Today 02 Aug 2021
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

ভীত যদি শক্ত না হয় শক্ত কাঠামো আশা করা যায় কি ?

লিখেছেন: সাঈদ চৌধুরী | তারিখ: ০৩/০১/২০১৪

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 923বার পড়া হয়েছে।

 

রানা প্লাজা, একটি ধ্বংশের নাম হয়ে চিরকাল আমাদের দেশের ইতিহাসে লেখা থাকবে রানা প্লাজা ধ্বংশের সাথে সাথেই প্রায় দেড় হাজার পরিবার একেবারেই নিস্ব হয়ে গেছে তাদের আহাজারি আমরা দেখেছি, আমরা সারা জাতি কেঁদেছি তাদের দুঃখে  আজ এই ধ্বংশের মূল কারন খুঁজতে গেলে অবশ্যই এর শক্ত ভীত না থাকাকেই দায়ী করা হবে শক্ত ভীত অর্থাপ্রথম থেকে যদি কোন জিনিসকে সঠিকভাবে গড়ে তোলা না যায় তবে এমন পরিনতি খুবই স্বাভাবিক আর স্বাভাবিক পরিনতিগুলি হচ্ছেই দুর্নীতি আর অমনোযোগীতার কারনে কঠিনতম এই ব্যপারগুলি আমরা দেখেও না দেখার ভান করে থাকি আর এর কারনে ঝরে যায় হাজারো প্রান, নষ্ট হয় কোটি কোটি টাকা !

রানা প্লাজার মত এমন ধ্বংশ চোখে দেখা যায়, বোঝা যায় অনেক ক্ষতি হল কিন্তু এমন কিছু ধ্বংশ রয়েছে যেগুলো চোখে দেখা যায় না কিন্তু তার ফলাফল হয় আরো ভয়ানক ঠিক ছাই চাপা আগুনের মত ছোট্ট একটি দেশ বাংলাদেশ ছোট দেশ হলেও এর জনপ্রিয়তা, জনআকাঙ্খা, অর্থনৈতিক সম্মৃদ্ধিশালী হ্ওয়ার সম্ভাবনা বিশ্বের মধ্যে অন্যতম এই অন্যতম দেশটির শিক্ষার হারও দ্রুত বর্ধমান কিন্তু যেখানে সবচেয়ে বেশী হতাশা অর্থা সেই ভীত প্রাথমিক শিক্ষায় বাংলাদেশের শিক্ষার মান দিনদিনই হতাশার দিকে নিয়ে যাচ্ছে কয়েকটি বিদ্যালয় সুনামের সাথে শিক্ষা কার্যক্রম চালালেও অধিকাংশ বিদ্যালয়ের অবস্থাই করুন প্রতিবছরই অনেক শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হলেও বেশীরভাগ শিক্ষকই অযোগ্যতায় ভরা থাকে শুধুমাত্র দুর্নীতি করে অমেধাবীদের নিয়োগ দেওয়া হয় প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলোতে কোন জবাবদিহিতা না থাকায় শিক্ষকরা ক্লাস মন চাইলে নেয় না মন চাইলে যার যার ইচ্ছামত সময় কাটায় গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই কোন নিয়ম মানা হয় না

ক্লাশের সময় অনেক সময়ই দেখা যায় শিক্ষকরা অফিসরুমে বসে নিজেদের মত সময় কাটাচ্ছেন অনেকে মোবাইল নিয়ে এয়ার ফোনে গান শুনছেন ছেলেমেয়েরা এই সময়গুলোতে যার যার ইচ্ছামত ঘোরাফেরা করছে এমনও সময় যায় সারা দিনে মাত্র দুটো বা একটা ক্লাশ নিয়ে দিনের কার্য দিবস শেষ করছেন শিক্ষকরা শিক্ষক সংকট এত বেশী পরিমানে না থাকলেও শিক্ষা সংকট এবং শিক্ষার মান সংকট দিন দিন বেড়েই চলছে প্রতিবছর অনেক শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হলেও মেধাবী এবং সত্যিকারের চাকুরী প্রত্যাশীরা বারবারই পিছনে থেকে যাচ্ছে টাকার বিনিময়ে শিক্ষকতা পেশায় চলে আশছে শুধু মাত্র টাকা উপার্জনের জন্য চাকুরী এই মনমানুষিকতার মানুষেরা যার কারনে ব্যপকহারে শিক্ষকথাকলেও শিক্ষিত শিক্ষক দ্বারা ছেলে মেয়েদের শিক্ষা নিশ্চিত করা যাচ্ছে না

