরে ধপাশ করে ফেলে আবার টেনে নামান আমার হাফ প্যান্ট। আর নিজের হাফ প্যান্ট খুলে তার নুনু ঠেশে ধরেন আমার গায়ে। বুকে চাপ লেগে আমার শ্বাস আটকে থাকে। ঠেলে তাকে সরাতে চেষ্টা করি আর চেঁচিয়ে বলি- এইটা কি কর, সর শরাফ মামা সর। গায়ের সব শক্তি দিয়ে ঠেলে তাকে এক চুল সরাতে পারি না। )
** তসলিমা নাসরিনকে তার নানির প্রশ্ন — তুই এই সব কি লেহস? মানুষে খারাপ কই? তর সাজেদা খালার কথা কি নাহি হাজিবিজি লেখছস? তাই সাজেদার জামাই তারে ছাইড়া দিছে। এইডা তুই কি করছিস? নানি কে আহ্লাদী হয়ে জড়িয়ে ধরে উত্তর — নানু এই তো গল্প লিখি। এই গুলি হুইনা জামাই যদি ছাইড়া দেয়, দেগ গা, জামায় ছাড়াই ভাল।

**কোলাহলের কলাবতী তসলিমা এখন(তখন২০০৪ সালের আগে) যৌবনদেবীর প্রতীক এক রহস্যে ভ্রা নারী। যিনি নিজে নিজেই আপন ইচ্ছেই আপন দেহ মধুচক্র রচনা করে অনিবার্য বান্ধবদের আমন্ত্রণ জানিয়ে এখন তাদেরকে চরিত্রহীন বলে অভিযোগে অভিযুক্ত করেছে( ‘ দ্বিখন্ডিত লেখার জন্য সৈয়দ শামসুল হক বাংলাদেশে আমার বিরুদ্ধে এক কোটি টাকার মানহানির মামলা করেছেন। তাঁর রাগ, তাঁর শালির সঙ্গে তাঁর গোপন সম্পর্ক ফাঁস হয়ে গেছে।
প্রশ্ন : আপনি পরিকল্পিতভাবে নিজেকে আলোচিত করে তোলেন। আজ বাংলা সাহিত্যে বা বাংলাদেশের সাহিত্য জগতে আপনি তো চরমভাবে অবহেলিত।
তাসলিমা : আমি একটা আলোড়ন সৃষ্টি করেছি। সত্য কথা সাহিত্যে অনেকের জন্য কষ্টদায়ক হয়। আমি আমার বহু স্বামী ও ভোগ্য পুরুষদের নামধাম প্রকাশ করে দেয়ায় অনেক বন্ধু আমাকে এড়িয়ে চলেন।
বাংলা সাহিত্যের অনেক দামি দামি পুরুষও চান না যে আমি দেশে ফিরি। এক সময় আমার বিপক্ষে ছিল কট্টর মৌলবাদীরা। এখন প্রগতিশীল অনেক সাহিত্যিকও বিপক্ষে। কারণ এদের নষ্ট মুখোশ আমি খুলে দিয়েছি।
)।
**নারী স্বাধীনতার নামে এদেশের ধর্মপ্রাণ মানুষের অনুভূতিতে আঘাত করে ও রিরংসাপূর্ণ যৌন সুড়সুড়ি দিয়ে তিনি বইয়ের কাটতি বাড়িয়েছেন।
**দাম্পত্য বন্ধনকে অস্বীকার ও জরায়ুর স্বাধীনতার নামে পারিবারিক জীবনকে করে তুলেছেন প্রশ্নবিদ্ধ।
**বেদ বিশেষঙ্গ সুকুমার ভট্টাচার্যের—প্রচিন ভারত ও বৈদেশিক সমাজ— হতে লিখা চুরি , ফেরা—দিব্যেন্দু পালিত এর – আলমের নিজের বাড়ি—এর নকল।

এ ছাড়া– তসলিমার আরও নতুন কিছু অন্ধকার উঠে এসেছে এই বই এ।

১,১৪৬ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
আমি খুব সাধারণ।
সর্বমোট পোস্ট: ১৩৩ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৯৭৪ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৪-০৮-২২ ১৬:৩০:৪৭ মিনিটে
banner

৭ টি মন্তব্য

  1. সেতারা ইয়াসমিন হ্যাপি মন্তব্যে বলেছেন:

    জানিনা কোনটা সত্যি কোনটা মিথ্যে… তবে মেয়েরা অনেক জায়গায় ই আপনজনের হাতে নিঃগৃহীত হয় এটা কিন্তু সত্যি… আর লজ্জায় ঘৃণায় সব মুখ বুজে সহ্য করে চলে আজো…!

    কিন্তু মিথ্যের আশ্রয় নিয়ে লিখে ঠিক নয় যাতে কারো ক্ষতি হয়…!

    • টি. আই. সরকার (তৌহিদ) মন্তব্যে বলেছেন:

      মেয়েরা সমাজে নিগৃহীত হতে পারে, তবে তসলিমা নাসরীন যে ভাষায় তা ব্যক্ত করেছেন তা বড়ই নির্লজ্জকর ! এটা নিজের আবেগ-অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ হতে পারে কিন্তু বই হিসেবে এমন লিখা কখনোই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না ! কেউ একজন ধর্ষণের শিকার হয়েছে বললেই বোঝা যায়, যে সে কি ধরণের মানসিক ও শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে, তার জন্য শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কিভাবে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে তার পুঙ্খানুপুঙ্খ বিশ্লেষণ বইয়ে প্রকাশের আদৌ প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করি না ।
      ভালো থাকুন আপু ।

  2. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    তসলিমা সর্ম্পকে জানা র বেশ ইচে্ছ ছিল
    আজ হয়তো আর একটু ভাবনা ধারণা পেলাম

    শুভ কামনা রাইল

  3. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    আমার বোধের সীমাবদ্ধতাকে ক্ষমা করবেন।
    লেখাটা থেকে আমি কোন স্বচ্ছ ধারণা পেলাম না। আমার কাছে অপূর্ণ মনে হয়েছে।

  4. জসিম উদ্দিন জয় মন্তব্যে বলেছেন:

    বড় জটিল লেখা । মন্তব্য করলে বিপদে পড়ে যেতে হবে । সেই ভালো দূরে থাকি ।

  5. টি. আই. সরকার (তৌহিদ) মন্তব্যে বলেছেন:

    লিখাটায় আসলেই পূর্ণতার অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে । আর এতে ঠিক কোন বিষয়টি উপস্থাপন করতে চেয়েছেন তাও স্পষ্ট হয়ে ওঠেনি ।
    ভালো থাকুন ।

  6. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    মন্তব্য নিষ্প্রয়োজন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top