Today 01 Dec 2021
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

শিশুদের যৌন নির্যাতনকারী ব্যক্তিরা কারা

লিখেছেন: মাজেদ হোসেইন | তারিখ: ০৬/০৬/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1337বার পড়া হয়েছে।


ফারিহার একটা ঘটনা আছে ।বাচ্চা কালের ঘটনা। খুবই লজ্জার ঘটনা। দুঃস্বপ্নের মত। মরে গেলেও কাউকে ঘটনাটা বলবেনা। একারনে অনেকদিন ফুফার বাড়িতে যায়না।পণ করেছে কোনদিনই সেখানে যাবেনা!


জাফর  কিবরিয়া শিশুদের প্রিয় লেখক।ছেলে ও মেয়ে শিশুরা তার সাথে ছবি তোলে-অটোগ্রাফ নেয়।আবেগে-ভক্তিতে গায়ে ঢলে পড়ে।লেখক সাহেবও সুযোগটা নেন।নরম শরীর জাপটে ধরে ছবি তোলেন-আদর করেন-কোলে নেন।

দুদিন পরে কয়েকজন অভিভাবকের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ জাফর কিবরিয়ার কম্পুটারে শিশু পর্ণ ভিডিও আবিস্কার করলেন!!


জেঠু আমার সাথে অন্ধকারে এমন করলো কেন? ৯ বছর বয়সে  বুঝে উঠতে পারেনা রাহুল।

তবে বুঝতে সে পেরেছিল আরো ১০ বছর পরে। লজ্জাকর বেপার!!


বিবিসিকে দেয়া সাক্ষাতকারে রুপা জানিয়েছে বাবার দ্বারা সে নিয়মিত নির্যাতিতা হত।পরে পুলিশ তার বাবাকে গ্রেফতার করেছে।গ্রামে জানাজানি হয়ে যাওয়ায় এখন সেখানে থাকা হয়না।শহরে থাকে।এদিকে  তার হাজবেন্ড জানে রুপার বাবা বেচে নেই।


বিথির পুতুল খেলা দেখে তার থেকে অনেক বেশি বয়সী মামাতো ভাইও খেলতে বসলো। মামাতো ভাই বিথিকে বলল,আয় আমরা জামাই-বউ খেলা খেলি। আমি জামাই তুই বউ। বাচ্চা বিথিও রাজি এবং নিজের অজ্ঞাতেই ভয়ানক চাইল্ড এবিউজের শিকার হল।


রানী পুরোহিত-ঠাকুর দেখলেই ভয়ে কেপে উঠে।এক পুরোহিতকে তার বাবা বাসায় এনে খেতে দিয়েছিলেন।এর পরে উনি মাঝে মাঝে তাদের বাড়িতে আসতো।রানীর জন্যে চকলেট আনতো। একদিন লোকটা তার উপরে হামলে পড়লো…!!  একটা দুঃস্বপ্ন!! এসব কথা কাউকে বলা যায়না।কাউকেনা!


জুই এর আম্মু  অসুস্থ হওয়ায় তার খালা তাকে তার কাছে নিয়ে গেলেন।

হঠাৎ  খালাতো ভাই ওর সাথে একটা বিশ্রি কাজ করে বসলো। ৬ বছর বয়সেও বুঝতে পেরেছে কাজটা অনেক খারাপ ছিল।আম্মুকে বললে তিনি বললেন,তোর ভাইয়া  তোকে আদর  করেছে।

তার মা এটাকে হালকা ভাবে নিলেন।তার কথা ভালো করে শুনলোইনা!


মিতু তাদের লজিং টিচারের কাছে আর পড়বেনা।মা একথা শুনে গালে কয়েকটা চড় বসিয়ে হুমকি-ধমকি দিয়ে পড়তে পাঠান।তিনি ভাবেন মেয়ে পড়া ফাকি দিতে চায়। কিন্তু তিনি নিজের অজ্ঞাতে আপন কন্যাকে বাঘের মুখে পাঠাচ্ছেন।  প্রতিদিন ভয়ানক একটা লজ্জাকর ব্যপার ঘটে চলেছে মিতুর সাথে।সেকিছু বলতে পারছেনা। বার বার নিজের মৃত্যু কামনা করে চলেছে…!