প্রাথমিক শিক্ষাই হল শিক্ষা জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন অংশ আর এর কারনেই সরকারের উদ্যোগও অনেক বেশী থাকে তৃনমূল পর্যায়ে স্কুলে যাওয়ার হার বাড়লেও স্কুল ধরে রাকার হার অনেক ক্ষেত্রেই বাড়ানো যাচ্ছে না স্কুলকে জনপ্রিয় করা এবং স্কুলের গুরুত্ব সবার কাছে গ্রহনযোগ্যভাবে তুলে ধরাও স্কুল কতৃপক্ষের বড় একটি কাজ এই কাজ তদারকির জন্য প্রতিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়েই তিনটি করে কমিটি করে দেওয়া আছে এই কমিটিগুলোর উপর দায়িত্ব অর্পিত থাকে যে স্কুলের পড়াশোনা এবং এর কার্যকারিতা ঠিক আছে কিনা তা লক্ষ রাখা

এখানেও গতিশীলতা আর মননশীলতার বড়ই অভাব বেশীরভাগ কমিটিগুলোই নির্বাচিত করা হয় ঐ এলাকার রাজনৈতিক প্রভাব সম্পন্ন মানুষের হাতেই শিক্ষাঅনুরাগী কোন মানুষ কমিটিতে আসতে চাইলে তাদের আনাটাও কঠিন হয়ে যায় গ্রাম্য রাজনীতির বেড়াজালের কাছে

একটু দেখে নিন কতগুলো বাধার সম্মুক্ষীন হচ্ছে আমাদের প্রাথমিক শিক্ষাঃ

-শিক্ষক নিয়োগে প্রশ্ন ফাঁশ সহ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে দুর্নীতি, নিয়োগে ঘুষ বানিজ্যের কারনে অমেধাবীরা শিক্ষক হিসাবে ঢুকে যাচ্ছে বিদ্যালয়গুলোতে

-ক্লাসের সময় শিক্ষকদের অমনোযোগীতা

-শিক্ষক, গার্ডিয়ান এবং কমিটির মধ্যে সমন্বয়হীনতা

-শিক্ষকদের জবাবদিহিতা না থাকা

-শিক্ষায় বৈচিত্রের অভাব

-উপবৃত্তির টাকা সঠিক ভাবে বন্টন না হওয়া বা নাম বানিয়ে বসিয়ে উপবৃত্তির টাকা তুলে নিয়ে আত্নসাত করা

-গনিত এবং ইংরেজীর জন্য আলাদা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে শিক্ষক না নেওয়াতে অনেক বিদ্যালয়েই গনিত ও ইংরেজীর শিক্ষকের অভাব

-অনেক স্কুলেই এখনও নোটিসবোর্ড দেখা যায় না যার কারনে কখন কি সিডউল ঘোষনা করা হয় তা অভিভাবকরা সময়মত অবগত হতে পারে না

-বিদ্যালয়ের জন্য গঠিত বিভিন্ন কমিটিতে অশিক্ষিতদের আধিপত্ত  

এসব অনিয়মের কারনেই শিক্ষার ভীত প্রাথমিক শিক্ষা এখনও এগিয়ে নেওয়া যাচ্ছে না যদি ভঙ্গুর অবস্থায়ই চলতে থাকে প্রাথমিক শিক্ষার এই অবস্থা তবে খুব শীঘ্রই উচ্চতর শিক্ষায়ও এর প্রভাব পড়তে বাধ্য সামাজিক জীবনেও প্রাথমিক শিক্ষার প্রভাব অনেক বেশীআজ নৈতিকতার যে অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে তা হতনা যদি প্রাথমিক স্তরের শিক্ষকেরা আগের দিনের মত ক্লাসে নৈতিক শিক্ষার পাঠ আগের মত দিতেন

আগেও আমি প্রাথমিক শিক্ষা নিয়ে একটি লিখা লিখেছিলাম আবারও লিখলাম কারন শিক্ষার ভীত নিয়ে আমাদেরও ভাবতে হবে সকলের ভাবনায়ই একটি সমাধান আশা সম্ভব

সবার আগে মেধাবীদের নিয়োগ নিশ্চিত করার জন্য অবশ্যই নিযোগ দুর্নীতিমুক্ত করা দরকার শিক্ষকদের ক্লাসমুখী করতে হবে একারনে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা  এবং ক্লাস বা পড়ানোর অমনোযোগীতার জন্য শাস্তির ব্যবস্থা করা দরকার অনিয়ম বন্ধে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের তদারকি বাড়ানো প্রয়োজন কিন্তু তদারকির নাম করে টাকা খাওয়ার উসব বন্ধ করাও জরুরী সবচেয়ে বড় যেটা সহায়ক হতে পারে তা হল প্রতিটি গার্ডিয়ানের সচেতনতা, খেয়াল রাখা আর শিশুদের প্রতি শিক্ষকদের দৃষ্টি আকর্ষন বৃদ্ধি করা প্রতিটি স্কুলে সপ্তাহে অন্তত একদিন নৈতিক শিক্ষার ক্লাস বাধ্যতামূলক করা স্কুলের কমিটিগুলোতে শিক্ষিত মানুষ এবং শিক্ষানুরাগী মানুষদের অন্তর্ভুক্ত করা  

যদি রানা প্লাজার মত ভবনের ধ্বংশের কারন কাঠামোর দুর্বলতা হয় তবে একটি দেশের কাঠামো ধ্বংশের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা স্তরের দুর্বলতাই যথেষ্ট তাই খুব শীঘ্রই এই দিকে সবার দৃষ্টি কামনা করছি প্রশ্ন ফাঁশ হবে, অমধাবীরা শিক্ষক হবে, কেউ খেয়াল রাখবেনা এটা মেনে নেওয়া যায় না আমরা স্পষ্ট উন্নতি দেখতে চাই প্রাথমিক শিক্ষার ক্ষেত্রে শিক্ষা মন্ত্রনালয় সহ সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি অনুরোধ রাখছি আপনারা আরো বেশী সচেতন হয়ে প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার মান বৃদ্ধিতে কার্যকরী পদক্ষেপ নেবেন

৯৯০ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
দুর্নীতি মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার জন্য কাজ করে যেতে চাই ।
সর্বমোট পোস্ট: ১৯০ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৬৯২ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-১৭ ১২:১২:৫১ মিনিটে
banner

৭ টি মন্তব্য

  1. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    খুব গুরুত্বপূর্ণ লেখা। সমাজে কাজে আসবে।

  2. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনার সবগুলা কিথা সত্য। কিন্তু দেশটায় চুর চুট্টায় ভরে গেছে। এখন জাতি চায় না । টাকা চায়। নাইলে কি কোমল্মতি ছাত্র ছাত্রিদের প্রশ্ন আউট হয়ে যায়।

  3. এস এম আব্দুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনার লেখাটি খুব ভাল লাগল । আশা করি এরুপ লেখা মানুষের সচেতনতা বাড়াবে । শুভ কামনা ।

  4. আরজু মন্তব্যে বলেছেন:

    আমরা স্পষ্ট উন্নতি দেখতে চাই প্রাথমিক শিক্ষার ক্ষেত্রে । শিক্ষা মন্ত্রনালয় সহ সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি অনুরোধ রাখছি আপনারা আরো বেশী সচেতন হয়ে প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার মান বৃদ্ধিতে কার্যকরী পদক্ষেপ নেবেন ।
    রানা প্লাজা, একটি ধ্বংশের নাম হয়ে চিরকাল আমাদের দেশের ইতিহাসে লেখা থাকবে ।
    হ্যা সাঈদ ভাই ঠিক বলেছেন।আচ্ছা রানা প্লাজার ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর জন্য কি কতৃপক্ষ কিছু করছে?

    অসাধারন লেখা।সবসময় এই ধরনের লেখা লিখতে থাকবেন।আপনার জন্য অনেক দোয়া শুভকামনা ।ভাল থাকবেন সবসময়।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top