কুড়িগ্রামের শিশু শাকিল তার সাথে ঘটে যাওয়া যৌন নির্যাতনের কথা প্রকাশ করে দেবে বলায় হাত-পা বেধে তাকে হত্যা করা হয়।

নাম গুলো ছদ্ম হলেও উপরের সব ঘটনাই সত্যি।

সেক্সুয়াল এবিউজ কি?

যখন কোন বয়স্ক বা প্রভাবশালী ব্যাক্তি তার কুৎসিত যৌন উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার জন্যে শিশুর স্পর্শকাতর অঙ্গ স্পর্শ বা আঘাত করে অথবা শিশুকে পর্ণ দেখানো এবং তা নিয়ে আলোচনা করে।

এছাড়াও আরো যা ঘটেঃ ১।শিশু ধর্ষন

২।শিশুর সংবেদনশীল স্থানে হাত দেয়া

৩।গোপন স্থান দেখার জন্য শিশুকে তার কাপড় খুলতে বাধ্য করা

৪।শিশুর অশ্লীল ছবি তুলতে বাধ্য করা

৫।শিশুকে জোরপুর্বক খারাপভাবে চুমু খাওয়া

৬।শিশুকে অশ্লীল ছবি-মুভি দেখানো।

কারা করছে?

আমেরিকান সেন্টার ফর পিটিএসডির কিছু পরিসংখ্যান অনুযায়ী-

বাবা,ভাই,মামা,চাচা,খালাতো-মামাতো-ফুফাতো ভাই,খালু,ফুফা ৩০%

(যদিও এদেশের শিশু বিশেষজ্ঞরা এতথ্যের সাথে একমত নন।যুক্তরাস্ট্রে বাবা,মামা,ভাই দ্বারা নির্যাতিত হলেও এদেশে বাবা-ভাই,মামারা ধর্মীয় মূল্যবোধের কারনে এতটা নিকৃস্ট হয়নি।)

প্রতিবেশি,শিক্ষক কাছের বা দূরের পুরুষ ও নারী আত্তীয়রা ৬০%

বাইরের লোক করে ১০% .

যারা নির্যাতিত হয় তাদের ৩৮% জানেই না যে তাদের সাথে কি হচ্ছে, তাদের সে সম্পর্কে কোন ধারনা নেই। সে জন্য এই ৩৮% যৌন নির্যাতনের শিকার শিশু তারা বাবা মাকে কি বলবে তাই বুঝতে পারে না।

কেন করছে?

নগ্নতা-পর্ণগ্রাফী এখন সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে পৌছে গেছে।যৌনতা এখন সহজ লভ্য। সাহিত্য,মিডিয়া,পত্রিকা,বিলবোর্ড থেকে শুরু করে সর্বত্রই যৌনতার আধিক্য মানুষের মনকে আচ্ছন্ন করছে। সমাজের একটি বড় অংশ এতে আক্রান্ত।যা তাদের চিন্তা চেতনায় লালিত হচ্ছে।আর এই বৃহৎ অংশটি তাদের কুৎসিত ভাবনাকে নিষ্ঠুর ভাবে অবুঝ শিশুদের উপরে প্রয়োগ করছে।

যে বয়সের শিশুরা আক্রান্তঃ

বেশির ভাগই  ৫-১০ বছর বয়সে।এসময়ে শিশু বুঝে উঠতে পারেনা কি ঘটছে।তখন বাবা-মাও শিশুকে কিছুটা স্বাধীন থাকতে দেয়।  সাধারনত মেয়ে শিশুরা বেশি আক্রান্ত।ছেলে শিশুরাও কম নয়।ছেলে শিশুদের গুলো প্রকাশ হয়না।

জাতিসংঘ বলছে বিশ্বে ২ থেকে ১৪ বছর বয়সীরা বেশি শিকার।আবার  প্রতি ১০ জনের ১ জন মেয়ে শিশু আক্রান্ত হচ্ছে এতে।ইউনিসেফ  এর মতে ভারতে ৪৭ শতাংশ মেয়ে শিশুর ক্ষেত্রে এমন ঘটছে।

সাধারনত যেভাবে ঘটেঃ

১) আদরের ছলে কিস করে বা কোলে তুলে নেয়ার নাম করে।

২) চকলেট-আইসক্রিমের লোভ দেখিয়ে।

৩) ঘুমাতে যাওয়ার কথা বলে।

৪) খেলতে নিয়ে যাওয়ার ছলে।

৫) বিয়ে বাড়ি,মেলা,পুজার অনুষ্ঠানে লোকজনের ভীড়ে বা ব্যস্ততার আড়ালে।

৬) কার্টুন-মুভি দেখানোর নাম করে খারাপ জিনিস দেখানো।

৭) শিশুকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে।

বাংলাদেশ এর প্রেক্ষাপটে শিশু যৌন নির্যাতনঃ

শারীরিক ভাবে অক্ষম শিশুদের(children’s with disabilities) যৌন নির্যাতনের চিত্র তুলে ধরতে বাংলাদেশ প্রতিবাদী ফাউন্ডেশন ও & সুইডেন &ডেনমার্কের Save the Children যৌথ সমীক্ষা চালায়।কারা যৌন হয়রানির শিকার সমীক্ষায় রাজশাহী, চট্টগ্রাম, ঢাকা,খুলনা,বরিশাল,সিলেট এই ছয়টি বিভাগীয় শহরে জরিপ চালায়।এতে ২১৬ জন অক্ষম শিশু এবং ৫৩৫ জন এডাল্ট মানুষের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে।এরা সবাই যৌন স্পর্শ ও যৌন নির্যাতন এই বিষয়ে বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তর দেয়। এ থেকে যে ফলাফল পাওয়া যায় তা আমার কল্পনার মধ্যে ছিল না। দেশের ৫০% শিশু এই যৌন নির্যাতনের শিকার হয় তার মানে প্রতি দু’জন শিশুর মাঝে একজন এই বিষের ছোবলে পড়ছে।

কিভাবে বুঝবেন আপনার শিশু যৌন নিগ্রহের শিকার হয়েছে?

যৌন নিগ্রহের শিকার হলে শিশুদের আচার আচরণগত পরিবর্ত ঘটে, তবে এক একজনের ক্ষেত্রে তা আলাদা হতে পারে । তাই এটা সঠিক বলা সম্ভব নয় যে ঠিক শিশুর কোন পরবর্তিত আচরণটা যৌন নিগ্রহের কারণে দেখা যাচ্ছে । তবে মন্স্তাত্মিকগণ আঁকা-আঁকি, শারীরিক ভঙ্গিমা, কমিউনিকেশন ধরন এবং খেলাধুলার রকমফের দেখে যৌন নিগ্রহের শিকার হওয়া নির্ণয় করেন । যেমন খেলার সময় –

খেলনা বা পুতুল বালুতে ঢেকে রাখার প্রবণতা থাকে

নির্দিষ্ট কিছু পুতুলে ভয় পেয়ে যাওয়া

সংগ্রহে থাকা পুতুলের মধ্যে নির্দিষ্ট কোনো পুতুল ফেলে দেওয়া বা বাদ দেওয়া

পুতুলের সাথে হিংস্র আচরণ করা

আঁকা-আঁকির সময় নিবিড়ভাবে গাড়ো রঙের ব্যাবহার করে

ছবিতে স্পষ্ট যৌনত ফুটিয়ে তুলে

যৌনতা নিয়ে কথা বলে

পিতা-মাতা নিগৃহীত শিশুদের মধ্যে পরিবারে তাদের সমবয়সী বা বড়দের সাথে বা চারপাশের লোকদের সাথে এই আচরণগুলো হয়ত খেয়াল করে থাকতে পারেন –

সমবয়সী, বড়দের বা তার চেয়ে বড় যেকোনো শিশুকে এড়িয়ে চলছে বা ভয় পাচ্ছে

শিশু তার ছোটবেলার অভ্যাসগুলোতে ফিরে যাচ্ছে , যেমন আঙ্গুল চষা, রাতে বিছানায় পেশাব করা

হঠাত করে কিছু বিরক্তিকর আচরণ দেখাতে শুরু করা, যেমন দিনে ১০-১৫ বার গোছল করা বা হাত ধোওয়া

বস বা হাঁটার সময় শিশুর অসুবিধা হওয়া শারীরিক শিক্ষার কার্যক্রম্গুলোতে যোগদানে অস্বীকার

সব কিছু থেকে বিচ্ছিন্ন থাকার প্রবণতা

আচমকা পোশাক পরিচ্ছদে পরিবর্তন (সাইজ-হীন বা বড় পোশাক দিয়ে শরীর ঢাকার প্রচেষ্টা অথবা আবেদনময়ী পোশাক পরার প্রবণতা)

অনিয়মিত ঘুম

নিজেকে শেষ করার প্রবণতা (মাথা ঠুকা, ড্রাগস্, মোটাত্ব, ক্ষুদামন্দা )

হঠাত করে স্কুলে না যাবার প্রবনতা

সমবয়সীদের সাথে সম্পর্কের অবনতি

এ বিপদ এড়াতে আপনার শিশুকে যা অবশ্যই শেখাবেনঃ

১) Good Touch  এবং  Bad Touch এর পার্থক্য শেখাবেন।খেলার ছলে বাচ্চাকে বলবেন- আমরা শরীরের যে অংশ গুলো ঢেকে রাখি তা কাউকে স্পর্শ করতে দেবেনা।কেউ চকলেট-আইসক্রিম দিলেও তা করতে দেবেনা। কেউ স্পর্শ করলে চিৎকার দেবে,বাবা-মাকে জানাবে।

২) বেড়াতে গেলে বাসায় মেহমান আসলে খেয়াল রাখতে হবে।বাচ্চা সারাদিন কোথায় গেছে কি কি করেছে,কার কার সাথে ছিল এসব বাবা ও মাকে আন্তরিকতার সাথে শুনতে হবে।

(৩) যদি আপনার চঞ্চল বাচ্চাটি হঠাৎ চুপচাপ হয়ে যায় তবে অবশ্যই আপনার তার সাথে কথা বলা উচিৎ। তার পাশে বসে খুব ভালো করে ঠান্ডা মাথায় তাকে প্রশ্ন করুন, কথা বের করার চেষ্টা করুন। খুঁটিয়ে সব কিছু জানতে চান।

(৪) আপনি আপনার শিশুটিকে সঙ্গে নিয়ে কোনো আত্মীয়ের বাসায় বেড়াতে যেতে চাইলে যদি আপনার শিশুটি যেতে অস্বীকৃতি জানায় তবে তাকে জোর করবেন না। তার মনোভাব বুঝতে চেষ্টা করুন এবং বোঝার চেষ্টা করুন তার অনীহার কারণ কোনটি।

৫) অনেক সময় মজা করে অনেকে ছোট শিশুকে নিজের স্বামী বা স্ত্রী বলে মজা করে থাকেন। আত্মীয় স্বজন কিংবা পাড়া প্রতিবেশীদের সাথে মজার সম্পর্ক থাকলে এই কাজটি বেশি হয়। এই ধরণের ঘটনা দেখলে অবশ্যই তা বন্ধ করুন। কোনো অবস্থাতেই এই কাজটি হতে দেবেন না। খারাপ কিছু না হলেও এই জিনিসটি বাচ্চাদের মনে বিরূপ প্রতিক্রিয়া ফেলে।

(৬) বাচ্চার সঙ্গে ভালো বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি করে নিন। এতে করে আপনার বাচ্চা যেকোনো সমস্যা, ভয় আপনাকে জানাবে। মনে রাখবেন, আপনার সতর্কতা আপনার শিশুটিকে বাঁচাতে পারে কোনো বিকৃত মানুষের হাত থেকে ।

বিচারঃ

খালা-খালুরা, এইটা বাংলাদেশ।কাগজে কলমে প্যাচানো অনেক আইন থাকিলেও সবই ফাও! এখানে বিচার ব্যবস্থা দীর্ঘায়িত। মহা খুনিরা যেখানে ক্ষমা পেয়ে যায় তখন এমন অপরাধ কিছুইনা। ধরে রাখেন কোন বিচার পাইবেননা।

অযথা কেন বাচ্চা সহ আপনার পরিবার হয়রানি আর ঝামেলায় জড়াবে?তার চেয়ে বরং ঘর সামলান।

সর্বশেষঃ

পরিবারের মধ্যে পর্দা প্রথা কঠোর ভাবে বাস্তবায়ন করুন।আত্তীয়দের প্রবেশ নিয়ন্ত্রন করুন।

শিশু হল জান্নাতের ফুল।এটা স্রস্টার পক্ষ থেকে একটা বড় আমানত। এ মূল্যবান আমানত রক্ষা করুন। নয়তো কঠিন জবাব দিতে রেডি থাকুন। আপনার অবহেলায় একটা শিশু ক্ষতিগ্রস্থ হলে নরক নিশ্চিত।

তথ্য সূত্রঃ ১) https://www.facebook.com/groups/shishuderodhikar/?fref=nf

২) http://www.banglanews24live.com/শিশুকে-যৌন-নির্যাতন-থেকে/

৩) http://www.cnabd.info/?p=58

৪) http://www.prothom-alo.com/we-are/article/8113/শিশুদের-ওপর-যৌন-নির্যাতন-বাড়ছে

৫) http://www.tarunyo.com/ismat/blog/post20131111044656/

৬) http://www.somewhereinblog.net/blog/nova002/29640580

৭) http://theglobalnews24.com/details.php?id=10077

৮) http://info.totthoapa.gov.bd/gender-contents/বাংলাদেশে-শিশুদের-উপর-যৌন-নির্যাতন-ও-প্রাসঙ্গিক-আলোচনা
সংগ্রহঃ Child Organizer  · 

১,৩৩২ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
Hi I am Md. Mazed Hossain, I was born in the village of East Sultami,PO: Ulania, PS: Mehandigonj in the district of Barisal on April 18,1984. I am a simple person also punctual, Keen and clear. I always try to be honest and maintain the routine. Friendly environment is very much encourage to keep myself accurate in responsibilities Email. mazed.hossain@gmail.com. Facebook link:https://www.facebook.com/nisuti.basuri
সর্বমোট পোস্ট: ৭৫ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৪৭৪ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৪-১২-১৪ ০২:৫২:৩৪ মিনিটে
banner

৮ টি মন্তব্য

  1. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর ও তথ্যবহুল লেখা।
    ভাল লাগল। শুভেচ্ছা নিন।

  2. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    বেশ
    জানলাম
    ভাল তথ্য
    ঘটনার সূত্রপাত নিজেদের মধ্যে থেকে

  3. এস এম আব্দুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    এ ধরনের স্বচেতনতা বাড়বে । ধন্যবাদ তথ্যবহুল লেখার জন্য ।শুভ কামনা ।

  4. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    nice

    বেশ ভালো ভাবনার প্রয়াাস

    ভাল লাগলো কবি

  5. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    অনেক কিছু জানা গেল। তথ্য সমৃদ্ধ পোস্ট

    পোস্ট স্টিকি করা হউক

  6. মাজেদ হোসেইন মন্তব্যে বলেছেন:

    আমাদের একটু সচেতনাই এ থেকে মুক্তির উপায়।

  7. টি. আই. সরকার (তৌহিদ) মন্তব্যে বলেছেন:

    বিশাল আর্টিকেল !! অনেক তথ্যবহুল ও সচেতনতামূলক পোস্ট ।
    গভীর আলোচনাকেন্দ্রিক এই পোস্টের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ জানবেন ।

  8. Spanish Colonization to 1650: Oxford Bibliographies Online Research Guide (Oxford Bibliographies Online Research Guides)

    This ebook is a selective guide designed to help scholars and students of the ancient world find reliable sources of information by directing them to the

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top